সহকর্মী লাঞ্ছিত হওয়ায় কর্মবিরতিতে টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসকরা

Send
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:৩৪, জুলাই ০৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫৫, জুলাই ০৫, ২০২০


টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কর্তব্যরত এক চিকিৎসককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা চিকিৎসাসেবা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন।

আজ রবিবার (৫ জুলাই) সকাল থেকে চিকিৎসকরা এই প্রতিবাদী কর্মবিরতি শুরু করেছেন। দোষী ব্যক্তিরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত চিকিৎসকেরা তাদের কর্মবিরতি পালন করে যাবেন বলে জানা গেছে। শনিবার করোনার উপসর্গের এক রোগী হাসপাতালে আনার পর মারা যাওয়ায় রোগীর স্বজনদের দ্বারা লাঞ্ছিত হন এক চিকিৎসক। এর প্রতিবাদে এই কর্মসূচি দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জসিম উদ্দিন বলেন, আমরা করোনা ইউনিট ও জরুরি বিভাগ চালু রেখেছি। নিরাপদ কর্মস্থলের দাবিতে শুধু বহির্বিভাগে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন না চিকিৎসকরা। এমন ঘটনায় অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার করতে হবে। তাদের গ্রেফতারের সঙ্গে সঙ্গে আমরা বহির্বিভাগেও চিকিৎসাসেবা চালু করে দেবো। আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও চিকিৎসকসহ সব স্বাস্থ্যকর্মীর নিরাপদ কর্মস্থল নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছি।

দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে হাসপাতালের সামনে চিকিৎসকদের ব্যানার

টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. ইয়ার আলি মুন্সী বলেছেন, দোষীরা গ্রেফতার হলে আমরা সঙ্গে সঙ্গে কাজে যোগ দেবো।

টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এএফএম নাসিম বলেন, চিকিৎসককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জসিমউদ্দিন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে গতকাল (শনিবার) থেকেই অভিযান অব্যাহত রেখেছি। হাসপাতালের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সেখানে পুলিশ মোতায়েন রাখা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গতকাল শনিবার সকাল ৮টার দিকে কাজী আলমগীর নামের একজন রোগী করোনা উপসর্গ নিয়ে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য গেলে সেখানে সাড়ে ৮ টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তাকে চিকিৎসা দিতে দেরি হয়েছে এমন অভিযোগ তুলে কর্তব্যরত চিকিৎসক অপূর্ব বিশ্বাসকে রোগীর স্বজনরা শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে।

গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, ডাক্তারকে লাঞ্ছিত করার ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। সকল চিকিৎসকের মতামত সত্ত্বেও করোনাকালীন সময়ে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত করে আমরা কোনও কর্মসূচি না দিয়ে দোষীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

এ ঘটনার জের ধরে ডাক্তারদের পক্ষ থেকে গতকালই (শনিবার) টুঙ্গিপাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদেরকে গ্রেফতার করা না হলে চিকিৎসকেরা ধর্মঘটে যাবেন বলে আল্টিমেটাম দেন।

এদিকে, এ ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে জেলা শহরের এসএম মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আজ রবিবার দুপুরে স্থানীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচি পালন করেছে।

 

/টিএন/

লাইভ

টপ