বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবি বিএনপি প্রার্থীর

Send
বগুড়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২০:৩২, জুলাই ০৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৪৭, জুলাই ০৭, ২০২০




উপনির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে স্মারকলিপি দেন বিএনপি প্রার্থীকরোনা প্রাদুর্ভাব ও বন্যার কারণে বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসনের উপনির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি প্রার্থী একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির। মঙ্গলবার (৭ জুলাই) বিকালে তিনি জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মাহবুব আলম শাহের মাধ্যমে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে এ বিষয়ে স্মারকলিপি দেন। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত ওই স্বারকলিপির অনুলিপি নির্বাচন কমিশনের সচিবকে দেওয়া হয়েছে।

রিটার্নিং অফিসার এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। বিকালে শহরের খান্দার এলাকায় নির্বাচন কার্যালয়ে স্মারকলিপি প্রদান শেষে বিএনপি প্রার্থী জেলা বিএনপি নেতা একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির বলেন, করোনা ও বন্যার মধ্যে মানুষকে বিপদে ফেলতে সরকার নির্বাচনের তামাশা করছে। গত ২৯ মার্চ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছিল। দেশ ও বিদেশে করোনা মহামারি দেখা দিলে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন স্থগিত করে।

তখন করোনা কম থাকলেও এখন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে এবং বন্যায় ৬-৭ ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি। তারা ঘরের চালায় ও ভেলায় বসবাস করছেন। অনেক কেন্দ্রে পানি ও রাস্তাঘাট নষ্ট থাকায় সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন আয়োজন সম্ভব না। করোনা ও বন্যায় মানুষের আহাজারির মধ্যে ভোট চাওয়াকে ভোটাররা প্রহসন মনে করছেন।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ ভোটের চেয়ে মানুষের জীবন আগে। এ অবস্থায় কেউ আক্রান্ত বা মারা গেলে তার দায়িত্ব কে নেবে? পরিবেশ পরিস্থিতি ভালো হলে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করুন। তখন আমরা নির্বাচনে অংশ নেবো। এ অবস্থায় নির্বাচন করলে আমরা তা বর্জন করবো।

স্মারকলিপি দেওয়ার সময় বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল, সারিয়াকান্দি উপজেলা বিএনপির আহবায়ক আবুল কাশেম হিরু, সোনাতলা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক একেএম আহসানুল হাবিব রাজা, বিএনপি নেতা একেএম আহসানুল কিবরিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মাহবুব আলম শাহ্ জানান, বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী একেএম আহসানুল তৈয়ব নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে স্মারকলিপি দিয়েছেন। এর অনুলিপি শুধু নির্বাচন কমিশনের সচিবকে দেওয়া হয়েছে।

 

/টিটি/

লাইভ

টপ