সরকারি বরিশাল কলেজের নাম অপরিবর্তিত রাখার দাবি

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:৩৩, জুলাই ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৪৯, জুলাই ১১, ২০২০

সরকারি বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন

সরকারি বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তন করে অশ্বিনী কুমার দত্তের নামে করার প্রস্তাবে ফুঁসে উঠেছে বরিশালের ছাত্র সমাজ। ওই প্রস্তাবের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের ছাত্র সমাজ। মানববন্ধনে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।

শনিবার বেলা সোয়া ১১টায় নগরীর সদর রোডে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম তালুকদার অনিক। বক্তব্য রাখেন সরকারি বরিশাল কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি একেএম জাহাঙ্গীর হোসাইন, সাবেক এজিএস হাফিজ আহমেদ বাবলু, প্রাক্তন ছাত্র ও  সিনিয়র সাংবাদিক আলম রায়হান, কাউন্সিলর শেখ সাঈদ আহমেদ মান্নাসহ অনেকে। 

বক্তারা বলেন, সরকারি বরিশাল কলেজ প্রতিষ্ঠাকালে অশ্বিনী কুমার দত্তের কোনও অবদান নেই। সাবেক রাষ্ট্রপতি আব্দুর রহমান বিশ্বাস, সাবেক মন্ত্রী শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান গোলাম মাওলাসহ বিভিন্ন গুণীজন ও ব্যক্তিদের অর্থে এবং কলেজের নিজস্ব অর্থায়নে এ কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। এ কলেজে অশ্বিনী কুমার দত্তের কোনও অবদান নেই। কাজেই সরকারি বরিশাল কলেজের নাম কোনোভাবেই পরিবর্তন করা যাবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন বক্তারা।

প্রসঙ্গত এ বছরের শুরুর দিকে সরকারি বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তন করে অশ্বিনী কুমার দত্তের নামে করার একটি প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠান বরিশালের জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান। এ প্রস্তাবে নাখোশ হওয়ায় সম্মিলিতভাবে এ আন্দোলন শুরু হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বলেন, অশ্বিনী কুমার দত্ত্বের ভক্ত ব্যাপক জনগোষ্ঠী রয়েছে বরিশালে। প্রতি বছর অশ্বিনী কুমার দত্তের জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকীতে স্থানীয় সুশীল সমাজ-সাহিত্য ও সংস্কৃতিপ্রেমীরা দাবি তুলে আসছেন অশ্বিনী কুমার দত্তের বাড়িতে প্রতিষ্ঠিত কলেজের (সরকারি বরিশাল কলেজ) নামকরণ তার নামে করা হোক। তাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসন থেকে অশ্বিনী কুমার দত্তের নামে বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। এখন মন্ত্রণালয় যদি মনে করে কলেজের নাম অশ্বিনী কুমার দত্তের নামে হবে সেটা তারা করবে, অথবা আগের নামেও বহাল রাখতে পারে। এটা মন্ত্রণালয়ের ব্যাপার। 

/টিএন/

লাইভ

টপ