মসজিদে বিদ্যুৎ সংযোগকারী ২ দিনের রিমান্ডে

Send
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১১:২০, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:২০, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০



নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণনারায়ণগঞ্জের তল্লা বায়তুস সালাত জামে মসজিদে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ওই মসজিদে বিদ্যুৎ সংযোগকারী মোবারক হোসেনের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) নারায়ণগঞ্জের সি‌নিয়র জু‌ডি‌শিয়াল ম্যা‌জি‌স্ট্রেট কাউছার আলমের আদালত তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে কোর্ট এলাকা থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। পুলিশ জানায়, মসজিদে একটি অবৈধ বৈদ্যুতিক লাইন ছিল। যেটি থেকে গত ৪ সেপ্টেম্বর এশার নামাজের সময় স্পার্ক করে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সেই অবৈধ বৈদ্যুতিক লাইনে সংযোগের কারণেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে, তল্লা বাইতুস সালাত মসজিদে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তিতাসের ৮ কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করে সিআইডি। পরে তাদের পাঁচ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করলে, আদালত দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, বাইতুস সালাত জামে মসজিদে দুটি বৈদ্যুতিক সংযোগ রয়েছে। যার একটি সংযোগ অবৈধ মর্মে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। মসজিদের অভ্যন্তরে মধ্যবর্তী উন্মুক্ত স্থানে মসজিদের একটি বড় ডিপি বক্স, যার ভিতরে সার্কিট ব্রেকার, ৪টি কাটআউট, একটি লাইন চেঞ্জ বক্স লাগনো হয়েছে; যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এবং নিয়ম বহির্ভূত। উক্ত অবৈধ বৈদ্যুতিক সংযোগ নেওয়া হতে শুরু করে সার্কিট ব্রেকার, কাটআউটে তার লাগানোসহ যাবতীয় মসজিদের ওয়ারিং আসামি মোবারক হোসেন করেছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে নারায়ণগঞ্জের তল্লা বায়তুস সালাত জামে মসজিদে এশার নামাজের সময় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ফরজ নামাজের মোনাজাত শেষে অনেকে সুন্নাত ও অন্য নামাজ পড়ছিলেন। এ সময় মসজিদের ভেতরে প্রায় ৪০ জন মুসল্লি ছিলেন। বিস্ফোরণে তাদের প্রায় সবাই দগ্ধ হন। এদের ৩৭ জনকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে আনা হয়। শুরু থেকেই সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।

এ পর্যন্ত মারা গেলেন ৩৩ জন, এক জন হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি চলে গেছেন, বাকি তিন জন ইনস্টিটিউটের আইসিইউ-য়ে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের কেউ শঙ্কামুক্ত না বলে জানান ইনস্টিটিউটের সহকারী পরিচালক ডা. হোসাইন ইমাম।

/আইএ/

লাইভ

টপ
X