বগুড়ায় যুবদল নেতার নেতৃত্বেই সম্রাটকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

Send
বগুড়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:১৪, অক্টোবর ২৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১৪, অক্টোবর ২৬, ২০২০






নিহত সুব্রত ওরফে সম্রাট ঘোষ বগুড়ায় সাবগ্রাম হাট কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক অতুল চন্দ্র দাসের নেতৃত্বেই দুর্বৃত্তরা সুব্রত ওরফে সম্রাট ঘোষকে (২৭) কুপিয়ে হত্যা করেছে। প্রাথমিক তদন্তে অতুলের নাম আসার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির। তিনি জানান, এক বছর আগের বিরোধের জের ধরেই সম্রাটকে হত্যা করা হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েক বছর আগে সম্রাট ও অতুল একে অপরের বন্ধু ছিলেন। ২০১১ সাল পর্যন্ত সাবগ্রাম ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের রাজনীতি করতেন সম্রাট। অতুল সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক। এদের বিরুদ্ধে এলাকায় চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ আছে। সম্রাটের ভাই জুয়েল ওরফে হাড়ি জুয়েলও পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারসহ নানা কারণে সম্রাট ও তার ভাই হাড়ি জুয়েলের সঙ্গে অতুলের বিরোধ সৃষ্টি হয়। কিছু দিন আগে অতুলের নেতৃত্বে সাবগ্রাম এলাকাবাসী সম্রাটের বিরুদ্ধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। অতুলের সঙ্গে বিরোধের কারণেই সম্রাট এলাকা ছেড়ে শহরে বসবাস করতেন। রবিবার (২৫ অক্টোবর) রাতে এলাকার মন্দিরে দুর্গা প্রতিমা দর্শন ও সাবগ্রাম মালিপাড়ায় বাবা-মার সঙ্গে দেখা করতে আসেন সম্রাট। রাত ১টার দিকে প্রতিমা দর্শন শেষে সম্রাট মোটরসাইকেলে বাড়ির দিকে ফিরছিলেন। এ সময় এক দল সন্ত্রাসী মন্দির চত্বরে তার পথরোধ ও হামলা করে। সঙ্গীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও মোটরসাইকেল থেকে নেমে সেখানকার একটি টিনশেড ঘরে আশ্রয় নেন সম্রাট। সন্ত্রাসীরা তাকে ঘর থেকে তাকে বের করে কোপাতে থাকে। মৃত্যু নিশ্চিত হবার পর তারা এলাকা ত্যাগ করে। এ সময় মন্দিরে আসা দর্শনার্থীরা ভয়ে ছোটাছুটি করতে থাকেন।








সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির জানান, এক বছর আগের বিরোধের জের ধরেই সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক অতুল চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা সম্রাটকে কুপিয়ে সম্রাটকে হত্যা করেছে। এরপরও মামলা না হওয়া পর্যন্ত তারা এ ব্যাপারে মন্তব্য করবেন না। ঘটনাস্থলে নিহত সম্রাট ও তার লোকজনের দুটি মোটরসাইকেল পাওয়া গেছে।

ওসি আরও জানান, সম্রাটের বিরুদ্ধে সদর থানায় পরিবহন নেতা মনিরুজ্জামান মানিক হত্যা, অস্ত্র আইন ও ডাকাতির চারটি মামলা রয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় এ খবর পাঠানোর সময় মামলার প্রস্তুতি চলছিল। পুলিশ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে। 

/আরআইজে/

লাইভ

টপ