X
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪
২০ ফাল্গুন ১৪৩০

চার মাস বেতন না পেয়ে রাস্তায় মাদ্রাসার কৃষি শিক্ষকরা

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৫ মে ২০২২, ১৪:১০আপডেট : ২৫ মে ২০২২, ১৪:২৩

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তির সুপারিশে ফেব্রুয়ারি মাসে নিয়োগ পান মাদ্রাসার কৃষি বিষয়ের সহকারী শিক্ষকরা। এমপিও নীতিমালা জটিলতার কারণে চার মাসেও বেতন পাননি তারা। শিক্ষকরা এই বৈষম্য নিরসনে পরিপত্র জারি করে এমপিওভুক্তির দাবি জানিয়েছেন।

বুধবার (২৫ মে) সকালে রাজধানীর মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদফতরের সামনে এমপিওভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন শিক্ষকরা। তারা বলেন, কারিকুলাম এক, অথচ নীতিমালা এক নয় কেন? মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বিভাগের অবহেলায় এই বৈষম্য জিইয়ে রাখা হয়েছে। সে কারণে চার মাস বেতন না পাওয়া শিক্ষকরা এমপিওভুক্তির দাবিতে রাস্তায় নেমেছেন।

শিক্ষকরা জানান, বেসরকারি মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো এবং এমপিও নীতিমালা থেকে প্রাণিবিদ্যা ও উদ্ভিদবিদ্যা বিষয় বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে কৃষি বিষয়ের শিক্ষক নিয়োগের বিধান রাখা হয়েছে। অন্যদিকে মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো এবং এমপিও নীতিমালায় এমপিওভুক্ত হতে হলে বিএড বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কিন্তু সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিএড বাধ্যতামূলক নয়।

সর্বশেষ তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে প্রাণিবিদ্যা ও উদ্ভিদবিদ্যা বিষয়ের শিক্ষার্থীদের কৃষি বিষয়ের শিক্ষক হিসেবে মাদ্রাসা, কারিগরি ও সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ সুপারিশ করে এনটিআরসিএ। সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পাওয়ার এক মাসের মধ্যে এমপিওভুক্ত করা হয়। কিন্তু এমপিও নীতিমালা জটিলতায় বাদ পড়েন মাদ্রাসা শিক্ষকরা।

অন্যদিকে বিএডবিহীন সাধারণ শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে এমপিওভুক্ত করা হয়। কিন্তু এমপিও নীতিমালার কারণে বিএডবিহীন মাদ্রাসা শিক্ষকরাও এমপিও বঞ্চিত হন। নিয়োগের পর এমওিভুক্তির জন্য আবেদন জানালে ফাইল বাতিল করে দেওয়া হয়।

শিক্ষকদের আন্দোলন চলাকালে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদফতর থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, মন্ত্রণালয়ে বিষয়গুলো জানানো হয়েছে। শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় সুপারিশ করে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করলে তারা এমপিওভুক্ত হবেন। কিন্তু মন্ত্রণালয় কোনও ব্যবস্থা নেয়নি।

জানতে চাইলে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক কে এম রুহুল আমীন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সমস্যা উল্লেখ করে সমাধানের জন্য মন্ত্রণালয়ে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে গত মার্চ মাসেই। মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নিলেই সমস্যার সমাধান হবে। এর আগে অধিদফতরের কিছু করার নেই।’

অধিদফতরের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) মো. সাইফুল ইসলাম আন্দোলনকারীদের বলেন, ‘আপনা বঞ্চিত থাকবেন না। ফেব্রুয়ারিতে নিয়োগের পর চার মাস পার হয়েছে। এটি এখন সমাধানের পর্যায়ে রয়েছে।’

সমাবেশকালে শিক্ষকরা বলেন, সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে মাদ্রাসায় শিক্ষক হিসেবে যোগদান করে বিপদে পড়েছি। বেতন না পাওয়ায় শিক্ষকরা কেউ চার কিলোমিটার আবার কেউ কেউ সাত থেকে আট কিলোমিটার হেঁটে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যান। বেতন থাকলে এভাবে মানবেতর জীবন যাপন করতে হতো না। বিশেষ করে নারী শিক্ষকদের অবস্থা খুবই শোচনীয়।

শিক্ষকরা বলেন, এমপিও আমাদের অধিকার, মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করে দ্রুত সমস্যা সমাধান না করলে রাস্তায় নেমে বৃহত্তর আন্দোলন শুরু করা হবে। মানবেতর জীবন থেকে পরিত্রাণের জন্যই আমরা আন্দোলনে নেমিছি। 

সমাবেশে শিক্ষক আকলিমা খাতুন, আব্দুর রাজ্জাক, নাজমুল হক, রুমানা আক্তারসহ অন্যান্য কৃষি শিক্ষকরা বক্তব্য রাখেন।

 

 

/এসএমএ/আরকে/আইএ/
সম্পর্কিত
বাইরে থেকে এনে উত্তরপত্র সরবরাহ, মাদ্রাসা অধ্যক্ষের ২ বছরের কারাদণ্ড
বিশ্বজয়ী হাফেজ বশিরকে সংবর্ধনা দিলো ছাত্রলীগ
এতিম শিশুদের লেখাপড়ার দায়িত্ব নিতে চায় আলিয়া ধারার মাদ্রাসা
সর্বশেষ খবর
চিনিকলের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুরোপুরি নিভতে সময় লাগবে: ফায়ার সার্ভিস
চিনিকলের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুরোপুরি নিভতে সময় লাগবে: ফায়ার সার্ভিস
ভাই-বোনের স্বপ্ন পূরণের রাতে তিন রানের অতৃপ্তি
ভাই-বোনের স্বপ্ন পূরণের রাতে তিন রানের অতৃপ্তি
নতুন জ্ঞান অনুসন্ধানে গবেষকদের প্রতি আহ্বান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের
নতুন জ্ঞান অনুসন্ধানে গবেষকদের প্রতি আহ্বান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের
ফের ‘লাকি পার্টনার’র সঙ্গে ফারিণ!
ফের ‘লাকি পার্টনার’র সঙ্গে ফারিণ!
সর্বাধিক পঠিত
৩ কারণে কাক কমছে ঢাকায়, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা
৩ কারণে কাক কমছে ঢাকায়, পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
সাত মসজিদ রোডের সব বুফে রেস্তোরাঁ বন্ধ
গাউসিয়া টুইন পিকের সব রেস্টুরেন্ট সিলগালা
গাউসিয়া টুইন পিকের সব রেস্টুরেন্ট সিলগালা
ভাইভা চলাকালে মেডিক্যাল শিক্ষার্থীর পায়ে গুলি করলেন শিক্ষক
ভাইভা চলাকালে মেডিক্যাল শিক্ষার্থীর পায়ে গুলি করলেন শিক্ষক
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের
শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি খেলাফত মজলিসের