X
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২
২০ আষাঢ় ১৪২৯
ঈদ বিশেষ

‘আমার জীবনে শুধু কোরবান আর কোরবান...’

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৫:৪৭

কোরবানি শুধুই কি একদিনের পশু কোরবানি? তা হয়তো নয়। জীবনের অনেক মুহূর্তেই আমাদের অনেক কিছু কোরবান বা স্যাক্রিফাইস করতে হয়। যেগুলোর অনেকটাই জানেন না অন্যজন। তারকাদের জীবনেও এমন অনেক ঘটনা ধীরে ধীরে এক সফল সেলিব্রেটি অথবা সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলে। এই কোরবানির ঈদে এমন সব গল্প শুনিয়েছেন তারা। যেমন কণ্ঠশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যানসি মন খুলে বলেছেন নিজের জীবনের নানা কোরবানের কথা—

আমার জীবনে শুধু কোরবান আর কোরবান...। তবে এবারের ঈদটা জীবনের বড় কোরবান হলো। কারণ, এবার আমি আমার ছোট মেয়েটার মুখ দেখতে পারিনি। ঈদের দিন সকালে ওকে সাজাতে পারিনি। এরচেয়ে একজন নারীর বা একজন মায়ের জীবনে বড় কোরবান আর কি হতে পারে?

এখন এই দুঃখের কথা যখন মানুষ পড়বে, তখন এক দল এসে কমেন্ট করবে, ‌‌‘হুম নিজেই নিজের স্বামী-সংসার ফেলে গেছো, এখন আবার বাচ্চা নিয়ে কানতেছো!’

তো জনে জনে তো আর এই কষ্টের গল্পটা বলা সম্ভব না। এটা যে ভোগ করে সে-ই একমাত্র বোঝে।

এমন কোরবান আমার জীবনে আরও আছে। অনেক। কোনটা রেখে কোনটা বলবো। গানের জন্যই তো এই সুন্দর জীবনটাকে কোরবান দিয়ে দিলাম। অথচ এই নেম-ফেম, এগুলার তো দরকার ছিল না। এই যেমন ধরেন, আমার বাবার সম্পত্তি নিয়ে সম্প্রতি একটা ঝামেলা হলো। বাবার মৃত্যুর পর সন্তান হিসেবে সেই জমির হিসাব নিতে গেলাম চাচাদের কাছ থেকে। তখন অপ্রাসঙ্গিকভাবে কথা উঠলো, ন্যানসির বাবা তিনটা বিয়ে করেছে। এবং এই তথ্যটি খুব গুরুত্ব দিলো সবাই। অথচ এমন অনেকের বাবা তিন বিয়ে করেছে। এখন আমি যদি শিল্পী ন্যানসি না হতাম, তাহলে কি এসব নোংরামি হতো? কেউ খবরও নিতো এসবের? নিউজ হলো, সারা বাংলাদেশের মানুষ জানলো, গালাগালি করলো আমাকে। গান গাওয়ার কারণেই আজ এসব হচ্ছে। এটা তো কোরবান।

রোদেলা ও নায়লার সঙ্গে ন্যানসি

জায়েদ সাহেবকে (নায়লার বাবা) জীবন থেকে হারালাম। এটা কি কোরবান না? হতে পারতো না আমাদের স্বাভাবিক একটা সুন্দর জীবন। হলো না। অথচ আমি তাকে সুতীব্র ভালোবাসতাম। আমি চাইলেই তার নামে বাজে কথা বলতে পারি। আমার সন্তানকে ছিনিয়ে আনতে পারি। কিন্তু করছি না, করতে পারছি না, বিপরীতে নিজেই নিজেকে পুড়ছি। ভালোবাসি বলে। এটা কি কোরবান নয়?

প্রতিনিয়ত আমি সোশ্যাল মিডিয়া-খবরে অ্যাবিউজ হচ্ছি। কিন্তু কিছু বলতে পারছি না। এটাও তো কোরবান।

আমি থাকতাম ময়মনসিংহের দরবারিতে। এটা আমার বাড়ির নাম। তিল তিল করে জমানো টাকায় এই বাড়ি করেছি। অনেক অনেক স্বপ্ন ছিল। ভেবেছি বাকি জীবনটা এখানেই কাটাবো বাচ্চা-সংসার নিয়ে হেসে-খেলে। কারণ, আমার তো চাওয়া কখনোই খুব বেশি ছিল না। থাকলে তো আমার তরতাজা ক্যারিয়ার ফেলে ঢাকা ছাড়তাম না। সকালে রওনা দিয়ে ঢাকায় রেকর্ডিং করে রাতে বাসায় ফিরতাম না। ঢাকায় বিলাসবহুল জীবন বেছে নিতে পারতাম। কিন্তু সংসার-সন্তানের লোভে আমি সব ফেলে ময়মনসিংহ গেছি। কী পেলাম? উল্টো একটা বাচ্চা মারা গেলো। আরেকটা বাচ্চা বাবা রেখে দিলো। আমি একরকম শূন্য হাতে আবার ঢাকায় ফিরেছি। সঙ্গে বড় মেয়ে রোদেলা। মা-মেয়ে এখন ঢাকায় পুরাতন একটা বিল্ডিংয়ে ৭০০ স্কয়ারফিটের একটা ভাড়া বাসায় থাকি। কারণ, ঢাকায় বড় বাসা মেনটেইন করা এখন আমার মতো সিঙ্গেল মাদারের পক্ষে সম্ভব না। এটা কেউ বিশ্বাস করবে? আমার নিজের বাড়ির বারান্দাও এরচেয়ে বড়। এগুলো কি কোরবান নয়?

আরও কোরবানির গল্প শুনবেন? আর না বলি। আমার জীবনে কোরবানের কোনও শেষ নেই। এসব বেদনার গল্প বলে পাঠকের ঈদের আনন্দ আর নষ্ট করতে চাই না।        

শ্রুতিলিখন: মাহমুদ মানজুর

/এমএম/এম/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
নেত্রকোনায় বন্যার্তদের মাঝে জাকের পার্টির ত্রাণ বিতরণ 
নেত্রকোনায় বন্যার্তদের মাঝে জাকের পার্টির ত্রাণ বিতরণ 
ইউক্রেনকে সহায়তা দেওয়া নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করলো জার্মানি
ইউক্রেনকে সহায়তা দেওয়া নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করলো জার্মানি
চট্টগ্রামে করোনায় আরও একজনের মৃত্যু
চট্টগ্রামে করোনায় আরও একজনের মৃত্যু
‘শিক্ষকদের জীবন বাঁচানোই এখন দায়’
‘শিক্ষকদের জীবন বাঁচানোই এখন দায়’
এ বিভাগের সর্বশেষ
তৃতীয় কন্যার মা হলেন ন্যানসি
তৃতীয় কন্যার মা হলেন ন্যানসি
সংসার নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্যের একদিন পর হানিমুনে ন্যানসি!
সংসার নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্যের একদিন পর হানিমুনে ন্যানসি!
বিস্ফোরক ন্যানসি: বিয়েটা না করলে প্রাণে না হলেও জানে বেঁচে থাকতাম
বিস্ফোরক ন্যানসি: বিয়েটা না করলে প্রাণে না হলেও জানে বেঁচে থাকতাম
ন্যানসি-সিয়াম যখন বিচারক ও পারফর্মার!
ন্যানসি-সিয়াম যখন বিচারক ও পারফর্মার!
এবার মহসীন মেহেদীর কথায় হাবিব ওয়াহিদ
এবার মহসীন মেহেদীর কথায় হাবিব ওয়াহিদ