X
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২
১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

‘জয় বাংলা জয় বাংলাদেশ’ গেয়ে হৃদয় জিতলেন রাহমান

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৯ মার্চ ২০২২, ২১:১৫আপডেট : ৩০ মার্চ ২০২২, ০০:৪১

৪৫ মিনিটের বৃষ্টিতে খানিকটা ছন্দপতন। ফের সুরের জাদুতে মোহাবিষ্ট হওয়ার প্রস্তুতি নিতে শুরু করে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম। এরপর চলে শেষ মুহূর্তের সাউন্ডচেক। এ সময় আবার মঞ্চে ‍মেয়েকে নিয়ে উঠে আসেন ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ। ‘পাঙ্খা’ ও ‘লোকাল বাস’ গেয়ে উদ্বেলিত করেন দর্শকদের। অতঃপর প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে মঞ্চে উঠে আসেন মোৎজার্ট অব মাদ্রাজ অস্কারজয়ী এ আর রাহমান।

মঞ্চে এসে শুরুতেই ‘জয় হো’ দিয়ে শুরু করেন তিনি। এরপরই দর্শক মেতে ওঠে ‘মুককালা মোকাবেলা’র সেই চিরচেনা মেলোডি আর রিদমের ইন্দ্রজালে। পুরো গ্যালারি গলায় মেলায়, ‘ওলেও.. ওলে ও ও’। এরপর বেনি দয়ালের কণ্ঠে শোনা যায় ‘রাঙদে বাসন্তি’। এরপরই নব্বইর দশকের কিশোরদের নস্টালজিক করে হরিহরন গাইতে শুরু করেন ‘সপনে’ ছবির ‘চান্দারে চান্দারে’।

এরপর শুরু হয় ’৯৮-থেকে আজ অবধি কানে ঝড় তোলা ‘দিল সে রে..’ । রাহমানের কণ্ঠে দর্শকরাও গলা মেলান, ‘প্রিয়া প্রিয়া জিয়া জিয়া’। বম্বে সিনেমার জন্য রাহমানের সিগনেচার গান ‘তুহি রে’ গেয়ে হরিহরণ আবার ঝড় তুললেন কনসার্টের যাবতীয় প্রেমিক হৃদয়ে। এরপর হারমোনিয়াম নিয়ে বসে পড়েন রাহমান ও অন্য বাদ্যযন্ত্রীরা। পরিবেশন করেন কাওয়ালি ‘মাস্ত কালান্দার’ ও রকস্টার ছবির ‘কুন ফায়া কুন’।

এরপর বিখ্যাত ড্রামার শিবাজি মঞ্চে উঠতেই পুরো স্টেডিয়াম কেঁপে ওঠে দর্শকদের হর্ষধ্বণিতে। পানির জার থেকে শুরু করে বিচিত্র সব অণুষঙ্গ ব্যবহারে সিদ্ধহস্ত শিবাজি। দর্শক-শ্রোতারাও তাতে সাড়া দিয়েছেন বেশ।

শিবাজির বাদ্যযন্ত্রের তালিকায় বাদ পড়েনি পানির জারও


‘জয় বাংলা জয় বাংলাদেশ’ গেয়ে হৃদয় জিতলেন রাহমান

জোনিতা গান্ধি ‘কেহনা হি কেয়া’ বলে টান দিতেই মঞ্চের আবহ বদলে যায় সঙ্গে সঙ্গে। কঠিন এ গানে নৃত্যশিল্পীরাও দাবি রেখেছেন প্রশংসার। এরপরই তুমুল জনপ্রিয় ‘আগার তুম সাথ হো’ গাইতেই গ্যালারিজুড়ে নেমে আসে মুগ্ধতার নীরবতা।

এরপর বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন এ আর রাহমান। বাংলাদেশের প্রতি ভালোবাসার কথা জানিয়ে বলেন ‘জয় বাংলা’।

হাজারো দর্শককে অশ্রুসজল করে দিলেন ‘জয় বাংলা জয় বাংলা জয় বাংলাদেশ’ গেয়ে। রাহমানের সুর করা গানটি লিখেছেন গীতিকবি জুলফিকার রাসেল। এ সময় প্রেসিডেন্ট বক্স থেকে মুগ্ধশ্রোতা হয়ে শোনেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তাকে গানটি ভিডিও করতেও দেখা যায়। 

এ গানটির পর পরই ‘আমার সোনার বাংলা... বলো জয় বঙ্গবন্ধু, বলো জয় বাংলা... এক দোস্ত মুজিব হে দিল মে...’ গান এ আর রহমান। 

‘লুকাচুপি বহত হুয়ি’ গানটিতে প্রয়াত লতা মঙ্গেশকরের রেকর্ডেড অংশের সঙ্গে লাইভে কণ্ঠ মেলান এ আর রাহমান। কনসার্টে এমন অনন্য পরিবেশনা আর কেউ কখনও দেখেছে কিনা সে প্রশ্ন তোলাই যায়। 

এর আগে, অস্কারজয়ী এ আর রাহমান সোমবার (২৮ মার্চ) সন্ধ্যায় মিরপুরে স্টেডিয়ামে গিয়ে 'ক্রিকেট সেলিব্রেট মুজিব ১০০' অনুষ্ঠানের জন্য ঝালিয়ে নিয়েছিলেন নিজেকে। কনসার্টে অংশ নিতে রবিবারেই শতাধিক সফরসঙ্গী নিয়ে তিনি আসেন ঢাকায়।

অনুষ্ঠানের প্রথম স্লটে পারফর্ম করেছেন মমতাজ ও মাইলস। অনুষ্ঠানটি লাইভ দেখাচ্ছিল দেশের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেল। এরপর মঞ্চে আসেন রাহমান। অনুষ্ঠানটি শেষ হয় রাত সাড়ে ১২টার দিকে। এসময় সবাইকে বিদায় জানান এ আর রাহমান।

‘জয় বাংলা জয় বাংলাদেশ’ গেয়ে হৃদয় জিতলেন রাহমান

 

/আরআই/এফএ/
সম্পর্কিত
নির্বাচকদের সমালোচনা করে নিষিদ্ধ মেহেদী রানা
নির্বাচকদের সমালোচনা করে নিষিদ্ধ মেহেদী রানা
‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার বেঁচে থাকার সাহস জুগিয়েছে’
‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার বেঁচে থাকার সাহস জুগিয়েছে’
ডমিঙ্গোর দর্শন আমাদের ক্রিকেটে মানাচ্ছে না: সুজন
ডমিঙ্গোর দর্শন আমাদের ক্রিকেটে মানাচ্ছে না: সুজন
পাপন নিশ্চিত করলেন, কোন দায়িত্বে আসছেন শ্রীরাম
পাপন নিশ্চিত করলেন, কোন দায়িত্বে আসছেন শ্রীরাম
বিনোদন বিভাগের সর্বশেষ
ব্রাজেন্টিনা নিয়ে রাজ-পরীর ব্যয়বহুল প্রমিজ!
ব্রাজেন্টিনা নিয়ে রাজ-পরীর ব্যয়বহুল প্রমিজ!
তারুণ্যের উচ্ছ্বাসে ব্যান্ড তারকাদের উল্লাস
তারুণ্যের উচ্ছ্বাসে ব্যান্ড তারকাদের উল্লাস
শুরু হচ্ছে আঞ্চলিক ভাষার দুই সিনেমা দিয়ে
চট্টগ্রামে স্টার সিনেপ্লেক্সশুরু হচ্ছে আঞ্চলিক ভাষার দুই সিনেমা দিয়ে
বছরে ১০-১২টা হিন্দি ছবি আসলে আমার আপত্তি নেই: তথ্যমন্ত্রী
চট্টগ্রামে স্টার সিনেপ্লেক্সবছরে ১০-১২টা হিন্দি ছবি আসলে আমার আপত্তি নেই: তথ্যমন্ত্রী
পরী বললেন ‘আরাম’, রাজের দাবি ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া’!
চট্টগ্রামে স্টার সিনেপ্লেক্সপরী বললেন ‘আরাম’, রাজের দাবি ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া’!