X
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২
১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বাগদাদে সহিংসতায় নিহত ১৫, কারফিউ জারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৩০ আগস্ট ২০২২, ০৯:৪২আপডেট : ৩০ আগস্ট ২০২২, ০৯:৪২

ইরাকের প্রভাবশালী শিয়া নেতা মুক্তাদা আল সদরের রাজনীতি ছাড়ার ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দেশটিতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। সোমবার রাজধানী বাগদাদে রাজনৈতিক সহিংসতায় ১৫ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে আরও ৩৫০ জন বিক্ষোভকারী। নিহতদের সবাই সদরের সমর্থক বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মুক্তাদা আল সদরের সমর্থকরা বাগদাদের সুরক্ষিত কূটনৈতিক এলাকা হিসেবে পরিচিত গ্রীন জোনে ঢুকে পড়ার প্রেক্ষাপটে এই সংঘর্ষ হয়। সেখানে গোলাবর্ষণের ঘটনাও ঘটে। সহিংসতা ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়লে সেনাবাহিনীর তরফে সোমবার সন্ধ্যা থেকে দেশজুড়ে কারফিউ জারি করা হয়। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত মন্ত্রিসভার অধিবেশন স্থগিতের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আল কাদিমি।

প্রায় ১০ মাস আগে পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও এখনও পর্যন্ত দেশটিতে নতুন সরকার গঠন করা সম্ভব হয়নি। অভিযোগ রয়েছে, মুক্তাদা আল সদরের দলের তরফে উত্থাপিত কিছু দাবির কারণে নতুন সরকার গঠন প্রক্রিয়া বিলম্বিত হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতেই সোমবার এক বিবৃতিতে স্থায়ীভাবে রাজনীতি থেকে অবসর নেওয়ার ঘোষণা দেন সদর। ওই ঘোষণার পর তার সমর্থকরা রাস্তায় নেমে আসলে সংঘর্ষের সূত্রপাত ঘটে।

বাগদাদ থেকে আল জাজিরার মাহমুদ আবদেল ওয়াহেদ জানান, সোমবারের সংঘর্ষের সময় বাগদাদের গ্রিন জোন কার্যত একটি যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হয়। পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার বদলে উল্টো বিভিন্ন জায়গা থেকে বন্দুকের আওয়াজ আসতে থাকে।

গ্রিন জোনে গোলাবর্ষণের পেছনে কারা ছিল তাৎক্ষণিকভাবে সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে নিরাপত্তা সূত্র বলছে, সদর সমর্থকরা  বাইরে থেকে এমন  ঘটনা ঘটিয়েছে। কিন্তু এর প্রতিক্রিয়ায় ভেতরে থাকা নিরাপত্তা বাহিনী কোনো ‘জবাব দেয়নি।’ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সদরবিরোধী হিসেবে পরিচিত ইরানসমর্থিত শিয়াপন্থি দলগুলোর সঙ্গে সদর সমর্থকদের গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে।

/এমপি/
বিশ্বকাপ শেষ জেসুস-তেলেসের
বিশ্বকাপ শেষ জেসুস-তেলেসের
পর্যটক ভ্রম‌ণে আবারও বান্দরবানের ৩ উপ‌জেলায় নি‌ষেধাজ্ঞা
পর্যটক ভ্রম‌ণে আবারও বান্দরবানের ৩ উপ‌জেলায় নি‌ষেধাজ্ঞা
‘ইভিএম হচ্ছে ইসির পছন্দের প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণার যন্ত্র’
‘ইভিএম হচ্ছে ইসির পছন্দের প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণার যন্ত্র’
ইউক্রেনের ১৭ দূতাবাসে রহস্যজনক প্যাকেট, রয়েছে পশুর চোখও
ইউক্রেনের ১৭ দূতাবাসে রহস্যজনক প্যাকেট, রয়েছে পশুর চোখও
সর্বাধিক পঠিত
আঙুলের অপারেশনে শিশুর মৃত্যু, গোসলের সময় দেখা গেলো পুরো পেটে সেলাই
আঙুলের অপারেশনে শিশুর মৃত্যু, গোসলের সময় দেখা গেলো পুরো পেটে সেলাই
মরে গেলেও মানুষ বিচার পায় না, আমি তো বেঁচে আছি: ফারিণ
চলন্ত সিঁড়িতে দুর্ঘটনার ভয়াবহ বর্ণনামরে গেলেও মানুষ বিচার পায় না, আমি তো বেঁচে আছি: ফারিণ
শাহবাগে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি
শাহবাগে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি
রিমান্ডে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে আবিরের মা-বাবা
আয়াত হত্যারিমান্ডে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে আবিরের মা-বাবা
আকাশছুঁই পারিশ্রমিক হাঁকছেন রাজ, দিলেন ব্যাখ্যা
আকাশছুঁই পারিশ্রমিক হাঁকছেন রাজ, দিলেন ব্যাখ্যা