বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ায় হংকং ছাড়ছে বিদেশি শিক্ষার্থীরা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:৪৯, নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫৪, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

বিক্ষোভের সহিংসতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছড়িয়ে পড়ার পর বহু বিদেশি শিক্ষার্থী হংকং ছাড়তে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার মূল ভূখন্ড চীনেরসহ বহু বিদেশি শিক্ষার্থী সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ছেড়ে গেছে। ফিরে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে ডেনমার্কের ৩৬ শিক্ষার্থীকে। এছাড়াও বহু শিক্ষার্থীকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এক সময়ের ব্রিটিশ উপনিবেশ হংকং এখন চীনের অংশ। ‘এক দেশ, দুই নীতি’র অধীনে কিছু মাত্রায় স্বায়ত্তশাসন ভোগ করছে হংকং। অঞ্চলটির নিজস্ব বিচার ও আইন ব্যবস্থা রয়েছে, যা মূল চীনের চেয়ে ভিন্ন। গত ৯ জুন থেকে সেখানে কথিত অপরাধী প্রত্যর্পণ বিল বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু হয়। আন্দোলনকারীদের আশঙ্কা, ওই বিল অনুমোদন করা হলে ভিন্নমতাবলম্বীদের চীনের কাছে প্রত্যর্পণের সুযোগ সৃষ্টি হবে। লাখো মানুষের উত্তাল গণবিক্ষোভের মুখে একপর্যায়ে ওই বিলকে ‘মৃত’ বলে ঘোষণা দেন হংকংয়ের চীনপন্থী শাসক ক্যারি ল্যাম। তবে এতে আশ্বস্ত হতে না পেরে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে সেখানকার নাগরিকরা। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে হংকংয়ের স্বাধীনতার দাবি।

সর্বশেষ গত ৮ নভেম্বর বিক্ষোভ চলাকালে পুলিশের গুলিতে আহত এক শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে অঞ্চলটির গণতন্ত্রপন্থীদের চীনবিরোধী বিক্ষোভ আরও তীব্র হয়ে ওঠে। এরমধ্যেই সোমবারের বিক্ষোভে গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। বুধবার অঞ্চলটির বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সহিংসতার ঘটনা ঘটে। এর জেরেই হংকং ছাড়তে শুরু করে বিদেশি শিক্ষার্থীরা।

হংকং ব্যাপ্টিস্ট ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়লে সেখানে থাকা ডেনমার্কের ৩৬ শিক্ষার্থীকে ফিরে আসতে বলা হয়েছে। বুধবার নরওয়ের এক শিক্ষার্থী দেশটির একটি সম্প্রচারমাধ্যমকে বলেছেন, সত্যিই বুঝতে পারছি না কী ঘটছে। আমি অবশ্যই ফেরত যাবো। দেশে ফেরার বিষয়ে অন্যদের সঙ্গেও আলাপ করেছেন বলে জানান তিনি। 

/জেজে/

লাইভ

টপ