ট্রাম্প পরিবারের তাজমহল দর্শনে ‘দুশ্চিন্তার’ নাম বাঁদর

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১১:৫৩, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:৫৫, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন থেকে ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ থেকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্য তাজমহল দর্শনের ভিভিআইপি বিদেশি অতিথিদের তালিকাটি সুদীর্ঘ। এবার এই তালিকায় যুক্ত হতে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সোমবার আমদাবাদ থেকে বিকালে আগ্রায় পৌঁছে আড়াই ঘণ্টারও কম সময় তাজমহলে অবস্থান করবেন ট্রাম্প। ওয়াশিংটন থেকেই তাজমহলে সূর্যাস্ত দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করে রেখেছেন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। সেই ‘সূর্যাস্তের’ খাতিরেই মলিন হয়ে আসা শহরটিতে যুদ্ধকালীন ভিত্তিতে গত এক সপ্তাহ ধরে চলল রূপচর্চা!

যমুনার দুর্গন্ধ দূর করতে বাড়ানো হয়েছে জলের স্রোত। ব্রিটিশ আমলের একটি জং ধরা ওভারব্রিজকে রুপোলি রঙের মেটালিক স্প্রে করা হয়েছে। তাজে ‘মাড প্যাক’ লাগিয়ে তার জেল্লা ফেরানোর চেষ্টা চলছে। তাজের কাছে রাস্তার দু’ধারে এলইডি আলো, ফুলের টব— কমতি নেই কোনও কিছুরই।

কিন্তু তবুও একটি বিষয়ে দুশ্চিন্তা যাচ্ছে না। সেটি হলো, তাজমহলে বসবাস করা প্রায় হাজার খানেক বাঁদরের উপদ্রব। ভারতের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসা নিরাপত্তা কর্তাদেরও দুশ্চিন্তা— হঠাৎ যদি বাঁদর-বাহিনী আক্রমণ করে বসে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে!

হাত গুটিয়ে বসে না থেকে এই আশঙ্কাকে নির্মূল করতে আপাতত উঠে পড়ে লেগেছে ভারত সরকার। দূর থেকে গুলতি ছুঁড়ে বাঁদরদের তাড়ানোর চেষ্টা চলেছে গত এক সপ্তাহ ধরে। কিন্তু তাতে কতটা কাজ হয়েছে, সে ব্যাপারে নিশ্চিত নন কর্তৃপক্ষ।

আপাতত স্থির হয়েছে, বাঁদর তাড়াতে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পাঁচটি হনুমানকে সঙ্গে রাখা হবে। তবে শুধু হনুমানে ভরসা না করে সশস্ত্র অফিসারবাহিনীকেও সঙ্গে রাখা হবে। যারা বাঁদর তাড়ানোর সরঞ্জাম নিয়ে হাজির থাকবেন তাজ চত্বরে। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

    

/এএ/

লাইভ

টপ