অস্ত্রবিরতি শেষে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর হামলা, নিহত ১৪

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৫২, মে ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৫১, মে ২৯, ২০২০

আফগানিস্তানে নতুন এক হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত ১৪ সদস্য নিহত হয়েছে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে তালেবানদের ঘোষিত তিন দিনের অস্ত্রবিরতি মঙ্গলবার রাতে শেষ হওয়ার পর পারওয়ান প্রদেশের একটি চেকপোস্টে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার জন্য তালেবানদের দায়ী করেছেন প্রাদেশিক গভর্নরের মুখপাত্র ওয়াহিদা শেখর। তার দাবি হামলায় তালেবানরাও হতাহত হয়েছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ঈদ উপলক্ষে আফগান সরকারের সঙ্গে তিন দিনের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করেছে তালেবান। রবিবার ঈদের দিন থেকে এই অস্ত্রবিরতি কার্যকরের ঘোষণা দেওয়া হয়। তালেবানদের ওই ঘোষণাকে স্বাগত জানান আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। একই সঙ্গে সশস্ত্র গোষ্ঠীটির কারাবন্দি সদস্যদের মুক্তি প্রক্রিয়ায় গতি আনারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। 

মঙ্গলবার রাতে ওই অস্ত্রবিরতির মেয়াদ শেষের পর বুধবার পারওয়ান প্রদেশে হামলার ঘটনা ঘটে। জেলা পুলিশ প্রধান হুসেইন শাহ জানান, তালেবান যোদ্ধারা চেকপয়েন্টে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে নিরাপত্তা বাহিনীর পাঁচ সদস্য নিহত হয়। এছাড়া আরও দুইজনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। তবে এই হামলার বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেনি তালেবান।

গত ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে সেনা প্রত্যাহারের চুক্তি স্বাক্ষরের পর আফগানিস্তানে সহিংসতা কমে আসবে বলে আশা করেছিলেন বহু পর্যবেক্ষক। তবে বন্দি বিনিময়ের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নে আফগান সরকারের অনীহায় শান্তি আলোচনা থমকে গেছে। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে দেশটিতে সরকারি বাহিনীর ওপর হামলার ঘটনাও বেড়েছে। তবে ঈদ উপলক্ষে শনিবার (২৩ মে) তিন দিনের যুদ্ধবিরতি ঘোষণার পর তাকে স্বাগত জানায় পাঁচটি প্রভাবশালী দেশ। তালেবানদের ঘোষণার পর আফগান সরকারের ইতিবাচক প্রতিক্রিয়ায় অনেকেই যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশটিতে শান্তি প্রতিষ্ঠার আশা করেছিলেন।

/জেজে/বিএ/

লাইভ

টপ