X
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩
১৩ মাঘ ১৪২৯

বায়োলজিক ওষুধের ব্যবহার বাড়াতে সচেতনতা প্রয়োজন

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯:০৬আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯:০৬

ডায়াবেটিস, বাত ও সোরিয়াসিসের মতো রোগের চিকিৎসায় কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারে বায়োলজিক ওষুধ। তবে এ জন্য সবার (চিকিৎসক, রোগী ও সংশ্লিষ্টরা) মাঝে সচেতনতা বাড়ানো প্রয়োজন বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বায়োলজিক মেডিসিন সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষ্যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, সরকারি নিয়ন্ত্রক সংস্থা, নীতিনির্ধারক ও বিভিন্ন অংশীজনের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘প্রথম বায়োলজিক সামিট-২০২২’।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে নোভারটিসের উদ্যোগে এই সামিট অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বায়োলজিক মেডিসিনের বিভিন্ন ইতিবাচক দিকের ব্যবহারবিধি ও ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন।

অনুষ্ঠানে এক্সপার্ট প্যানেল হিসেবে ছিলেন কনসালট্যান্ট ফিজিশিয়ান জেনারেল, বাংলাদেশ আর্মড ফোর্স এবং ডিরেক্টর জেনারেল অব মেডিকেল সার্ভিসেস ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট মেজর জেনারেল অধ্যাপক ড. মো. আজিজুল ইসলাম, ঔষধ প্রশাসনের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. ইউসুফ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাজমুল হক এবং দেশের বরেণ্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন নোভারটিস বাংলাদেশের কান্ট্রি প্রেসিডেন্ট ডা. রিয়াদ মামুন প্রধানী। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও বায়োটেকনোলজি ডিপার্টমেন্টের অধ্যাপক ও সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক শরীফ আখতারুজ্জামান এবং নোভারটিস ফার্মাসিউটিক্যাল সুইজারল্যান্ডের সিনিয়র গ্লোবাল মেডিকেল অ্যাফেয়ার্স ডিরেক্টর ড. প্যাট্রিসিয়া পারটেল।

অনুষ্ঠানে নোভারটিস বাংলাদেশের কান্ট্রি প্রেসিডেন্ট ডা. রিয়াদ মামুন প্রধানী বলেন, ‘বায়োলজিক মেডিসিনগুলো নির্দিষ্ট রোগের সমাধানের লক্ষ্যেই তৈরি করা হয়ে থাকে। বায়োলজিক মেডিসিনই আগামী দিনে বহুল ব্যবহৃত হবে। এর চিকিৎসা প্রক্রিয়া এবং উপকারিতা নিয়ে চিকিৎসকরা এবং রোগীদের আরও সচেতনতা প্রয়োজন।’

তিনি আরও বলেন, ‘বায়োলজিক দীর্ঘমেয়াদি ফলপ্রসূ চিকিৎসা। তবে আর্থিক খাতের প্রতিষ্ঠান ও সরকারের বিভিন্ন অংশীজনরা এগিয়ে এলে আমাদের দেশে আরও বিস্তৃত পরিসরে এই চিকিৎসাপদ্ধতি প্রয়োগ করা সম্ভব বলে আমি মনে করি।’

/এসও/এনএআর/
সর্বশেষ খবর
মুফতি শহীদুল ইসলাম মারা গেছেন
মুফতি শহীদুল ইসলাম মারা গেছেন
ফ্রিজে আদা রাখা নিয়ে ঝগড়ায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো চাচার
ফ্রিজে আদা রাখা নিয়ে ঝগড়ায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো চাচার
উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে ডিসিদের ক্ষমতা চাওয়া অযৌক্তিক: আইইবি
উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে ডিসিদের ক্ষমতা চাওয়া অযৌক্তিক: আইইবি
আবারও বর্ণবাদের শিকার ভিনিসিয়ুস
আবারও বর্ণবাদের শিকার ভিনিসিয়ুস
সর্বাধিক পঠিত
‘মানুষের সৃষ্টি বানর থেকে’ এ কথা পাঠ্যবইয়ে নেই
‘মানুষের সৃষ্টি বানর থেকে’ এ কথা পাঠ্যবইয়ে নেই
নিজ ঘরে ২ নারী নিহত, সিঁধ কাটলেও নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে মাকড়সার জাল
নিজ ঘরে ২ নারী নিহত, সিঁধ কাটলেও নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে মাকড়সার জাল
‘৮০ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ মানসিক নির্যাতনের শিকার’
‘৮০ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ মানসিক নির্যাতনের শিকার’
হল উদ্বোধনের আগেই পছন্দমতো রুম দখলের হিড়িক
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়হল উদ্বোধনের আগেই পছন্দমতো রুম দখলের হিড়িক
তাপমাত্রা কমবে না, কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস
তাপমাত্রা কমবে না, কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস