X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

পাঁচ বছরের মধ্যে জুডিশিয়ারিতে পেন্ডিং মামলা থাকবে না: প্রধান বিচারপতি

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:৩১

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স এমন জায়গায় যাবে যে জুডিশিয়ারিতে কোনও পেন্ডিং মামলা থাকবে না বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে ডিজিটাল আর্কাইভিং এবং ই-ফাইলিং ব্যবস্থাপনার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, যখনই আমাদের ডিজিটাল কোর্টের প্রবর্তন হলো, আমার এখনও খেয়াল আছে ২০২০ সালের ৫ এপ্রিল (করোনার সময়) প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলাম, জজদের ১০ লাখ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ফান্ডে দেওয়ার জন্য। প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে টাকাটা দিয়ে বললাম, কোর্ট তো ফাংশন (বিচার পরিচালনা) করছে না। সারা পৃথিবীতে কোর্ট চলছে, বাংলাদেশে শুধু চলছে না। তখন প্রধানমন্ত্রী আমাকে বললেন ভার্চুয়াল কোর্ট করেন।

'ভার্চুয়াল কোর্টের আইন করা যে কত কঠিন, সেই আইন আমরা স্বল্পতম সময়ের মধ্যে করেছি। এজন্য আমি আইনমন্ত্রী, বিচারপতি ইমান আলী ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীকে ধন্যবাদ দেবো। আমরা সকলে বসে ভালো করে দেখেছি, পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষা করে তারপরে আমরা আইনটা করেছি। তারপর দেখা গেল মন্ত্রীসভা বৈঠক আর হচ্ছে না। তখন প্রধানমন্ত্রীকে আবার অনুরোধ করার পরে তিনি তিনজন মন্ত্রীকে দিয়ে গণভবনে মন্ত্রীসভার মিটিং করে আমাদের আইনের জন্য যে অর্ডিন্যান্স সেটা অনুমোদন করেছেন। সুতরাং এত স্বল্পতম সময়ে এবং পরে রাষ্ট্রপতি বলেছেন, যেই দিন আমার কাছে আসবে (আইনের খসড়া) সেদিন সঙ্গে সঙ্গে সই করে দেবো। সুতরাং স্বল্পতম সময়ে এ আইনটা করার জন্য রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী,  আইনমন্ত্রীর কাছে আমি চিরদিন কৃতজ্ঞ থাকবো।'

'বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণরূপে বন্ধ (করোনাকালে) ছিল। তখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, জেলখানা আমার পক্ষে কন্ট্রোল করা সম্ভব হচ্ছে না। কিছু একটা করুন। আইনজীবীরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা কোর্টে যাবেন না। তারপরে ভার্চুয়াল কোর্ট হওয়ার পরে এক লাখ লোকের জামিন হয়েছে ভার্চুয়াল কোর্ট থেকে।'

'আইসিটি প্রতিমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা আমাদের সাপোর্ট করেছেন, আমার চলে যাওয়ার (অবসরের) সময় হয়েছে, আমি তাদের কাছে চিরকৃতজ্ঞ। প্রধান বিচারপতি হিসেবে কোর্ট বন্ধ থাকার (করোনাকালে) চেয়ে দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা আমার জীবনে কখনও ঘটেনি। সুতরাং আমি যে কোর্ট চালু রাখতে পেরেছি এজন্য রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা, আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ।'

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, আমার উত্তরসূরি (পরবর্তী প্রধান বিচারপতি) যিনি আসবেন, তিনি এ কাজ (প্রযুক্তির ব্যবহার) এগিয়ে নিয়ে যাবেন। এটাকে অনেক সামনে নিয়ে যেতে হবে। আমাদের মুক্তি হলো ভার্চুয়াল কোর্টে। কারণ আমাদের বিচারক সংখ্যা দুই-তিন গুণ করা প্রয়োজন হবে। এখনও চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিল্ডিং হয়নি সব জায়গায়।

'২০০৭ সালে জুডিশিয়ারি পৃথক হয়েছে। এখনও সব জায়গায় ভবন হয়নি। আমরা বিচারক দুই-তিন গুণ করবো—তাদেরকে কোথায় বসাবো? একমাত্র ভার্চুয়াল কোর্ট যদি প্রবর্তন করা যায় তাহলে বিচারকের বাসায় থেকে এটা সম্ভব। এজন্য, আইনজীবীদের ভালোভাবে প্রশিক্ষণ নিতে হবে। তাহলে অচিরেই আমরা মামলার জট থেকে মুক্তি পেতে পারবো। তাছাড়া মামলার জট থেকে মুক্তি পাওয়া কঠিন ব্যাপার। যেমন- এফিডেভিট সেকশনে আসতে হয়। চেষ্টা করা হবে আইনজীবীর চেম্বারে আইনজীবীর এনআইডির সঙ্গে সংযুক্ত করে যদি করা যায় তাহলে এফিডেভিট সেকশনে আসতে হবে না। এর ফলে ২৪ ঘণ্টা ফাইল (মামলা) করা যাবে। ভারতে ২৪ ঘণ্টা ফাইল করা যাচ্ছে।'

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, আগামী দুই-তিন বছরের মধ্যে আমার যে উত্তরসূরি আসবে—তিনি যদি এটা করেন বিচার বিভাগে একটা বিপ্লব ঘটে যাবে। শুধু তাই নয়, এখন আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স যে জায়গায় যাচ্ছে, শুধু মুখে কথা বলবেন লেখা হয়ে যাবে, কষ্ট অনেক কমে যাবে। আগামী ৫ বছরের মধ্যে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এমন জায়গায় যাবে যে জুডিশিয়ারিতে কোনও পেন্ডিং মামলা থাকবে না। কিন্তু এ প্রযুক্তির সৎ ব্যবহার করতে হবে এবং প্রযুক্তির ব্যবহারের আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর।

/বিআই/এমএস/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
টিভিতে আজ
টিভিতে আজ
কলেজছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা
কলেজছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা
মারিউপোলে আরও ইউক্রেনীয় সেনা আত্মসমর্পণ করছে: রাশিয়া
মারিউপোলে আরও ইউক্রেনীয় সেনা আত্মসমর্পণ করছে: রাশিয়া
যে কারণে ডলার সংকট, উত্তরণে নেওয়া হয়েছে যেসব উদ্যোগ
যে কারণে ডলার সংকট, উত্তরণে নেওয়া হয়েছে যেসব উদ্যোগ
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত