X
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২
১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

ভর্তি পরীক্ষার জালিয়াতিতে নাম এলো রাবি ছাত্রলীগ নেতার 

রাবি প্রতিনিধি
২৭ জুলাই ২০২২, ২০:২৮আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২২, ২০:২৮

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালেয়ে কলা, সামাজিক বিজ্ঞান ও আইন অনুষদভুক্ত ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রক্সি দিতে আসা চার জনকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এদের মধ্যে রাবির ফোকলোর বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের বায়োজিদ খান নামে এক শিক্ষার্থীও রয়েছেন। আটকের পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় করা একটি ভিডিও মঙ্গলবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। 

ভিডিওতে দেখা যায়, কার নির্দেশে বায়োজিদ প্রক্সি দিয়েছেন তা জানতে চাওয়া হয়। সে সময় তিনি মুশফিক তাহমিদ তন্ময়ের নাম জানান। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তিনি আরও বলেন, প্রক্সি দিতে সকালে ক্যাম্পাসে এসেছেন। প্রক্সি দেওয়ার আগে তিনি তার ব্যক্তিগত ফোন তন্ময়ের কাছে জমা রেখেছিলেন। তন্ময় শাহমখ্দুম হলের দ্বিতীয় তলায় থাকেন। 

জানা যায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটি প্রক্টর দফতরের জিজ্ঞাসাবাদের সময় করা। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আসাবুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, প্রক্সি জালিয়াতিতে ধরা পড়া বায়োজিদ একেক সময় একেক নাম বলেছেন। একাধিক নাম এসেছে। সেখানে মুশফিক তাহমিদের নামও বলেছেন। এটা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তদন্ত করে দেখবে। তারা এতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহযোগিতা করবেন।
 
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শাহমখ্দুম হলের দ্বিতীয় তলায় থাকে ছাত্রলীগ নেতা মুশফিক তাহমিদ তন্ময়। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। প্রক্সির দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত বায়োজিদ ও তন্ময়  দুই জনই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী। এর আগেও তন্ময়ের বিরুদ্ধে ভর্তি বাণিজ্য, সিট বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ উঠে। এই নিয়ে বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমে সংবাদও প্রকাশিত হয়েছে। 

এ বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগ নেতা মুশফিক তাহমিদ তন্ময়কে একাধিকবার ফোন করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, বিষয়টি আমরা শুনেছি। এ নিয়ে আমি আমার সভাপতির সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেবো। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকেও অবহিত করা হয়েছে। 

/টিটি/
ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার নয়: ন্যাটো
ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার নয়: ন্যাটো
ঝিনাইদহে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১
ঝিনাইদহে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১
ঢাবিতে কোণঠাসা বিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলো!
ঢাবিতে কোণঠাসা বিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলো!
চাকরি দেওয়ার কথা বলে নারীকে সৌদি আরবে ‘বিক্রি’, চলতো ভয়াবহ নির্যাতন
চাকরি দেওয়ার কথা বলে নারীকে সৌদি আরবে ‘বিক্রি’, চলতো ভয়াবহ নির্যাতন
সর্বাধিক পঠিত
আ.লীগ নেত্রীর বাসায় নৈশভোজে মার্কিন রাষ্ট্রদূত
আ.লীগ নেত্রীর বাসায় নৈশভোজে মার্কিন রাষ্ট্রদূত
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত বিএনপির
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত বিএনপির
বিএনপিকে ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের অনুমতি: ডিএমপি
বিএনপিকে ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের অনুমতি: ডিএমপি
বাংলাদেশের অংশগ্রহণ নিয়ে ধোঁয়াশা
চায়না-ইন্ডিয়ান ওশান ফোরাম অনুষ্ঠানবাংলাদেশের অংশগ্রহণ নিয়ে ধোঁয়াশা
ফিফার মান বাঁচালেন ‘বিটিএস’ জাংকুক!
ফিফার মান বাঁচালেন ‘বিটিএস’ জাংকুক!