X
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২
১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

‘পোশাকের স্বাধীনতার’ বিরুদ্ধে ৪ বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৮ আগস্ট ২০২২, ২২:৪৫আপডেট : ২৮ আগস্ট ২০২২, ২২:৪৮

‘পোশাকের স্বাধীনতার’ বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছেন চার বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী। নরসিংদী রেলস্টেশনে পোশাকের কারণে তরুণীকে হেনস্তা প্রসঙ্গে ‘উচ্চ আদালত মন্তব্য করেছেন’ এমন দাবি করে আদালতকে অভিবাদন জানিয়েছেন তারা। সেইসঙ্গে পোশাকের নামে ‘মূল্যবোধবিরোধী’ ও ‘পশ্চিমা অপসংস্কৃতি’ আমদানিকারকদের আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

তবে তরুণীকে হেনস্তা প্রসঙ্গে পোশাক নিয়ে কিছুই লেখা হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন উচ্চ আদালত। ১৭ আগস্ট বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

রবিবার (২৮ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ‘সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে মানববন্ধন করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ জন শিক্ষার্থী। এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘দেশীয় মূল্যবোধবিরোধী অপসংস্কৃতি বর্জন করুন, পোশাকের স্বাধীনতার নামে পাবলিক নুইসেন্স বন্ধ হোক, ভিনদেশি অপসংস্কৃতি প্রেমীরা, ভিনদেশে চলে যাও, যার নেই কমনসেন্স, পোশাক দিয়ে সে তৈরি করে নুইসেন্স, দেশি সংস্কৃতি ধ্বংস করে পশ্চিমা সংস্কৃতি আমদানিকারকরা কালচারাল টেরোরিস্ট’ ইত্যাদি লেখা সংবলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন।

মানববন্ধন করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘পোশাকের স্বাধীনতার নামে বর্তমানে আমাদের সমাজে যা হচ্ছে, তা খুবই উদ্বেগজনক। এমন পরিস্থিতিতে উচ্চ আদালতের গঠনমূলক পর্যবেক্ষণ আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি সংরক্ষণে শক্তিশালী ভূমিকা রাখবে। পোশাকের স্বাধীনতার নামে এমন পোশাক পরা কখনও ঠিক নয়, যা পাবলিক নুইসেন্স বা গণউৎপাত তৈরি করে। পাবলিক নুইসেন্স এক ধরনের ক্রাইম।’ এ সময় তারা পোশাকের নামে পশ্চিমা অপসংস্কৃতি আমদানিকারকদের আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান।

একই দিন দুপুর ২টার দিকে আদালতকে অভিবাদন জানিয়ে মানববন্ধন করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী। ‘মূল্যবোধবিরোধী’ পোশাকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থী’ ব্যানারে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে ১০ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। তারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে ১৫ মিনিটের বেশি সময় সেখানে অবস্থান করেন। এ সময় পোশাকের নামে পশ্চিমা অপসংস্কৃতি আমদানিকারকদের আইনের আওতায় এনে বিচার দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের শিক্ষার্থী মুহম্মদ মশিউর রহমান বলেন, ‘গত ১২ আগস্ট একটি মামলার পর্যবেক্ষণে উচ্চ আদালত পোশাকের স্বাধীনতার নামে যারা পশ্চিমা অপসংস্কৃতি আমদানি করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছেন। উচ্চ আদালতের এ পর্যবেক্ষণ ও বক্তব্যকে আমরা অভিবাদন জানাচ্ছি। অশালীন পোশাকের কথা উঠতেই অনেকে বলেন, আমার শরীর আমার পছন্দ। কিন্তু এই বক্তব্যের চেয়ে বড় সত্য একজনকে বিরক্ত করার অধিকার আরেকজনের নেই। পাবলিক প্লেসে কোনও পোশাক নুইসেন্স বা বিরক্তি তৈরি করছে কিনা, তা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে।’

‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ’ ব্যানারে মানববন্ধন

বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার ইমন বলেন, ‘পাবলিক প্লেসে কাউকে সিডিউস করা মানসিক নির্যাতনের শামিল। একজনকে মানসিক নির্যাতনের অধিকার অবশ্যই অন্যজনকে দেওয়া হয়নি। কাউকে যৌনতায় উদ্বুদ্ধ করতে অবশ্যই তার সম্মতি নেওয়া বাধ্যতামূলক। কারও সম্মতি ব্যতীত তাকে যৌন প্ররোচিত করা এক ধরনের মানসিক নির্যাতন।’

রবিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ’ ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে উচ্চ আদালতকে অভিবাদন ও স্যালুট জানান তারা। একইসঙ্গে পোশাকের নামে পশ্চিমা অপসংস্কৃতি আমদানিকারকদের আইনের আওতায় এনে বিচার দাবি জানান শিক্ষার্থীরা ।

মানববন্ধনে হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থা বিভাগের শিক্ষার্থী মুহম্মদ মাহদী হাসান বলেন, ‘একটি মামলার পর্যবেক্ষণে উচ্চ আদালত পোশাকের স্বাধীনতার নাম দিয়ে যারা পশ্চিমা সংস্কৃতি আমদানি করছে, তাদের বিরুদ্ধে বলেছেন। আমরা উচ্চ আদালতের এ পর্যবেক্ষণ ও বক্তব্যকে স্যালুট জানাই। পাবলিক প্লেস আর প্রাইভেট প্লেসের পোশাক কখনও এক নয়। পাবলিক প্লেসে কেউ অশালীন পোশাক পরলে তা অনেকের জন্য বিরক্তির কারণ হতে পারে।’

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় দেশীয় ‘মূল্যবোধবিরোধী’ পোশাকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে’ মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মুহিউদ্দিন বাহাত বলেন, ‘বাকস্বাধীনতার অর্থ যেমন অন্যকে গালি দেওয়া নয়, ঠিক তেমনি পোশাকের স্বাধীনতার অর্থ অন্যকে বিরক্ত করা নয়। পোশাকের স্বাধীনতার নামে এমন পোশাক পরা কখনও ঠিক নয়, যা পাবলিক নুইসেন্স বা গণউৎপাত তৈরি করে। পাবলিক নুইসেন্স এক ধরনের ক্রাইম।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে’ মানববন্ধন

প্রসঙ্গত, স্লিভলেস টপ পরায় ঢাকার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে গত ১৮ মে নরসিংদী রেলস্টেশনে গালিগালাজ ও মারধর করা হয়। এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর সমালোচনা শুরু হয়। পরে নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ভৈরব রেলওয়ে থানায় মামলা করে। ওই শিক্ষার্থীকে হেনস্তা ও মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত মার্জিয়া আক্তার ওরফে শিলাকে ৩০ মে গ্রেফতার করা হয়। গত ১৬ আগস্ট বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ মার্জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দেন।

পরে মার্জিয়ার আইনজীবী মো. কামাল হোসেনের বরাতে কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, শুনানির সময় আদালত দেশের কৃষ্টি, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির সঙ্গে ওই শিক্ষার্থীর পোশাক সংগতিপূর্ণ কিনা, সেই প্রশ্ন তুলেছেন। এরপর শুরু হয় সমালোচনা।

/এএম/
মেসির রেকর্ড নিজের করে নিলেন ফের্নান্দেজ
মেসির রেকর্ড নিজের করে নিলেন ফের্নান্দেজ
মেসি-ফের্নান্দেজের গোলে আর্জেন্টিনার জয়
মেসি-ফের্নান্দেজের গোলে আর্জেন্টিনার জয়
লুসাইলে ম্যারাডোনাকে স্পর্শ করলেন মেসি
লুসাইলে ম্যারাডোনাকে স্পর্শ করলেন মেসি
প্রস্থানের দুই বছর: শিল্পকলায় অবিনশ্বর আলী যাকের
মৃত্যুদিনে স্মরণপ্রস্থানের দুই বছর: শিল্পকলায় অবিনশ্বর আলী যাকের
সর্বাধিক পঠিত
ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব কমবে ৪০ কিমি
ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব কমবে ৪০ কিমি
পোল্যান্ডের জয়ে আরও চাপে মেসিরা
পোল্যান্ডের জয়ে আরও চাপে মেসিরা
ইউক্রেন ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করলো ন্যাটো
ইউক্রেন ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করলো ন্যাটো
ম্যাজিস্ট্রেটের মামলায় কারাগারে স্বামী
ম্যাজিস্ট্রেটের মামলায় কারাগারে স্বামী
আবারও নাসিমের অনুসারীদের পেটালো বিএনপির সমর্থকরা
আবারও নাসিমের অনুসারীদের পেটালো বিএনপির সমর্থকরা