X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

চার কারণে মডেল মসজিদ স্থাপন প্রকল্পে সংশোধন

আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:৪৫

চার কারণে সরকার সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পে সংশোধনী এনেছে। সংশোধনীসহ প্রকল্পটি নতুন করে অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, একনেকে উপস্থাপিত সংশোধনী প্রস্তাবনায় প্রকল্পটি সংশোধনের যে কারণ তুলে ধরা হয়েছে সেগুলো  হলো, নির্মাণ সামগ্রীর দাম বেড়েছে। এতে প্রকল্প ব্যয়ের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রেট শিডিউল পরিবর্তন করা হয়েছে। এতে প্রকল্প বাস্তবায়নে নির্মাণ খাতে ব্যয় বেড়েছে। জমি অধিগ্রহণ খাতে ব্যয় কমে গেছে। প্রকল্পে কর্মরত জনবলের বেতন-ভাতাদিসহ রাজস্ব খাতের কতিপয় অঙ্গের ব্যয় কিছু ক্ষেত্রে কমেছে, আবার কিছু ক্ষেত্রে বেড়েছে। প্রকল্পের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে বাস্তবায়ন মেয়াদ আরও তিন বছর বাড়ানো হয়েছে।

জানা গেছে, সরকার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প গ্রহণ করে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে মডেল মসজিদ এবং ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের মাধ্যমে নামাজ, ধর্মীয় শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ভৌত অবকাঠামোগত সুবিধাদি সৃষ্টি এবং ইসলামিক জ্ঞান ও সংস্কৃতি সম্প্রসারণের মাধ্যমে ইসলামি মূল্যবোধের পরিচর্যা ও প্রসারের উদ্দেশে সরকার প্রকল্পটি গ্রহণ করে বলে জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্র।

সূত্র জানায়, ঢাকা উত্তর, ঢাকা দক্ষিণ, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও খুলনা এই ৫টি সিটি করপোরেশনসহ দেশের ৬৪টি জেলা সদর ও ৪৯১টি উপজেলা সদরসহ মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করা হবে। ২০১৭ সালের এপ্রিলে শুরু হওয়া প্রকল্পটি শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর। প্রকল্পের কাজে সেভাবে অগ্রগতি না হওয়ায় সংশোধনী এনে মেয়াদ দুই বছর বাড়িয়ে ২০২১ সালের ৩০ জুন নির্ধারণ করা হয়। এই মেয়াদেও প্রকল্পের অগ্রগতি সেভাবে না হওয়ায় মেয়াদ আবারও বাড়িয়ে ২০২৪ সাল পর্যন্ত নির্ধারণ করে দ্বিতীয় সংশোধনী এনে একনেকে উপস্থাপন করা হয়।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, প্রস্তাবনায় প্রকল্প ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ৯ হাজার ৬২ কোটি ৪১ লাখ টাকা। প্রকল্পটির প্রথম সংশোধনীতে এর ব্যয় ধরা হয়েছিল ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা। দ্বিতীয় প্রস্তাবনায় প্রকল্পের ব্যয় বাড়িয়ে করা হয় ৯ হাজার ৪৩৫ কোটি টাকা। সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে এই অর্থ জোগান দেওয়া হবে।

পরিকল্পনা কমিশন জানিয়েছে, প্রকল্পটি ২০২১-২২ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) ১ হাজার ১৭২ কোটি ৭৯ লাখ টাকা বরাদ্দসহ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।  প্রকল্পের আওতায় ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। এর জন্য ভূমি অধিগ্রহণ করা হবে। অফিস সরঞ্জাম, আসবাবপত্র, কম্পিউটার ও বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হবে। পরামর্শক সেবা ও যানবাহন ক্রয় করা হবে বলে জানিয়েছে প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

প্রকল্পটি সম্পর্কে পরিকল্পনা কমিশন তাদের মতামতে জানিয়েছে, ৮ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আওতায় আনুমানিক ৪০ লাখ মানুষের নামাজের সুবিধা সৃষ্টির জন্য ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে, যার সঙ্গে প্রকল্পটি সঙ্গতিপূর্ণ। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে মুসল্লিদের নামাজ আদায়, সামাজিক সচেতনতা, ধর্মীয় শিক্ষা, প্রশিক্ষণ এবং দাওয়াতি কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে মুসলমানদের মধ্যে ধর্মীয় বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের সুযোগ সৃষ্টি হবে, ইসলামিক মূল্যবোধ ও নৈতিকতা উন্নয়ন তথা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে প্রকল্পটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। তাই ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক সম্পূর্ণ জিওবি অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন ‘প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন (২য় সংশোধিত)’ শীর্ষক প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হলো।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানিয়েছেন, প্রকল্পটি ইসলামিক মূল্যবোধ ও নৈতিকতা উন্নয়ন তথা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। এতে দেশের কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলিম উপকৃত হবেন।

/এমআর/এমওএফ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
বাংলাদেশি উদ্ভাবন চালু হলো ইয়েমেনে
বাংলাদেশি উদ্ভাবন চালু হলো ইয়েমেনে
নজরুলজয়ন্তীতে ‘উন্নত মম শির’
নজরুলজয়ন্তীতে ‘উন্নত মম শির’
‘রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে শস্য সরবরাহে ভয়ঙ্কর ঘাটতি দেখা দেবে’
‘রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে শস্য সরবরাহে ভয়ঙ্কর ঘাটতি দেখা দেবে’
র‌্যাব অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলা ট্রিবিউনের সাংবাদিক রনি
র‌্যাব অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলা ট্রিবিউনের সাংবাদিক রনি
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত