X
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩
১৩ মাঘ ১৪২৯

কেন বাংলা ভাষার প্রচলনে এত জোর দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু

উদিসা ইসলাম
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১১:০০আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৬:০৫

মুক্তিযুদ্ধ শুরুর আগে ও পরে বিভিন্ন সময়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর দেওয়া বক্তৃতা, সাক্ষাৎকার এবং রাজনীতি, সমাজ ও সংস্কৃতি নিয়ে আলোচনায় সর্বস্তরে বাংলা চালুর প্রয়োজনীয়তা ও করণীয় বারবার উল্লেখ করতেন। বারবারই তিনি অফিসের বিভিন্ন কাজে বাংলা বাধ্যতামূলক করা এমনকি বাংলা ফাইল না হলে সই না করার সিদ্ধান্তের কথাও জানান।

১৯৭১ সালে বাংলা একাডেমিতে শহীদ দিবস (ভাষা শহীদ দিবস) উপলক্ষে আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধু সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালুর ব্যাপারে তার সুস্পষ্ট পরিকল্পনা তুলে ধরেন। বঙ্গবন্ধুর অন্যান্য অনেক বক্তৃতার মতোই সেদিনের বক্তৃতাও দেশের প্রধান প্রধান বাংলা ও ইংরেজি সংবাদপত্রে প্রকাশ করা হয়। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন সময়ের দেওয়া এসব বক্তৃতা থেকে নির্বাচিত বক্তৃতা নিয়ে একটি সংকলন গ্রন্থ সম্পাদনা করেন। মুক্তধারা প্রকাশন ১৯৭২ সালে ‘বাংলাদেশ আমার বাংলাদেশ’ নামে এই সংকলন গ্রন্থ প্রকাশ করে।

কেন বারবার বঙ্গবন্ধু মাতৃভাষার ব্যবহারে জোর দিতেন প্রশ্নে তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, মাতৃভাষা ছাড়া অন্য ভাষায় শিক্ষা খুব কাজের হয় না। এটা যেকোনও সচেতন মানুষ অনুধাবন করতে পারবেন। জাপানিরা এত উন্নতি করেছে কারণ তারা দেশি-বিদেশি জ্ঞান বিজ্ঞানের বিভিন্ন বই নিজেদের ভাষায় অনুবাদ করেছে। তারা বুঝতে পেরেছিল মাতৃভাষার ওপরে প্রাথমিক জ্ঞান ও দক্ষতা থাকা খুব জরুরি। আমরা অধিকাংশই বাংলায় এত দুর্বল তা বলার মতো না। আমরা আসলে কোনওটাই ঠিকমতো শিখিনি। ওপরের দিকে মনে করা হয় বাংলা না জানলেও চলবে। এই পরিস্থিতি যেন তৈরি না হয় তার পরিকল্পনা হিসেবেই বঙ্গবন্ধু বারবার বাংলার ব্যবহার নিশ্চিত করার ওপর জোর দিতেন।

বঙ্গবন্ধু স্বাধীন দেশে বাংলা প্রচলন কমিটি করে দেন। বঙ্গবন্ধু সভা সমাবেশসহ নানা জায়গায় নির্দেশনা, ঘোষণা দিলেও এক ধরনের গড়িমসি দেখা যাচ্ছিল বলেই কমিটি করে দেওয়া হয়েছিল।

সিদ্ধান্ত হয়, বঙ্গবন্ধুর কাছে কোনও ফাইল পেশ করতে হলে তা বাংলায় লিখতে হবে। ১৯৭৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে একটি কমিটিও গঠন করা হয়। যারা সর্বস্তরে বাংলার ব্যবহার বাস্তবায়নে কাজ করবে। বঙ্গবন্ধু সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, অফিসের নথি ও অন্যান্য কাগজপত্র বাংলায় না লেখা হলে তার কাছে উপস্থাপন করা যাবে না। সুতরাং যাবতীয় সরকারি নথিপত্র বাংলায় লেখার জন্য কেবিনেট ডিভিশন পরিপত্রে সকল মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানায়।

বঙ্গবন্ধু সরকারি কাগজপত্রে বাংলা ব্যবহার করতে কয়েক দফা নির্দেশ দেওয়ার পরও বাংলা ব্যবহারের বাস্তব উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলে পরিপত্রে অভিযোগ করা হয়েছিল। পরিপত্রে এ ব্যাপারে অবিলম্বে আরও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মন্ত্রণালয়ে জানানো হয়। এতে বলা হয়, যেসব মন্ত্রণালয়ের কাগজপত্র বাংলায় লেখা হচ্ছে না সেগুলোকে বাংলায় অনুবাদ করিয়ে নিতে হবে এবং বাংলায় লিখতে হবে।

বাংলাকে সরকারি ভাষা হিসেবে ব্যবহার করার পথে বিভিন্ন সমস্যা জরুরি ভিত্তিতে দূর করার লক্ষ্যে শিক্ষামন্ত্রীকে সভাপতি নির্বাচিত করে ১৩ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। বিশেষ সূত্রের বরাত দিয়ে দৈনিক বাংলা ১৯৭৩ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি করা প্রতিবেদনে জানায়, কমিটির দায়িত্ব হচ্ছে সরকারি ভাষা হিসেবে বাংলা ভাষার যথাযথ প্রয়োগের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প তৈরি ও অনুমোদিত প্রকল্প বাস্তবায়ন করা। এছাড়াও সরকারি অফিসে বাংলার ব্যবহার ও অবিলম্বে বাংলা লিখন পদ্ধতিতে প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা করতে হবে। প্রচলিত বিভিন্ন ফরম বাংলা ভাষায় মুদ্রণ, কার্যোপযোগী ও সহজবোধ্য পরিভাষায় জরুরি ভিত্তিতে প্রণয়নও করবে কমিটি।

এর আগে ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পর ২০ জানুয়ারি প্রথমবার সর্বস্তরে বাংলা নিশ্চিত করতে ছাত্রনেতারা চাপ দেন। এক বিবৃতিতে নেতারা দাবি তুলেছিলেন, বাংলা, ইংরেজি, উর্দু ভাষায় পরিচালিত বিদ্যালয়ে ২১ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাংলা চালু হতে হবে। ফেব্রুয়ারি মাসে সেটি মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা থাকতে হবে।

/এমআর/
সর্বশেষ খবর
চট্টগ্রামকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে সাকিবের বরিশাল
চট্টগ্রামকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে সাকিবের বরিশাল
বাবা হওয়ার পরদিন মাদ্রাসাশিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
বাবা হওয়ার পরদিন মাদ্রাসাশিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
চতুর্থ শিল্পবিপ্লব প্রস্তুতি: অবকাঠামোর উন্নয়ন
চতুর্থ শিল্পবিপ্লব প্রস্তুতি: অবকাঠামোর উন্নয়ন
১০৭ ধরে চলছে হাডুডু খেলার আয়োজন, গ্রামজুড়ে উৎসব
১০৭ ধরে চলছে হাডুডু খেলার আয়োজন, গ্রামজুড়ে উৎসব
সর্বাধিক পঠিত
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
বিয়ে করে বিপাকে অভিনেতা তৌসিফ!
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
উপহার পেয়েছিলেন মাত্র চারটি, এখন তাদের ছাগল-ভেড়া ৬৩টি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
রাজধানীতে বিক্রি হচ্ছে জমজমের পানি
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
কলকাতার দেয়ালে দেয়ালে তাসনিয়া: ফারিণের পাশে দাঁড়ালেন প্রসেনজিৎ
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার
প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন: এমপি বাহার