X
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২
২০ আশ্বিন ১৪২৯

নিউমার্কেটে সংঘর্ষ: চার দিনেও গ্রেফতার হয়নি হেলমেটধারীরা

নুরুজ্জামান লাবু
২৩ এপ্রিল ২০২২, ১৯:২৭আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০২২, ১৯:২৭

নিউমার্কেটের দোকান মালিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনায় দুই পক্ষেই হেলমেটধারীরা ছিল। তবে ঘটনার চার দিন পেরিয়ে গেলেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, সিসিটিভি ক্যামেরা, মোবাইল ফোন ও গণমাধ্যমে প্রচারিত ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে হেলমেটধারীদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে। উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে তাদের পোর্ট্রেট বানানো হচ্ছে। প্রয়োজনে ওই ছবি প্রকাশ করে পরিচয় শনাক্তে জনগণের সহায়তা নেওয়া হবে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় যে দুজন মারা গেছেন, তাদের মধ্যে নাহিদকে পেটানোর সময়কার ছবি পাওয়া গেছে। মুরসালিন নামের আরেক নিহত দোকান কর্মচারীকে পেটানোর ছবি এখনও পাওয়া যায়নি।

সোমবার (১৮ মার্চ) রাত ১২টার দিকে নিউমার্কেটের পাশাপাশি দুটি খাবারের দোকানের টেবিল বসানো নিয়ে দোকান মালিক-কর্মচারীদের মধ্যে মারামারি হয়। পরে এক পক্ষ ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে ডেকে নিয়ে গেলে সেই সংঘর্ষ দোকান মালিক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

টানা দুই দিন রণক্ষেত্রে পরিণত হওয়া এই ঘটনায় নাহিদ হোসেন ও মোহাম্মদ মুরসালিন নামে দুই তরুণের মৃত্যু হয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে দুটি ও নিহত দুই তরুণের স্বজনরা পৃথক আরও দুটি মামলা দায়ের করেছেন।

হত্যা মামলা দুটির তদন্ত স্থানান্তর করা হয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কাছে।

মামলার তদন্ত তদারক কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের ধানমন্ডি জোনাল টিমের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ফজলে এলাহী জানান, দুটি মামলাই নিবিড়ভাবে তদন্ত করা হচ্ছে, যাতে অহেতুক কেউ হয়রানির শিকার না হয়। যারা নিহত দুজনকে পেটানোর ঘটনায় অংশ নিয়েছে তাদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

গোয়েন্দা সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সংঘর্ষের ঘটনায় তারা শতাধিক ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করছেন। সেই সঙ্গে ঘটনায় তৃতীয় পক্ষের ইন্ধনের বিষয়টিও গুরুত্ব দিয়ে অনুসন্ধান করা হচ্ছে। প্রথাগত সোর্স ও প্রযুক্তির মাধ্যমেও শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে তারা দেখতে পেয়েছেন সংঘর্ষের সময় উভয়পক্ষেই হেলমেটধারীরা ছিল। এমনকি গণমাধ্যমকর্মীরাও হেলমেট মাথায় দিয়ে সংবাদ সংগ্রহে গিয়েছিলেন। তারাসহ আরও অনেকে ইট-পাটকেল থেকে মাথা বাঁচাতে হেলমেট পরেছিলেন। এই সুযোগে হেলমেট পরে তৃতীয় একটি পক্ষ সংঘর্ষ উস্কে দিতে ঘটনাস্থলে গিয়েছিল।

পুলিশের আরেক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, ঈদকে সামনে রেখে দোকান মালিক-কর্মচারী ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের ধরপাকড় শুরু করলে পরিস্থিতি আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে। এজন্য ঈদের আগে আপাতত সুনির্দিষ্ট তথ্য ছাড়া অভিযান চালানো হবে না। ঈদের পর আসামিদের ধরতে একযোগে অভিযান চালানো হবে।

 

সেই শিক্ষার্থী-কর্মচারীরা কোথায়?

নিউমার্কেটের রক্তক্ষয়ী এই সংঘর্ষের সূত্রপাত যে দোকান কর্মচারীদের মাধ্যমে ঘটেছিল তারা সবাই আত্মগোপনে চলে গেছেন। এমনকি দোকান কর্মচারীদের নিজেদের মধ্যে মারামারি ঘটনায় প্রথম যে তিন জন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছিলেন তাদেরও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঘটনার পর থেকেই তারা সবাই পলাতক রয়েছেন। পুলিশ নিউমার্কেটের ক্যাপিটাল ফুড ও ওয়েলকাম ফুডের দুই দোকান কর্মচারী বাপ্পী ও কাওসারকে খুঁজছে। টেবিল বসানো নিয়ে ওই দুজনের মধ্যেই প্রথম মারামারি হয়। এসময় কাওসার ও তার সহযোগীরা বাপ্পীকে মারধর করলে বাপ্পী ঢাকা কলেজের তিন শিক্ষার্থীকে ডেকে নিয়ে যায়।

নাসিম, লিটন ও মাসুদ নামে ঢাকা কলেজের তিন শিক্ষার্থী সেখানে গিয়ে কাওসারকে মারধরের চেষ্টা করায় দোকান-কর্মচারীরা একজোট হয়ে উল্টো তাদের মারধর করেন। এর পরই ছড়িয়ে পড়ে সংঘর্ষ।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, ঘটনার পর থেকেই বাপ্পী, কাওসারসহ ওয়েলকাম ও ক্যাপিটাল ফুডের দোকান কর্মচারী ও ঢাকা কলেজের তিন শিক্ষার্থী পলাতক। তাদের ধরতে গোয়েন্দা নজরদারি চালানো হচ্ছে। যে কোনও সময় তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

ঢাকা কলেজের এক শিক্ষার্থী জানান, নাসিম, লিটন ও মাসুদ ঢাকা কলেজের ফরহাদ হোস্টেলের আবাসিক ছাত্র। ঘটনার পর থেকে তাদের হোস্টেলে আর দেখা যায়নি। তারা আত্মগোপনে চলে গেছে।

/এফএ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
রোহিঙ্গাদের নিয়ে মালয়েশিয়াগামী ট্রলারডুবি: আরও ২ লাশ উদ্ধার
রোহিঙ্গাদের নিয়ে মালয়েশিয়াগামী ট্রলারডুবি: আরও ২ লাশ উদ্ধার
কবীর সুমনের ঢাকা লাইভ চূড়ান্ত
কবীর সুমনের ঢাকা লাইভ চূড়ান্ত
রুশ সেনাবাহিনীর কর্নেল জেনারেল হলেন রমজান কাদিরভ
রুশ সেনাবাহিনীর কর্নেল জেনারেল হলেন রমজান কাদিরভ
জয় যেভাবেই আসুক, খুশি বাংলাদেশ কোচ
জয় যেভাবেই আসুক, খুশি বাংলাদেশ কোচ
বাংলাট্রিবিউনের সর্বাধিক পঠিত
৪০তম বিসিএস নন-ক্যাডার: পিএসসির অবহেলিত এক সন্তানের গল্প
৪০তম বিসিএস নন-ক্যাডার: পিএসসির অবহেলিত এক সন্তানের গল্প
সরবরাহ ব্যাপক, তবু কেন নাগালের বাইরে ইলিশের দাম?
সরবরাহ ব্যাপক, তবু কেন নাগালের বাইরে ইলিশের দাম?
থাইল্যান্ডে এক মাস, গুঞ্জনের জবাব কক্সবাজার থেকে 
থাইল্যান্ডে এক মাস, গুঞ্জনের জবাব কক্সবাজার থেকে 
প্রেমের শহরে রূপের ঝলক
প্রেমের শহরে রূপের ঝলক
সাকিব যোগ দেননি তাই ফটোসেশনে সোহান
সাকিব যোগ দেননি তাই ফটোসেশনে সোহান