X
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
৯ আশ্বিন ১৪২৯

রাজধানীর কদমতলীতে ধর্ষণের ঘটনায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৬:১১আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৬:১১

রাজধানীর কদমতলী এলাকায় দুই কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় তিন জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাভোগের আদেশ দেন।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এর বিচারক জুলফিকার হায়াত এ রায় ঘোষণা করেন।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন মো. সোহেল বেপারী, রানা বেপারী ও মো. আক্তার আলী। এ ছাড়া সজল নামে এক আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ট্রাইবুনাল খালাস দিয়েছেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত অভিযোগে জানা যায়, রাজধানীর কদমতলী এলাকায় নোয়াখালী পট্টির গেসুর বাড়ির ভাড়াটে আব্দুর রাজ্জাক মাদবরের বাড়িতে আসামিরা ও দুই ভুক্তভোগী কিশোরীর পরিবার ভাড়া থাকতো। ২০২০ সালের ৮ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে আসামিরা দুই কিশোরীর পরিবারের বাসার দরজার কড়া নাড়ে। পরে বাসার দরজা খুললে আসামিরা বাসায় ঢুকে দরজা লাগিয়ে দুই কিশোরী ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে কদমতলী থানায় একটি মামলা করে দুই ভুক্তভোগীর পরিবার। এরপর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ।

গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। মামলায় আদালত ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ করে এ রায় ঘোষণা করেন।

/টিএইচ/এনএআর/
সম্পর্কিত
ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে স্কুলছাত্রীকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করেছে গৃহশিক্ষক
আদালতে জবানবন্দিধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে স্কুলছাত্রীকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করেছে গৃহশিক্ষক
ডিজে দম্পতি ‘হত্যাকাণ্ডের’ ৪ বছর পর আসামিদের স্বীকারোক্তি
ডিজে দম্পতি ‘হত্যাকাণ্ডের’ ৪ বছর পর আসামিদের স্বীকারোক্তি
খুলনায় তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ১
খুলনায় তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ১
নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, গৃহশিক্ষক রিমান্ডে
নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, গৃহশিক্ষক রিমান্ডে
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
দুই গ্রুপের কোন্দলে মধ্যরাতে উত্তপ্ত ইডেন কলেজ
দুই গ্রুপের কোন্দলে মধ্যরাতে উত্তপ্ত ইডেন কলেজ
রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণে ১০০ নাগরিকের বিবৃতি
রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণে ১০০ নাগরিকের বিবৃতি
এতদিন কোথায় ছিলেন রহিমা?
এতদিন কোথায় ছিলেন রহিমা?
আ.লীগ সব সময় জনগণের ভোটেই ক্ষমতায় আসে: প্রধানমন্ত্রী
আ.লীগ সব সময় জনগণের ভোটেই ক্ষমতায় আসে: প্রধানমন্ত্রী
এ বিভাগের সর্বশেষ
ডিজে দম্পতি ‘হত্যাকাণ্ডের’ ৪ বছর পর আসামিদের স্বীকারোক্তি
ডিজে দম্পতি ‘হত্যাকাণ্ডের’ ৪ বছর পর আসামিদের স্বীকারোক্তি
কম দামে মোটরসাইকেল কিনলে হতে পারেন আসামি
কম দামে মোটরসাইকেল কিনলে হতে পারেন আসামি
ফারইস্ট ইন্স্যুরেন্সের সাবেক চেয়ারম্যান কারাগারে
ফারইস্ট ইন্স্যুরেন্সের সাবেক চেয়ারম্যান কারাগারে
নির্বাচনের খরচ তোলার জন্য অভিনব প্রতারণা ইউপি চেয়ারম্যানের!
নির্বাচনের খরচ তোলার জন্য অভিনব প্রতারণা ইউপি চেয়ারম্যানের!
হোশি কুনিও হত্যা : জেএমবি সদস্যকে খালাসের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল
হোশি কুনিও হত্যা : জেএমবি সদস্যকে খালাসের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল