X
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২
১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
সাক্ষাৎকারে পরিচালক রফিকুল ইসলাম

জাতীয় চিড়িয়াখানায় বড় পরিবর্তন আসছে

জুবায়ের আহমেদ
০৭ অক্টোবর ২০২২, ১৯:০০আপডেট : ০৮ অক্টোবর ২০২২, ১৭:২৯

মিরপুরের জাতীয় চিড়িয়াখানায় বড় পরিবর্তন আসছে। করা হয়েছে নতুন ডিজাইন। অনুমোদন পেলে আগামী এক-দেড় বছরের মধ্যে চিড়িয়াখানাকে ঢেলে সাজানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে। নতুন ডিজাইনে পাল্টে যাবে চিড়িয়াখানার বর্তমান অবয়ব। চিড়িয়াখানার পরিচালক ডা. মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম তালুকদার একান্ত সাক্ষাৎকারে বাংলা ট্রিবিউনকে এসব তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, চলতি মাসে দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে নতুন কিছু সংযোজনও আনছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) চিড়িয়াখানা পরিচালকের কার্যালয়ে বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে কথা বলেন ডা. রফিকুল ইসলাম তালুকদার। নতুন সংযোজনের বিষয়ে তিনি উল্লেখ করেন, যেকোনও অসচেতন কাজ থেকে আগত দর্শনার্থীদের বিরত রাখতে মাইকের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক সতর্কতা বার্তা পাঠ, চিড়িয়াখানায় নতুন তিনটি মানচিত্র স্থাপন, নতুন করে আরও কিছু দিকনির্দেশনা সংবলিত ব্যানার লাগানো, ভেতরে বিশ্রামের স্থানগুলো সংস্কার করে দর্শনার্থীবান্ধব করা হচ্ছে।

ডা. রফিকুল ইসলাম তালুকদার, ছবি: জুবায়ের আহমেদ রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ‘দর্শনার্থীদের সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্য আমরা ইতোমধ্যে মাইকিংয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন সচেতনামূলক বার্তা দিচ্ছি। যেমন- পশুদের বাইরের খাবার না দেওয়া, পশুদের অহেতুক বিরক্ত না করা, অপরিচিত কারও দেওয়া খাবার গ্রহণ না করা, নিম্নমানের খাদ্য খেলে স্বাস্থ্য ঝুঁকি আছে—এসব উল্লেখযোগ্য।’

তিনি জানান, চিড়িয়াখানার ভেতরে দর্শনার্থীদের নানা জিজ্ঞাসা থাকে। সেসব বিষয়েও দিকনির্দেশনা থাকবে।

পরিচালক বলেন, ‘আবার অনেক দর্শনার্থী জানতে চান, মসজিদ কোন দিকে, বা কোন পশুর খাঁচা কোন দিকে। তাদের জন্য যেন সবকিছু বুঝতে সহজ হয়, সেজন্য আরও কিছু দিকনির্দেশনামূলক ব্যানার বানানো হবে।’

কীভাবে তা করা হবে, প্রশ্নে রফিকুল ইসলামের উত্তর, ‘চিড়িয়াখানার আরও তিনটি পয়েন্টে নতুন তিনটি ম্যাপ স্থাপন করবো। সেখানে উল্লেখ করা থাকবে যে দর্শনার্থী ঠিক এই মুহূর্তে কোথায় আছেন। দর্শনার্থীদের বিশ্রাম নেওয়ার জায়গাগুলো থেকেও যেন তারা কিছু তথ্য পান, সেই ব্যবস্থা করছি এবং কিছু সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছি।’

জাতীয় চিড়িয়াখানায় বড় পরিবর্তন আসছে কী ধরনের সংস্কার, প্রশ্নে চিড়িয়াখানার পরিচালক ডা. রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ‘আমি এখন থেকে পরিকল্পনা করছি—প্রতি সপ্তাহে একবার চিড়িয়াখানার সব কর্মকর্তা-কর্মচারী পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করবো। এরকম আমাদের আরও বেশ কিছু উদ্যোগ আছে, যা আমরা আশা করছি মাসখানেকের মধ্যে বাস্তবায়ন করতে পারবো।’

‘চিড়িয়াখানার টিকিট বিক্রি, ভেতরে পাবলিক টয়লেট এবং কার পার্কিং ইজারা দেওয়া আছে। তবে নিয়মিত তা তদারকি করা হয় বলে জানান পরিচালক।

যদিও বাইরের পার্কিংয়ের দৃশ্য ভিন্ন। পার্কিংয়ের টিকিটে মূল্য উল্লেখ নেই। তাই যেভাবে ইচ্ছা সেভাবেই অর্থ গ্রহণ করছেন ইজারাদাররা। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ‘চিড়িয়াখানার ভেতরের টয়লেটে আমরা মূল্য তালিকা বড় করে দিয়ে টানিয়ে দিয়েছি। এছাড়া কিছু কিছু টয়লেট নতুন করে মেরামত করা হবে। বাইরের পার্কিংয়ের বিষয়টি খোঁজ নিচ্ছি।’

জাতীয় চিড়িয়াখানায় বড় পরিবর্তন আসছে চিড়িয়াখানায় বড় পরিবর্তন আসছে

পরিচালক রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ‘চিড়িয়াখানার পুরো রূপ পালটে ফেলার জন্য মহাপরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে আমাদের নতুন চিড়িয়াখানার ডিজাইনের কাজ শেষ। এখন শুধু বাস্তবায়ন বাকি। আশা করা যাচ্ছে, অনুমোদন পেলে আগামী এক থেকে দেড় বছরের মধ্যে কাজ শুরু করা যাবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন যে চিড়িয়াখানা, সেটা ৬০-৬৫ সালের দিকে করা। তখন পশু-প্রাণীদের বিষয়টি এতটা গুরুত্ব দেওয়া হতো না। কিন্তু এখন অনেকেই এ বিষয়ে সচেতন। তাই আমাদের প্রচেষ্টা পশুদের কতটা পরিবেশবান্ধব করে রাখা যায়, সেই বিষয়টি নতুন নকশায় থাকছে। আমরা চিড়িয়াখানাকে পাঁচটি ভাগে ভাগ করবো এবং প্রত্যেক ভাগেই চমক থাকবে। অতিরিক্ত খাঁচা থাকবে না।’

বিষয়টি আরও বিস্তারিত জানিয়ে পরিচালক ডা.  রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন পরিকল্পনায় চিড়িয়াখানায় একটা আকর্ষণীয় বিষয় থাকবে, আগত দর্শনার্থীরা মুক্ত পাখির সঙ্গে খেলা করতে পারবেন। পাখি তাদের ঘাড়ে, হাতে এসে বসবে। এরকম করেই ব্যবস্থা রাখা হয়েছে নতুন পরিকল্পনায়।’

জাতীয় চিড়িয়াখানায় বড় পরিবর্তন আসছে চিড়িয়াখানা নিয়ে মহাপরিকল্পনা তৈরিতে কারা ছিলেন, এমন প্রশ্নে এই পরিচালক বলেন, ‘এই ডিজাইনটা করার ক্ষেত্রে আমাদের দেশে যারা বন্যপ্রাণীদের নিয়ে চিন্তা করেন এবং যারা প্রাণী বিশেষজ্ঞ আছেন, তাদের সবার কাছ থেকেই পরামর্শ গ্রহণ করা হয়েছে।’

অনুমোদনের অপেক্ষা

কবে নাগাদ চিড়িয়াখানার মহাপ্রকল্প বাস্তবায়ন হবে জানতে চাইলে চিড়িয়াখানার পরিচালক ডা.  রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘অনুমোদন না পাওয়া পর্যন্ত এটা বলা মুশকিল। প্রকল্পটা বড়। এটা বাস্তবায়নে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকার মতো লাগবে। আর আমাদের যেহেতু সরকারি প্রকল্পগুলো জুন-জুলাইয়ে শুরু হয়, আশা করি অনুমোদন পেলে এক থেকে দেড় বছরের মধ্যে একটা আধুনিক চিড়িয়াখানায় রূপ দেওয়া সম্ভব।’

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন

/এসটিএস/এপিএইচ/এমওএফ/
প্রস্থানের দুই বছর: শিল্পকলায় অবিনশ্বর আলী যাকের
মৃত্যুদিনে স্মরণপ্রস্থানের দুই বছর: শিল্পকলায় অবিনশ্বর আলী যাকের
পূর্ণ সক্ষমতায় ৬৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাচ্ছে রামপাল
পূর্ণ সক্ষমতায় ৬৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাচ্ছে রামপাল
এমবাপ্পের জোড়া গোলে নকআউটে ফ্রান্স
এমবাপ্পের জোড়া গোলে নকআউটে ফ্রান্স
আবারও নাসিমের অনুসারীদের পেটালো বিএনপির সমর্থকরা
আবারও নাসিমের অনুসারীদের পেটালো বিএনপির সমর্থকরা
সর্বাধিক পঠিত
ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব কমবে ৪০ কিমি
ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব কমবে ৪০ কিমি
পোল্যান্ডের জয়ে আরও চাপে মেসিরা
পোল্যান্ডের জয়ে আরও চাপে মেসিরা
ম্যাজিস্ট্রেটের মামলায় কারাগারে স্বামী
ম্যাজিস্ট্রেটের মামলায় কারাগারে স্বামী
ইউক্রেন ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করলো ন্যাটো
ইউক্রেন ইস্যুতে অবস্থান স্পষ্ট করলো ন্যাটো
কুমিল্লার সমাবেশস্থলে হারানো ফোনের সন্ধান দিলে পুরস্কার ২০ হাজার
কুমিল্লার সমাবেশস্থলে হারানো ফোনের সন্ধান দিলে পুরস্কার ২০ হাজার