X
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
৯ শ্রাবণ ১৪৩১
ঈদে বাড়ি ফেরা

ভ্রমণের আগেই জরিমানা গুনছেন ট্রেনযাত্রীরা!

আসাদ আবেদীন জয়
১৫ জুন ২০২৪, ২০:৫১আপডেট : ১৫ জুন ২০২৪, ২১:৩৪

ঈদে শেষ সময়ে এসে বাড়ি ফিরতে অনেকে ভিড় করছেন রেল স্টেশনে। ঘরমুখো সাধারণ মানুষের ধারণা, স্টেশনে গেলে ট্রেনে চড়ার একটা উপায় হয়ে যাবে। অনলাইনে আসনের অগ্রিম টিকিট কাটার পাশাপাশি স্টেশনে এসে কাটা যায় স্ট্যান্ডিং টিকিটও। এর বাইরে থাকে কিছু বিনা টিকিটের যাত্রী। যাত্রার সময় এসব যাত্রীর কাছ থেকে আদায় করা হয় জরিমানাসহ টিকিটের দাম। তবে শনিবার (১৫ জুন) কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে সরেজমিন দেখা যায়, স্টেশনে প্রবেশের আগেই টিটিই যাত্রীদের কাছে জরিমানাসহ টিকিট বিক্রি করছেন। সচরাচর ভ্রমণের সময় বা পরে যে টিকিট টিটিই হাতে কেটে বিনা টিকিটের যাত্রীকে দেন তা দেওয়া হচ্ছে স্টেশনে প্রবেশমুখেই। এসব টিকিটে ভ্রমণের আগেই অগ্রিম জরিমানা গুনতে হচ্ছে যাত্রীদের। তবে অগ্রিম এই জরিমানা নিয়ে তেমন কোনও অভিযোগ নেই যাত্রীদের। তারা বাড়ি ফেরার টিকিট পেয়েই সন্তুষ্ট থাকছেন।

তবে এর বিপরীতে রয়েছে আরেক চিত্র। যেসব যাত্রী অনলাইনে অগ্রিম টিকিট কিনেছেন এবং যারা স্ট্যান্ডিং টিকিট কিনেছেন তারা বলছেন, নির্ধারিত ২৫ শতাংশ স্ট্যান্ডিং টিকিট বিক্রির পর হিসাব ছাড়া এসব টিকিট বিক্রির ফলে ট্রেনে যাতায়াত কষ্টদায়ক হয়ে উঠেছে। মানুষ এখন দাঁড়ানোর জায়গাও পাচ্ছে না। তবে যাত্রীদের কেউ কেউ বলেছেন, ঈদযাত্রার সময়ে এই বিষয়টা মানবিকভাবে চিন্তা করতে।

মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসের যাত্রী বাদল খান যাবেন গফরগাঁওয়ে। তিনি ঢাকা (কমলাপুর) স্টেশনে প্রবেশের সময় টিটিই’র কাছ থেকে দুটি টিকিট কিনেছেন ৩১০ টাকা দিয়ে। টিকিটের দাম ১০৫ টাকা করে, দুটির দাম ২১০ টাকা। এক্ষেত্রে দুটি টিকিটের জন্য তাকে জরিমানা করা হয়েছে ১০০ টাকা।

চট্টলা এক্সপ্রেসের যাত্রী মো. সুজন যাবেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া। তিনিও স্টেশনে প্রবেশের আগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পর্যন্ত দুটি টিকিট কিনেছেন ৩৪০ টাকা দিয়ে। এই রুটের দুটি টিকিটের দাম ২৫০ টাকা। এক্ষেত্রে দুটির জন্য ৯০ টাকা জরিমানা গুনতে হয়েছে সুমনের। এসময় তিনি বলেন, জরিমানা দিয়ে হলেও যে টিকিট পেয়েছি সেটাই বড়। বাড়ি তো যেতে পারছি।

চট্টলা এক্সপ্রেসের আরেক যাত্রী দেলোয়ার হোসেন যাবেন নরসিংদী। তিনি জরিমানাসহ একটি টিকিট কিনেছেন ১০৫ টাকা দিয়ে। এই ট্রেনটির নরসিংদী পর্যন্ত টিকিটের দাম ৬০ টাকা। তাকে জরিমানা দিতে হয়েছে ৪৫ টাকা। দেলোয়ার বলেন, অনলাইনে টিকিট পাইনি, স্ট্যান্ডিং টিকিটও পাইনি। তাই জরিমানা দিয়ে টিকিট কিনতে হচ্ছে। তবে জরিমানা বড় কথা না, টিকিট তো পেয়েছি।

এদিকে, চট্টগ্রামগামী চট্টলা এক্সপ্রেসের যাত্রী সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আমি অনলাইনে আগেই টিকিট কিনে নিয়েছিলাম। কিন্তু তারপরও ট্রেনে উঠতে সমস্যা হয়েছে। কারণ ট্রেনবোঝাই মানুষ। স্ট্যান্ডিং টিকিটের বাইরেও টিকিট বিক্রি করাতে এই সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে।

অনলাইনে টিকিট বিক্রির নির্ধারিত দিনেই মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসের টিকিট কিনেছিলেন হাবিবুর রহমান রহমান। ঈদ করতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে যাচ্ছেন নেত্রকোনায় নিজের বাড়িতে। তিনি বলেন, ঈদে সবাই চায় নিজের বাড়িতে যেতে। কেউ অনলাইনে আগে থেকেই টিকিট কেনে, আবার কেউ স্ট্যান্ডিং টিকিট কেনে। কিন্তু এর বাইরেও আনলিমিটেড পেনাল্টি টিকিট বিক্রি হয়। কিন্তু অনির্দিষ্ট সংখ্যক পেনাল্টির টিকিট ইস্যু করাই অন্য যাত্রীর যাত্রাকে দুর্বিষহ করে তোলে। তাই আমার মনে হয়—এই আনলিমিটেড টিকিট বিক্রি বন্ধ করা উচিত। একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে থাকা উচিত এই টিকিট বিক্রি।

মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেসের আরেক যাত্রী আবুল হাসেম বলেন, আসলে ঈদের সময় সবারই বাড়ি যেতে হবে। তাই একটু কষ্ট করে যদি সবাই যেতে পারি তাহলে তো ভালোই। এটাকে মানবিকভাবে দেখলেই ভালো।

ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ২৫ শতাংশ স্ট্যান্ডিং টিকিটের বাইরে কিছু টিকিট মানবিক কারণে বিক্রি করা হয়ে থাকে। তবে সেটা আনুমানিক ৫০-৬০টা হবে। অনেকে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এসে টিকিট না পেয়ে বিড়ম্বনায় পড়ে, তখন আমরা এই টিকিট দিয়ে থাকি। এক্ষেত্রে ট্রেনের অন্য যাত্রীরাও তেমন একটা অভিযোগ করেন না। কারণ তারাও ব্যাপারটা বুঝেন।

এই টিকিটের অনেক রুলস আছে। এই টিকিট কিনতে হলে অতিরিক্ত টাকা যুক্ত করেই কিনতে হবে, এটা রুলস। কিন্তু অনেকে না বুঝেই বলে ফেলে বেশি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এটা বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে না। রুলস ফলো করা হচ্ছে। যে চাইবে বেশি দামে নেবে আর যে চাইবে না সে নেবে না- যুক্ত করেন মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার।

/এমএস/এমওএফ/
সম্পর্কিত
বৃহস্পতিবার থেকে স্বল্প দূরত্বের কিছু যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে
চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীদের সড়ক ও রেলপথ অবরোধ, যান চলাচল বন্ধ
লাইনচ্যুতির আড়াই ঘণ্টা পর শাটল ট্রেন উদ্ধার
সর্বশেষ খবর
জ্বালাও-পোড়াও ও নিহতে মিরপুরের ৩ দিন
জ্বালাও-পোড়াও ও নিহতে মিরপুরের ৩ দিন
কূটনীতিকরা স্তম্ভিত, বলেছেন বাংলাদেশের পাশে আছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
কূটনীতিকরা স্তম্ভিত, বলেছেন বাংলাদেশের পাশে আছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
সংঘাতে ডিএনসিসির ২০৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি
সংঘাতে ডিএনসিসির ২০৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি
নাটকীয় হারে আর্জেন্টিনার অলিম্পিক যাত্রা শুরু
নাটকীয় হারে আর্জেন্টিনার অলিম্পিক যাত্রা শুরু
সর্বাধিক পঠিত
ধারণা ছিল একটা আঘাত আসবে: প্রধানমন্ত্রী
ধারণা ছিল একটা আঘাত আসবে: প্রধানমন্ত্রী
কোটা নিয়ে রায় ঘোষণার আগে যা বলেছিলেন প্রধান বিচারপতি
কোটা নিয়ে রায় ঘোষণার আগে যা বলেছিলেন প্রধান বিচারপতি
চাকরিতে কোটা: প্রজ্ঞাপনে যা আছে
চাকরিতে কোটা: প্রজ্ঞাপনে যা আছে
কোটা আন্দোলন: প্রধানমন্ত্রীর বর্ণনায় ক্ষয়ক্ষতির চিত্র 
কোটা আন্দোলন: প্রধানমন্ত্রীর বর্ণনায় ক্ষয়ক্ষতির চিত্র 
কারফিউ বা সান্ধ্য আইন কী 
কারফিউ বা সান্ধ্য আইন কী