রাজধানীর ভেতরে আন্তজেলা বাস সার্ভিস চলবে না: আতিকুল ইসলাম

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:১৮, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫৫, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

রাজধানী ঢাকার ভেতরে আন্তজেলা সার্ভিসের কোনও বাস চলতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘ঢাকার ভেতরে কোনও ইন্টারসিটি (আন্তজেলা) বাস চলতে পারবে না। চলবে সিটি সার্ভিসের বাস। এ বিষয়ে আমরা সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।’

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) মহাখালী বাস টার্মিনালে পরিবহন সেক্টরের নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বাস মালিকদের উদ্দেশে মেয়র বলেন, ‘আপনাদের দাবি মানতে রাজি আছি। কিন্তু আপনাদেরও কথা দিতে হবে আমাদের সিদ্ধান্ত মানবেন। পাশাপাশি মহাখালী থেকে সরিয়ে নিতে হবে বাস টার্মিনাল।’

এ সময় মহাখালী বাস টার্মিনালের সামনের প্রধান সড়কে কোনও বাস দাঁড় না করাতে মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

মেয়র আরও বলেন, ‘১৯৮৪ সালে কেন আমরা ঢাকার ভেতরে বাস টার্মিনাল করতে দিলাম, এটা আমাদের বড় ভুল হয়েছে। যার ফলে যানজট বাড়ছেই। রাজধানীর ভেতরে সিটি বাস ছাড়া বাইরের আন্তজেলা বাস চলতে পারবে না এমন সিদ্ধান্ত আমাদের অবশ্যই নিতে হবে। যত দ্রুত সম্ভব এগুলো সরিয়ে নিতে হবে।’

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেছেন, ‘রাজধানীতে সুশৃঙ্খল পরিবহন ব্যবস্থা চালু করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বাস রুট রেশনালাইজেশনের বিষয়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে ঢাকায় নির্দিষ্ট সংখ্যক কোম্পানির আওতায় পাঁচ হাজার বাস নামানো হবে, যার মধ্যে এক হাজার এসি বাস। টিকিট কাউন্টার এবং স্মার্ট কার্ডের ব্যবহার থাকবে। ফলে রাজধানীতে সুশৃঙ্খল পরিবহন ব্যবস্থা চালু হবে।’

খন্দকার এনায়েত উল্যাহ আরও বলেন, ‘বর্তমানে সড়কে কে কার আগে যাবে, কে যাত্রী বেশি পাবে এ নিয়ে প্রতিযোগিতা চলে। বাস রুট রেশনালাইজেশন কমিটির কাজ অনুযায়ী সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর কাজ শেষ হলে এমন প্রতিযোগিতা আর থাকবে না। আমরা টিকিট কাউন্টার সিস্টেম চালু করলে কন্ট্রাক্ট সিস্টেম আর থাকবে না। ফলে এই অসম প্রতিযোগিতা আর হবে না। এই প্রতিযোগিতা বেশি থাকায় দুর্ঘটনার সংখ্যাও বাড়ে।’

তিনি আরও বলেন, “চালকের সংকট আগে দূর করতে হবে। তাহলে দুর্ঘটনার সংখ্যাও কমে আসবে। বাংলাদেশের ইতিহাসে কখনও চালক তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। বর্তমান সরকারই প্রথম চালক তৈরি করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, বিআরটিএ’র বর্তমানে পর্যাপ্ত লাইসেন্স দেওয়ার সক্ষমতা নেই। তাদের যে জনবল দরকার তার অর্ধেকই নেই। তাদেরই আগে সক্ষমতা অর্জন করতে হবে।”

মহাখালী বাস টার্মিনাল মালিক সমিতির সভাপতি হাজী আবুল কালামের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হাই, শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী, ২৪ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিউল হক, শামিম হাসান প্রমুখ।

/এসএস/এএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ
X