গর্ভপাতের সময় অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু, লাশ গুমের অপরাধে ভুয়া চিকিৎসক দম্পতি গ্রেফতার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:৫৬, জুলাই ১৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৩৭, জুলাই ১৪, ২০২০

একটি ডোবা থেকে নারীর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করা হয়রাজধানীর উত্তরখানের কোনাবাড়ি এলাকায় এক নারীর গর্ভপাত করানোর সময় রক্তপাতে এক অন্তঃসত্ত্বা নারীর মৃত্যু পর তার লাশ গুম করে রেখেছিল কথিত এক চিকিৎসক দম্পতি। ঘটনার দশদিন পর একটি ডোবা থেকে পুলিশ ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে। নিহত নারীর নাম মালা রানী দাস (৩৫)। দুবছর আগেও এই ভুয়া চিকিৎসক দম্পতি এক নারীকে গর্ভপাত করানোর সময় মৃত্যু হলে তার লাশ গুম করে রেখে গ্রেফতার হয়েছিল। জামিনে মুক্তি পেয়ে তারা পুনরায় একই অপরাধে যুক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদের দুজনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।
সোমবার (১৩ জুলাই) বেলা ২টার দিকে উত্তরখান এলাকার কোনাবাড়ি এলাকা নামক স্থানের একটি ডোবা থেকে নারীর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করা হয়। উত্তরখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হেলাল উদ্দিন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ জানিয়েছে, গত ৩ জুলাই উত্তরখানের আমাইয়া এলাকা থেকে মালা রানী নিখোঁজ হন। তার স্বামী হরি গোপাল দাস তার স্ত্রীকে খুঁজছিলেন। কিন্তু কোথাও পাচ্ছিলেন না। ৩ জুলাই এক ব্যক্তির মোবাইল ফোন নম্বর থেকে ফোন দিয়ে জানানো হয় মালা রানী যেখানেই আছে ভালো আছে। রাতে সেখানেই থাকবে। কিন্তু ওই দিন রাতে আর মালা রানী বাসায় ফেরেননি। স্বামী ৪ জুলাই পর্যন্ত অপেক্ষা করে ওই নম্বরে ফোন দেন। তবে কেউ ফোন রিসিভ করেনি। কখনও কখনও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। ৫ জুলাই হরি গোপাল দাস উত্তরখান থানায় একটি নিখোঁজের জিডি করেন।
পরবর্তীতে ওই ফোন নম্বরের ব্যক্তিকে খোঁজা শুরু করে পুলিশ। পুলিশ জানতে পারে ফোন নম্বরটি গোলাম রাব্বানী নামে এক ব্যক্তির। তার বাবা উত্তরখানের তালতলা বালুর মাঠ এলাকায়। কিন্তু সেই বাসায় তাকে গিয়ে পাওয়া যায়নি। ১৩ জুলাই সকালে মিরপুর পল্লবীর একটি বাসা থেকে গোলাম রাব্বানী ও তার স্ত্রী হাসিনাকে তার বোনের বাসা থেকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তারা স্বীকার করে মালা রানীকে ওষুধ খাইয়ে ৩ জুলাই গর্ভপাত করানোর চেষ্টা করেন। বাসায় তার অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। ৪ জুলাই বিকাল সাড়ে ৫টায় মালা রানী মারা যায়। এরপর তাকে একটি বস্তায় ভরে ডোবায় ফেলে দেয় গোলাম রাব্বানী ও তার স্ত্রী। পুলিশ সোমবার দুপুরে ওই ডোবা থেকে নারীর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে।
ওসি হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘ওষুধ খাইয়ে মালা রানীর গর্ভপাত করানোর সময় মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পরে লাশ গুম করতে বস্তায় ভরে ডোবায় ফেলে দেয়। লাশ প্রায় অর্ধগলিত। আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছি। আসামিদের মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হবে। তাদের রিমান্ড চাওয়া হবে।
এর দু’বছর আগেও গোলাম রাব্বানী ও হাসিনা দম্পতি এক নারীকে গর্ভপাত করানোর সময় মেরে ফেলে। তাদের তখনও গ্রেফতার করা হয়েছিল। তবে তারা জামিনে ছাড়া পেয়ে আবার এই একই কাজ করছে। তারা চিকিৎসক না কিন্তু চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে বাসায় এই গর্ভপাতের অপকর্মটি করতো বলেও জানান ওসি। গোলাম রাব্বানীর বাসায় এরকম আরও নারীকে গর্ভপাত করানো হয়েছে কিনা পুলিশ তা তদন্ত করে দেখছে।

/এআরআর/এমআর/

লাইভ

টপ