রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ গ্রেফতার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:০২, জুলাই ১৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৫৪, জুলাই ১৪, ২০২০

রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ
রিজেন্ট গ্রুপ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের প্রতারণা কাজের অন্যতম সহযোগী এবং এই গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাসুদ পারভেজকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১। রিজেন্টের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় যে মামলা হয়েছে ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি তিনি।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টায় গাজীপুরের কাপাসিয়ার একটি বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। র‍্যাবের জনসংযোগ ও আইন শাখার পরিচালক লে. ক. আশিক বিল্লাহ বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘মাসুদ পারভেজ ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিলেন। রিজেন্ট যত প্রতারণা করেছে তার অন্যতম সহযোগী এই মাসুদ। আমরা তাকে খুঁজছিলাম। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাপাসিয়ায় তার স্ত্রীর এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।’

এ নিয়ে রিজেন্টের করোনা পরীক্ষা প্রতারণায় ১০ জনকে গ্রেফতার করলো র‍্যাব। যারা সবাই রিজেন্ট হাসপাতাল ও গ্রুপের কর্মকর্তা ও কর্মচারী।

গত ৬ জুলাই বিকালে রাজধানীর উত্তরা ও মিরপুরে রিজেন্ট হাসপাতালে একযোগে অভিযান চালায় র‍্যাব-১-এর ভ্রাম্যমাণ আদালত। এতে নেতৃত্ব দেন র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম। রিজেন্ট হাসপাতালটি রাজধানীতে বেসরকারি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালের অনুমোদন লাভ করার পর করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া শুরু করে। তবে র‍্যাব গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে প্রতিষ্ঠানটি রোগীদের নমুনা পরীক্ষা ছাড়াই রিপোর্ট প্রদান করে। এরপর র‍্যাব অভিযান চালিয়ে এর সত্যতা পায়। এ ঘটনায় র‍্যাব বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় প্রতারণাসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করে। রিজেন্ট গ্রুপের অফিস থেকে বিপুল সংখ্যক নমুনা ও অননুমোদিত কিট উদ্ধার করে র‍্যাব।

এ ঘটনায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ এখনও পলাতক। তবে র‍্যাব দাবি করেছে, যেকোনও সময় তাকে গ্রেফতার করা হবে। সে দেশেই আছে।


আরও পড়ুন:

প্রতারণার জগতে সাহেদ আইডল: র‌্যাব

 সাহেদ ও সাবরিনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি

মৌলভীবাজারে খোঁজ মেলেনি সাহেদের 

/এআরআর/এফএএন/এমওএফ/

লাইভ

টপ