রিজেন্ট ও জেকেজি সম্পর্কে তথ্য দিয়েছেন ডা. আবুল কালাম আজাদ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:৫৩, আগস্ট ১৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:০৫, আগস্ট ১৩, ২০২০

দুদকে ডা. আবুল কালাম আজাদ (ছবি: ফোকাস বাংলা)রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজির করোনা পরীক্ষার প্রতারণার অভিযোগ অনুসন্ধানে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে বেলা ৩টা ২০ মিনিট পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘রিজেন্ট ও জেকেজি সম্পর্কে আমি যা জানি তা বলেছি।’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অনিয়ম প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কোনও উত্তর দেননি সাবেক এই মহাপরিচালক। বুধবারের (১২ আগস্ট) মতো আজও নিজের দক্ষতা, যোগ্যতা ও নিষ্ঠার কথা বলেন তিনি। একইসঙ্গে কেউ অপরাধ করলে কঠোর শাস্তি দাবি করেন এবং বলেন, ‘এ বিষয়ে তদন্তে আমি সব ধরনের সহযোগিতা করবো।’

দুদকের পরিচালক শেখ মো. ফানাফিল্লাহ’র নেতৃত্বে অনুসন্ধানকারী দলের সদস্যরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

একই অভিযোগে ১২ আগস্ট স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক পরিচালক ডা. মো. আমিনুল হাসান, উপপরিচালক মো. ইউনুস আলী, ডা. মো. শফিউর রহমান ও গবেষণা কর্মকর্তা ডা. মো. দিদারুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।

এছাড়া নিম্নমানের মাস্ক, পিপিই ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সরঞ্জাম কেনায় অনিয়মের অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদকে ১২ আগস্ট প্রথমদিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করে দুর্নীতি দমন কমিশন। বুধবার (১২ আগস্ট) সকাল ১০টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করেন দুদকের পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে  অনুসন্ধানকারী দলের সদস্যরা।

আরও পড়ুন-

রিজেন্টকাণ্ডে স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজিকে জিজ্ঞাসাবাদ 

নিজেকে নিষ্ঠাবান, দক্ষ ও সফল দাবি স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজির

রিজেন্টের সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতর চুক্তি করে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে

রিজেন্ট নিয়ে বক্তব্য: স্বাস্থ্য মহাপরিচালকের কাছে ব্যাখ্যা দাবি

মন্ত্রণালয়কে ব্যাখ্যা দিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়-অধিদফতর দ্বন্দ্ব: দায় কার?

‘সরল বিশ্বাসে’ করোনা পরীক্ষার অনুমোদন দেয় স্বাস্থ্য অধিদফতর

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের পদত্যাগ

 

/আরজে/এফএস/এমএমজে/

লাইভ

টপ