X
মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩
১৬ মাঘ ১৪২৯
২০ দলীয় জোট

নেতা কানাডায়, রাজনৈতিক কার্যালয়ে বেসরকারি শিক্ষক সমিতির অফিস

সালমান তারেক শাকিল
২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:০০আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩৭
বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শরিক দল হিসেবে আছে সাম্যবাদী দল, বাংলাদেশ পিপলস পার্টি ও ডেমোক্রেটিক লীগ। কিন্তু এই তিন দলের সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক কার্যক্রম প্রায় নেই বললেই চলে। এসব দলের মূল ব্যক্তিদের কেউ আছেন দেশের বাইরে, কেউবা নানান কারণে দীর্ঘদিন ধরে বাসা থেকেই বের হতে পারছেন না। জোট-রাজনীতির ওপর ক্ষোভ দেখাতে দলীয় অফিসমুখী হন না কেউ কেউ। এ কারণে তাদের অফিস থাকলেও ব্যবহারহীন অবস্থায় পড়ে আছে, কোনোটি আবার বন্ধ।
 
সাম্যবাদী দলের কার্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির অফিস!
 
২০১২ সালের এপ্রিলে ১৮ দলীয় জোট গঠনের পর যে দুটি দলের যোগদানের ফলে ২০ দলীয় জোটের রূপ পায় বিএনপি-জোট। সেই দুটি একটি হলো সাম্যবাদী দল (একাংশ)। ২০১৪ সালের ৪ জুন সাম্যবাদী দলের (একাংশ) সাঈদ আহমদসহ পাঁচজন নেতা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তৎকালীন ১৯ দলীয় জোটে যোগদানের সিদ্ধান্ত জানায়। এরপর ২৮ জুন তারা যোগ দেন। ফলে ২০ দলীয় জোটে পরিণত হয় বিএনপি-জোট।
সাম্যবাদী দলের অফিস, ভেতরে পর্দার পেছনে শিক্ষক সমিতির অফিস

২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় নির্বাচনের পর দলের মূল ব্যক্তি সাঈদ আহমেদ প্রথমে আমেরিকা ও পরে কানাডায় চলে যান। তার দল হয়ে যায় গন্তব্যহীন। তবে দলের পলিটব্যুরোর জ্যেষ্ঠ সদস্য নারায়ণগঞ্জের হানিফুল কবির বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘করোনা আসার আগে সাঈদ আহমেদ কানাডায় গেছেন। সেখানে ছেলে-মেয়ে, স্ত্রী-পরিবারের সঙ্গে আছেন তিনি। তার ভাইবোনেরা আমেরিকা-কানাডায় বসবাস করেন। নেতা আমাদের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করেন।’

হানিফুল কবিরের দাবি, ঢাকার সেগুনবাগিচায় বাসদের অফিসের পাশে তাদের দলীয় কার্যালয়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়- ২৬ তোপখানা রোড, সেগুনবাগিচায় একটি দ্বিতল ভবনের দোতলায় সাম্যবাদী দলের নামে একটি রুম নেওয়া আছে। কক্ষের প্রবেশপথে দলের ব্যানার টাঙানো। ভেতরে প্রথম অংশে কয়েকটি চেয়ার ও টেবিল, পেছনে ঝোলানো কেন্দ্রীয় অধিবেশনের একটি ব্যানার। ফ্লোরে বিছিয়ে রাখা হয়েছে তোশক। আশেপাশে অন্য কক্ষগুলোতে কয়েকটি পরিবার বসবাস করে।

গত ১৭ অক্টোবর দুপুরে সেখানে গিয়ে পাওয়া যায় অন্য আরেকজন। নিজেকে শিক্ষক পরিচয় দিয়ে ভদ্রলোক জানান, সাম্যবাদী দলের এই কক্ষে বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি নামে এবং সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কার্যক্রম চলে।

এ প্রসঙ্গে দলটির পলিটব্যুরোর সদস্য কুমিল্লার কাজী মোস্তফা কামাল বাংলা ট্রিবিউনের কাছে দাবি করেন, সাম্যবাদী দলের সম্পাদক সাঈদ আহমেদ কানাডায় বসবাস করছেন। দলের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন হোমিও চিকিৎসক নুরুল ইসলাম।

মোস্তফা কামালের অভিযোগ, সংগঠনের জন্য অর্থ সংগ্রহের শর্তে দলের দায়িত্ব নিলেও পরে উল্টো অর্থ আত্মসাৎ করে কানাডায় চলে গেছেন সাঈদ আহমেদ। সেখানে তিনি রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়ার চেষ্টা করছেন।

মোস্তফা কামালের দাবি, চলতি বছরের শুরুর দিকে সেগুনবাগিচায় অফিস নেওয়া হয়। এখানকার ভাড়ার কিছু অংশ তিনি নিজেও বহন করেছেন। আগে বিজয়নগরের একটি বাড়িতে সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা হতো বলে নিজের দেওয়া তথ্যে যোগ করেন কামাল।
পুরান ঢাকার জনসন রোডে গরীবে নেওয়াজের অফিস, পিপলস পাটির অফিসও এখান থেকে পরিচালিত হয়
‘অফিস নেই, পিপলস লীগের কার্ড ঝুলিয়ে একজন আসেন’
অ্যাডভোকেট গরীবে নেওয়াজ নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ পিপলস লীগের কার্যক্রম নেই। ২০১৩-১৪ সালের পর থেকে অদ্যাবধি দলটির কোনও কার্যক্রম দেখা যায়নি। মহাসচিবের দায়িত্বে রয়েছেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ মাহবুব হোসেন। পেশাগত কাজের সুবাদে চেয়ারম্যান গরীবে নেওয়াজের অফিসটিকেই পার্টি অফিস হিসেবে বলা হয়।জোটের তালিকায়ও রয়েছে এই ঠিকানা।

পুরান ঢাকা জর্জ কোর্ট এলাকায় জনসন রোডের ঘরোয়া হোটেলে ওপরে ‘পিপলস লীগের অফিস’র সরেজমিন চিত্র অবশ্য ভিন্ন।আশেপাশের অনেকেই জানান— পিপলস লীগ নামে কোনও দলের অফিস বর্তমানে সক্রিয় আছে এই ভবনে, এটা তাদের অজানা।

ভবনের নোটারি কাউন্সিলের অফিস সহকারী মিলন আহমেদ বলেন, ‘অনেকদিন আগে বাংলাদেশ পিপলস লীগ নামে একটি পার্টির অফিস এখানে ছিল। এখন মাঝেমাঝে একজন লোক এসে নোটারির আশপাশেই বসে। সপ্তাহ খানেক হলো তাকেও এখন আর দেখা যায় না। বর্তমানে এর কোনও কার্যক্রম এখানে আর নেই।’

৫১/১৩, ঠিকানায় ‘মতিঝিল ঘরোয়া হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট’। একই ভবনের কম্পিউটার অপারেটর মো. সজীব বলেন, ‘আমি তিন বছর ধরে এখানে দোকান করছি। বাংলাদেশ পিপলস লীগ নামে কোনও পার্টির অফিস এখানে ছিল বলে জানা নেই। তবে মাঝে মধ্যে এখানে একজন বয়স্ক লোক আসেন, পিপলস লীগ নামে একটা কার্ড গলায় ঝুলিয়ে রাখতে দেখা যায়।’
পুরান ঢাকায় মতিঝিল ঘরোয়া হোটেলের ওপরে পিপলস পাটির কাজেও ব্যবহার হচ্ছে অ্যাডভোকেট গরীবে নেওয়াজের এই পেশাগত কার্যালয়
এ প্রসঙ্গে দলের চেয়ারম্যান গরীবে নেওয়াজ এ প্রতিবেদককে বলেন,‘কোর্ট-কাচারিতে আমার অফিসটিই দলের অফিস। সেখান থেকে দলের কাজ হয়। আমি অনেক দিন ধরে অসুস্থ, বাসার বাইরে যেতে পারি না। আর দলের কার্যক্রম নেই। অন্যদেরও তো কোনও কার্যক্রম নেই।’

অ্যাডভোকেট গরীবে নেওয়াজ জানান, ২০১৪ সালে সবশেষ তার দলের কাউন্সিল হয়েছিল।
 
আরও পড়ুন:
 
 
 


‘ডেমোক্রেটিক লীগের অফিস দখল হয়ে গেছে’
অধ্যাপক মমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন ডেমোক্রেটিক লীগের মহাসচিব পদে রয়েছেন সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি। ৬/১ এ নয়াপল্টনে দলটির কার্যালয় রয়েছে। যদিও সরেজমিনে গিয়ে এই ঠিকানাই কোনও অফিসই পাওয়া যায়নি।দেখা গেছে নতুন একটি ভবন। কয়েক বছর ধরে রাজনৈতিকভাবে কোনও কর্মসূচি পালন করতে দেখা যায়নি দলটিকে। এই দলটির প্রতিষ্ঠাতা অলি আহাদের মেয়ে ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত। বর্তমানে তিনি দলটির মহিলা আসনে সংসদে প্রতিনিধিত্ব করছেন।

ডেমোক্রেটিক লীগের মহাসচিব সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি বলেন, ‘আমাদের দলের মূল অফিস ছিল ৬/১ নয়াপল্টন। কিন্তু সেটা ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা দখল করে রেখেছে। পরে আমরা ১১-পুরানা পল্টন, ইব্রাহিম ম্যানশনে অফিস নিয়েছি।’

সাইফুদ্দিন জানান, অধ্যাপক মমিনুল হকের মৃত্যুর পর বর্তমানে এহসানুল হক সেলিম ডেমোক্রেটিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

দলের কার্যক্রম সম্পর্কে মনি বলেন, ‘কোনও কার্যক্রম নেই। ঘরোয়াভাবে কাজ চলছে।’

তবে বিএনপির ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, ‘বিএনপি নেত্রীর জন্য জেলে গেলেও ক্ষমতায় থাকলে দলটি জামায়াতকে মন্ত্রিত্ব দেয়, আমাদের এক কাপ চা-ও খেতে দেয় না।’
/জেএইচ/এমওএফ/
সর্বশেষ খবর
সংবাদ প্রকাশের পর কুমিল্লার হাইওয়ে হোটেলে অভিযান
সংবাদ প্রকাশের পর কুমিল্লার হাইওয়ে হোটেলে অভিযান
ভাড়াটে খুনি দিয়ে ভাতিজাকে খুন করান সাইফুল
ভাড়াটে খুনি দিয়ে ভাতিজাকে খুন করান সাইফুল
অভিনেত্রী আঁখির অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক
অভিনেত্রী আঁখির অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক
শীতপ্রবণ তেঁতুলিয়ায় আশ্রয়ণ প্রকল্পে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প
শীতপ্রবণ তেঁতুলিয়ায় আশ্রয়ণ প্রকল্পে বদলে যাওয়া জীবনের গল্প
সর্বাধিক পঠিত
মঞ্চে না দেখে আসাদকে ডেকে পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী
মঞ্চে না দেখে আসাদকে ডেকে পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী
এসআইবিএল থেকে মাহবুব-উল-আলমের পদত্যাগ
এসআইবিএল থেকে মাহবুব-উল-আলমের পদত্যাগ
এনআইডি’র সঙ্গে সমন্বয় করে পাসপোর্ট সমস্যা দ্রুত সমাধানের সুপারিশ
এনআইডি’র সঙ্গে সমন্বয় করে পাসপোর্ট সমস্যা দ্রুত সমাধানের সুপারিশ
রাশিয়ার সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে প্রস্তুত ন্যাটো?
রাশিয়ার সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে প্রস্তুত ন্যাটো?
আলাদা ইউনিট করে রাজউকই পূর্বাচলে নাগরিক সেবা দেবে
আলাদা ইউনিট করে রাজউকই পূর্বাচলে নাগরিক সেবা দেবে