ওয়ালটন ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন ও মাইক্রোওভেন কিনে লাখপতি হওয়ার সুযোগ

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:৫১, জুন ০৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:১৫, জুন ০৮, ২০২০

ওয়ালটনের ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৭’ ঘোষণার আয়োজনে প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাআবারও লাখপতি হওয়ার সুযোগ দিচ্ছে দেশের শীর্ষস্থানীয় ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের ব্র্যান্ড ওয়ালটন। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৭’। এর আওতায় ওয়ালটন ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন এবং মাইক্রোওয়েভ ওভেন কিনলে ক্রেতারা পেতে পারেন ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত পুরস্কার। এছাড়া রয়েছে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার।

এ উপলক্ষে রবিবার (৭ জুন) রাজধানীতে ওয়ালটন করপোরেট অফিসে ছিল ক্যাম্পেইন ঘোষণা প্রদানের অনুষ্ঠান। এবারের প্রতিপাদ্য ‘আবার হবো মিলিয়নিয়ার’। এ আয়োজনে জানানো হয়, সোমবার (৮ জুন) থেকে শুরু হওয়া এ সুযোগ থাকছে কোরবানির ঈদ পর্যন্ত।

অনুষ্ঠানে ছিলেন ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক এমদাদুল হক সরকার, এসএম জাহিদ হাসান, মোহাম্মদ রায়হান, উদয় হাকিম, চিত্রনায়ক আমিন খান ও ড. মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, উপ-নির্বাহী পরিচালক ফিরোজ আলম ও শাহজাদা সেলিম, অতিরিক্ত পরিচালক মিল্টন আহমেদ।

জানা গেছে, যেকোনও ওয়ালটন প্লাজা বা পরিবেশক শোরুম কিংবা অনলাইনে ই-প্লাজা থেকে ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন এবং মাইক্রোওয়েভ ওভেন কিনে মোবাইল নম্বর দিয়ে নিবন্ধন করবেন ক্রেতা। এরপর ফিরতি এসএমএসে তাকে টাকার পরিমাণ অথবা ক্যাশ ভাউচার সম্পর্কে জানিয়ে দেওয়া হবে।

ডিজিটাল নিবন্ধন পদ্ধতিতে ক্রেতার নাম, মোবাইল ফোন নম্বর এবং বিক্রি করা পণ্যের মডেল নম্বরসহ বিস্তারিত তথ্য ওয়ালটনের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এর ফলে ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে ফেললেও দেশের যেকোনও ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত কাক্সিক্ষত সেবা পাবেন গ্রাহকরা। সার্ভিস সেন্টারের প্রতিনিধিরাও গ্রাহকের ফিডব্যাক জানতে পারছেন। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে ১০ লাখ টাকাসহ নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।

ওয়ালটন ফ্রিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্রকৌশলী গোলাম মুর্শেদ বলেন, ‘গত বছর আমাদের ২০ লাখ ফ্রিজ বিক্রি হয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে এ বছর ২৫ লাখ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস দুর্যোগের কারণে স্থবির হয়ে গেছে সব। তারপরও আমাদের আশা, বছরের বাকি সময়ে জীবনযাত্রা স্বাভাবিক থাকলে এ লক্ষ্য পূরণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি আসবে।’

কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে সরকারি নির্দেশনা এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওয়ালটনের বিক্রয় কার্যক্রম চলছে বলে জানান এই প্রকৌশলী। তার কথায়, ‘দুর্যোগে ওয়ালটনের অগণিত ক্রেতা যাতে কিছুটা হলেও উপকৃত হতে পারেন সেজন্য ১০ লাখ টাকাসহ নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে ওয়ালটন।’

ওয়ালটন ফ্রিজের পণ্য ব্যবস্থাপক শহীদুজ্জামান রানা জানান, স্থানীয় বাজারে তাদের দেড় শতাধিক মডেলের ফ্রস্ট, নন-ফ্রস্ট, ডিপ ফ্রিজ ও বেভারেজ কুলার রয়েছে। দাম ১০ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে ৬৯ হাজার ৯০০ টাকার মধ্যে। এছাড়া আছে আকর্ষণীয় ডিজাইনের গ্লাস ডোর এবং ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির বিএসটিআই’র ‘ফাইভ স্টার’ এনার্জি রেটিংপ্রাপ্ত ডিজিটাল ডিসপ্লেসমৃদ্ধ সাশ্রয়ী মূল্যের ফ্রিজ। এসব ফ্রিজ স্ট্যাবিলাইজার ছাড়াই নিশ্চিন্তে চলে।
প্রতিষ্ঠানটির দাবি, ইনভার্টার প্রযুক্তির ৫৬৩ লিটারের সাইড বাই সাইড গ্লাস ডোরের নন-ফ্রস্ট রেফ্রিজারেটর সবশ্রেণির গ্রাহকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। শিগগিরই বাজারে আসছে ডিজিটাল ডিসপ্লে সমৃদ্ধ ৫৮০ লিটারের সাইড বাই সাইড ডোরের আরেকটি ফ্রিজ। নগদ মূল্যের পাশাপাশি শূন্য সুদে ইএমআই ও সহজ কিস্তির সুবিধায় কেনা যাবে ওয়ালটন ফ্রিজ।
এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধার পাশাপাশি ফ্রিজের কম্প্রেসরে ১২ বছরের গ্যারান্টি দিচ্ছে ওয়ালটন। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারাদেশে রয়েছে তাদের ৭৪টি সার্ভিস সেন্টার।

ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্রকৌশলী আল ইমরান মনে করেন, করোনাভাইরাস মহামারিতে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ওয়াশিং মেশিন এবং মাইক্রোওয়েভ ওভেন জরুরি দুটি গৃহস্থালি পণ্য। সেজন্য দুর্যোগপূর্ণ সময়ে ক্রেতাদের পণ্য দুটিতে সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। তিনি জানান, বর্তমানে বাজারে রয়েছে ওয়ালটনের ১৩ মডেলের সেমি অটোমেটিক এবং অটোমেটিক টপ এবং ফ্রন্ট লোডিং ওয়াশিং মেশিন। ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এসব মেশিনের দাম ৬ হাজার ৯০০ টাকা থেকে ৪৫ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে।
ক্যাম্পেইন ও ঈদ উপলক্ষে অত্যাধুনিক ফিচারের নতুন দুই মডেলের ওয়াশিং মেশিন বাজারে ছাড়া হয়েছে। ওয়ালটনের অটোমেটিক ফ্রন্ট লোডিং ওয়াশিং মেশিনে রয়েছে হট ওয়াটার ওয়াশ সুবিধা, যাতে ৯৫ ডিগ্রি পর্যন্ত গরম পানিতে কাপড় পরিষ্কার করা যায়। ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনে গ্রাহকরা সর্বোচ্চ ৭ বছর পর্যন্ত মোটর ওয়ারেন্টি পাচ্ছেন।

এছাড়া বর্তমানে বাজারে রয়েছে ৯ মডেলের ওয়ালটন মাইক্রোওয়েভ ওভেন। দাম পড়বে ৬ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে ১৯ হাজার ০০০ টাকার মধ্যে। এতে মাছ-মাংস ডিফ্রস্ট থেকে শুরু করে সহজেই স্বাস্থ্যকর খাবার তৈরি করা যায়।

অনলাইনে দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে সারাদেশে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে ওয়ালটন। গত বছর এর চতুর্থ সিজনে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে অসংখ্য গ্রাহক ১০ লাখ টাকা করে পেয়েছেন। বাকি সিজনগুলোতে নতুন গাড়ি, আমেরিকা ও রাশিয়া ভ্রমণের ফ্রি বিমান টিকিট, ৫ লাখ টাকা এবং ১ লাখ টাকা ছাড়াও ক্রেতারা ক্যাশ ভাউচার, মোটরসাইকেল, ফ্রিজ, টিভি, এসিসহ বিভিন্ন ওয়ালটন পণ্য ফ্রি পেয়েছেন।

 

/জেএইচ/
টপ