প্রিয়জনদের রাজি করিয়েই পাকিস্তান যাচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:১১, জানুয়ারি ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫৬, জানুয়ারি ২১, ২০২০

সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহমুশফিকুর রহিম আর মাহমুদউল্লাহ নিকটাত্মীয়, সম্পর্কে ভায়রা-ভাই। মুশফিক পাকিস্তানে যেতে পরিবারের সদস্যদের সমর্থন পাননি। অথচ মাহমুদউল্লাহ যাচ্ছেন অধিনায়ক হিসেবে। শুরুতে অবশ্য তার প্রিয়জনরাও রাজি হচ্ছিলেন না। অনেক কষ্টে, বুঝিয়ে-শুনিয়ে তাদের রাজি করিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ।

আজ সফর-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বলেছেন, ‘পরিবারের সদস্যদের বোঝাতে খুব কষ্ট হয়েছে। তারা পাকিস্তান সফর নিয়ে ভীষণ চিন্তিত ছিল। আমি তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বুঝতে পেরেছেন এবং রাজি হয়েছেন। একদিক দিয়ে আমি কিছুটা নিশ্চিন্ত, আমার পরিবার তেমন স্ট্রেস ফিল করবে না। কারণ পাকিস্তান আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিচ্ছে। মুশির (মুশফিক) সিদ্ধান্তকে আমি সমর্থন করি। পরিবার একটা বড় ইস্যু। পরিবারের চেয়ে বড় ইস্যু আর হতে পারে না। মুশফিকের সিদ্ধান্তের প্রতি আমার পূর্ণ সমর্থন আছে।’

পাকিস্তান সফরের পক্ষে-বিপক্ষে অনেক কথাই হচ্ছে। সব কথা দূরে সরিয়ে মাঠের লড়াইয়ে মনোযোগ দিতে চান মাহমুদউল্লাহ, ‘এই মুহূর্তে শুধু বলতে পারি, দলের কেউই এটা (পাকিস্তান সফর) নিয়ে চিন্তিত নয়। যেহেতু সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে, তাই  আমাদের খেলতে হবে, ভালো পারফর্ম করতে হবে। আমরা শুধু খেলার কথাই চিন্তা করছি। কীভাবে ওখানে গিয়ে ভালো পারফর্ম করে জিততে পারবো সেটাই শুধু ভাবছি।’

এটা মাহমুদউল্লাহর তৃতীয় পাকিস্তান সফর। প্রথমবার গিয়েছিলেন ২০০৮ সালের এপ্রিলে, পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে। তার দু মাস পর পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপেও বাংলাদেশ দলে ছিলেন। পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে পাকিস্তানের উইকেট নিয়ে তার বিশ্লেষণ, ‘আমাদের দলের কয়েক জনের পাকিস্তানে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। উপমহাদেশের মধ্যে, তাই পাকিস্তানের উইকেট সম্পর্কে আমার কিছুটা হলেও ধারণা আছে। সেখানকার উইকেট ব্যাটসম্যানদের জন্য বেশ কঠিন। পাকিস্তানে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে। নইলে বড় স্কোর গড়া সম্ভব হবে না।’

/আরআই/এএআর/

লাইভ

টপ