গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই শেষ আটে আকবররা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:২১, জানুয়ারি ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৩০, জানুয়ারি ২৪, ২০২০

বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে ম্যাচ। পাকিস্তানের সঙ্গে মাহমুদউল্লাহরা পারেননি। একই পরিণতি হতে পারতো আকবরদেরও। তবে বৃষ্টির আশীর্বাদে সেটা আর হয়নি। দুইবার বৃষ্টির বাধায় গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়। ফলে  ৩ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলো লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। অনূর্ধ্ব-১৯ যুব বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা!

আফগানিস্তানের সঙ্গে হেরে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা শুরু করেছিল টুর্নামেন্ট। পরে অবশ্য কানাডার সঙ্গে জিতে ২ ম্যাচে এক জয়ে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় অবস্থানে তারা। শনিবার আরব আমিরাতের বিপক্ষে জিতলেই ‘ডি’ গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করবে প্রোটিয়ারা। তবে হেরে গেলে আরব আমিরাত কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ হয়ে যাবে আরব আমিরাত। আফগানিস্তানের সঙ্গে হারলেও আরব আমিরাতের সঙ্গে পা হড়কানোর সম্ভবানা ক্ষীণই বলা চলে। এই গ্রুপ থেকে ইতিমধ্যে চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে আফগানিস্তান।

শুক্রবার বৃষ্টির কারণে এমনিতেই ম্যাচটি গড়ায় কার্টেল ওভারে। নির্ধারিত ৩৭ ওভারের ম্যাচের কঠিন কন্ডিশনে টস হেরে ব্যাটিং করাটাও ছিলো চ্যালেঞ্জের। সেই চ্যালেঞ্জ উৎরাতে পারেনি বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটাররা। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা বাংলাদেশকে রক্ষা করে ফের বৃষ্টিই। ২৫ ওভারে ৯ উইকেট ১০৬ রান তুলতেই ফের বৃষ্টি নামে। শেষ পর্যন্ত বৃষ্টি না কমায় ম্যাচটি আর মাঠে গড়ায়নি।

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ইনিংস খেলেন ওপেনার তানজিদ হাসান। ৩৫ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে তামিম তার ৩৪ রানের ইনিংসটি সাজিয়েছেন। মৃত্যুঞ্জয়ের বদলি হিসেবে সুযোগ পাওয়া অভিষেক দাস খেলেন ২০ রানের ইনিংস। শাহাদাত হোসেন ১৬ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।

পাকিস্তানের বোলারদের মধ্যে আমির খান সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া আব্বাস আফ্রিদি নিয়েছেন তিনটি উইকেট এবং আমির আলী নিয়েছেন একটি উইকেট।

/আরআই/পিকে/

লাইভ

টপ