শ্রীলঙ্কা সফরে সাকিবকে পাওয়ার আশা বিসিবি সভাপতির

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৪৬, আগস্ট ১৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫৩, আগস্ট ১৫, ২০২০

প্রায় একবছর ক্রিকেটের বাইরে থাকা সাকিব আল হাসানকে শ্রীলঙ্কা সফরেই পাওয়ার আশা করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান। ম্যাচ পাতানোর তথ্য গোপন করে নিষিদ্ধ হওয়া সাকিব আগামী ২৯ অক্টোবর ফিরতে পারবেন মাঠে।

২৮ অক্টোবর সাকিবের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ পূর্ণ হবে। এদিকে মুশফিক-তামিমদের শ্রীলঙ্কা সফর শুরু হবে ২৪ অক্টোবর প্রথম টেস্ট দিয়ে। দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হতে হতে নভেম্বর। ততদিনে সাকিবের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। এই অবস্থায় শ্রীলঙ্কা সিরিজেই সাকিবের খেলার সুযোগ তৈরি হয়েছে। বিসিবি সভাপতি নাজমুলও বাঁহাতি অলরাউন্ডারকে শ্রীলঙ্কা সিরিজে পাওয়ার আশা করছেন।

আজ (শনিবার) মিরপুরে সংবাদমাধ্যমকে নাজমুল বলেছেন, ‘সাকিবের সঙ্গে কী কথা হলো, সেটা বলবো না। যখনই তার নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে তারপরই সে আমাদের সঙ্গে খেলতে পারবে। তখন থেকেই তাকে পাওয়া যাবে। আমরা সবাই অধীরে আগ্রহে বসে আছি কবে সে ফিরবে।’

আইসিসির শর্ত অনুযায়ী, নিষেধাজ্ঞাকালীন বোর্ডের কোনও প্রক্রিয়ায় সঙ্গে সাকিব যুক্ত হতে পারবেন না। ফলে বিসিবির সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করে অনুশীলন করতে পারবেন না তিনি। তবে ভিন্নভাবে বোর্ড সাকিবকে সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন নাজমুল, ‘আমাদের কিছুর সঙ্গে সে থাকতে পারবে না। ও যদি পাড়ায় ক্রিকেট খেলতে যায় খেলতে পারবে। উদাহরণ হিসেবে বললাম। আমাদের কোনও ফিজিও তাকে ওয়ান টু ওয়ান দেখতে পারে।’

তবে সাকিবকে খেলতে হলেও ফিটনেস পরীক্ষার মাধ্যমেই আসতে হবে বলে জানালেন বিসিবি প্রধান, ‘সাকিব ওর মতো করে অনুশীলন করবে। এ মাসেই সে দেশে আসবে এবং অনুশীলন শুরু করবে। আশা করছি সে ফিট থাকবে এবং আমাদের সঙ্গে শ্রীলঙ্কায় যোগ দেবে এবং খেলতে পারবে। আমরা এখন থেকেই তাকে দেখবো। আমরা তার ফিটনেস টেস্টও নেবো। হঠাৎ করে গিয়েই তো খেলতে পারবে না। এজন্যে তাকে সেভাবেই প্রস্তুতি নিতে হবে।’

নাজমুল সংবাদমাধ্যমের কাছে সাকিবের ব্যাপারে একটি অনুরোধও রাখলেন, ‘আপনাদের কাছে অনুরোধ এই সময়টাতে ওকে (সাকিব) নিয়ে খুব বেশি নিউজ করতে যাবেন না। কারণ ওর শর্তের মধ্যে এটাও আছে যে খেলাধুলা নিয়ে এমন কিছু করা যাবে না, যা মিডিয়ায় আসবে।’

এদিকে শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার আগে প্রতিটি খেলোয়াড়ের করোনা টেস্ট করানো হবে বলে আগেই জানিয়েছে বিসিবির স্বাস্থ্যবিভাগ।

/আরআই/কেআর/

লাইভ

টপ