এবার শোয়েবের গতির রেকর্ডে চোখ নর্কিয়ার

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:১৩, অক্টোবর ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৫, অক্টোবর ১৭, ২০২০

আইপিএলের দ্রুততম ডেলিভারির পর আরও বড় স্বপ্ন আনরিখ নর্কিয়ারএকটুর জন্য ছুঁতে পারেননি ব্রেট লি। তার মতো অস্ট্রেলিয়ান আরেক পেসার শন টেইটও তুলেছিলেন ঘণ্টায় ১৬১.১ কিলোমিটার গতি। শোয়েব আখতারের গড়া ১৬১.৩ কিমি গতির রেকর্ডটা তাই এখনও অক্ষুন্ন রয়ে গেছে। তবে সাবেক পাকিস্তানি গতিদানবের গতির রেকর্ডে এবার চোখ পড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকান এক পেসারের। নাম আনরিখ নর্কিয়া। ‍দুই দিন আগেই যিনি আইপিএল ইতিহাসের সবচেয়ে দ্রুততম ডেলিভারিটি করেছেন। এখন তিনি পেরোতে চান শোয়েবের গতি!

গত বৃহস্পতিবার আইপিএলের সর্বোচ্চ গতির বল করেছেন নর্কিয়া, ঘণ্টায় ১৫৬ কিমি গতিতে। দিল্লি ক্যাপিটালসের জার্সিতে ভারতীয় টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতাটি মাতানো প্রোটিয়া পেসার আরও গতি চাইছেন বোলিংয়ে। হতে চান বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম পেসার। এজন্য চোখ রেখেছেন শোয়েবের রেকর্ডের ওপর। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গড়েছিলেন রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস।

রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে টুর্নামেন্টের সবচেয়ে গতিময় ডেলিভারি করার পর নর্কিয়া সাক্ষাৎকার দিয়েছেন দিল্লি সতীর্থ রবিচন্দ্রন অশ্বিনের কাছে। ইউটিউব চ্যানেলে দেওয়া এই সাক্ষাৎকারে প্রোটিয়া পেসার শোনালেন শোয়েবের রেকর্ড ভাঙার লক্ষ্যের কথা, ‘আশা করছি এটা (দ্রুততম ডেলিভারি) একসময় আমার হবে এবং এটা আমি খুব করে চাই। হয়তো ভালো উইকেট, সঠিক কম্বিনেশন থাকলে এবারের আইপিএলে কিংবা ভবিষ্যতে হয়তো হবে।’

আইপিএলের দ্রুততম ডেলিভারি করলেও তাৎক্ষণিক জানতে পারেননি নর্কিয়া। এজন্য কিছুটা আক্ষেপ আছে তার, ‘ম্যাচ শেষ না হওয়ার আগপর্যন্ত আমি জানতামই না ১৫৬ কিমি গতির কথা। অবশ্যই স্কোরবোর্ডে এমন কিছু ছিল না। এটা জানতে পারেলে আরও ভালো করার তাড়না থাকতো। তবে আমার কোনও ধারণা ছিল না।’

সংযুক্ত আরব আমিরাতের আইপিএলে নর্কিয়ার সঙ্গে গতিঝড় তুলেছেন তার জাতীয় দল ও দিল্লি সতীর্থ কাগিসো রাবাদা এবং রাজস্থানের ইংলিশ পেসার জোফরা। এই পেসার ত্রয়ীকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন প্রোটিয়া গতিদানব ডেল স্টেইন। নর্কিয়ার ডেলিভারির আগে তিনিই ছিলেন আইপিএলের সবচেয়ে দ্রুততম বোলার। ২০১২ সালের আসরে রেকর্ডটি গড়েছিলেন ঘণ্টায় ১৫৪.৫ কিমি বেগে বল করে।

টুইটারে প্রোটিয়া পেসার লিখেছেন, ‘কেজি (কাগিসো রাবাদা), (জোফরা) আর্চার ও আনা (নর্কিয়া)। ওদের ম্যাচ আমি সরাসরি উপভোগের সুযোগ পেয়েছি। গতিঝড় তাদের দুর্দান্ত। এই জন্তুরা পেসারদের প্রতিযোগিতায় প্রভাব বিস্তার করছে।’

/কেআর/

লাইভ

টপ