‘ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রধান লক্ষ্য তরুণদের দক্ষতা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:২৮, অক্টোবর ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৩০, অক্টোবর ২০, ২০২০

জুনাইদ আহমদ পলকতথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, তারুণ্যের মেধা ও প্রযুক্তির শক্তি কাজে লাগিয়ে উন্নত বাংলাদেশ গড়তে হবে।  তিনি উল্লেখ করেন, দেশের ৭০ শতাংশ জনগোষ্ঠীর বয়স ৩৫ বছরের নিচে, তারাই ভবিষ্যৎ উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার শক্তিশালী হাতিয়ার।

প্রতিমন্ত্রী মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে এসওএস চিলড্রেন্স ভিলেজ বাংলাদেশের উদ্যোগে ইয়ুথক্যান’র উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রধান লক্ষ্য তরুণদের দক্ষতা ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা উল্লেখ করে পলক বলেন, ‘দেশের ৬৪টি জেলায় ২০২৫ সালের মধ্যে শেখ কামাল আইটি ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন করা হবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এসওএস ভিলেজের সদস্যদের প্রযুক্তি জ্ঞান আহরণের লক্ষ্যে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব, স্কুল অব ফিউচার ও ইনকিউবেশন সেন্টারের কাছাকাছি সাতটি এসওএস ভিলেজের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করে দেওয়া হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য অর্জনে ইতোমধ্যে এ সেক্টরে গত ১১ বছরে ১০ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে।  ২০২১ সালের মধ্যে আরও ১০ লাখসহ মোট ২০ লাখ কর্মসংস্থান আইটি সেক্টরে নিশ্চিত করা হবে।’  এছাড়া সাড়ে ৬ লাখ আইটি ফ্রিল্যান্সার ৩০০ মিলিয়ন ডলারের বেশি আয় করে বাংলাদেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ করছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।  তিনি বলেন, ‘আইসিটি বিভাগের লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের মাধ্যমে এসওএস ভিলেজের সদস্যদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষণের সুযোগ সৃষ্টি করে দেওয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন এসওএস’র ন্যাশনাল ডিরেক্টর ড. মোহাম্মদ এনামুল হক, এসওএস গ্লোবালের ম্যানেজার ইউ এগার, এসওএস এর ইন্টারন্যাশনাল রিপ্রেজেন্টেটিভ রাজনিস জেন প্রমুখ।

প্রতিমন্ত্রী পরে ইয়ুথক্যান’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

 

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

লাইভ

টপ