X
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

মারমা দুই বোনের ছবি ফেসবুকে, তদন্ত করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বলবে মানবাধিকার কমিশন

আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৮:৪৪

মারমা দুই বোনের ছবি রাঙামাটির এসপির ফেসবুকে দেওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বলবে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কমিশনের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানিয়েছেন জনসংযোগ কর্মকর্তা ফারহানা সাঈদ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়, রাঙামাটিতে যৌন নির্যাতনের শিকার মারমা সম্প্রদায়ের দুই বোনের পিতা উচ্চ আদালতে তাদেরকে নিজের জিম্মায় নেওয়ার আবেদন করলে উচ্চ আদালত তাদেরকে পিতার জিম্মায় হস্তান্তর করার জন্য নির্দেশ দেন।
গণমধ্যমে জানা যায়, ‘গত ১৫ ফেব্রুয়ারি তাদেরকে হাসপাতাল থেকে তাদের পিতা নিজের জিম্মায় নিতে গেলে তারা ভবিষ্যৎ নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কায় হাসপাতাল থেকে যেতে রাজি হননি। চাকমা সার্কেল চিফ দেবাশিষ রায়ের স্ত্রী ইয়েন ইয়েনের উপস্থিতিতে পিতা-মাতার সঙ্গে মেয়েদের এ নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয়। পরবর্তীতে সিভিল সার্জন মেয়েদেরকে তাদের পিতার কাছে হস্তান্তর করেন। তারপর থেকে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না মর্মে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়।’
‘যেহেতু স্পর্শকাতর ঘটনাটি শুরু থেকেই কমিশন পর্যবেক্ষণ করছে এবং আমলে নিয়েছে তাই উদ্ভূত পরিস্থিতিতে করণীয় নির্ধারণের জন্য রবিবার দুপুর ১২ টায় কমিশন কার্যালয়ে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হকের সভাপতিত্বে বিশেষ কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন কমিশনের সদস্য মো. নজরুল ইসলাম, নুরুন নাহার ওসমানী, বাঞ্ছিতা চাকমা, এনামুল হক চৌধুরী এবং কমিশনের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা।
সভায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেগুলো হচ্ছে, ‘ঘটনা অনুসন্ধানের জন্য ৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং ভুক্তভোগী ও সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে সাক্ষাৎ ও আলোচনাপূর্বক আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবেন। কমিটির আহ্বায়ক হচ্ছেন, কমিশনের সদস্য এবং রাঙামাটি সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বাঞ্ছিতা চাকমা। প্রতিনিধিদলের অন্য দুজন সদস্য হলেন কমিশনের পরিচালক (অভিযোগ ও তদন্ত) এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. শরীফ উদ্দীন এবং উপ-পরিচালক (অভিযোগ ও তদন্ত) মো. গাজী সালাউদ্দিন। উক্ত প্রতিনিধিদলের প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর প্রকৃত অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার লক্ষ্যে সরকারকে প্রয়োজনীয় সুপারিশ পাঠানো হবে।’
গত ১৬ ফেব্রুয়ারি রাঙামাটির পুলিশ সুপার (এসপি) নিজ ফেসবুকে যৌন নির্যাতনের শিকার দুই বোনের ছবি, নাম, পরিচয়, পিতা-মাতার নাম প্রকাশ করেছেন মর্মে গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। বিষয়টি গ্রহণযোগ্য নয় মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়। এ বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোড়ন তৈরি এবং জনমনে প্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বলা হবে।
জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেন, ‘গত ২৪ জানুয়ারি মারমা সম্প্রদায়ের দুই বোন যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়ার ঘটনাটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর কমিশন তাৎক্ষণিকভাবে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে আমলে নিয়ে ২৫ জানুয়ারি রাঙামাটির জেলা প্রশাসককে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত-পূর্বক ২৬ ফেব্রুয়ারি মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়। এছাড়াও, কমিশনের পক্ষ থেকে সদস্য বাঞ্চিতা চাকমা রাঙামাটি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দুই বোনের সঙ্গে সাক্ষাৎপূর্বক আলোচনা করেন।’
তিনি আরও বলেন, ‘মারমা মেয়েদের যৌন নির্যাতনের ঘটনায় প্রকৃত অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার লক্ষ্যে কমিশন আইন অনুযায়ী সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।’

/ জেইউ/এআর/

সম্পর্কিত

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

মিরপুরে স্কুলশিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মিরপুরে স্কুলশিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৭

শুল্ক ফাঁকি দিয়ে স্বর্ণ ‘চোরাচালান করতে গিয়ে’ ধরা পড়েছেন এক সৌদি আরব প্রবাসী। ২ কেজি ৯০০ গ্রাম স্বর্ণবারসহ মোহাম্মদ রিপন নামের ওই প্রবাসীকে আটক করে কাস্টম হাউজের প্রিভেন্টিভ দল।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ যাত্রীকে আটক করা হয় বলে জানান ঢাকা কাস্টম হাউজের ডেপুটি কমিশনার (প্রিভেন্টিভ) মো. সানোয়ারুল কবীর।

আটককৃত স্বর্ণের আনুমানিক বাজার মূল্য ২ কোটি টাকা উল্লেখ করে সানোয়ারুল কবীর জানান, শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অভিযান চালিয়ে সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট থেকে এক যাত্রীকে আটক করা হয়। যাত্রীর হাতে থাকা হুডি জ্যাকেটের হাতা থেকে স্বর্ণবারগুলো পাওয়া যায়। ফ্লাইটটি রাত ১১টা ১২ মিনিটের দিকে অবতরণ করে।

পাসপোর্ট অনুসারে যাত্রীর নাম মোহাম্মদ রিপন। আটককৃত যাত্রীর বিরুদ্ধে কাস্টমস আইনের সংশ্লিষ্ট ধারা ও বিধি মোতাবেক ফৌজদারি মামলা দায়ের করে থানায় হস্তান্তর করা হবে বলেও জানান এই কাস্টমস কর্মকর্তা।

/সিএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

মিরপুরে স্কুলশিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মিরপুরে স্কুলশিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

রাজধানীতে ধর্ষণের শিকার ৭ বছরের শিশু

রাজধানীতে ধর্ষণের শিকার ৭ বছরের শিশু

গার্মেন্টস পণ্য চুরি

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০০

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে একের পর এক গার্মেন্ট পণ্য চুরির ঘটনায় উদ্বিগ্ন পোশাক রফতানিকারকরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট অভিযান চালিয়ে একাধিক চক্রকে গ্রেফতার করলেও থামানো যাচ্ছে না চুরি। পণ্যের চালান বিদেশি ক্রেতার কাছে পৌঁছার পরই মূলত ঘটনা জানাজানি হয়। যাতে গার্মেন্ট কারখানা মালিকদের জরিমানা গোনার পাশাপাশি নষ্ট হচ্ছে দেশের সুনামও। এই অবস্থায় চুরি ঠেকাতে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কাভার্ডভ্যানে বাধ্যতামূলক জিপিএস বসানোসহ মহাসড়কে সিসিটিভি ক্যামেরাও বসানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে গত ১৩ জুলাই পোশাক রফতানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে হাইওয়ে পুলিশের প্রধান অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মল্লিক ফখরুল ইসলামকে প্রধান করে একটি কমিটি করা হয়। এরপরই উদ্যোগী হয় হাইওয়ে পুলিশ।

কমিটির সদস্য সচিব পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট) মোশারফ হোসেন মিয়াজী বলেন, ‘নানামুখী উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। শিগগিরই চুরি নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে। এ সংক্রান্ত নীতিমালা চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়াও চলছে।’

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, গার্মেন্টস পণ্য চুরিতে মূলত কাভার্ডভ্যানের চালকরাই জড়িত থাকে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকায় রীতিমতো গোডাউন ভাড়া করে চোরাই পণ্য রাখে চক্রের সদস্যরা। কোনও কাভার্ডভ্যান যেন মহাসড়ক ছেড়ে আশপাশের গোডাউনে ঢুকতে না পারে সেজন্য জিপিএস সিস্টেম চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে গার্মেন্টস মালিকদেরও এ বিষয়ে জানানো হচ্ছে। জিপিএস প্রযুক্তি লাগানো থাকলে কাভার্ডভ্যানটি অন্য পথে যাচ্ছে কিনা বা কোথাও দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকছে কিনা তা নজরদারি করা যাবে।

হাইওয়ে পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, জিপিএসের পাশাপাশি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ৪৯০টি পয়েন্টে অত্যাধুনিক সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হবে। এক কিলোমিটার পর পর বিভিন্ন দিকে তাক করা মোট ১৫৯০টি সিসিটিভি ক্যামেরা থাকবে। হাইওয়ে পুলিশের কন্ট্রোল রুম থেকে পুরো বিষয়টি নজরদারি করা হবে। এতে মহাসড়কে সংঘটিত অন্য অপরাধও নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা জানান, কমিটির সভায় আরও কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গার্মেন্ট কারখানা থেকে কাভার্ডভ্যানে পণ্য ওঠানোর আগে চালকের ছবি তুলে রাখা এবং মোবাইল নম্বরসহ বিস্তারিত তথ্য সংরক্ষণ করা হবে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর আরেক কর্মকর্তা জানান, চুরির বিষয়ে গার্মেন্ট কারখানা মালিকদেরও কিছু অবহেলা রয়েছে। কোটি কোটি টাকার পণ্য পাঠানোর সময় পরিবহনের সঙ্গে একজন প্রতিনিধি পাঠানো হলেও চুরি কিছুটা ঠেকানো যেতে পারে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ চালকের ওপর ভরসা করে পণ্য বন্দরে পাঠানোর ঝুঁকি নিচ্ছেন।

হাইওয়ে পুলিশের কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার রহমত উল্লাহ বলেন, ‘মহাসড়কে আমরা নিয়মিত টহল দিয়ে থাকি। আশা করছি চুরির ঘটনা শূন্যের কোঠায় নিয়ে আসা যাবে।’

সম্প্রতি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ গার্মেন্ট পণ্য চুরি চক্রের হোতাসহ সাত জনকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে চক্রের সদস্যরা জানিয়েছে, অনেক কাভার্ডভ্যান চালক কারখানায় যাওয়ার আগে গাড়ির নম্বর প্লেট বদলে ভুয়া ড্রাইভিং লাইসেন্সের কপি দিয়ে আসে। যাতে চুরির পর চালককে শনাক্ত না করা যায়।

বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইমমুভার পণ্য পরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব চৌধুরী জাফর আহম্মদ বলেন, ‘আমরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও গার্মেন্ট কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বসে যৌথভাবে একটি নীতিমালা করছি। এটি বাস্তবায়ন হলে চুরি ঠেকানো যাবে।’

তিনি বলেন, ‘কাভার্ডভ্যান ভাড়া নেওয়ার আগে ওই চালক বা গাড়ির মালিক অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য কিনা তা নিশ্চিত হওয়া এবং চালক কোনও ইউনিয়নের সদস্য কিনা তা নিশ্চিত হতে হবে। সেক্ষেত্রে চুরি হলে চালককে শনাক্ত করা সহজ হবে। আরও কিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আশা করছি সবাই মিলে চুরি ঠেকাতে পারবো।’

 

 

/এফএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪৫

চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ, এমন পূর্বাভাস দিয়েছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক-এডিবি।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) এডিবির ঢাকা কার্যালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এডিবি জানায়, শিল্প খাতে শক্তিশালী পুনরুদ্ধারের কারণে এমন প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে বাংলাদেশ। এছাড়া বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার হচ্ছে এবং সরকারি উৎপাদন-বান্ধব নীতিমালার কারণে জিডিপি প্রবৃদ্ধি বাড়বে। এ বছর মূল্যস্ফীতি হতে পারে ৫ দশমিক ৮ শতাংশ।

এডিবি তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে, প্রবৃদ্ধি ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে বর্তমানের প্রধান চ্যালেঞ্জ হচ্ছে করোনাভাইরাস মহামারি। এই অভিঘাত মোকাবিলা করেও বিদায়ী ২০২০-২১ অর্থবছরে বাংলাদেশ ৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছিল। এর মধ্যে শিল্প কারখানা ও রফতানি খাত ঘুরে দাঁড়ানোয় চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে সরকার জিডিপি প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন করেছে ৭ শতাংশের বেশি। দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি বিবেচনায় নিয়ে এশীয় ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকও মনে করে, বাংলাদেশ এই অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধির ইতিবাচক ধারায় ফিরবে।

এডিবির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এডিবি বাংলাদেশে তার কর্মসূচির অগ্রাধিকার পুনর্বিন্যাস করেছে। স্বাস্থ্য ও সামাজিক সুরক্ষা, দক্ষতা এবং গ্রামীণ উন্নয়ন, পানি ও স্যানিটেশন এবং অর্থ খাতের ওপর জোর দিচ্ছে। ২০২০ সালের প্রথম দিকে কোভিড-১৯ মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে সামাজিক সুরক্ষা, কর্মসংস্থান, ভ্যাকসিন সংগ্রহ এবং জরুরি ব্যবস্থাপনার জন্য ১ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার অনুমোদিত হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ বলেন, ‘জীবিকা রক্ষায় জীবন বাঁচানোর জন্য সরকারের নীতিগুলো বাংলাদেশের পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করেছে, যা সাম্প্রতিক কঠিন সময়ে প্রশংসনীয় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বজায় রাখা বিশ্বের কয়েকটি দেশের মধ্যে একটি। বিচক্ষণ সামষ্টিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা, উদ্দীপক ব্যবস্থা এবং সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির দক্ষ বাস্তবায়ন বাংলাদেশের এ অবস্থায় টিকে থাকতে সাহায্য করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য অব্যাহত প্রচেষ্টা, দ্রুত ভ্যাকসিন দেওয়া এবং অভ্যন্তরীণ সম্পদ সংগ্রহের উন্নতি পুনরুদ্ধারের প্রক্রিয়াকে আরও ত্বরান্বিত করবে।’

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

বৃহস্পতিবারের সমাবেশ স্থগিত

বৃহস্পতিবারের সমাবেশ স্থগিত

অর্থমন্ত্রীর মন্তব্যের জবাব দিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রীর মন্তব্যের জবাব দিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

‘ইন্টারনেট নির্ভরতার সঙ্গে বাড়ছে ডিজিটাল অপরাধ’

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪০

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ইন্টারনেট নির্ভরতা যতবেশি তৈরি হচ্ছে ডিজিটাল অপরাধ ততবেশি বাড়ছে। তা প্রতিরোধে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহণ অপরিহার্য। ডিজিটাল অপরাধ শনাক্ত ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ডিজিটাল প্রযুক্তি দিয়েই করতে হবে, প্রচলিত পুলিশিং পদ্ধতিতে তা সম্ভব নয়। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সম্মিলিত উদ্যোগে কাজ করার পাশাপাশি জনগণের মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিষয়ে ব্যাপক সচেতনতা তৈরির বিকল্প নেই।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশের (আইইবি) কম্পিউটার কৌশল বিভাগের উদ্যোগে আইইবি সদর দফতরের কাউন্সিল হলে ‘নিরাপদ ইন্টারনেট: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে ভার্চুয়ালি যুক্ত থেকে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, দেশে ১১ কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। তাদের মধ্যে খুব সামান্য মানুষ প্রযুক্তির সাথে খাপ খাওয়ানোর দক্ষতা রাখেন। মাত্র কয়েক বছর আগেও ডিজিটাল নিরাপত্তা বলতে কোনও প্রযুক্তি কিংবা অন্য কোনও কৌশল ছিল না। ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সাইবার থ্রেড ডিটেকশন ও রেসপন্স কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এর ফলে ইতোমধ্যে ২২ হাজার পর্ন সাইট এবং ৪ হাজার জুয়ার সাইটসহ আপত্তিকর সাইট বন্ধ করা হয়েছে।

ক্ষতিকর বেশ কিছু গেম বন্ধ করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ফেসবুক ও ইউটিউবসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ক্ষতিকর কন্টেন্ট বন্ধ করার প্রযুক্তি পৃথিবীর কোনও দেশই আবিষ্কার করতে পারেনি। তবে আমাদের দৃঢ় প্রচেষ্টায় তাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করার ফলে আমরা আজ কিছুটা সুফল পাচ্ছি। তারা এক সময় মত প্রকাশের স্বাধীনতা কিংবা তাদের কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড দোহাই দিয়ে যে বিষয়গুলো এড়িয়ে যেতে চাইতো এখন সে ক্ষেত্রে পরিবর্তন এসেছে। তারা আমাদের দেশে এখন ভ্যাট-ট্যাক্স দিচ্ছে দিয়ে ব্যবসা করছে, আমাদের যে কোনও অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে।

ডিজিটাল অপরাধ দমনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাগুলো দক্ষতার সাক্ষর রাখছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তাদের আরও বেশি দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে, সারাদেশে তাদের সংখ্যা বাড়াতে হবে।

অনুষ্ঠানে আইইবি কম্পিউটার কৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. তমিজ উদ্দীন আহমেদের সভাপতিত্বে এবং সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সঞ্জয় কুমার নাথের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবং আইইবি’র প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর, আইইবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট (এইচআরডি) ইঞ্জিনিয়ার মো. নুরুজ্জামান এবং টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও আইইবি'র কেন্দ্রীয় কাউন্সিল সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মো. সাহাব উদ্দিন। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন, আইইবি’র সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু)। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সিটিটিসি’র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার ইঞ্জিনিয়ার সাইদ নাসিরুল্লাহ।

 

/এসএস/এমআর/

সম্পর্কিত

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৫১

অবশেষে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসীদের জন্য করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, আগামী ৩ দিনের মধ্যেই ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ হতে পারে। ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ল্যাব স্থাপনের কাজে সহায়তা করছে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তৌহিদ-উল আহসান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ল্যাব স্থাপনের জন্য জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ শুরু করেছে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিমানবন্দরের পার্কিং ভবনের ছাদে ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হলেও তাতে আপত্তি ছিল ল্যাব স্থাপনে অনুমোদন পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর। এই সংকট নিরসন ও নতুন স্থান নির্ধারণের বিষয়ে বিমানবন্দরে এসেছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।  তারা বিমানবন্দরের ভেতরে জায়গা নির্ধারণ করে দেন। টার্মিনাল ভবনের দ্বিতীয় তলার উত্তর পাশে যাত্রীদের কাছ থেকে স্যাম্পল নেওয়া হবে। নিচ তলায় ল্যাবে পরীক্ষা করা হবে। ইতোমধ্যে ৬টি প্রতিষ্ঠানকে ল্যাব স্থাপনের জায়গা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ১৫ সেপ্টেম্বর সাতটি প্রতিষ্ঠানকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার আরটি-পিসিআর ল্যাব বসাতে অনুমোদন দেয় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রনালয়। এই প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে— স্টেমজ হেলথ কেয়ার (বিডি) লিমিটেড ঢাকা, সিএসবিএফ হেলথ সেন্টার, এএমজেড হাসপাতাল লিমিটেড, আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল, গুলশান ক্লিনিক লিমিটেড ও ডিএমএফআর মলিকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক।

এরমধ্যে জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল ল্যাব স্থাপনের কাজ থেকে সরে এসেছে।

/সিএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ: এডিবি

বৃহস্পতিবারের সমাবেশ স্থগিত

বৃহস্পতিবারের সমাবেশ স্থগিত

অর্থমন্ত্রীর মন্তব্যের জবাব দিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রীর মন্তব্যের জবাব দিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

গার্মেন্টস পণ্য চুরিকাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

‘সর্ব রোগের মহৌষধ’ বলে প্রতারণা: ১৭ জন গ্রেফতার

মিরপুরে স্কুলশিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মিরপুরে স্কুলশিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

রাজধানীতে ধর্ষণের শিকার ৭ বছরের শিশু

রাজধানীতে ধর্ষণের শিকার ৭ বছরের শিশু

রাসেল-শামীমার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা: যা আছে এজাহারে

রাসেল-শামীমার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা: যা আছে এজাহারে

ইভ্যালির সম্পত্তি বিক্রি ও হস্তান্তরে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

ইভ্যালির সম্পত্তি বিক্রি ও হস্তান্তরে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ায় আল আমিনকে খুন করে ডায়মন্ড

প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ায় আল আমিনকে খুন করে ডায়মন্ড

রাজধানীতে ফের ভিওআইপি সরঞ্জাম উদ্ধার, একজন গ্রেফতার

রাজধানীতে ফের ভিওআইপি সরঞ্জাম উদ্ধার, একজন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ী থেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের নাহিদ গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ী থেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের নাহিদ গ্রেফতার

সর্বশেষ

পিএসজিকে শেষ মুহূর্তে জেতালেন হাকিমি

পিএসজিকে শেষ মুহূর্তে জেতালেন হাকিমি

করোনার টিকাকে ‘বৈশ্বিক জনস্বার্থ সামগ্রী’ ঘোষণার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

করোনার টিকাকে ‘বৈশ্বিক জনস্বার্থ সামগ্রী’ ঘোষণার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

জ্যাকেটের হাতায় ২৫টি স্বর্ণবার, সৌদি প্রবাসী আটক

কাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

গার্মেন্টস পণ্য চুরিকাভার্ডভ্যানে জিপিএস, মহাসড়কে সিসিটিভি

গৃহকর্মে নিয়োজিত শিশুদের জন্য নাদিয়া

গৃহকর্মে নিয়োজিত শিশুদের জন্য নাদিয়া

© 2021 Bangla Tribune