X
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

আর্মেনিয়ার মিসাইল হামলায় ২১ জন নিহত: আজারবাইজান

আপডেট : ২৯ অক্টোবর ২০২০, ২২:৫২
image

বুধবার রাতে আজারবাইজান দাবি করেছে, আর্মেনিয়ার একাধিক মিসাইল হামলায় নাগোরনো-কারাবাখ সীমানায় তাদের একটি গ্রামে অন্তত ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে বহু মানুষ। আর্মেনিয়া এই দাবি অস্বীকার করেছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও মার্কিন বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

রাশিয়ার মধ্যস্থতায় দুই দফা অস্ত্রবিরতি ভেস্তে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে গত ২৫ অক্টোবর (রবিবার) যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় তৃতীয়বার যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব গ্রহণ করে বিবদমান দুই রাষ্ট্র। তবে আগের দুই দফার মতো করেই যুদ্ধবিরতি প্রস্তাব গ্রহণ করার কয়েক মিনিটের মধ্যেই ফের যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে দুটি দেশ। উভয়েই পরস্পরের বিরুদ্ধে চুক্তি ভেঙে আগে হামলার অভিযোগ করে।

বুধবার রাতের দিকে আজারবাইজান সরকারের মুখপাত্র দাবি করেন, আর্মেনিয়া আজারবাইজানের বিভিন্ন ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা লক্ষ্য করে লাগাতার মিসাইল হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। হামলায় নাগোরনো-কারাবাখের কাছে একটি অঞ্চলে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ৭০ জন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে।

আর্মেনিয়া অবশ্য আজারবাইজানের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তারা জানিয়েছে, আজারবাইজানের ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা লক্ষ্য করে মিসাইল হামলা চালানো হয়নি। বস্তুত, এর আগেও আর্মেনিয়ার বিরুদ্ধে একই অভিযোগ উঠেছিল। আজারবাইজান জানিয়েছিল, তাদের একাধিক শহর লক্ষ্য করে হামলা চালাচ্ছে আর্মেনিয়া। আর্মেনিয়া সে কথাও অস্বীকার করেছিল। কিন্তু সংবাদকর্মীদের লেন্সে উঠে এসেছিল গ্যাঞ্জাসহ আজারবাইজানের একাধিক শহরের ভয়াবহতার দৃশ্য।

এদিন আর্মেনিয়া আজারবাইজানের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ এনে বলেছে, নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলে জনবসতিপূর্ণ এলাকায় মিসাইল আক্রমণ চালিয়েছে আজারবাইজান। তবে আর্মেনিয়ার তরফে হতাহতের কোনও নির্দিষ্ট সংখ্যা জানানো হয়নি।

/এফইউ/বিএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

১৫ হাজার বছর পুরনো ভাইরাসের সন্ধান

১৫ হাজার বছর পুরনো ভাইরাসের সন্ধান

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২০:৩২
image

উইকিলিবস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব প্রত্যাহারের পক্ষে রায় দিয়েছে ইকুয়েডরের একটি আদালত। সোমবার আদালতে এই রায়ের মাধ্যমে বাতিল হয়েছে তার নাগরিকত্ব। তবে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটিতে অ্যাসাঞ্জের আইনজীবী কার্লোস পোভেদা। মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএন এর প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ প্রত্যর্পণ এড়াতে প্রায় সাত বছর লন্ডনে ইকুয়েডরের দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে কাটান। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে তাকে নাগরিকত্ব প্রদান করেন ইকুয়েডরের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট লেনিন মোরেনো।

২০১৯ সালের এপ্রিলে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রত্যাহার করে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ব্রিটিশ পুলিশের হাতে তুলে দেয় ইকুয়েডর। ওইদিনই তাকে জামিন শর্ত ভঙ্গের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে ব্রিটিশ আদালত। তখন থেকে বেলমার্শ নামক কুখ্যাত কারাগারে সাজা ভোগ করছেন অ্যাসাঞ্জ। এরইমধ্যে তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি কম্পিউটার হ্যাক ও গুপ্তচর আইন লঙ্ঘনসহ ১৮টি অভিযোগ দায়ের করা হয়। মার্কিন প্রশাসন তাকে বিচারের মুখোমুখি করতে চায়। ব্রিটিশ পুলিশও অ্যাসাঞ্জকে হেফাজতে নিয়েই জানিয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ইকুয়েডরের রাজধানী কুইটোর প্রশাসনিক আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, ইকুয়েডরে বাস করতে ব্যর্থ হওয়াসহ অ্যাসাঞ্জের ক্ষেত্রে নাগরিকত্ব আইনের বেশ কিছু লঙ্ঘন হয়েছে। এছাড়া অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব অনুমোদনের সময় কর্মকর্তারা অনিয়ম করেছিলেন।

অ্যাসাঞ্জের আইনজীবী কার্লোস পোভেদা জানিয়েছেন, আদালতের রায় বাতিল করতে একটি আবেদন দাখিল করবেন তিনি। এই মামলায় হাজির হওয়ার অনুমতি অ্যাসাঞ্জের ছিল না বলেও জানান তিনি।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

হাইতির প্রেসিডেন্ট খুনের ঘটনায় নিরাপত্তা প্রধান গ্রেফতার

হাইতির প্রেসিডেন্ট খুনের ঘটনায় নিরাপত্তা প্রধান গ্রেফতার

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

ছাগল ধর্ষণ নিয়ে পাকিস্তানে তোলপাড়

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২০:২৭

পাকিস্তানের ওকারা শহরে একটি ছাগলকে ধর্ষণ পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িত সন্দেহে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এদের গ্রেফতারে অভিযান নেমেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, শহরের সাতঘরা এলাকায় ছাগলটিকে ধর্ষণ এবং হত্যা করে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। আজহার হোসেন নামের এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, তার পোষা ছাগলটিকে কয়েকজন মিলে যৌন নিপীড়ন ও নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করে।

ছাগলটির মৃতদেহ উদ্ধার করে পশু হাসপাতালে পাঠানো হলে ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, ছাগলটি তার ঘরের সামনে বাঁধা ছিল। অভিযুক্তরা ফাঁকা স্থানে নিয়ে ছাগলটিকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশের কাছে তিনজনের নামে অভিযুক্ত করেন মালিক। বাকিরা অজ্ঞাতনামা।

পাকিস্তানের দণ্ডবিধির ৪২৯ ও ৩৭৭ ধারায় মামলা হয়েছে। ৪২৯ ধারা অনুযায়ী কোন প্রাণীকে হত্যা, আহত কিংবা বিকলাঙ্গ করা হলে দশ হাজার টাকা জরিমানা কিংবা দুই বছরের কারাদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে। দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী, কেউ যদি কোন পুরুষ, মহিলা কিংবা প্রাণীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করে তবে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পর্যন্ত হতে পারে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

জিন্স প্যান্ট পরায় ভারতে কিশোরীকে পিটিয়ে হত্যা

জিন্স প্যান্ট পরায় ভারতে কিশোরীকে পিটিয়ে হত্যা

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে দুই রাজনৈতিক কর্মী নিহত

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে দুই রাজনৈতিক কর্মী নিহত

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৯:৪২
image

করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকার মধ্যে বিধিনিষেধ শিথিল কেন করা হয়েছে মালয়েশিয়ার সরকারের কাছে তার ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। বিরোধী নেতারা বলছেন, বিধিনিষেধ শিথিলের বিষয়ে তাদের কিছু জানানো হয়নি। জনগণের এর প্রভাব কি হতে পারে তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মালয়েশিয়ায় এখন পর্যন্ত দশ লাখেরও বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া আট হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন পরীক্ষার পরিমাণ কম হওয়ায় আক্রান্ত ও মৃতের প্রকৃত সংখ্যা অনেক বেশি। দেশটির হাসপাতালগুলো রোগীতে উপচে পড়ছে। সম্প্রতি প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে রোগীরা চেয়ারে বসে অক্সিজেন সিলিন্ডার ভাগাভাগি করছেন।

মালয়েশিয়ায় বর্তমানে জরুরি অবস্থা চলছে। আগামী ১ আগস্ট এর মেয়াদ শেষ হবে। আর তারপরে আর এই মেয়াদ বাড়ানো হবে না। সরকারের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধী দলগুলো। ডেমোক্র্যাটিক অ্যাকশন পার্টির ডেপুটি চেয়ারম্যান গোবিন্দ সিং দেও মঙ্গলবার পার্লামেন্ট অধিবেশনে বলেন, ‘আমাদের কেন জানানো হয়নি? এই সিদ্ধান্ত কার?’

মালয়েশিয়ায় বর্তমানে প্রতিদিন প্রায় ১৪ হাজার রোগী শনাক্ত হচ্ছে। মঙ্গলবার দেশটিতে রেকর্ড ২০৭ জনের মৃত্যু হয়। হাসপাতালগুলো রোগী ফিরিয়ে দিচ্ছে। এমনকি ভর্তি করলেও তাদের শয্যা পাওয়ার নিশ্চয়তা দেওয়া হচ্ছে না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বর্তমানে প্রচলিত বিধিনিষেধ যথেষ্ট নয়। এতে পরিস্থিতির উন্নতি হবে না। তারপরেও প্রচলিত বিধিনিষেধের কারণে দেশটিতে অর্থনৈতিক সংকট তৈরি হচ্ছে। বিশেষ করে দিনমজুর ও নিম্ন আয়ের মানুষের উপর এর প্রভাব মারাত্মক। সাহায্য চেয়ে অনেকেই বাড়ির বাইরে সাদা পতাকা ওড়াচ্ছেন।

/জেজে/

সম্পর্কিত

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

১৫ হাজার বছর পুরনো ভাইরাসের সন্ধান

১৫ হাজার বছর পুরনো ভাইরাসের সন্ধান

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৯:৩৮

বিধিনিষেধ এখনই শিথিল করা হলে করোনার ভ্যাকসিন প্রতিরোধী নতুন নতুন স্ট্রেইন তৈরি হওয়ার আশঙ্কা করে সতর্ক করেছেন গবেষকরা। লকডাউন প্রত্যাহারে সংক্রমণ আরও বিস্তার ঘটবে বলে উদ্বেগ জানিয়েছেন তারা। ব্রিটেনের ইনিভার্সিটি অব অ্যাংলিয়া এবং আর্লহাম ইনস্টিটিউট-এর গবেষকদের প্রকাশিত নিবন্ধনে এমন শঙ্কার কথা জানা গেছে।

মঙ্গলবার ব্রিটেনের এক নিবন্ধনে উল্লেখ করা হয়েছে, করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে দেশে দেশে যে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ রয়েছে তা এখনই প্রত্যাহার করা হচ্ছে। কিন্তু এমন পদক্ষেপকে আত্মঘাতী বলছেন গবেষকরা। গবেষণায় বলা হয়েছে, সময়ের আগেই শিথিলতায় করোনার নতুন স্ট্রেইন তৈরি হবে। ফলে ভ্যাকসিনের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক হয়ে উঠবে বলে সতর্ক করা হচ্ছে।

গবেষকরা বলছেন, ' বিধিনিষেধ শিথিলতায় ভাইরাস জনসাধারণের মধ্যে আরও ছড়িয়ে পড়তে সাহায্য করবে। আরও শক্তিশালী হয়ে পড়বে। ফলে বাজারে যে কোভিড প্রতিরোধী ভ্যাকসিন রয়েছে তা কার্যকর হারাতে পারে’।

বিজ্ঞানীদের মতে, বিশ্বব্যাপী টিকা দেওয়ার অসামঞ্জস্য থাকায় করোনার নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্ট সৃষ্টির ঝুঁকি রয়েছে। পরিসংখ্যানে জানা গেছে, বিশ্বের মাত্র ১৪ শতাংশ মানুষ করোনা প্রতিরোধে দুই ডোজ টিকা নিতে সক্ষম হয়েছেন।

গবেষকরা চিহ্নিত করেছেন নতুন ভ্যারিয়েন্টে শিশুরাও আক্রান্ত হওয়ার অধিক ঝুঁকিতে রয়েছে। কারণ যুক্তরাজ্যেসহ অনেক দেশেই শিশুদের টিকাদান শুরু করতে পারেনি।

ইউরোপের মধ্যে আয়ারল্যান্ড সর্বশেষ দেশ যারা ১২ বছরের কম বয়ী শিশু-কিশোরদের ভ্যাকসিনের আওতায় আনতে কাজ শুরু করেছে।

ডেল্টা ও আলফা ভ্যারিয়েন্ট দাপট দেখাচ্ছে বিশ্বে। বিশেষ করে অতিসংক্রমণশীল ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে বহু মানুষ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

ব্রাজিলে করোনায় এক হাজার গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

ব্রাজিলে করোনায় এক হাজার গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

আগস্টে শিশুদের টিকা দেওয়া শুরু করছে ভারত

আগস্টে শিশুদের টিকা দেওয়া শুরু করছে ভারত

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

আমি জ্যোতিষী নই: মমতা

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৩
image

পেগাসাস স্ক্যান্ডাল নিয়ে ভারতের বিরোধী দলগুলোর নেতাদের বৈঠকে যোগ দেননি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তবে পরে এক সংবাদ সম্মেলনে স্পষ্ট করে বলেছেন, এই ইস্যুতে যেকোনও সংগ্রামে সামনের সারিতে থাকবেন তিনি। আর এতে ভারতের সব দলগুলোরই ঐক্যবদ্ধ হওয়া উচিত। সেই ঐক্যের নেতৃত্ব দেবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি রাজনৈতিক জ্যোতিষী নই। পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে। অন্য কেউ নেতৃত্ব দিলে আমার কোনও সমস্যা নেই।’ সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

২০১৯ সাল থেকে ১৭টি দেশের সংবাদমাধ্যম মিলে ‘দ্য পেগাসাস প্রজেক্ট’ নামের একটি প্ল্যাটফর্ম থেকে ইসরায়েলি স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে ফোনে নজরদারির বিষয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে। গত ২১ জুলাই এই অনুসন্ধানের ভিত্তিতে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এতে উঠে আসে দুনিয়াজুড়ে নজরদারির শিকার হয়েছেন মানবাধিকার কর্মী, রাজনীতিক, সাংবাদিক, আইনজীবীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সদস্যরা। ভারতের বেশ কয়েক জন বিরোধী দলীয় নেতার ফোনে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আড়িপাতা হয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে।

পেগাসাস স্ক্যান্ডাল নিয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরুর চেষ্টায় রয়েছে বিরোধীরা। তারই অংশ হিসেবে বিরোধী দলগুলোর বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই বৈঠকে যোগ না দিলেও তাদের প্রতি সমর্থনের কথা জানান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঐক্যবদ্ধ বিরোধী দলের মুখ হবেন কিনা জানতে চাইলে মমতা বলেন, ‘আমি একজন সাধারণ কর্মী, কর্মী হিসেবেই কাজ চালিয়ে যেতে চাই।’

বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে দীর্ঘ মেয়াদে পরিকল্পনার প্রয়োজনের দিকে ইঙ্গিত করে মমতা জানান, পার্লামেন্ট অধিবেশনের পর তিনি এই বিষয়ে ভালোভাবে কাজ শুরু করবেন। তিনি বলেন, ‘আমি গতকাল লালু প্রসাদ যাদবের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা সব দলের সঙ্গেই কথা বলবো।’ চলমান দিল্লি সফরে তিনি কংগ্রেস নেতা সোনিয়া গান্ধী এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গেও কথা বলবেন বলেও জানান মমতা।

পশ্চিমবঙ্গের সর্বশেষ নির্বাচনে ব্যাপক জয় পেয়ে ভারতের বিরোধী দলগুলোর কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘এক সঙ্গে কাজ করার একটি সাধারণ প্লাটফর্ম থাকা দরকার। বিরোধী সব রাজনৈতিক দলকেই একসঙ্গে কাজ করতে হবে। আমরা সবাই একসঙ্গে বসবো আর কিছু একটা উপায় বের করবো।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

আগস্টে শিশুদের টিকা দেওয়া শুরু করছে ভারত

আগস্টে শিশুদের টিকা দেওয়া শুরু করছে ভারত

জিন্স প্যান্ট পরায় ভারতে কিশোরীকে পিটিয়ে হত্যা

জিন্স প্যান্ট পরায় ভারতে কিশোরীকে পিটিয়ে হত্যা

সর্বশেষ

শিশুদের প্রোগ্রামিং ও গণিত শিক্ষায় গুরুত্ব দিতে হবে: মোস্তাফা জব্বার

শিশুদের প্রোগ্রামিং ও গণিত শিক্ষায় গুরুত্ব দিতে হবে: মোস্তাফা জব্বার

১০ দিনে শনাক্ত ১ লাখ রোগী

১০ দিনে শনাক্ত ১ লাখ রোগী

রাজধানীতে কলেজছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

রাজধানীতে কলেজছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

ঢাকায় সরকারি আইসিইউ বেড ফাঁকা মাত্র ৯টি

ঢাকায় সরকারি আইসিইউ বেড ফাঁকা মাত্র ৯টি

একদিনে ঢাকা বিভাগে শনাক্ত ৮২৭১ জন

একদিনে ঢাকা বিভাগে শনাক্ত ৮২৭১ জন

ছাগল ধর্ষণ নিয়ে পাকিস্তানে তোলপাড়

ছাগল ধর্ষণ নিয়ে পাকিস্তানে তোলপাড়

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এডিপির ৪৪টি প্রকল্পের অগ্রগতি ৯৫ ভাগ

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এডিপির ৪৪টি প্রকল্পের অগ্রগতি ৯৫ ভাগ

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

জ্বালানি ১০৪ আর বিদ্যুৎ ৯৭ ভাগ এডিপি বাস্তবায়ন করেছে

জ্বালানি ১০৪ আর বিদ্যুৎ ৯৭ ভাগ এডিপি বাস্তবায়ন করেছে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

মোদির কাছে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের কথা তুললেন মমতা

১৫ হাজার বছর পুরনো ভাইরাসের সন্ধান

১৫ হাজার বছর পুরনো ভাইরাসের সন্ধান

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

এক সপ্তাহে ৯০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ককে টিকা দিয়েছে ভুটান

এক সপ্তাহে ৯০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ককে টিকা দিয়েছে ভুটান

দোষী সাব্যস্ত হলেন হংকংয়ের বিতর্কিত আইনের প্রথম অভিযুক্ত

দোষী সাব্যস্ত হলেন হংকংয়ের বিতর্কিত আইনের প্রথম অভিযুক্ত

বিশ্বের সবচেয়ে বড় নীলকান্তমণিগুচ্ছের সন্ধান, দাম ৮৪৬ কোটি টাকা

বিশ্বের সবচেয়ে বড় নীলকান্তমণিগুচ্ছের সন্ধান, দাম ৮৪৬ কোটি টাকা

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

তালেবানের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

করোনা টিকার মিশ্র ডোজ নিয়ে গবেষণায় সুখবর

করোনা টিকার মিশ্র ডোজ নিয়ে গবেষণায় সুখবর

© 2021 Bangla Tribune