সেকশনস

ঘর 'আপন' হওয়ার আগে আগলে রাখছেন তারা

আপডেট : ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০২:৩৪

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংরী ইউনিয়নের গাভা গ্রামে তৈরি হচ্ছে একসঙ্গে ১০০টি বাড়ি। সেখানে একটি বাড়ি পেয়েছেন আসমা। প্রায় ৩-৪ কিলোমিটার দূর থেকে প্রতিদিন আসেন সেখানে বাড়িটি দেখভাল করতে। শুধু দেখভাল নয়, বাড়ির সিমেন্ট মজবুত রাখার জন্য প্রতিদিন পানি দেন তিনি।

শুধু আসমাই নন, এই গ্রামে বাড়ি যারাই পেয়েছেন তারা প্রত্যেকেই নিজের বাড়ি নিজেই দেখভাল করছেন। নিজেরাই ঝাড়ু দিয়ে বাড়ি পরিষ্কারের পাশাপাশি নির্মাণ কাজ তদারকি করেন এবং পানি দেওয়ার প্রয়োজন হলে তাও দিচ্ছেন নিয়মিত।

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি- ক্ষুধামুক্ত-দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা বিনির্মাণে ‘বাংলাদেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’। সেই লক্ষ্যে সরকারের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায়ে ৬৯ হাজার ৯০৪ ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে ঘর দিচ্ছে সরকার। শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একযোগে সবার হাতে ঘর তুলে দেবেন।

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সাতক্ষীরার ৭টি উপজেলায় এক হাজার ১৪৮টি বাড়ি নির্মাণ হবে উপহারের আওতায়। শনিবার একসঙ্গে ৬৬ হাজার ১৮৯টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ খাস জমির মালিকানা দিয়ে বিনা পয়সায় দুই কক্ষবিশিষ্ট ঘর মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী প্রদান করবেন।

গুচ্ছ পদ্ধতিতে তৈরি গাভা গ্রামের এই বাড়িগুলোর সামনে গিয়ে দেখা যায়, প্রত্যেকেই তাদের ঘরের সামনে উপস্থিত আছেন। কেউ বসে কাজ দেখছেন, কেউবা পানি দিচ্ছেন। তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নির্মাণ কাজের শুরু থেকেই তারা তদারকি করছেন। এমনকি মেঝে সমান করতে মাটি ভরাটের কাজটিও তারা নিজ উদ্যোগে করেছেন।

আসমা জানান, ঘর পাওয়ার আগে তিনি চরের মতো জায়গায় কুঁড়েঘরে বাস করতেন। সেই জায়গা নতুন ঘর থেকে প্রায় ৩-৪ কিমি দূরে। প্রতিদিন এখানে আসেন ঘর দেখভাল করার জন্য। কাজ শেষ হওয়ার অপেক্ষায় তিনি প্রহর গুনছেন। তাছাড়া ঘরের দেয়াল আর মেঝে মজবুত রাখার জন্য পানি দেওয়ার কাজটিও তিনি দিনে দুইবার করেন।

একই গ্রামে ১০-১২ বছর ধরে কাঁচা ঘরে বাস করতেন সন্ন্যাসী। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর পাচ্ছেন তিনিও। পরিবারসহ ঘরের কাজের তদারকি করেন তিনি। তাছাড়া সবাই মিলে পানিও দিয়েছেন।

প্রায় ৭০ বছর বয়স্ক রেজাউল ঘর পাওয়ার পর থেকে সারাদিন সেখানেই অতিবাহিত করেন। রেজাউল জানান, তার দুই সন্তানসহ চার সদস্যের পরিবার আছে। বড় ছেলে বিয়ে করে স্ত্রীসহ আলাদা থাকে। আর রেজাউলের সঙ্গে থাকে তার ছোট ছেলে এবং তার স্ত্রী। বয়সের কারণে খুব একটা কাজ তিনি করতে পারেন না। কোনও মতে দিন চলে তার।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সরকার ঘরটা দেবে বইলে শুনলাম। এরপর চেয়ারম্যানের কাছে বললাম একটা ঘরের কথা। এক সময় ফেরিওয়ালার কাজ করলেও এখন করতে পারি না। সরকার একটা বাড়ি দিছে, এতেই আমার জীবন কাটি যাবে। এই বাড়িতে আমার আর ১০ টাকার জিনিসও ঢুকাবার ক্ষমতা নেই। যদি ছেলের বেতন বাড়ে, তাতে যদি কিছু হয়। তাছাড়া আমার দিয়ে আর কিছু হবে না। এই ঘরের পেছনে আমি অনেক খাটছি। নষ্ট হয়ে গেলে ঠিক করার আর পয়সা থাকবে না। মিস্ত্রিরা বলছে বেশি করে পানি দিতে, তাতে ভালো থাকবে। এই ঘর হওয়ার পর থেকে এক মাসেও এই জায়গা থেকে সরি নাই।

সারক্ষীরার জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সাতক্ষীরার ৭টি উপজেলায় সরকারের বরাদ্দ থেকে ঘর তৈরি করা হয়েছে। এখানে সর্বোচ্চ মান নিশ্চিত করা হয়েছে। সিমেন্ট, কাঠ এবং ঢেউটিনের ক্ষেত্রেও একই মান নিশ্চিত করা হয়েছে। এই জেলার ইট ব্যবসায়ীরা আমাদেরকে সাশ্রয়ী মূল্যে ভালো মানের ইট দিয়েছেন। আমরা যেসব সুবিধাভোগী চিহ্নিত করেছিলাম, এখানে শুরু থেকেই প্রত্যেকে তাদের ঘরের সঙ্গেই ছিলেন। তারা নিজেরাই এই ঘরগুলো পানি দিয়ে কিউরিং করেছেন। প্রত্যেকটি ঘর তারা নিজেরাই দেখভাল করছেন।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, সাতক্ষীরা ছাড়াও ২১টি জেলার ৩৬টি উপজেলায় ৪৪টি প্রকল্প গ্রামে ৭৪৩টি ব্যারাক নির্মাণের মাধ্যমে তিন হাজার ৭১৫টি পরিবারকে ব্যারাকে পুনর্বাসন করা হবে।

আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে পাওয়া তথ্যে আরও জানা গেছে, ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবার পুনর্বাসনের লক্ষ্যে ১৯৯৭ সালে আশ্রয়ণ নামে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়, যা প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে। এ প্রকল্পের আওতায় ১৯৯৭ সাল থেকে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ৩ লাখ ২০ হাজার ৫২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০২০ সালের জুনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও জেলা প্রশাসকদের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৮ লাখ ৮৫ হাজার ৬২২টি পরিবারের তালিকা করা হয়।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কেশবপুরে প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোটগ্রহণ

কেশবপুরে প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোটগ্রহণ

ঘাটতি নেই, তবু চালের দাম বাড়ছেই

ঘাটতি নেই, তবু চালের দাম বাড়ছেই

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

বন্যপ্রাণীর বিলুপ্তি ও অবৈধ বাণিজ্য ঠেকাতে গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বশীলতা জরুরি

বন্যপ্রাণীর বিলুপ্তি ও অবৈধ বাণিজ্য ঠেকাতে গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বশীলতা জরুরি

কুষ্টিয়া ও পটুয়াখালীতে দুই গৃহবধূর লাশ

কুষ্টিয়া ও পটুয়াখালীতে দুই গৃহবধূর লাশ

গাইবান্ধায় ৪ পুলিশ হত্যার ৮ বছর, শেষ হয়নি বিচার কাজ

গাইবান্ধায় ৪ পুলিশ হত্যার ৮ বছর, শেষ হয়নি বিচার কাজ

রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট

রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট

খাদ্য গুদাম থে‌কে উধাও গরিবের ১৮৫ মেট্রিকটন চাল!

খাদ্য গুদাম থে‌কে উধাও গরিবের ১৮৫ মেট্রিকটন চাল!

‘আইনের অপপ্রয়োগ আপেক্ষিক ব্যাপার’

‘আইনের অপপ্রয়োগ আপেক্ষিক ব্যাপার’

ভাসানচরে যাচ্ছে ওআইসি’র প্রতিনিধি দল

ভাসানচরে যাচ্ছে ওআইসি’র প্রতিনিধি দল

সর্বশেষ

কেশবপুরে প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোটগ্রহণ

কেশবপুরে প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোটগ্রহণ

হবিগঞ্জে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে চলছে ভোটগ্রহণ 

হবিগঞ্জে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে চলছে ভোটগ্রহণ 

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ট্রিলিয়ন ডলারের ‘করোনা তহবিল বিল’ পাস

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ট্রিলিয়ন ডলারের ‘করোনা তহবিল বিল’ পাস

যুক্তরাষ্ট্রে জনসনের এক ডোজের ভ্যাকসিন অনুমোদন

যুক্তরাষ্ট্রে জনসনের এক ডোজের ভ্যাকসিন অনুমোদন

ঘাটতি নেই, তবু চালের দাম বাড়ছেই

ঘাটতি নেই, তবু চালের দাম বাড়ছেই

যোগ্যতানুসারে হিজড়াদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে

যোগ্যতানুসারে হিজড়াদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

কালীগঞ্জ পৌরসভায় নির্বিঘ্নে ভোট দেওয়ার পরিবেশ চান প্রার্থীরা

কালীগঞ্জ পৌরসভায় নির্বিঘ্নে ভোট দেওয়ার পরিবেশ চান প্রার্থীরা

বন্যপ্রাণীর বিলুপ্তি ও অবৈধ বাণিজ্য ঠেকাতে গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বশীলতা জরুরি

বন্যপ্রাণীর বিলুপ্তি ও অবৈধ বাণিজ্য ঠেকাতে গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বশীলতা জরুরি

মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে মসজিদের সম্পত্তি দখলচেষ্টার অভিযোগ

মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে মসজিদের সম্পত্তি দখলচেষ্টার অভিযোগ

পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট

রাত পোহালেই ২৯ পৌরসভায় ভোট

‘আইনের অপপ্রয়োগ আপেক্ষিক ব্যাপার’

‘আইনের অপপ্রয়োগ আপেক্ষিক ব্যাপার’

আরও ৩ কোটি ডোজ টিকা আনা হবে

আরও ৩ কোটি ডোজ টিকা আনা হবে

‘ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার’ ভোটের আশা করছেন ইসি সচিব

‘ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার’ ভোটের আশা করছেন ইসি সচিব

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক শুরু

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক শুরু

‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ’

‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ’

টিকা নিলেন প্রায় ৩০ লাখ মানুষ

টিকা নিলেন প্রায় ৩০ লাখ মানুষ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.