X
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কক্সবাজার সৈকতে মানুষের ঢেউ: রুম নেই, রাত কাটছে বালিয়াড়িতে

আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:৪৪

মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও সাপ্তাহিক টানা তিন দিনের ছুটিতে বিপুল পরিমাণ পর্যটকের সমাগম হয়েছে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে। হঠাৎ পর্যটকের ঢল নামায় হোটেলগুলোতে আগেই বুক হয়ে যায় সবগুলো কক্ষ। বাধ্য হয়ে বাকিদের সৈকতের বালিয়াড়ি ও বাসে রাত্রি যাপন করতে হয়েছে। এ সুযোগে একটি চক্র অসাধু ব্যবসায় নেমেছে। কেউ কেউ সৈকতের আশেপাশে বাসাবাড়িতে রুম ভাড়া দিয়ে আদায় করছে বাড়তি টাকা। তবে ট্যুরিস্ট পুলিশ দাবি করছে, রাতে তারা সৈকতে নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছে এবং অন্য সমস্যাগুলো  প্রতিরোধে কাজ করছে।

গত বৃহস্পতিবারের পর থেকে কক্সবাজারমুখী হয়ে উঠে বিপুল পরিমাণ পর্যটক। এদিন এবং এরপর শুক্রবারে কক্সবাজারের ৪ শতাধিক হোটেল-মোটেল এমনভাবেই ভরে গেছে যে চড়া দামেও রুম পাওয়া যাচ্ছে না। বাধ্য হয়ে সৈকতের বালিয়াড়িতে রাত যাপন করছেন বেশিরভাগ পর্যটক। আবার যারা নিজেরা বাস রিজার্ভ করে ভ্রমণে এসেছেন তাদের রাত কেটেছে বাসের ভেতরেই। গভীর রাতেও সৈকতে মশার ভনভনানির মধ্যেও গিজগিজ করছিল পর্যটক।

করোনা পরিস্থিতির পর কক্সবাজারের এমন চিত্র একেবারেই অন্যরকম। হোটেল কক্ষগুলোতে দুই লাখ পর্যটকের সংস্থান হয়, আর তিন দিনের ছুটিতে এসেছেন অন্তত ৬ লাখ। (শনিবারের ছবি)

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান জানান, ‘ছুটিতে কয়েক লাখ পর্যটক কক্সবাজারে এসেছেন। হুট করে এত পর্যটকের উপস্থিতি দেখে ট্যুরিস্ট পুলিশ নিরাপত্তা ব্যবস্থা আগের চেয়ে দ্বিগুণ জোরদার করেছে। কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত ও হোটেল-মোটেল জোনে বিরামহীনভাবে দায়িত্ব পালন করছে। কিছু কিছু গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মোতায়েন করা হয়েছে সাদা পোশাকে বিশেষ পুলিশ। সৈকতে তিল ধারণের জায়গাও নেই। এত বিপুল সংখ্যক ভ্রমণকারী গত ৫ বছরের সময়েও একসঙ্গে ভিড় জমাননি।

ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক শাকের আহমদ জানান, ‘বাড়তি পর্যটকের বাড়তি সেবা। সৈকতে আসা পর্যটকদের নিরাপত্তা প্রদানে ট্যুরিস্ট পুলিশের ১২টি ইউনিট কাজ করছে। মাস্ক পরিধানসহ শারীরিক দূরত্ব মানতে প্রচারণার পাশাপাশি সার্বিক নিরাপত্তা জোরদারে অভিযোগ কেন্দ্র চালু, প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে।’

তিনি দাবি করেন, ‘আগের মতো শনিবারও কোনও প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।’

কক্সবাজার কলাতলী মেরিন ড্রাইভ হোটেল-মোটেল গেস্ট হাউজ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুখিম খান বলেন, ‘বিপুল পরিমাণ পর্যটক কক্সবাজারে এসেছে। শনিবার একদিনেই কমপক্ষে তিন লক্ষাধিক পর্যটকের সমাগম ঘটেছে। এর আগের দিন শুক্রবারও ছিল একই রকম। কক্সবাজারের সাড়ে চার শতাধিক হোটেলে দুই লক্ষাধিক অতিথি থাকতে পারেন। বাদবাকিদের একটু কষ্ট করে রাত অতিবাহিত করতে হচ্ছে।’

এদিকে হোটেলে সিট না পাওয়ার সুযোগে খাবার হোটেলগুলোও বাড়িয়ে দিয়েছে খাবারের দাম। পর্যটন জোনে রাস্তা মেরামতের কাজ চলমান থাকায় যানজটসহ দিনভর নানা সংকট ও দুর্ভোগে পড়েন অসংখ্য পর্যটক। অনেক ভ্রমণকারী রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছেন রাত কাটানোর একটি কক্ষের জন্য। সাগর পাড়ের হোটেল-মোটেলে সিট না পেয়ে শহরের ঘিঞ্জি এলাকার নিম্নমানের আবাসিক হোটেলের রুম পর্যন্ত বাড়তি ভাড়ায় পর্যটকরা ভাড়া নিয়ে রাত পোহাতে আশ্রয় নিয়েছেন।

ঢাকা থেকে আসা মাসুদুল আলম নামের এক পর্যটক জানান, ‘ছুটিতে প্রথমবার কক্সবাজার সৈকত ভ্রমণে এসেছি। কিন্তু, এখনকার অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে ঢাকার মতো মানুষের ভিড়। শুক্রবার কক্সবাজার আসলেও এক রাত সৈকতে ঘোরাঘুরি করে কাটিয়ে শনিবার চড়া দামে হোটেলে রুম পেয়েছি। আমার মনে হয় মৌসুমে কক্সবাজার না এসে অফ-সিজনে আসা উচিত।’

ফরিদপুরের শামশুল হক দম্পতি জীবনের প্রথমবার এসেছেন কক্সব্জাারে। তিনি জানান,‘এই প্রথমবার এসে কক্সবাজারকে দেখলাম। এক সাথে এত বিপুল সংখ্যক মানুষ আর দেখিনি। সৈকতে এত বেশি মানুষ দেখে মনে হচ্ছে এটা ঢেউয়ের সাগর নয় যেন মানুষের সাগর।’

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে দিনে এমন উচ্ছ্বাস দেখা গেলেও রাতে হোটেল মিলছে না চার লাখ পর্যটকের। টানা তিনদিনের ছুটিতে এ অবস্থাঘটেছে করোনার পর।

নারায়ণগঞ্জের রিজভী আহমদ ন্যান্সী বলেন-‘এতদিন করোনার কারণে ঘরে বন্দি জীবন কাটিয়েছি। সাগর পাড়ে এসে মনে হচ্ছে, এখন আমরা মুক্ত পাখির মতো উড়ছি আর ঘুরছি।’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকেই গাড়িতে গাড়িতে দলবেঁধে পর্যটকরা কক্সবাজারে আসতে শুরু করে। বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের নানা প্রান্ত থেকে ছেড়ে আসা কয়েকশ নৈশ কোচ শুক্রুবার ও শনিবার সকালে এসে পৌঁছে কক্সবাজারে। এ কারণেঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে অসহনীয় যানজট লেগে যায়। একসঙ্গে প্রচুর সংখ্যক যানবাহন আসায় কক্সবাজার শহরের কয়েক কিলোমিটার দূরে থামিয়েই যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছে বাসগুলো। এতে করে পর্যটকদের দুর্ভোগ আরও বেড়েছে।

শুক্রবার সকাল থেকে দলে দলে পর্যটকরা নামেন কক্সবাজার সৈকতের বালিয়াড়িতে। দুপুর হতে না হতেই সৈকতের ডায়াবেটিক পয়েন্ট থেকে কলাতলি পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার এলাকা ভরে যায় মানুষে মানুষে। এ ছাড়াও হিমছড়ি, ইনানী পাথুরে সৈকত থেকে শফির বিল, পাটুয়ারটেক, মনখালী এবং টেকনাফ সৈকত পুরোটাই  ভ্রমণকারীর মিলন মেলায় পরিণত হয়।

এদিকে, কক্সবাজার সৈকত ছেড়ে ভ্রমণকারীরা পর্যটক জাহাজে চড়ে ছুটছেন প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন্স। কক্সবাজার থেকে একটি এবং টেকনাফ থেকে আরও ৭ টি পর্যটক জাহাজসহ সবগুলো জাহাজ ও ইঞ্জিনচালিত নৌকা এবং স্পিড বোটে করে একদিনে কমপক্ষে ১০ হাজার পর্যটক প্রবাল দ্বীপটি ভ্রমণে গেছেন। এছাড়াও কক্সবাজারের ডুলাহাজারার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক, মহেশখালী, সোনাদিয়া, মাতারবাড়ি ও কুতুবদিয়াসহ অন্য পর্যটন কেন্দ্রগুলোতেও ভিড় করছেন পর্যটকরা।

/টিএন/

সম্পর্কিত

কক্সবাজারে ১০ লাখ পর্যটক সমাগমের সম্ভাবনা

কক্সবাজারে ১০ লাখ পর্যটক সমাগমের সম্ভাবনা

যাত্রা শুরু সাবরাং ট্যুরিজম পার্কের

যাত্রা শুরু সাবরাং ট্যুরিজম পার্কের

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৬

বাংলাদেশে ফ্লাইট পরিচালনার ৩৫ বছর পূর্তি উদযাপন করছে এমিরেটস এয়ারলাইন। আজ এ উপলক্ষে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কেক কাটা হয়। এছাড়া এমিরেটসের একটি ফ্লাইট পেয়েছে ওয়াটার ক্যানন স্যালুট। ঢাকায় পরিচালিত সব ফ্লাইটে যাত্রীদের শুভেচ্ছা জানায় এয়ারলাইনটি। এছাড়া অনলাইনে আয়োজন করা হয়েছে কুইজ প্রতিযোগিতা।

এমিরেটসের কান্ট্রি ম্যানেজার (বাংলাদেশ) মোহামেদ আলহাম্মাদী বলেন, ‘বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তিতে আমরা বিশেষভাবে আনন্দিত। আমাদের জন্য এটি একটি অবিস্মরণীয় পথযাত্রা। আমাদের সব সহকর্মী, গ্রাহক ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে অব্যাহত সমর্থন ও সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক, ব্যবসায়িক ও পর্যটনের উন্নয়নে এমিরেটস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ককে আমরা ভবিষ্যতে এগিয়ে নিতে এবং আরও সুসংহত করতে আগ্রহী। দুবাই বা অন্য যেকোনও গন্তব্যে গ্রাহকদের আরও নিরাপদ ও উত্তম সেবা প্রদানে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।’

১৯৮৬ সালের ২৭ অক্টোবর ফ্লাইট শুরুর পর ঢাকা থেকে দুবাইসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ৪ লাখ যাত্রী পরিবহন করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের এই বিমান সংস্থা। গত ৩৫ বছরে ১৯ হাজার ৩০০টির বেশি রাউন্ড-ট্রিপ ফ্লাইট পরিচালিত হয়েছে।

বর্তমানে সুপরিসর বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজে ঢাকা থেকে প্রতিদিন তিনটি ফ্লাইট পরিচালনা করছে এমিরেটস।

বর্তমানে এমিরেটসই একমাত্র আন্তর্জাতিক এয়ারলাইন যারা ঢাকা থেকে প্রথম শ্রেণির সেবা দিচ্ছে। ঢাকা থেকে যাত্রীরা বর্তমানে দুবাই হয়ে ১২০টির অধিক গন্তব্যে স্বাচ্ছন্দ্যে ভ্রমণ করতে পারছেন।

এমিরেটসের কার্গো পরিবহন শাখা এমিরেটস স্কাইকার্গো ২০১৬ সাল থেকে গত পাঁচ বছরে ১ লাখ ৭০ হাজার টনের বেশি মালামাল বাংলাদেশে বা বাংলাদেশে থেকে পরিবহন করেছে। এর মধ্যে রয়েছে মূলত তৈরি পোশাক, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য এবং পচনশীল রফতানি পণ্য। 

এমিরেটস ও ফ্লাই দুবাইয়ের যৌথ লয়্যালটি প্রোগ্রাম এমিরেটস স্কাইওয়ার্ডসে বাংলাদেশি সদস্যের সংখ্যা প্রায় ৯০ হাজার। তারা ফ্লাইট টিকিট, আপগ্রেড, হোটেল রুমসহ অন্যান্য সুবিধা পেয়ে থাকেন। অতিমারিকালে এই প্রোগ্রামের শর্তাবলী অনেকাংশে শিথিল করা হয়েছে যাতে সদস্যরা কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত না হন। এছাড়া ২০২১ সালের ১ আগস্ট থেকে ২০২২ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে এমিরেটস বা ফ্লাই দুবাইয়ের টিকিট কিনলে দুবাইয়ে অবস্থানকালে প্রতি মিনিটের জন্য ১ মাইল (পয়েন্ট) এবং সর্বোচ্চ ৫ হাজার মাইল অর্জন করা যাবে।

করোনাকালে যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য ভ্রমণের প্রতিটি ধাপে বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে এমিরেটস। ভ্রমণে যাত্রীদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে মাল্টিরিস্ক ভ্রমণবীমা। বুকিং এবং রি-বুকিং নীতিও অনেক নমনীয় করা হয়েছে। বিশ্বমানের পণ্য ও সেবার সঙ্গে যাত্রীদের দেওয়া হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের খাবার। বিনোদনের জন্য রয়েছে সাড়ে চার হাজারের বেশি চ্যানেল। এমিরেটসের বিনোদন ব্যবস্থায় দেশীয় বিভিন্ন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র দেখার সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশি যাত্রীরা।

এমিরেটসের মূল কেন্দ্র দুবাই বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম পর্যটন গন্তব্য এবং অন্যতম নগরী হিসেবে অতিমারিকালে ওয়ার্ল্ড ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম কাউন্সিল কর্তৃক সেফ ট্রাভেলস স্বীকৃতি পেয়েছে।

/সিএ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

ঢাকায় ১৪ ডিসেম্বর থেকে এমিরেটসের ফ্লাইট বাড়ছে

ঢাকায় ১৪ ডিসেম্বর থেকে এমিরেটসের ফ্লাইট বাড়ছে

যাত্রী ও কর্মীদের অনুদানে শিশুদের পাশে এমিরেটস এয়ারলাইন ফাউন্ডেশন

যাত্রী ও কর্মীদের অনুদানে শিশুদের পাশে এমিরেটস এয়ারলাইন ফাউন্ডেশন

বিমানের সিঙ্গাপুর ফ্লাইট শুরু ২৮ অক্টোবর

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৯

আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুরে যাত্রী পরিবহন শুরু করতে যাচ্ছে। গত ৪ মে বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুরে যাত্রী পরিবহন বন্ধ হয়ে যায়। তবে সিঙ্গাপুর থেকে যাত্রীরা  বাংলাদেশে আসতে পারতেন।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে বিমান। ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুর যেতে হলে যাত্রীদেরকে অবশ্যই সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক দেশটিতে প্রবেশের অনুমতিপত্র গ্রহণ করতে হবে।

বিমান জানিয়েছে, ২৮ অক্টোবর থেকে ১২ নভেম্বর পর্যন্ত সপ্তাহে প্রতি বৃহস্পতিবার এবং ১৩ নভেম্বর থেকে সপ্তাহে প্রতি শনিবার, মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান। ঢাকা থেকে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে বিমানের ফ্লাইট ছেড়ে যাবে এবং সিঙ্গাপুর থেকে সেখানকার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ৫০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করবে।

যাত্রীরা বিমানের যে কোনও সেলস অফিস এবং অনুমোদিত ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে টিকেট ক্রয় করতে পারবেন। সিঙ্গাপুর যেতে হলে যাত্রীদেরকে অবশ্যই সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক দেশটিতে প্রবেশের অনুমতিপত্র গ্রহণ করতে হবে।

তাছাড়া, অনুমোদিত কোভিড-১৯ এর টিকার পূর্ণ ডোজ সম্পন্ন করা থাকতে হবে যাত্রীদের। ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা, সেরামের কোভিশিল্ড, সিনোফার্ম, সিনোভ্যাক টিকার যে কোন একটির ২ ডোজ এবং জনসনের টিকার ক্ষেত্রে ১ ডোজ নেওয়ার কমপক্ষে ১৪ দিন পর থেকে সিঙ্গাপুরে যাওয়া যাবে।

২ বছরের বেশি বয়সী যাত্রীদেরকে ফ্লাইট ছাড়ার পূর্ববর্তী সর্বোচ্চ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে এবং নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে। সিঙ্গাপুর পৌঁছে ১০ দিন হোটেল কোয়ারেন্টাইন থাকতে হবে। কোয়ারেন্টাইনের তৃতীয় ও সপ্তম দিনে নিজ খরচে অ্যান্টিজেন র‍্যাপিড টেস্ট করাতে হবে এবং ১০ম দিনে নিজ খরচে কোভিড-১৯ পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে। সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য ভ্রমণে গেলে যাত্রীদেরকে চাঙ্গি বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে যার জন্য পূর্বেই অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন ও ফি প্রদান করতে হবে। সিঙ্গাপুর যাওয়ার পূর্বে মোবাইলে ‘Trace Together’ অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।

সিঙ্গাপুর বিমানবন্দরে যাত্রীদেরকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য বাইরের কোন ব্যক্তি প্রবেশ করতে পারবেন না। সিঙ্গাপুর থেকে বাংলাদেশে আসতে হলে ১২ বছরের বেশি বয়সী যাত্রীদেরকে ফ্লাইট ছাড়ার পূর্ববর্তী সর্বোচ্চ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে এবং নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে। করোনা টিকা নেওয়া না থাকলে বাসায় যেয়ে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর করোনার লক্ষণ দেখা গেলে যাত্রীকে সরকার নির্ধারিত হোটেলে নিজ খরচে কোয়ারেন্টাইন থাকতে হবে।

/সিএ/এমএস/

হলিডে প্যাকেজ ঘোষণা

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৮

আগামী ১৯ নভেম্বর ঢাকা থেকে মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে সরাসরি ফ্লাইট চালু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। বাংলাদেশি পর্যটকদের ন্যূনতম খরচে মালদ্বীপ ঘুরে আসার সুযোগ করে দিচ্ছে বেসরকারি এই সংস্থা। এসব হলিডে প্যাকেজ চলতি বছরের ১৯ নভেম্বর থেকে ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর আধুনিকতার অপূর্ব মিশ্রণের শহর মালদ্বীপের ভ্রমণকে উপভোগ্য করতে প্রতি জনের জন্য ন্যূনতম ৫৮ হাজার ৯৯০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ট্যুর প্যাকেজটিতে দুই রাত তিন দিন থাকা, ঢাকা-মালে-ঢাকা রুটের সকল প্রকার ট্যাক্সসহ এয়ার টিকেট, এয়ারপোর্ট-হোটেল-এয়ারপোর্ট যাতায়াত, সকালের নাস্তাসহ আরও নানান সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।’

ইউএস-বাংলা জানিয়েছে, ১৯ নভেম্বর থেকে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস প্রাথমিকভাবে সপ্তাহে তিনদিন ঢাকা-মালে-ঢাকা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে। দেশীয় পর্যটন বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে দেশীয় পর্যটকদের বিভিন্ন দেশে স্বল্প খরচে ঘুরে আসার সুযোগ করে দিচ্ছে ইউএস-বাংলা।

পর্যটকদের সুবিধার্থে ইউএস-বাংলা’র হলিডে প্যাকেজগুলো বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিনা সুদে ছয় মাসের ইএমআই সুবিধাও দিচ্ছে।

/সিএ/এমএস/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

ঢাকায় ১৪ ডিসেম্বর থেকে এমিরেটসের ফ্লাইট বাড়ছে

ঢাকায় ১৪ ডিসেম্বর থেকে এমিরেটসের ফ্লাইট বাড়ছে

যাত্রী ও কর্মীদের অনুদানে শিশুদের পাশে এমিরেটস এয়ারলাইন ফাউন্ডেশন

যাত্রী ও কর্মীদের অনুদানে শিশুদের পাশে এমিরেটস এয়ারলাইন ফাউন্ডেশন

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:১১

ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা রুটে আগামী ২১ অক্টোবর থেকে ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। বাংলাদেশ ও ভারতের সঙ্গে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে এয়ার বাবল চুক্তির অধীনে ফ্লাইট পরিচালনা করবে। রবিবার (১৭ অক্টোবর) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে খবরটি জানিয়েছে বেসরকারি এই সংস্থা।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম জানান, ভিসা সংক্রান্ত সব ধরনের নির্দেশনা অনুযায়ী বর্তমানে এয়ার বাবল চুক্তির অধীনে ভারতে ভ্রমণ করা যাবে। স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যেক যাত্রীর কোভিড-১৯ আরটি-পিসিআর টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট থাকা আবশ্যক। এছাড়া কলকাতা বিমানবন্দরে অবতরণের পর ভ্রমণকারীদের নিজ খরচে মলিকুলার টেস্ট করাতে হবে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস প্রতি বৃহস্পতি ও শনিবার সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে কলকাতায় স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে পৌঁছাবে। একইদিন সকাল ১১টায় কলকাতার নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বোস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা দিয়ে দুপুর ১২টা ৩০ মিনিটে ঢাকায় অবতরণ করবে। ১৬৪ আসনের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে কলকাতা রুটের ফ্লাইট পরিচালিত হবে। 

সব ধরনের ট্যাক্স ও সারচার্জসহ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস ঢাকা থেকে কলকাতায় ওয়ান-ওয়ের ন্যূনতম ভাড়া ৭ হাজার ২২৬ টাকা এবং রিটার্ন টিকিটের ভাড়া ১২ হাজার ৭৩৩ টাকা নির্ধারণ করেছে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস বর্তমানে সিঙ্গাপুর, ভারতের চেন্নাই, ওমানের মাস্কাট, কাতারের দোহা, সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই, মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর এবং চীনের গুয়াংজু রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। আগামী ১৯ নভেম্বর থেকে ঢাকা-মালে সরাসরি ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। করোনার কারণে ব্যাংকক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা সাময়িকভাবে বন্ধ আছে।

অভ্যন্তরীণ রুট ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী, বরিশালে প্রতিদিন ফ্লাইট পরিচালনা করছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস। এছাড়া যশোর থেকে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার এবং সৈয়দপুর থেকে চট্টগ্রামে ফ্লাইট চলছে এই সংস্থার। 

বর্তমানে ইউএস-বাংলার বহরে চারটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০, সাতটি ব্র্যান্ড নিউ এটিআর ৭২-৬০০সহ মোট ১৪টি এয়ারক্রাফট রয়েছে।

/সিএ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

ঢাকায় ১৪ ডিসেম্বর থেকে এমিরেটসের ফ্লাইট বাড়ছে

ঢাকায় ১৪ ডিসেম্বর থেকে এমিরেটসের ফ্লাইট বাড়ছে

যাত্রী ও কর্মীদের অনুদানে শিশুদের পাশে এমিরেটস এয়ারলাইন ফাউন্ডেশন

যাত্রী ও কর্মীদের অনুদানে শিশুদের পাশে এমিরেটস এয়ারলাইন ফাউন্ডেশন

করোনাকালেও যেভাবে পর্যটনশিল্পে সেরা মালদ্বীপ

আপডেট : ১১ মার্চ ২০২১, ১৪:৪০

করোনার আগ্রাসনে গেল বছর বিশ্বজুড়ে সব কিছুই থমকে গিয়েছিলো। ঘর থেকে বের হওয়াই যেখানে ঝুঁকিপূর্ণ, সেখানে বিদেশ ভ্রমণ তো দূরের কথা! বিশ্বজুড়ে তাই বড় বড় পর্যটন স্পটগুলো বিশাল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে। তবে এই করোনার আগ্রাসনকেও বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে মালদ্বীপ বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় এক ট্যুরিস্ট স্পটে পরিণত হয় গত বছর। কীভাবে তা সম্ভব হলো?

মন ভোলানো প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য মালদ্বীপকে রোমান্সের এক ক্ষেত্র হিসেবেই বিবেচনা করা হয়। তাই কোয়ালিটি টাইম কাটাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নানা বয়সী মানুষ ছুটে যান সেখানে। প্রতি বছর মালদ্বীপে প্রায় ২০ লাখ পর্যটক সমাগম হয়। কোভিড নাইনটিনের কারণে গেল বছরে সেই সংখ্যা ৫ লাখে নেমে এলেও  বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় পর্যটন স্পটের তালিকায় ঠিকই উপরের দিকে ছিলো দ্বীপদেশ মালদ্বীপ। বিশ্বের বেশরিভাগ পর্যটন স্পট করোনার কারণে বন্ধ থাকলেও গত বছরের জুলাই মাস থেকেই সব দেশের পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত হয় মালদ্বীপ। এক্ষেত্রে আর্থিক বিষয়টা অনেকাংশেই গুরুত্বপূর্ণ ছিলো। মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির তথ্য মতে মালদ্বীপের জিডিপিতে ২৮ শতাংশ অবদান রাখে পর্যটন খাত, যা বিশ্বে খুব কম দেশেই দেখা যায়।

করোনার দুঃসময়ে যখন তাহিতি, বালি, ফুকেটের মতো পর্যটন দ্বীপঅঞ্চলগুলো বন্ধ ছিলো, তখন সুযোগটা ভালোভাবে কাজে লাগিয়েছে মালদ্বীপ। কয়েকটি দেশে করোনা সতর্কতা হিসেবে বেশ কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিলো। যেমন- থাইল্যান্ড ও শ্রীলংকায় গেলে সেখানে হোটেলে দুই সপ্তাহ বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থেকে এরপর দেশ দুটির অন্য স্থানে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হতো। এক্ষেত্রে মালদ্বীপ কোনও কড়া বিধিনিষেধ আরোপ করেনি। শুধুমাত্র পর্যটকদের কোভিড নাইনটিন টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট দেখালেই মিলেছে মালদ্বীপ ভ্রমণের সুযোগ। অনেক ক্ষেত্রে রিসোর্টে পর্যটকদের করোনা টেস্ট করানো হতো। মালদ্বীপের পর্যটন সংস্থা জানিয়েছে, দ্বীপদেশটির বিশেষ ভৌগলিক অবস্থান করোনাকালেও দেশটির পর্যটন ব্যবসা অক্ষুণ্ণ রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রেখেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পর্যটকদের বিভিন্ন দ্বীপের রিসোর্টে থাকার যে সুব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে, তাতে সামাজিক দূরত্বের শর্তটাও সহজে বজায় রাখা সম্ভব হয়েছে। অনেক রিসোর্টে প্রাইভেট বোট বা প্লেন ছিলো। এতে করে পর্যটকরা ভিড়ের শংকা থেকেও রেহাই পেয়েছেন।

অনেক রিসোর্ট তুলনামূলক কম খরচে মাসব্যাপী পর্যটকদের থাকার সুযোগও করে দেয়। যেমন ২৮ দিনের জন্য চার সদস্যের পরিবারের কাছ থেকে খাবার, হাই স্পিড ইন্টারনেট ও বেশ কিছু সুবিধাসহ থাকার জন্য ৪২ হাজার ৬০০ ডলারের মতো নেওয়া হতো। এমনকি ‘দ্য অনন্তারা ভেলি’ নামের একটি রিসোর্ট আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে দারুণ এক সুযোগ করে দেয়। তাদের প্যাকেজ অনুযায়ী পর্যটকদের এক বছরের জন্য ৩০ হাজার ডলারে থাকার সুযোগ ছিলো। এসব মন ভোলানো অফার বিশ্বের অন্য কোনো পর্যটন কেন্দ্রে করোনাকালে কেউ আর দেয়নি। মালদ্বীপের আরেকটি বড় ইতিবাচক দিক হলো ওয়ার্ল্ড মিটারের তথ্য মতে করোনায় শুরু থেকে গত মাস পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় মারা গেছে মাত্র ৬৪ জন। আর করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২১ হাজারের মতো মানুষ। তাই প্রকৃতির উদার সৌন্দর্যে ভরা, নিরাপদ পর্যটন স্পট হিসেবে মালদ্বীপকে বেছে নিতে পর্যটকরা খুব বেশি ভাবেননি।

তথ্যসূত্র: সিএনএন

/এনএ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

বাংলাদেশে এমিরেটসের ৩৫ বছর পূর্তি

বিমানের সিঙ্গাপুর ফ্লাইট শুরু ২৮ অক্টোবর

বিমানের সিঙ্গাপুর ফ্লাইট শুরু ২৮ অক্টোবর

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

১৯ নভেম্বর থেকে মালে যাবে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলার ফ্লাইট শুরু ২১ অক্টোবর

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কক্সবাজারে ১০ লাখ পর্যটক সমাগমের সম্ভাবনা

কক্সবাজারে ১০ লাখ পর্যটক সমাগমের সম্ভাবনা

যাত্রা শুরু সাবরাং ট্যুরিজম পার্কের

যাত্রা শুরু সাবরাং ট্যুরিজম পার্কের

চট্টগ্রাম-সেন্টমার্টিন রুটে দেশের প্রথম প্রমোদতরী, যাত্রা শুরু ১৪ জানুয়ারি

চট্টগ্রাম-সেন্টমার্টিন রুটে দেশের প্রথম প্রমোদতরী, যাত্রা শুরু ১৪ জানুয়ারি

সর্বশেষ

‘পাকিস্তানের বিজয় উদযাপন রাষ্ট্রদ্রোহিতা’

‘পাকিস্তানের বিজয় উদযাপন রাষ্ট্রদ্রোহিতা’

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

খুলনায় হত্যা মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

খুলনায় হত্যা মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

আবারও এক নম্বর সাকিব

আবারও এক নম্বর সাকিব

পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি: আরও দুই কাভার্ডভ্যান উদ্ধার

পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি: আরও দুই কাভার্ডভ্যান উদ্ধার

© 2021 Bangla Tribune