X
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

পেটে গজ রেখেই সেলাই, ৫ মাস পর নারীর মৃত্যু!

আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১৭:১৭

কুমিল্লায় এক নারীর পেটে গজ রেখে অস্ত্রোপচার শেষ করার পাঁচ মাস পর তার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। পাঁচ মাস পর দ্বিতীয়বার অস্ত্রোপচার করে পেট থেকে গজ বের করা হলেও শারমিন আক্তারকে (২৫) বাঁচানো সম্ভব হয়নি। মঙ্গলবার দিবাগত রাত (১৪ এপ্রিল) দেড়টার দিকে ঢাকার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শারমিনের স্বামী রাসেল মিয়া।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) ভোরে শারমিনের মরদেহ ঢাকা থেকে তার বাবার বাড়ি জেলার দেবিদ্বারের হোসেনপুর গ্রামে আনা হয়। সেখানে সকাল ১০টায় প্রথম জানাজা শেষে নেওয়া হয় তার স্বামীর বাড়ি জেলার মুরাদনগর উপজেলার মোগসাইর গ্রামে। সেখানে বাদ জোহর দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে সমাহিত করা হয়।

এদিকে পেটে গজ রেখে অস্ত্রোপচার শেষ করার ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে এখনও কাজ শুরু করেনি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তদন্ত কমিটি। গত এক সপ্তাহ ধরে বিষয়টি সামাজিক যোগাযাগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

শারমিনের স্বামী রাসেল মিয়া বলেন, গত বছরের ৫ নভেম্বর দেবিদ্বার আল ইসলাম হাসপাতালে আমার স্ত্রীর সিজিরিয়ান অপারেশন করেন চিকিৎসক ডা. রোজিনা আক্তার। জন্ম হয় ছেলে সন্তান। গত ৯ নভেম্বর তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেওয়া হয়। পরবর্তী পাঁচ মাস আমার স্ত্রী অসহ্য ব্যথা ও যন্ত্রণায় ভোগে। অনেক চিকিৎসক দেখিয়েও সঠিক চিকিৎসা পাইনি।

শারমিন শারমিনের বড় ভাই রহুল আমিন বলেন, বোনের জীবন সংকটাপন্ন দেখে গত ৬ এপ্রিল জেলার ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে বোনের পেট থেকে গজ বের করা হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে শনিবার (১০ এপ্রিল) ভোরে ঢাকার একটি বিশেষায়িত হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বোনের মৃত্যু হয়।

শারমিনের স্বামী অভিযোগ করেন, ডাক্তারের ভুলে আমার সাড়ে ৩ বছরের কন্যা মানহা এবং সাড়ে ৫ মাস বয়সী মুনতাছির এতিম হয়ে গেলো। আমি ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করি।

অন্যদিকে শারমিনের ভাই বলেন, চিকিৎসকের ভুলের কারণে পেটে গজ নিয়ে গত ৫ মাস আমার বোন অসহনীয় যন্ত্রণা নিয়ে বেঁচে ছিল। দীর্ঘ এ সময়ে দেশের অনেক হাসপাতাল ঘুরেছি, অর্থ ব্যয় করেছি। কিন্তু সব স্থানেই ভুল চিকিৎসা ও প্রতারিত হয়েছি। কার কাছে বিচার চাইবো, প্রশ্ন রাখেন তিনি।

কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মীর মোবারক হোসাইন বলেন, ওই প্রসূতির মৃত্যুর খবর আমরা জানতে পেরেছি। এ ঘটনায় ইতোমধ্যে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি আগেই গঠন করা হয়েছে। তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়া গেলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/টিটি/

সম্পর্কিত

পণ্য চালান দ্রুত খালাসে বন্দর কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

পণ্য চালান দ্রুত খালাসে বন্দর কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

হেফাজতের বিলুপ্ত কমিটির প্রচার সম্পাদক নোমান ফয়েজি গ্রেফতার

হেফাজতের বিলুপ্ত কমিটির প্রচার সম্পাদক নোমান ফয়েজি গ্রেফতার

একবছর ধরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র গ্রেফতার

একবছর ধরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র গ্রেফতার

পিকআপ চাপায় দুই শ্রমিক নিহত, আহত ২

পিকআপ চাপায় দুই শ্রমিক নিহত, আহত ২

বজ্রাঘাতে ৪ জনের মৃত্যু

বজ্রাঘাতে ৪ জনের মৃত্যু

সরাইলে ট্রাক্টরের ধাক্কায় অটোরিকশার যাত্রী নিহত

সরাইলে ট্রাক্টরের ধাক্কায় অটোরিকশার যাত্রী নিহত

হেফাজতের দুই নেতার বিরুদ্ধে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির মামলার আবেদন

হেফাজতের দুই নেতার বিরুদ্ধে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির মামলার আবেদন

পদত্যাগ করা হেফাজত নেতা মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী গ্রেফতার

পদত্যাগ করা হেফাজত নেতা মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী গ্রেফতার

হাটহাজারী থেকে আরও দুই হেফাজত নেতা গ্রেফতার

হাটহাজারী থেকে আরও দুই হেফাজত নেতা গ্রেফতার

মুক্তি পেলেন অন্যের অপরাধে সাজা খাটা হাসিনা বেগম

মুক্তি পেলেন অন্যের অপরাধে সাজা খাটা হাসিনা বেগম

চট্টগ্রামে আক্রান্তদের মাঝে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়নি 

চট্টগ্রামে আক্রান্তদের মাঝে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়নি 

হেফাজতের তাণ্ডবের মামলায় আরও ৫ জন গ্রেফতার

হেফাজতের তাণ্ডবের মামলায় আরও ৫ জন গ্রেফতার

সর্বশেষ

পরিদর্শককে পিটিয়ে সার্জেন্ট ও টিএসআই ক্লোজ

পরিদর্শককে পিটিয়ে সার্জেন্ট ও টিএসআই ক্লোজ

২০ দিন পর রাজপথে নেমেছে গণপরিবহন

২০ দিন পর রাজপথে নেমেছে গণপরিবহন

ইন্দোনেশিয়ার বিমানবন্দরে করোনা টেস্ট নিয়ে জালিয়াতি

ইন্দোনেশিয়ার বিমানবন্দরে করোনা টেস্ট নিয়ে জালিয়াতি

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৫ কোটি ৫৮ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৫ কোটি ৫৮ লাখ ছাড়িয়েছে

ট্রাকের নিচে পড়ে মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

ট্রাকের নিচে পড়ে মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

রাজধানীতে ভিক্ষুক বেড়েছে কয়েক গুণ

রাজধানীতে ভিক্ষুক বেড়েছে কয়েক গুণ

কোন কোন আত্মীয়কে জাকাত দেওয়া যায় না?

কোন কোন আত্মীয়কে জাকাত দেওয়া যায় না?

ট্রাকচাপায় শাবি ছাত্র নিহত

ট্রাকচাপায় শাবি ছাত্র নিহত

স্বস্তির বৃষ্টিতে ফল-ফসলের উপকার

স্বস্তির বৃষ্টিতে ফল-ফসলের উপকার

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে অর্থনীতিবিদ মাহবুবউল্লাহ

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে অর্থনীতিবিদ মাহবুবউল্লাহ

অকস্মাৎ হানায় হাজারো বাঙালি গ্রেফতার

অকস্মাৎ হানায় হাজারো বাঙালি গ্রেফতার

বাংলাদেশ থেকে কৃষি শ্রমিক নিতে চায় গ্রিস

বাংলাদেশ থেকে কৃষি শ্রমিক নিতে চায় গ্রিস

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পণ্য চালান দ্রুত খালাসে বন্দর কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

পণ্য চালান দ্রুত খালাসে বন্দর কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

হেফাজতের বিলুপ্ত কমিটির প্রচার সম্পাদক নোমান ফয়েজি গ্রেফতার

হেফাজতের বিলুপ্ত কমিটির প্রচার সম্পাদক নোমান ফয়েজি গ্রেফতার

একবছর ধরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র গ্রেফতার

একবছর ধরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র গ্রেফতার

পিকআপ চাপায় দুই শ্রমিক নিহত, আহত ২

পিকআপ চাপায় দুই শ্রমিক নিহত, আহত ২

বজ্রাঘাতে ৪ জনের মৃত্যু

বজ্রাঘাতে ৪ জনের মৃত্যু

সরাইলে ট্রাক্টরের ধাক্কায় অটোরিকশার যাত্রী নিহত

সরাইলে ট্রাক্টরের ধাক্কায় অটোরিকশার যাত্রী নিহত

হেফাজতের দুই নেতার বিরুদ্ধে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির মামলার আবেদন

হেফাজতের দুই নেতার বিরুদ্ধে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির মামলার আবেদন

পদত্যাগ করা হেফাজত নেতা মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী গ্রেফতার

পদত্যাগ করা হেফাজত নেতা মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী গ্রেফতার

হাটহাজারী থেকে আরও দুই হেফাজত নেতা গ্রেফতার

হাটহাজারী থেকে আরও দুই হেফাজত নেতা গ্রেফতার

মুক্তি পেলেন অন্যের অপরাধে সাজা খাটা হাসিনা বেগম

মুক্তি পেলেন অন্যের অপরাধে সাজা খাটা হাসিনা বেগম

© 2021 Bangla Tribune