X
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

শিক্ষা আইনের খসড়া মন্ত্রিপরিষদে যাওয়ার প্রক্রিয়ায়: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ০৩ মে ২০২১, ২২:১৫

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শিক্ষা আইনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।  সোমবার (৩ মে) শহীদ জননী জাহানারা ইমামের জন্মদিন উপলক্ষে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত কওমি শিক্ষা সংক্রান্ত ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এ কথা জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, রবিবার (২ মে) শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষা আইনের খসড়া নিয়ে বৈঠক করেন। ওইদিনই ভার্চুয়াল সভায় শিক্ষা আইনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষা আইন দীর্ঘ দিনেও চেষ্টা করে করা যায়নি। এখন সেটি প্রায় চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। আমাদের দিক থেকে আমরা চূড়ান্ত করেছি। এটি মন্ত্রিপরিষদে যাওয়ার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। শিক্ষা আইনটি হলে শিক্ষার ক্ষেত্রে যেসব ত্রুটি-বিচ্যুতি রয়েছে, সেগুলো আমরা কমিয়ে আনতে সক্ষম হবো।’

তিনি বলেন, ‘দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টায় শিক্ষাকে মূল হাতিয়ার ভাবছি আমরা। বঙ্গবন্ধুর যে শিক্ষা ভাবনা ছিল, তার গঠিত ড. কুদরত-ই-খোদা শিক্ষা কমিশনের যে শিক্ষা আমরা পাই, তার আলোকে ২০১০ সালে আমরা যে শিক্ষানীতি করেছি, তা অনুসরণ করার চেষ্টা করছি। এর বিপরীতে শিক্ষা ব্যবস্থায় একটি অংশ বিশেষত কওমি শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। কওমিদের যে কর্মকাণ্ড— সেগুলো সকল আলোচকের মাধ্যমে উঠে এসেছে। একদিকে দেশটিকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আরেক দিকে একটি চক্র দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। সেই কাজের জন্য বিশেষ করে কওমি মাদ্রাসাগুলোর শিশুদের ব্যবহার করা হচ্ছে। সন্ত্রাসে-জঙ্গিবাদে শিশুদের যুক্ত করা হচ্ছে। নারী, শিশু, কিংবা ধর্মীয় সংখ্যালঘু বিদ্বেষী, আমাদের জাতীয় চেতনা, মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ বিদ্বেষী করে শিক্ষার্থীদের তৈরি করা হচ্ছে। এ বিষয়গুলো খুবই উদ্বেগজনক।’

দীপু মনি বলেন, ‘যেকোনও শিক্ষাই হোক, সেখানে যদি মানবিকতার শিক্ষা না দেওয়া হয়, সমাজ সম্পর্কে শেখানো না হয়, দেশের প্রতি ভালোবাসা না শেখানো হয়, শিক্ষার্থীরা পরমতসহিষ্ণুতা যদি না শেখে, তাহলে তাকে শিক্ষা বলা যায় না। কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কীভাবে চালাবেন, তার চেয়ে বড় হচ্ছে— এই বিষয়গুলো অবশ্যই থাকতে হবে।’

শিক্ষাব্যবস্থার পরিবর্তন প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষাব্যবস্থার পরিবর্তন অবশ্যই করবো এবং সেই পরিবর্তনের জন্য আমরা কাজ করছি। কাজ করছি বলেই নতুন  কারিকুলামের পুরো ভিত্তিই হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশের ইতিহাস এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের মধ্য দিয়ে একটি জ্ঞানভিত্তিক রাষ্ট্র তৈরি করার মতো মানুষ তৈরি করতে চাই। শিক্ষিত বেকার চাই না।’

ভার্চুয়াল এ অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন ঘাতক দালাল নির্মূল কামিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির। এছাড়া অধ্যাপক মাহফুজা খানম, ড. মুজিবুর দফতরি, আনসার আহমেদ উল্লাহ, সাব্বির খান, মমতাজ লতিফ, ইকরাম চৌধুরী, হাফেজ মাওলানা জিয়াউল হাসানসহ ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নেতারা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

/এসএমএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বৃদ্ধ দম্পতিকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, হামলাকারী গ্রেফতার

বৃদ্ধ দম্পতিকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, হামলাকারী গ্রেফতার

বাঘ হত্যাকারী ধরিয়ে দিলে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার

বাঘ হত্যাকারী ধরিয়ে দিলে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার

৯৭ শতাংশ অভিভাবক স্কুল খোলার পক্ষে: জরিপ

৯৭ শতাংশ অভিভাবক স্কুল খোলার পক্ষে: জরিপ

ফেসবুক কি শুনতে পায়, কীভাবে নজরদারি করে?

ফেসবুক কি শুনতে পায়, কীভাবে নজরদারি করে?

ভ্রাম্যমাণ ছিনতাইকারীদের ‘গাড়ি গ্রুপ’

ভ্রাম্যমাণ ছিনতাইকারীদের ‘গাড়ি গ্রুপ’

কোথাও নেই যেন স্বাস্থ্যবিধি! (ফটোস্টোরি)

কোথাও নেই যেন স্বাস্থ্যবিধি! (ফটোস্টোরি)

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর বিক্রি: ভূমি অফিসের দুই কর্মকর্তাকে বদলি

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর বিক্রি: ভূমি অফিসের দুই কর্মকর্তাকে বদলি

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তিন পরামর্শ

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তিন পরামর্শ

নীলক্ষেতে জাল সনদসহ গ্রেফতার ২

নীলক্ষেতে জাল সনদসহ গ্রেফতার ২

চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা

চীনা রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে বিস্মিত কূটনীতিকরা

গা ঘেঁষে চলছে শপিং

গা ঘেঁষে চলছে শপিং

বেতন-বোনাসে শ্রমিকরা খুশি, ছুটি নিয়েই যতো ঝামেলা

বেতন-বোনাসে শ্রমিকরা খুশি, ছুটি নিয়েই যতো ঝামেলা

সর্বশেষ

আহত গার্মেন্টস শ্রমিককে হাসপাতালে দেখতে গেলেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী

আহত গার্মেন্টস শ্রমিককে হাসপাতালে দেখতে গেলেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী

ভ্যাকসিন ছাড়া সৌদি আরব গেলে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন

ভ্যাকসিন ছাড়া সৌদি আরব গেলে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন

নিজের স্বপ্নপুরুষের সঙ্গে কয়েক জন্মের তফাতে জুলেখার মিলন

নিজের স্বপ্নপুরুষের সঙ্গে কয়েক জন্মের তফাতে জুলেখার মিলন

অবিশ্বাস্য গল্প বলেছি বিশ্বাসযোগ্য ভঙ্গিতে : রাশিদা সুলতানা

অবিশ্বাস্য গল্প বলেছি বিশ্বাসযোগ্য ভঙ্গিতে : রাশিদা সুলতানা

উপকূলের আঁধার কাটালো সৌরবাতি

ডিজিটাল উপকূল- ১উপকূলের আঁধার কাটালো সৌরবাতি

মালয়েশিয়ায় পাচারের সময় ৬ রোহিঙ্গা নারী-শিশু উদ্ধার, আটক ১

মালয়েশিয়ায় পাচারের সময় ৬ রোহিঙ্গা নারী-শিশু উদ্ধার, আটক ১

বার্সা-রিয়াল জোটে থাকলে বাদ রোনালদোরা

বার্সা-রিয়াল জোটে থাকলে বাদ রোনালদোরা

এআইইউবি-তে ৫জি প্রযুক্তি বিষয়ে ওয়েবিনার 

এআইইউবি-তে ৫জি প্রযুক্তি বিষয়ে ওয়েবিনার 

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বিপণিবিতান ও সড়কে জরিমানা

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বিপণিবিতান ও সড়কে জরিমানা

বরিশাল সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নির্মিত হচ্ছে ‘ইমাম ভবন’

বরিশাল সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নির্মিত হচ্ছে ‘ইমাম ভবন’

নিঃসঙ্গ জীবনের গল্প

নিঃসঙ্গ জীবনের গল্প

লকডাউন
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

৯৭ শতাংশ অভিভাবক স্কুল খোলার পক্ষে: জরিপ

৯৭ শতাংশ অভিভাবক স্কুল খোলার পক্ষে: জরিপ

ভ্রাম্যমাণ ছিনতাইকারীদের ‘গাড়ি গ্রুপ’

ভ্রাম্যমাণ ছিনতাইকারীদের ‘গাড়ি গ্রুপ’

কোথাও নেই যেন স্বাস্থ্যবিধি! (ফটোস্টোরি)

কোথাও নেই যেন স্বাস্থ্যবিধি! (ফটোস্টোরি)

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তিন পরামর্শ

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তিন পরামর্শ

নীলক্ষেতে জাল সনদসহ গ্রেফতার ২

নীলক্ষেতে জাল সনদসহ গ্রেফতার ২

গা ঘেঁষে চলছে শপিং

গা ঘেঁষে চলছে শপিং

বেতন-বোনাসে শ্রমিকরা খুশি, ছুটি নিয়েই যতো ঝামেলা

বেতন-বোনাসে শ্রমিকরা খুশি, ছুটি নিয়েই যতো ঝামেলা

অনুমোদন পেলে টিকা অনেক আগেই চলে আসতো: চীনের রাষ্ট্রদূত

অনুমোদন পেলে টিকা অনেক আগেই চলে আসতো: চীনের রাষ্ট্রদূত

কম খরচে ক্যান্সার নির্ণয়ে বুয়েটের রসায়ন বিভাগের সাফল্য

কম খরচে ক্যান্সার নির্ণয়ে বুয়েটের রসায়ন বিভাগের সাফল্য

মিরপুরে আবারও গার্মেন্টস কর্মীদের বিক্ষোভ

মিরপুরে আবারও গার্মেন্টস কর্মীদের বিক্ষোভ

© 2021 Bangla Tribune