X
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

জীবন-জীবিকার মাঝে সমন্বয়ের কারণে করোনা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে: কাদের

আপডেট : ০৭ মে ২০২১, ১৯:৩৭

সরকার জীবন ও জীবিকার মাঝে সমন্বয় করে করোনা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এনেছে বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার সাহসী ও বিচক্ষণ নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশে করোনার প্রথম ঢেউ মোকাবিলা করে দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে।’

বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ যেখানে করোনা মোকাবিলায় হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে শেখ হাসিনার সাহসী ও বিচক্ষণ নেতৃত্বে জীবন ও জীবিকার মাঝে সমন্বয় করে করোনা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের শুক্রবার (৭ মে) বিকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে ঐতিহাসিক ৭ মে দিনটি স্মরণ করে এসব কথা বলেন।

২০০৭ সালের এই দিনে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ঘোষিত জরুরি অবস্থা চলাকালীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে  চিকিৎসা শেষে শত প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে দিশে ফিরে আসেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ইতিহাসে এ দিনটি স্মরণীয় বলে ওবায়দুল কাদের এ সময় উল্লেখ করেন।

বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা কোনও অন্যায় করেননি বলে বুকে ছিলে তার অসীম সাহস উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ দেশের মাটি ও মানুষই শেখ হাসিনার রাজনীতির মূল শক্তি। তাইতো কোনও ষড়যন্ত্রই দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে সেদিন ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা রাজনৈতিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বলেই প্রত্যক্ষ করেছেন ইতিহাসের নানান বাঁকবদল। পিতা মুজিব শেখ হাসিনার রাজনীতির গুরু। পিতার মতোই  তিনি ভালোবাসেন দেশের মানুষকে। তাইতো গণতন্ত্রকে শৃঙ্খলমুক্ত করতে শত বাঁধা পেরিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশে এসেছিলেন বলেই সেদিন জনগণের চাপে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাধ্য হয়েছিল নির্বাচন দিয়ে সরে যেতে।’

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট  নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে সরকার গঠন করে উল্লেখ করে কাদের বলেন, ‘দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়ে শেখ হাসিনা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন  সংকটের আবর্তে নিমজ্জমান অবস্থা থেকে দেশকে পুনরুদ্ধার করে একটি সুখী-সমৃদ্ধ ও উন্নত রাষ্ট্র গড়ে তোলার সংগ্রাম।’

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের বিচারের রায় ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে শেখ হাসিনা জাতিকে করেন পাপমুক্ত উল্লেখ করে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ হাসিনার হাত ধরেই এসেছে সমুদ্র বিজয়, দীর্ঘদিনের সীমান্ত সমস্যার সমাধান তার অসামান্য কূটনৈতিক দক্ষতারই পরিচায়ক।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে দিনবদলের অভিযাত্রায় উন্নয়নের মহাসড়কে অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে আজ বাংলাদেশ। ’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা  বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রেরণের মাধ্যমে স্বপ্নের সীমানাকে পৌঁছে দিয়েছেন মহাকাশে। নিজস্ব অর্থায়নে আমাদের সক্ষমতা ও

গর্বের প্রতীক পদ্মা সেতুর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে, দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল এবং তরুণ প্রজন্মের স্বপ্নের মেট্রোরেল।’

বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রাম এবং উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি অর্জনের ইতিহাসে ৭ মে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন একটি তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিন উপলক্ষে প্রতিবছর বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কিন্তু এবছর বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারণে সৃষ্ট সংকটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কর্মসূচি পরিহার করা হয়েছে। ’

তবে বাঙালির চিরঞ্জীব আশা ও অনন্ত অনুপ্রেরণার উৎস দেশরত্ন শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে ঘরে বসেই দোয়া করার জন্য দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়াও  ওবায়দুল কাদের  আগামী ১৭ মে শেখ হাসিনার  ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মিলাদ মাহফিলের মাধ্যমে দিবসটি পালন এবং মসজিদ, মন্দির ও প্যাগোডায় বিশেষ প্রার্থনার জন্য অনুরোধ জানান।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে করোনার কারণে  পদ্মা সেতুর মেয়াদ  আরও দুই বছর বাড়ানো হয়েছে বলে যে প্রতিবেদন করা হয়েছে, তা সত্য নয় বলে উল্লেখ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। মন্ত্রী আবারও আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ‘আগামী বছর জুনের মধ্যেই পদ্মা সেতুর কাজ সমাপ্ত হবে এবং যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।’

 

/ইএইচএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

প্রযুক্তি পণ্যের সংকটকালে নকল পণ্যে বাজার সয়লাব

প্রযুক্তি পণ্যের সংকটকালে নকল পণ্যে বাজার সয়লাব

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৪ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৪ মৃত্যু

খুলনা মেডিক্যালে ৬ মৃত্যু, ৫ জনই পজিটিভ

খুলনা মেডিক্যালে ৬ মৃত্যু, ৫ জনই পজিটিভ

চট্টগ্রামে মৃত্যু বাড়ছে

চট্টগ্রামে মৃত্যু বাড়ছে

ময়মনসিংহে লকডাউনেও চলছে গণপরিবহন, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

ময়মনসিংহে লকডাউনেও চলছে গণপরিবহন, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

হাসপাতাল থেকে যেমন এসেছেন ‌‘তেমনই’ আছেন খালেদা জিয়া

হাসপাতাল থেকে যেমন এসেছেন ‌‘তেমনই’ আছেন খালেদা জিয়া

বেসরকারি পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমোদন দিচ্ছে সরকার

বেসরকারি পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমোদন দিচ্ছে সরকার

বিদেশ থেকে আনা মোবাইল ফোন নিবন্ধন করতে হবে যেভাবে

বিদেশ থেকে আনা মোবাইল ফোন নিবন্ধন করতে হবে যেভাবে

ইউজিসির সাবেক সদস্য মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে শোক

ইউজিসির সাবেক সদস্য মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে শোক

পোশাক শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ২ জনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

পোশাক শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ২ জনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

‘২০২৫ সালের মধ্যে সরকারের সব সেবা ডিজিটাল হচ্ছে’

‘২০২৫ সালের মধ্যে সরকারের সব সেবা ডিজিটাল হচ্ছে’

সর্বশেষ

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

মনপুরায় জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবি

মনপুরায় জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবি

রেস্টুরেন্টে ৩৭ ডলারের বিল, টিপস ১৬ হাজার

রেস্টুরেন্টে ৩৭ ডলারের বিল, টিপস ১৬ হাজার

ইউএনও থেকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক

ইউএনও থেকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক

টি-টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার দুই ব্যাটসম্যান মারতে পারলেন বাউন্ডারি!

টি-টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার দুই ব্যাটসম্যান মারতে পারলেন বাউন্ডারি!

রাজধানীতে মানুষ ঢুকছে, বেরও হচ্ছে

রাজধানীতে মানুষ ঢুকছে, বেরও হচ্ছে

লকডাউন হচ্ছে পিরোজপুরের ৪ পৌর এলাকা

লকডাউন হচ্ছে পিরোজপুরের ৪ পৌর এলাকা

প্রযুক্তি পণ্যের সংকটকালে নকল পণ্যে বাজার সয়লাব

প্রযুক্তি পণ্যের সংকটকালে নকল পণ্যে বাজার সয়লাব

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৪ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৪ মৃত্যু

খুলনা মেডিক্যালে ৬ মৃত্যু, ৫ জনই পজিটিভ

খুলনা মেডিক্যালে ৬ মৃত্যু, ৫ জনই পজিটিভ

চট্টগ্রামে মৃত্যু বাড়ছে

চট্টগ্রামে মৃত্যু বাড়ছে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বেসরকারি পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমোদন দিচ্ছে সরকার

বেসরকারি পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমোদন দিচ্ছে সরকার

চূড়ান্ত তালিকায় যুক্ত হলো আরও ২৯৭৩ বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম

চূড়ান্ত তালিকায় যুক্ত হলো আরও ২৯৭৩ বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম

কোভিশিল্ডের টিকা এক কোটি ১ লাখ ডোজ শেষ

কোভিশিল্ডের টিকা এক কোটি ১ লাখ ডোজ শেষ

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ নতুন সেনাপ্রধানের

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ নতুন সেনাপ্রধানের

‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রের পোস্টার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রের পোস্টার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

মৃৎশিল্পকে বাণিজ্যিকভাবে প্রসারিত করা দরকার: স্পিকার

মৃৎশিল্পকে বাণিজ্যিকভাবে প্রসারিত করা দরকার: স্পিকার

রেলপথমন্ত্রীর সাথে ভারতীয় হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

রেলপথমন্ত্রীর সাথে ভারতীয় হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

গাছ না কেটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রকল্প বাস্তবায়নের অঙ্গিকার

গাছ না কেটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রকল্প বাস্তবায়নের অঙ্গিকার

লকডাউন নয়, এবার শাটডাউন  চায় জাতীয় কমিটি

লকডাউন নয়, এবার শাটডাউন  চায় জাতীয় কমিটি

শিক্ষায় ৪২৩ কোটি টাকা সহায়তা দিচ্ছে ইইউ

শিক্ষায় ৪২৩ কোটি টাকা সহায়তা দিচ্ছে ইইউ

© 2021 Bangla Tribune