X
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৮ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

যা আছে মামলার তিনটি ধারায়

আপডেট : ১৮ মে ২০২১, ০১:৫৭

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব ডা. মো. শিব্বির আহমেদ ওসমানী বাদী হয়ে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। তিনটি ধারায় অভিযোগ এনে মামলাটি করা হয়েছে। ধারাগুলো হচ্ছে ৩৭৯, ৪১১ এবং অফিসিয়াল সিক্রেসি অ্যাক্ট এর ৩/৫ ধারা। যা বলা আছে ধারাগুলোয়।

দণ্ডবিধির ৩৭৯ ধারায় চুরির শাস্তির বিধান রয়েছে। এ ধারায় বলা হয়েছে- কোনও ব্যক্তি যদি চুরি করে, তবে সে ব্যক্তি তিন বছর পর্যন্ত যেকোনও মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ডে অথবা অর্থদণ্ডে অথবা উভয়বিধ দণ্ডেই দণ্ডিত হবে।

দণ্ডবিধির ৪১১ ধারায় অসাধুভাবে চোরাইমাল গ্রহণের শাস্তির বিষয়ে বলা হয়েছে। এখানে বলা হয়েছে- কোনও ব্যক্তি যদি কোনও সম্পত্তি চোরাই সম্পত্তি বলে জানা সত্ত্বেও বা তা চোরাই সম্পত্তি বলে তার বিশ্বাস করার কারণ থাকা সত্ত্বেও অসাধুভাবে অনুরূপ চোরাই সম্পত্তি গ্রহণ করে বা রেখে দেয়, তবে উক্ত ব্যক্তি তিন বছর পর্যন্ত সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ডে অথবা অর্থদণ্ডে অথবা উভয়বিধ দণ্ডেই দণ্ডিত হবে।

সরকারি গোপন আইন ১৯২৩ এর ৩ ধারায় গুপ্তচরবৃত্তির জন্য শাস্তির বিধানের বিষয়ে বলা হয়েছে যে, (১) যদি কোনও ব্যক্তি রাষ্ট্রের নিরাপত্তা অথবা স্বার্থের পরিপন্থী উদ্দেশ্যে (ক) কোনও নিষিদ্ধ এলাকায় গমন করে, পরিদর্শন করে, অতিক্রম করে সান্নিধ্যে আসে অথবা ভেতরে প্রবেশ করে, অথবা (খ) কোনও স্কেচ, প্ল্যান, মডেল অথবা নোট তৈরি করে, যা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে শত্রুপক্ষের উপকারে আসবে বলে মনে হয়, ধারণা করা যায় অথবা নিশ্চিত হওয়া যায়, অথবা (গ) যদি কোনও ব্যক্তি শত্রুপক্ষের ব্যবহারে আসতে পারে, আসবে বলে ধারণা করা যায় অথবা নিশ্চিত হওয়া যায়, এমন কোনও অফিসিয়াল গোপন কোড অথবা পাসওয়ার্ড অথবা নোট অথবা অন্য কোনও দলিলপত্রাদি অথবা তথ্য আহরণ করে সংগ্রহ করে, রেকর্ড করে, প্রকাশ করে অথবা অন্য কোনও ব্যক্তির কাছে পাচার করে, তাহলে সেই ধারার অপরাধে অপরাধী হবে।

(২) ১৪ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান সম্বলিত এই ধারায় অভিযোগ আনার জন্য অভিযুক্ত যে কোনও একটি বিশেষ কার্য রাষ্ট্রের নিরাপত্তা ও স্বার্থের পরিপন্থীমূলক উদ্দেশ্যে করেছে, তার প্রমাণ প্রয়োজন নেই এবং উক্ত বিশেষ কার্যটি তার বিরুদ্ধে প্রমাণিত না হওয়া সত্ত্বেও, এই ধারায় তাকে শাস্তি প্রদান করা যাবে। যদি মামলার অবস্থা অথবা তার আচরণ অথবা তার জ্ঞান কার্যাবলী প্রমাণ করে যে, তার উদ্দেশ্য ছিল রাষ্ট্রের নিরাপত্তা ব্যাহত অথবা নিষিদ্ধ এলাকা সম্পর্কিত কোনও বিষয়ের কোনও স্কেচ, ধান, মডেল, আর্টিকেল, নোট, দলিল বা তথ্য অথবা কোনও গোপনীয় কোড বা পাসওয়ার্ড তৈরি, আহরণ সংগ্রহ, রেকর্ড ও প্রকাশ করে বা আইনগত অধিকার প্রাপ্ত না হয়ে পাচার করে।

যদি মামলার অবস্থা, তার উদ্দেশ্য ছিল রাষ্ট্রের নিরাপত্তা ও স্বার্থের পরিপন্থী তাহলে ধরে নিতে হবে যে, উক্ত স্কেচ, গান, মডেল, আর্টিকেল, নোট, দলিলপত্র অথবা তথ্য তৈরি, আহরণ সংগ্রহ, রেকর্ড, প্রকাশ ও পাচার করা হয়েছে-রাষ্ট্রের  নিরাপত্তা ও স্বার্থের পরিপন্থিমূলক উদ্দেশ্য।

৩ (ক) এ ধারার অপরাধে অভিযুক্ত ব্যক্তি, প্রত্যক্ষ অথবা পরোক্ষভাবে অপরাধটি বিদেশি শক্তির স্বার্থে বা প্রয়োজনে করা হয়েছে বলে ধারণা করা গেলে বা প্রমাণিত হলে অথবা অপরাধটি প্রতিরক্ষা সম্পর্কীয় বা গোপন অফিসিয়াল কোড সম্পর্কিত হলে, মৃত্যুদণ্ড বা ১৪ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবে, এবং (খ) অন্যান্য ক্ষেত্রে তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবে।

একই আইনের ৫ ধারায় তথ্যের বেআইনি হস্তান্তর সম্পর্কে বলা হয়েছে। বলা হয়েছে- (১) কোনও নিষিদ্ধ এলাকা ও সরকার ঘোষিত কোনও এলাকা সম্পর্কীয় কোনও গোপনীয় অফিসিয়াল কোড বা পাসওয়ার্ড বা স্কেচ, প্ল্যান, মডেল, আর্টিকেল, নোট, দলিলপত্রাদি অথবা তথ্যাদি কোনও ব্যক্তি আইনসঙ্গত দখলে বা নিয়ন্ত্রণে থাকলে। (ক) সে যদি তা ইচ্ছাকৃতভাবে, আইনগত অধিকার প্রাপ্ত ব্যক্তি বা আদালতের কাছে বা রাষ্ট্রের স্বার্থে অন্য কোনও ব্যক্তির নিকট ব্যতীত, অন্য কোনও ব্যক্তির কাছে হস্তান্তর করে, অথবা; (খ) তার নিয়ন্ত্রণাধীন তথ্যাদি অন্য কোনও বিদেশি রাষ্ট্রের শক্তির স্বার্থে বা দেশের নিরাপত্তার পরিপন্থীমূলকভাবে ব্যবহার করে, অথবা;  (গ) আইনগত অধিকারের মেয়াদ শেষেও যদি তা নিজের অধিকারে রাখে বা (ঘ) যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ফেরত প্রদানের বা হস্তান্তরের নির্দেশ পালন না করে অথবা তা সংরক্ষণে যথাযথ সতর্কতা অবলম্বন না করে বা নিজেই এর নিরাপত্তা পরিপন্থী কার্য করে, (ঙ) তা হলে সে এ ধারার অপরাধে অপরাধী হবে।

(২) যদি কোন ব্যক্তি ক্ষমতাপ্রাপ্ত না হয়ে এ আইনের পরিপন্থী জেনেও ইচ্ছাকৃতভাবে ১নং অনুচ্ছেদে বর্ণিত তথ্যাদি গ্রহণ করে, সে এই ধারার অপরাধে অপরাধী হবে।

(৩) এই ধারার অধীনে অপরাধী ব্যক্তি নিম্নরূপভাবে দণ্ডনীয় হবে- (ক) উপধারা (১) (এ) এর অধীন পরিপন্থী কার্যাধির বা কোনও প্রতিরক্ষা নির্মাণকাজ, অস্ত্রাগার, নৌ, স্থল বা বিমান বাহিনীর স্থাপনা বা স্টেশন বা খনি, মাইনক্ষেত্র, কারখানা, ডকইয়ার্ড, ক্যাম্প বা বিমান বা গোপনীয় অফিসিয়াল কোড সংক্রান্ত অপরাধ সংঘটিত হলে তা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে বিদেশি শক্তির স্বার্থে বা সুবিধার্থে ব্যবহৃত হবে বলিয়া অনুমেয়। তা হলে বা ধারণ করা গেলে মৃত্যুদণ্ডে অথবা চৌদ্দ বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবে।

(খ) অন্যান্য অপরাধের ক্ষেত্রে দুই বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডে অথবা জরিমানা দণ্ডে অথবা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হবে।

 

 

 

/বিআই/ইউআই/এসটি/

সম্পর্কিত

ভাসানচর থেকে পালানো ১৪ রোহিঙ্গা আটক

ভাসানচর থেকে পালানো ১৪ রোহিঙ্গা আটক

যেভাবে ভারতে পাচারের শিকার হলেন তরুণী

যেভাবে ভারতে পাচারের শিকার হলেন তরুণী

কোরবানির পশুর হাট কেন্দ্র করে সক্রিয় জাল টাকার কারবারিরা

কোরবানির পশুর হাট কেন্দ্র করে সক্রিয় জাল টাকার কারবারিরা

নির্বাচনি সহিংসতা: নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যসহ কারাগারে ৩

নির্বাচনি সহিংসতা: নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যসহ কারাগারে ৩

নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ স্থগিতের বিষয়ে ‍আপিল শুনানি ২৮ জুন

নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ স্থগিতের বিষয়ে ‍আপিল শুনানি ২৮ জুন

অশ্লীল ছবি দিয়ে নারীদের নামে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ২ যুবক গ্রেফতার

অশ্লীল ছবি দিয়ে নারীদের নামে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ২ যুবক গ্রেফতার

নারী পাচার চক্রের প্রধান সমন্বয়ক নদীসহ সাতজন রিমান্ডে

নারী পাচার চক্রের প্রধান সমন্বয়ক নদীসহ সাতজন রিমান্ডে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহিংসতা: হেফাজত নেতা মনির গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহিংসতা: হেফাজত নেতা মনির গ্রেফতার

ফোনে আড়িপাতা প্রতিরোধে নেওয়া পদক্ষেপ জানতে চেয়ে আইনি নোটিশ

ফোনে আড়িপাতা প্রতিরোধে নেওয়া পদক্ষেপ জানতে চেয়ে আইনি নোটিশ

নকল মাস্ক সরবরাহের মামলা থেকে শারমিন জাহানকে অব্যাহতি

নকল মাস্ক সরবরাহের মামলা থেকে শারমিন জাহানকে অব্যাহতি

হাজারীবাগে মাদরাসায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

হাজারীবাগে মাদরাসায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

এত মৃত্যুদণ্ডের পরও স্ত্রী হত্যা কমছে না: প্রধান বিচারপতি

এত মৃত্যুদণ্ডের পরও স্ত্রী হত্যা কমছে না: প্রধান বিচারপতি

সর্বশেষ

বেলকুচি উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

বেলকুচি উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

লকডাউন না মানায় ৮২ জনকে এক লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা

লকডাউন না মানায় ৮২ জনকে এক লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা

চীনা প্রকৌশলীকে খুঁজতে ২ ঘণ্টা দেরিতে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিস

চীনা প্রকৌশলীকে খুঁজতে ২ ঘণ্টা দেরিতে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিস

ভারতের লিড, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের ভাগ্যে কী আছে?

ভারতের লিড, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের ভাগ্যে কী আছে?

ভাসানচর থেকে পালানো ১৪ রোহিঙ্গা আটক

ভাসানচর থেকে পালানো ১৪ রোহিঙ্গা আটক

অ্যাস্ট্রাজেনেকার পর মডার্নার টিকা নিলেন ম্যার্কেল

অ্যাস্ট্রাজেনেকার পর মডার্নার টিকা নিলেন ম্যার্কেল

এবার নাটোরের সব পৌর এলাকায় বিধিনিষেধ

এবার নাটোরের সব পৌর এলাকায় বিধিনিষেধ

হোয়াটসঅ্যাপে শপ ফিচার আনছে ফেসবুক

হোয়াটসঅ্যাপে শপ ফিচার আনছে ফেসবুক

ট্রাকচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ট্রাকচাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

উদ্বাস্তুদের জন্য ‘বঙ্গভূমি’ রাজ্যের দাবি তুললেন বিজেপি বিধায়ক

উদ্বাস্তুদের জন্য ‘বঙ্গভূমি’ রাজ্যের দাবি তুললেন বিজেপি বিধায়ক

রাজশাহী বিভাগের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা বিষয়ে সভা

রাজশাহী বিভাগের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা বিষয়ে সভা

নদীতে পড়ে নিখোঁজ পদ্মা সেতু প্রকল্পের চীনা প্রকৌশলী

নদীতে পড়ে নিখোঁজ পদ্মা সেতু প্রকল্পের চীনা প্রকৌশলী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যেভাবে ভারতে পাচারের শিকার হলেন তরুণী

যেভাবে ভারতে পাচারের শিকার হলেন তরুণী

কোরবানির পশুর হাট কেন্দ্র করে সক্রিয় জাল টাকার কারবারিরা

কোরবানির পশুর হাট কেন্দ্র করে সক্রিয় জাল টাকার কারবারিরা

নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ স্থগিতের বিষয়ে ‍আপিল শুনানি ২৮ জুন

নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ স্থগিতের বিষয়ে ‍আপিল শুনানি ২৮ জুন

অশ্লীল ছবি দিয়ে নারীদের নামে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ২ যুবক গ্রেফতার

অশ্লীল ছবি দিয়ে নারীদের নামে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ২ যুবক গ্রেফতার

নারী পাচার চক্রের প্রধান সমন্বয়ক নদীসহ সাতজন রিমান্ডে

নারী পাচার চক্রের প্রধান সমন্বয়ক নদীসহ সাতজন রিমান্ডে

ফোনে আড়িপাতা প্রতিরোধে নেওয়া পদক্ষেপ জানতে চেয়ে আইনি নোটিশ

ফোনে আড়িপাতা প্রতিরোধে নেওয়া পদক্ষেপ জানতে চেয়ে আইনি নোটিশ

নকল মাস্ক সরবরাহের মামলা থেকে শারমিন জাহানকে অব্যাহতি

নকল মাস্ক সরবরাহের মামলা থেকে শারমিন জাহানকে অব্যাহতি

হাজারীবাগে মাদরাসায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

হাজারীবাগে মাদরাসায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

এত মৃত্যুদণ্ডের পরও স্ত্রী হত্যা কমছে না: প্রধান বিচারপতি

এত মৃত্যুদণ্ডের পরও স্ত্রী হত্যা কমছে না: প্রধান বিচারপতি

শিশু সাঈদ হত্যায় ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল

শিশু সাঈদ হত্যায় ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল

© 2021 Bangla Tribune