X
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

ভাসানচরে জাতিসংঘের কার্যক্রম দ্রুত দেখতে চায় সরকার

আপডেট : ০৬ জুন ২০২১, ২০:৩৬

আগামী শুকনো মৌসুমে ভাসানচরে ৮০ হাজার রোহিঙ্গাকে স্থানান্তর করতে চায় সরকার। তার আগেই সেখানে জাতিসংঘের সুসংহত কার্যক্রম দেখতে চায় সরকার। একইসঙ্গে মিয়ানমারে যেন দ্রততম সময়ে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন সম্ভব হয়, তার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আরও দায়িত্বপূর্ণ আচরণ আশা করে বাংলাদেশ।

রবিবার (৬ জুন) প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউসের সঙ্গে ১০টি পশ্চিমা দেশের রাষ্ট্রদূত ও জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের বৈঠকে এই বার্তা দিয়েছে সরকার বলে জানিয়েছে একাধিক সূত্র।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে প্রত্যাবাসন এবং ভাসানচরে একটি সাময়িক ব্যবস্থা। আমরা রাষ্ট্রদূতদের জানিয়েছি, রোহিঙ্গারা প্রাণের ভয়ে বাংলাদেশে যখন পালিয়ে আসছিল, তখন আমরা মানবতার খাতিরে সীমান্ত উন্মুক্ত করে দিয়েছি। কক্সবাজারে অত্যন্ত অল্প জায়গায় অনেক বেশি মানুষের অবস্থানের কারণে তাদের ভাসানচরে স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে ১৮ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা স্বেচ্ছায় সেখানে গেছে। তাদের দেখভাল করার জন্য সেখানে জাতিসংঘের যাওয়াটা জরুরি বলে মনে করে সরকার।

এ বিষয়ে জাতিসংঘের অবস্থান জানতে চাইলে সরকারের আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, জাতিসংঘ সদর দফতরের দুই জন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সম্প্রতি ভাসানচর পরিদর্শন করেছেন। তাদের ইতিবাচক মনোভাবের কথা প্রকাশ্যে তারা বলেছেন। আজকেও ভাসানচরে যাওয়ার কথা পুনর্ব্যক্ত করেছেন। তাদের নিজস্ব প্রক্রিয়া শেষ হলেই তারা সেখানে অল্প সময়ের মধ্যে যাবে।

শিক্ষা, স্বাস্থ্য, জীবিকা ও দক্ষতার ব্যবস্থা নিয়ে সরকারের সঙ্গে জাতিসংঘের অবস্থানের তেমন মতভেদ নেই জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের কারিকুলামে শিক্ষা দেওয়ার জন্য বলেছি, যাতে  তারা দেশে ফেরত গেলে সহজেই সমাজে অন্তর্ভুক্ত হতে পারে।

রোহিঙ্গাদের জীবিকার বিষয়ে এ কর্মকর্তা বলেন, এটির ক্ষেত্রে আমাদের সীমাবদ্ধতা আছে। কিন্তু এরপরও আমাদের পক্ষে যতটুকু সম্ভব, যেমন- মাছ আহরণ বা সবজি চাষসহ অন্যান্য বিষয়ে আমরা নমনীয়।

দক্ষতার বিষয়ে তিনি বলেন, আমরাও এ বিষয়ে রাজি এবং তাদের ওইসব বিষয়ে দক্ষতা বৃদ্ধি করা হবে, যেগুলো দেশে ফেরত গেলে তাদের কাজে লাগে।

মুখ্য সচিবের সঙ্গে বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্সসহ অন্যান্য দেশের রাষ্ট্রদূতরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, রোহিঙ্গাদের সাময়িক অবস্থানের জন্য প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা খরচ করে ভাসানচরে আশ্রয়ণ প্রকল্প গড়ে তুলেছে সরকার। সেখানে মোট এক লাখ রোহিঙ্গাকে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

/এসএসজেড/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

ঢাকার ১২টি কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে, পরে সারা দেশে

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৫:২১

১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শুরু হবে আগামী ১ নভেম্বর থেকে। ঢাকায় এ কার্যক্রম শুরু করার পর দ্রুততম সময়ে সারা দেশে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) সচিবালয়ে মন্ত্রীপরিষদ সভা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ এসব কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

তিনি জানান, শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঢাকায় ১২টি স্থান নির্দিষ্ট করেছে। আপাতত সেখান থেকেই শুরু হবে এ কার্যক্রম। এর সঙ্গে পরবর্তী সময়ে আরও যুক্ত হবে সিটি করপোরেশনের কমিউনিটি সেন্টারগুলো।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ঢাকায় শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ৩ লাখ ৪৪ হাজার। এর মধ্যে ৩ লাখ শিক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে।

/এসআই/এমএস/

সম্পর্কিত

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুই মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন নেওয়ার নির্দেশনা

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুই মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন নেওয়ার নির্দেশনা

কৃষি জমি দেওয়ার প্রস্তাব দক্ষিণ সুদানের, ব্যবস্থা নিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

কৃষি জমি দেওয়ার প্রস্তাব দক্ষিণ সুদানের, ব্যবস্থা নিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়ভাবে পালিত হবে ‘শেখ রাসেল দিবস’

জাতীয়ভাবে পালিত হবে ‘শেখ রাসেল দিবস’

জাদুঘরের নিদর্শন নষ্ট করলে ১০ বছর কারাদণ্ড

জাদুঘরের নিদর্শন নষ্ট করলে ১০ বছর কারাদণ্ড

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুই মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন নেওয়ার নির্দেশনা

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৫:০১

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে আগামী দুই মাসের মধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে রেজিস্ট্রেশন (নিবন্ধন) নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংককে যুক্ত রাখার কথাও বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) মন্ত্রিপরিষদ সভা শেষে  সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ এসব কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

প্রধানমন্ত্রী রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম জনসাধারণের মধ্যে প্রচারের ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দেন। রেজিস্ট্রেশনবিহীন কোন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন না করতে প্রচারণা চালাবে সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতর।

সভায় দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে বলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনও প্রতিষ্ঠান যেন ভুয়া তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন না নিতে পারে।


কেবিনেটে আলোচ্য সূচির বাইরে অনির্ধারিত আলোচনায় ই-কমার্সের বিষয়টি ওঠে আসে।

/এসআই/এমএস/

সম্পর্কিত

কৃষি জমি দেওয়ার প্রস্তাব দক্ষিণ সুদানের, ব্যবস্থা নিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

কৃষি জমি দেওয়ার প্রস্তাব দক্ষিণ সুদানের, ব্যবস্থা নিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়ভাবে পালিত হবে ‘শেখ রাসেল দিবস’

জাতীয়ভাবে পালিত হবে ‘শেখ রাসেল দিবস’

জাদুঘরের নিদর্শন নষ্ট করলে ১০ বছর কারাদণ্ড

জাদুঘরের নিদর্শন নষ্ট করলে ১০ বছর কারাদণ্ড

এবারের লকডাউনে থাকছে না 'মুভমেন্ট পাস'

এবারের লকডাউনে থাকছে না 'মুভমেন্ট পাস'

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৫৮

১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দেওয়ার প্রস্ততি শেষের দিকে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘আগামী ১ নভেম্বর থেকে তাদের টিকা দেওয়া শুরু হবে। প্রথমে শুধু ঢাকার ১২টি কেন্দ্রে টিকা দেওয়া হবে। কেন্দ্র আরও বাড়ানো হবে। প্রতিদিন ৪০ হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।’

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার ব্রিফিং শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন জাহিদ মালেক। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে ফাইজারের টিকা। পর্যাপ্ত ফাইজারের টিকা সরকারের হাতে মজুত আছে। এখন ঢাকায় শুরু করে পরে সারাদেশের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।’

তিনি বলেন,  ‘নভেম্বরে আরও ৩৫ লাখ ফাইজারের টিকা আসবে। গতকাল সিনোফার্মের ৫৫ লাখ টিকা এসেছে। এ নিয়ে মোট টিকা মজুতের পরিমাণ ২ কোটি।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘টিকা দেওয়ার স্বাভাবিক কার্যক্রম চলমান থাকবে। এছাড়াও গণটিকা কার্যক্রমের আওতায় দেওয়া ৮০ লাখ লোককে দ্বিতীয় ডোজের টিকা আজ থেকে দেওয়া শুরু হয়েছে। আগামীকালের মধ্যে এটি সম্পন্ন করা হবে।’

 

/এসআই/আইএ/

সম্পর্কিত

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

প্রত্যাবর্তন নির্ভর করছে আদালতের ওপর: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

প্রত্যাবর্তন নির্ভর করছে আদালতের ওপর: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ২৮-৩০ অক্টোবরের ঘটনা।)

 

১৯৭৩ সালের ২৮ অক্টোবর স্বাধীন বাংলাদেশের দ্বিতীয় ঈদুল ফিতরের দিন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী তাদের জনগণকে ঈদ উদযাপনের আহ্বান জানান। শত না পাওয়া ও পুনর্গঠনের মধ্য দিয়ে যাওয়া জাতির যে লড়াই, সেটাকে এগিয়ে নেওয়ার শপথও ছিল সেই আহ্বানে। আন্তর্জাতিক পরিসরে সেইসময় আরব-ইসরায়েল যুদ্ধবিরতিও তখন আলোচনায়।

১৯৭৩ সালের ঈদুল ফিতরের ছবি, দৈনিক বাংলা

জাতিসংঘের জরুরি শান্তিবাহিনী মধ্যপ্রাচ্যের পথে

আরব-ইসরায়েল যুদ্ধবিরতি তদারকির জন্য জাতিসংঘ সামরিক বাহিনীর অগ্রগামী দল হিসেবে তিনটি দেশের সৈন্য জাতিসংঘের পতাকা নিয়ে সাইপ্রাস থেকে পশ্চিম এশিয়ার পথে যাত্রা করে। দেশ তিনটি হল ফিনল্যান্ড, অস্ট্রিয়া ও সুইডেন। এর আগে নিরাপত্তা পরিষদের একটি প্রস্তাবে জাতিসংঘ জরুরি বাহিনী গঠনের আহ্বান জানানো হয়।

অন্যান্যবারের মতো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, সোভিয়েত ইউনিয়ন ও অন্যান্য বৃহৎ শক্তির সৈন্য এতে থাকবে না। যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বব্যাপী তার সামরিক ঘাঁটিগুলোকে সতর্ক অবস্থায় রাখার মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর জাতিসংঘ এই ব্যবস্থা গ্রহণ করে। নিক্সন প্রশাসন বলে, তারা পশ্চিম এশিয়ার নাজুক যুদ্ধবিরতি পরিস্থিতিতে মস্কোর নিজস্ব শান্তিরক্ষা বাহিনী প্রদানের আশঙ্কা করেছিলেন। নিরাপত্তা পরিষদে ১৪-০ ভোটে পশ্চিম এশিয়ার যুদ্ধবিরতি তদারকির জন্য জরুরি বাহিনী গঠনের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়।

 

শেরেবাংলা বাঙালি জাতীয়তাবাদের প্রতীক

দেশব্যাপী যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের জন্মশতবার্ষিকী (২৯ অক্টোবর, ১৯৭৩) পালিত হয়। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনাসভা আয়োজন হয় এদিন। তাতে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি কোরবান আলী। আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান। তিনি বলেন, শেরে বাংলা একে ফজলুল হক মেহনতী মানুষের মুক্তির স্বপ্ন দেখেছিলেন। বাঙালির জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন।

সভাপতির ভাষণে কোরবান আলী বলেন, শেরে বাংলা আনীত ঐতিহাসিক লাহোর প্রস্তাবে পাকিস্তানের কথা ছিল না। তাই তিনি পাকিস্তানের বিরোধিতা করেছিলেন। কোরবান আলী শেরে বাংলার সংগ্রামমুখর জীবনের ওপর আলোকপাত করে বলেন, তিনি ছিলেন স্বাধীন বাংলাদেশ সৃষ্টির অনুপ্রেরণা। আগামী দিনের সুখী-সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশের জন্য তার আদর্শই বঙ্গবন্ধু সরকার ও জনগণের পাথেয়।

আলোচনায় সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক বলেন, শেরে বাংলা বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও বঙ্গবন্ধুর কৃষক-শ্রমিক রাজ কায়েমের মাধ্যমে বাংলার মানুষের মধ্যে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

শেরে বাংলার আদর্শ ও স্বপ্ন বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে কৃষক-শ্রমিক রাজ প্রতিষ্ঠার পদক্ষেপ গ্রহণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের আদর্শ ও স্বপ্ন বাস্তবায়িত হতে চলেছে। দুঃখ-দারিদ্র্য দূর করে সাধারণ মানুষের মুখে হাসি ফোটানো ছিল এই নেতার রাজনৈতিক দর্শনের মূলমন্ত্র। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বাঙালি জাতীয়তাবাদের অগ্রনায়ক শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতারা এ মন্তব্য করেন।

 

যুদ্ধে থামলেও আরবরা আমেরিকায় তেল দেবে না

মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধের অবসান বা যুদ্ধবিরতি হলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধের অবসান হবে না বলে তেল উৎপাদনকারী মহল জানায়। পাশ্চাত্য জগতের অন্যান্য দেশে রফতানির যৌথ সিদ্ধান্তের ব্যাপারে ইতোমধ্যে নমনীয় মনোভাব দেখালেও আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে সরবরাহ বন্ধের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার হবে না বলে জানায় উৎপাদনকারী দেশগুলো।

/এফএ/

সম্পর্কিত

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

প্রত্যাবর্তন নির্ভর করছে আদালতের ওপর: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

প্রত্যাবর্তন নির্ভর করছে আদালতের ওপর: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

বৃহস্পতিবার থেকে সচিবালয়ে দর্শনার্থী পাস ইস্যুর সিদ্ধান্ত

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:০৪

করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় সচিবালয়ে দর্শনার্থীদের জন্য প্রবেশ পাস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) মন্ত্রিপরিষদ সচিব, সিনিয়র সচিব, সচিব এবং মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের একান্ত সচিবদের (পিএস) কাছে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ।

দীর্ঘ ১৯ মাস পর আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) থেকে সীমিত পরিসরে পুনরায় চালু হচ্ছে সচিবালয়ে দর্শনার্থী প্রবেশের পাস ইস্যু কার্যক্রম।

করোনা মহামারি বাড়তে থাকলে ২০২০ সালের ১৯ মার্চ থেকে সচিবালয়ে দর্শনার্থী প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছিল সরকার।

চিঠিতে বলা হয়, ‘অতিমারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে বাংলাদেশ সচিবালয়ের দৈনিক দর্শনার্থী প্রবেশ পাস স্থগিত করা হয়েছিল। আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে জরুরি প্রয়োজনে সচিবালয়ে দৈনিক সীমিত আকারে দর্শনার্থী প্রবেশ পাস ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

এতে জানানো হয়, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রীর পক্ষে তাদের একান্ত সচিবরা ১০টি, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, সিনিয়র সচিব এবং সচিবদের পক্ষে তাদের একান্ত সচিবরা পাঁচটি এবং অতিরিক্ত সচিবরা তিনটি করে পাস ইস্যু করতে পারবেন।

/এসআই/এমএস/

সম্পর্কিত

ঢাকার ১২টি কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে, পরে সারা দেশে

ঢাকার ১২টি কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে, পরে সারা দেশে

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুই মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন নেওয়ার নির্দেশনা

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুই মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন নেওয়ার নির্দেশনা

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্কুল শিক্ষার্থীদের ১ নভেম্বর থেকে টিকা দেওয়া শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

১৯৭৩: সেদিন ছিল ঈদ-আনন্দ ও বেদনার উদযাপন

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

আরব আমিরাতের ফ্লাইট নিয়ে নাজেহাল বিমানবন্দর

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

খাদ্যশস্যের দাম বাড়ছে: অর্থমন্ত্রী

প্রত্যাবর্তন নির্ভর করছে আদালতের ওপর: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

প্রত্যাবর্তন নির্ভর করছে আদালতের ওপর: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

যে কারণে ভারতে স্থগিত হলো শিল্পী রোকেয়া সুলতানার প্রদর্শনী

যে কারণে ভারতে স্থগিত হলো শিল্পী রোকেয়া সুলতানার প্রদর্শনী

সংসদের ১৫তম অধিবেশন ১৪ নভেম্বর

সংসদের ১৫তম অধিবেশন ১৪ নভেম্বর

স্কুল শিক্ষার্থীদের এক সপ্তাহের মধ্যেই করোনার টিকা

স্কুল শিক্ষার্থীদের এক সপ্তাহের মধ্যেই করোনার টিকা

‘জাতীয় প্রয়োজনে সেনাবাহিনী সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সদা প্রস্তুত থাকবে’

‘জাতীয় প্রয়োজনে সেনাবাহিনী সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সদা প্রস্তুত থাকবে’

আরব আমিরাতে কর্মীদের বেতন কাঠামো নির্ধারণের অনুরোধ প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর 

আরব আমিরাতে কর্মীদের বেতন কাঠামো নির্ধারণের অনুরোধ প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর 

সর্বশেষ

বিদ্যুৎ কর্মকর্তার বাইক ধরার পর ট্রাফিক অফিসের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

বিদ্যুৎ কর্মকর্তার বাইক ধরার পর ট্রাফিক অফিসের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

ঢাকার ১২টি কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে, পরে সারা দেশে

ঢাকার ১২টি কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে, পরে সারা দেশে

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

‘গোয়েন্দা সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর কাজে ঘাটতি আছে’

‘গোয়েন্দা সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর কাজে ঘাটতি আছে’

‘চিকিৎসকরা মতামত দিলে রওশন এরশাদকে বিদেশে নেওয়া হবে’

‘চিকিৎসকরা মতামত দিলে রওশন এরশাদকে বিদেশে নেওয়া হবে’

© 2021 Bangla Tribune