X
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

পাকিস্তানে দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত অন্তত ৩০

আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ১২:৩৬
image

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে দুইটি যাত্রীবাহি ট্রেনের সংঘর্ষে অন্তত ৩০ জন নিহত এবং আরও ৫০ জন আহত হয়েছে। সোমবার ঘোটকি জেলার ধারকি শহরের কাছে এই ঘটনা ঘটে। দেশটির সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

পাকিস্তান রেলওয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন করাচি থেকে সারগোদা যেতে থাকা মিল্লাত এক্সপ্রেস ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয়ে পাশের আরেকটি লাইনে উঠে যায়। ওই সময় রাওয়ালপিন্ডি থেকে ছেড়ে আসা স্যার সাইয়েদ এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে। রাইতি রেলওয়ে স্টেশনের একটু আগে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে বলে জানান তিনি।

রেলওয়ে মুখপাত্র জানান, উদ্ধারকারী ট্রেন ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। ইতোমধ্যে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। করাচি, সুক্বুর, ফয়সালাবাদ এবং রাওয়ালপিন্ডিতে যাত্রীদের জন্য হেল্পলাইন সেন্টার খোলা হয়েছে বলে জানান তিনি। লাইন পরিষ্কার হয়ে গেলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা উমর তোফায়েল জানান মিল্লাত এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে ১৫-২০ জন যাত্রী আটকা পড়ে রয়েছে। এসব মানুষদের উদ্ধারে ভারী যন্ত্রপাতি সংগ্রহের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি। ধ্বংসস্তুপের নিচে আরও অনেকে আটকে থাকায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা উমর।

ঘোটকি জেলার ডেপুটি কমিশনার উসমান আবদুল্লাহ জানান, দুর্ঘটনায় ট্রেনের ১৩ থেকে ১৪টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। এছাড়া ছয়টি থেকে আটটি বগি ‘সম্পূর্ণ ভাবে ধ্বংস’ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, আটকে পড়া যাত্রীদের বের করে আনা উদ্ধারকারীদের জন্য বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ।

/জেজে/

সম্পর্কিত

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

বনাঞ্চলকেই কার্বন নিঃসরণকারী বানিয়ে ফেলেছে মানুষ: জরিপ

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৩:০৪

বিশ্বের সবচেয়ে সংরক্ষিত ১০টি বনাঞ্চল কার্বন নিঃসরণের উৎস হয়ে উঠেছে। এসব বনাঞ্চলে মানুষের কর্মকাণ্ড এবং জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য ঘোষিত বনাঞ্চলের কার্বন শোষণ পরিস্থিতি নিয়ে পরিচালিত এক জরিপে উঠে এসেছে এই তথ্য।

ওই জরিপে দেখা গেছে, ১০টি সংরক্ষিত বনাঞ্চল গত ২০ বছরে যে পরিমাণ কার্বণ শোষণ করেছে তার চেয়ে বেশি নিঃসরণ করেছে। বিশ্ব ঐতিহ্য ঘোষিত এসব বনাঞ্চলের আকার জার্মানির আয়তনের দ্বিগুণ।

ওই একই জরিপে দেখা গেছে বিশ্বজুড়ে ২৫৭টি বিশ্ব ঐতিহ্যের বনাঞ্চল প্রতিবছর বায়ুমণ্ডল থেকে ১৯ কোটি টন কার্বন শোষণ করছে। এটি যুক্তরাজ্য প্রতিবছর  জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে যে পরিমাণ কার্বন নিঃসরণ করে প্রায় তার সমান,’ বলেন ড. টেলস কারবালহো রেসেন্ডে। ইউনেস্কোর এই কর্মকর্তা জরিপ প্রতিবেদনটির অন্যতম লেখক।

স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া তথ্য এবং স্থানীয় পর্যায়ের পর্যবেক্ষণ তথ্য বিশ্লেষণ করে গবেষকেরা ২০০১ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বিশ্ব ঐতিহ্যের বনাঞ্চলের কার্বণ শোষণ ও নিঃসরণের তথ্য খতিয়ে দেখেছেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, বিশ্ব ঐতিহ্যের বনাঞ্চল নিবিড় এবং ক্রমাগতভাবে পর্যবেক্ষণে থাকে। তারপরও এগুলো মারাত্মক চাপে রয়েছে। ড. টেলস কারবালহো রেসেন্ডে বলেন, ‘মূল চাপ হলো কৃষি জমির সম্প্রসারণ, অবৈধ কাঠ সংগ্রহসহ মানুষের সৃষ্টি করা চাপ। তবে জলবায়ু সংশ্লিষ্ট হুমকিও পাওয়া গেছে- যা মূলত দাবানল।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

নথি ফাঁস, জলবায়ু প্রতিবেদন বদলাতে চলছে লবিং

নথি ফাঁস, জলবায়ু প্রতিবেদন বদলাতে চলছে লবিং

সশরীরে জলবায়ু সম্মেলনে থাকছেন না চীনা প্রেসিডেন্ট

সশরীরে জলবায়ু সম্মেলনে থাকছেন না চীনা প্রেসিডেন্ট

চাপে পড়ে জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

চাপে পড়ে জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৯

সিঙ্গাপুরে বুধবার নতুন করে ৫ হাজার ৩২৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। মহামারি শুরুর পর এটাই একদিনে সবচেয়ে বেশি শনাক্ত। এই বৃদ্ধিকে অস্বাভাবিক মনে করে এর কারণ খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

বুধবার সিঙ্গাপুরে নতুন ১০ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৪৯ জনে।

বুধবার রাতে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আজ সংক্রমণের সংখ্যা অস্বাভাবিক বেশি, এর বেশিরভাগই বিকেলে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পরীক্ষাগারে শনাক্ত হয়েছে।’ এর কারণ অনুসন্ধান করা হবে জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয় আগামী কয়েক দিন ধরে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে।

বুধবার পর্যন্ত সিঙ্গাপুরে মোট ২০ হাজার ৮৯৫ জন রোগী কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

কিছু বিধিনিষেধ শিথিলের পর সম্প্রতি সংক্রমণ বাড়ায় সিঙ্গাপুর আবারও সবকিছু খুলে দেওয়া স্থগিত করেছে। সিঙ্গাপুরের ৮০ শতাংশের বেশি জনগোষ্ঠী টিকা নিয়ে ফেলেছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

ইউক্রেনে তুরস্কের ড্রোন সরবরাহে উদ্বেগ রাশিয়ার

ইউক্রেনে তুরস্কের ড্রোন সরবরাহে উদ্বেগ রাশিয়ার

নতুন আকাশচুম্বী ভবন নিয়ন্ত্রণ করবে চীন

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৫

অপেক্ষাকৃত ছোট শহরগুলোতে আকাশচুম্বী ভবন নির্মাণ সীমিত করে দিয়েছে চীন। নতুন নিয়ম অনুযায়ী ত্রিশ লাখের কম বাসিন্দার শহরগুলো ১৫০ মিটারের চেয়ে বেশি উঁচু ভবন তৈরি করতে পারবে না। এর চেয়ে বেশি বাসিন্দার শহরগুলো ২৫০ মিটারের উঁচু ভবন বানাতে পারবে না। চীনে ইতোমধ্যেই ৫০০ মিটারের বেশি উঁচু ভবন নির্মাণ নিষিদ্ধ।

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু বেশ কয়েকটি ভবন চীনে অবস্থিত। এর মধ্যে রয়েছে ৬৩২ মিটারের সাংহাই টাওয়ার এবং ৫৯৯.১ মিটারের শেনজেনে অবস্থিত পিন আন ফিনান্স সেন্টার।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, সাংহাই ও শেনজেনের মতো জনাকীর্ণ শহরগুলোতে আকাশচুম্বী ভবনের দরকার থাকলেও অন্য শহরগুলোতে জায়গার অভাব নেই। মূলত আত্ম-অহমিকা প্রকাশ করতেই আকাশচুম্বী ভবন নির্মাণ করা হয়।

এ বছরের শুরুতে শেনজেন শহরে ৩৫০ মিটারের এসইজি প্লাজা দুলতে শুরু করলে শত শত মানুষ ভবনটি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

চীন ক্রমেই ব্যয়বহুল আত্ম-অহমিকার প্রকল্পগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান জোরালো করছে। স্থানীয় ডেভেলপাররা নজরকাড়া ভবন তৈরির ঘোরে রয়েছে বলে সমালোচনা করছে বেইজিং। এ বছরের শুরুতে দেশটি ‘বিশ্রী স্থাপত্য’ নিষিদ্ধ করে।

টনজি ইউনিভার্সিটির কলেজ অব আর্কিটেকচার অ্যান্ড আরবান প্লানিংয়ের উপপ্রধান ঝাং শাংগু বলেন, ‘আমরা এমন একটি পর্যায়ে আছি যেখানে মানুষ এমন কিছু বানাতে দুর্বার ও অধীর যা ইতিহাস হয়ে যাবে।’ তিনি বলেন, ‘প্রতিটি ভবনই ল্যান্ডমার্ক হয়ে উঠতে চায় আর ডেভেলপার এবং নগর পরিকল্পনাবিদরা এই লক্ষ্য অর্জনে অভিনবত্বের চূড়ায় যেতে চায়।’

মঙ্গলবার চীনের আবাসন এবং শহর-গ্রাম উন্নয়ন মন্ত্রণালয় ও জরুরি ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, ত্রিশ লাখের কম বাসিন্দার কোনও শহর যদি ১৫০ মিটারের বেশি উঁচু ভবন বানাতে চায় তাহলে বিশেষ অনুমতির প্রয়োজন হবে। তবে কোনওভাবেই ২৫০ মিটারের বেশি উঁচু ভবন বানাতে দেওয়া হবে না।

একইভাবে ত্রিশ লাখের বেশি বাসিন্দার শহর ২৫০ মিটারের বেশি উঁচু ভবন বানাতে চাইলে বিশেষ অনুমতির দরকার পড়বে। তবে কোনওভাবেই ৫০০ মিটারের উঁচু ভবন বানাতে দেওয়া হবে না।

/জেজে/

সম্পর্কিত

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের হাইপারসোনিক অস্ত্রের পরীক্ষা উদ্বেগজনক: যুক্তরাষ্ট্র

চীনের হাইপারসোনিক অস্ত্রের পরীক্ষা উদ্বেগজনক: যুক্তরাষ্ট্র

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ভারতে বিক্ষোভস্থলে ৩ নারীকে পিষে দিলো ট্রাক

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:০৩

ভারতের দিল্লি-হরিয়ানা সীমান্তে কৃষক বিক্ষোভস্থলের কাছে একটি ট্রাক তিন নারীকে পিষে দিয়েছে। দ্রুত গতির ট্রাকটি রোড ডিভাইডারের উপর উঠে গেলে দুই নারী ঘটনাস্থলে এবং অপর একজনকে হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যায়।

ভারতীয় সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, অটো রিকশার অপেক্ষায় রোড ডিভাইডারের উপর বসে ছিলেন ওই তিন নারী। সেই সময় ট্রাক তাদের চাপা দেয়।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পর ট্রাক চালক পালিয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে নিহত তিন নারী পাঞ্জাবের মানসা জেলার বাসিন্দা।

দুর্ঘটনাটি ঘটেছে তিকরি সীমান্তের কাছে। সেখানে প্রায় ১১ মাস ধরে ভারতের নতুন তিন কৃষি আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছে পাঞ্জাব, হরিয়ানাসহ বিভিন্ন রাজ্যের কৃষকেরা।

/জেজে/

সম্পর্কিত

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

বিমার অর্থ হাতিয়ে নিতে নিজেকেই মৃত দেখালেন তিনি

বিমার অর্থ হাতিয়ে নিতে নিজেকেই মৃত দেখালেন তিনি

নতুন দল গড়বেন অমরিন্দর সিং

নতুন দল গড়বেন অমরিন্দর সিং

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৭

চীনের হুমকি প্রতিদিন বাড়লেও গণতন্ত্রের সংগ্রামে সম্মুখ সারিতে রয়েছে তাইওয়ান, এমন মন্তব্য করেছেন সেখানকার প্রেসিডেন্ট তাসাই ইন-ওয়েন। তাইওয়ানে মার্কিন সেনা প্রশিক্ষকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করেন তিনি।

মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তাসাই ইন-ওয়েন বলেন তিনি চীনের নেতা শি জিনপিংয়ের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী। তবে চীন সামরিক পদক্ষেপ নেওয়ার ঝুঁকি বাড়লে দ্বীপটি রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র এগিয়ে আসবে বলেও বিশ্বাস করেন তিনি। তাসাই ইন-ওয়েন বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ব্যাপক বিস্তৃত সহযোগিতা রয়েছে এর লক্ষ্য আমাদের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা বাড়ানো।’

মঙ্গলবার সম্প্রচারিত ধারণ করা ওই সাক্ষাৎকারে তাসাই ইন-ওয়েন জাপান, অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ কোরিয়াসহ অন্য গণতান্ত্রিক দেশগুলোকে তাইওয়ানের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘কোনও কর্তৃত্ববাদী শাসক যখন সম্প্রসারণবাদী প্রবণতা দেখায় তখন গণতান্ত্রিক দেশগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানো উচিত।’

তাসাই বলেন, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির উচিত তারা বিশ্বের সঙ্গে কেমন সম্পর্ক চায় তা নির্ধারণ করা। তিনি বলেন, ‘শি (জিনপিং) কি এই অঞ্চল বা বিশ্বের সবার সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক চায় নাকি তিনি একটি প্রভাব বিস্তারকারী ভূমিকা চান যেখানে সবাই তার কথা শুনবে, চীনের কথা শুনবে?’

২০১৬ সালে প্রথম ক্ষমতায় আসেন তাসাই ইন-ওয়েন। ২০২০ সালে পুনর্নির্বাচিত হন তিনি। চীনের সঙ্গে আরও যোগাযোগে আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি। এতে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হবে বলেও মনে করেন তিনি।

/জেজে/

সম্পর্কিত

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

নতুন আকাশচুম্বী ভবন নিয়ন্ত্রণ করবে চীন

নতুন আকাশচুম্বী ভবন নিয়ন্ত্রণ করবে চীন

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

করোনা রোগীর ‘অস্বাভাবিক’ বৃদ্ধি তদন্ত করবে সিঙ্গাপুর

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

চীনের হুমকি প্রতিদিনই বাড়ছে: তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লার সফল ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ভারতের

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

চীনের নতুন সীমান্ত আইন নিয়ে ভারতের উদ্বেগ

ইউক্রেনে তুরস্কের ড্রোন সরবরাহে উদ্বেগ রাশিয়ার

ইউক্রেনে তুরস্কের ড্রোন সরবরাহে উদ্বেগ রাশিয়ার

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আসিয়ানের নতুন কৌশলগত চুক্তি

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আসিয়ানের নতুন কৌশলগত চুক্তি

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

পাকিস্তানে টিএলপি’র মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, গুলি

পাকিস্তানে টিএলপি’র মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, গুলি

চীনের সঙ্গে অস্ত্র প্রতিযোগিতা চায় না তাইওয়ান

চীনের সঙ্গে অস্ত্র প্রতিযোগিতা চায় না তাইওয়ান

সর্বশেষ

পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি: দ্বিতীয় দিনের অভিযানে ২ কাভার্ডভ্যান উদ্ধার

পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি: দ্বিতীয় দিনের অভিযানে ২ কাভার্ডভ্যান উদ্ধার

‘জন্মলগ্ন থেকে খালি মাঠে গোল দেওয়ায় অভ্যস্ত বিএনপি’

‘জন্মলগ্ন থেকে খালি মাঠে গোল দেওয়ায় অভ্যস্ত বিএনপি’

কর্মসূচির নামে জনভোগান্তি সৃষ্টি করলে কঠোর ব্যবস্থা: ওবায়দুল কাদের

কর্মসূচির নামে জনভোগান্তি সৃষ্টি করলে কঠোর ব্যবস্থা: ওবায়দুল কাদের

টেকনাফে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রেফতার

টেকনাফে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রেফতার

চুক্তিতে রাইড শেয়ার করলে চালক ও যাত্রীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

চুক্তিতে রাইড শেয়ার করলে চালক ও যাত্রীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

© 2021 Bangla Tribune