X
বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

উত্তরের সড়কে ঈদযাত্রার ভোগান্তি বাড়িয়েছে নলকা সেতু

আপডেট : ২০ জুলাই ২০২১, ১৯:৩৫

ঈদযাত্রায় উত্তরাঞ্চলের যাত্রীদের সড়কে বেশ ভোগান্তি পোহাতে হয়। এসময় অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনে সড়কে নামে অতিরিক্ত যানবাহন। এতে সৃষ্টি হয় যানজট। ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়কে প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে এই যানজটে স্থবির হয়ে পড়ে সবকিছু। এরমধ্যে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কে ক্ষতিগ্রস্ত নলকা সেতু ও কড্ডায় ফ্লাইওভার নির্মাণকাজ ভোগান্তিতে যোগ করেছে নতুন মাত্রা।

ক্ষতিগ্রস্ত সেতু ও ফ্লাইওভারের নির্মাণকাজ চলায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম গোলচত্বর থেকে হাটিকুমরুল গোলচত্বর পর্যন্ত প্রায় ২২ কিলোমিটার মহাসড়কে যানবাহন ধীরগতিতে চলছে। এছাড়া ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কেও যানবাহনের ধীরগতি দেখা গেছে। এতে মহাসড়কে যাত্রীদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থাকতে হচ্ছে। কোরবানির পশুবাহী ট্রাক ও ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি চরমে ঠেকেছে। 

বঙ্গবন্ধু সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (টোল অংশ) আহসান মাসুদ বাপ্পি বলেন, বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ১৭ থেকে ১৮ হাজার যানবাহন চলাচল করে। ঈদের তিনদিন আগে ও তিনদিন পরে এই মহাসড়ক দিয়ে স্বাভাবিক দিনের তুলনায় দ্বিগুণ অর্থাৎ প্রতিদিন গড়ে ২৫ হাজার যানবাহন চলাচল করে। গত ঈদুল ফিতরের আগে (গত ১৩ মে) একদিনে বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে ৫২ হাজার যানবাহন চলাচল করেছে। তবে সড়কের বেহাল অবস্থা ও অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা সুখকর হচ্ছে না।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কের নলকা সেতুর বিভিন্ন জায়গায় পিচ ও পাথর উঠে গেছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ সেতুতে মাঝে মধ্যে সংস্কার করলেও বৃষ্টিপাতের কারণে সেতুটির পিচ উঠে এক্সপানশন জয়েন্টগুলো ফাঁকা হয়ে গেছে। ফলে দুর্ঘটনা এড়াতে ধীরগতিতে চলাচল করছে যানবাহন।

অপরদিকে, বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কের মুলিবাড়িতে ডিভাইডার ও কড্ডায় ফ্লাইওভার নির্মাণকাজ চলমান থাকায় এই দুটি জায়গা দিয়েও যানবাহন চলছে ধীরগতিতে। আর এসবের কারণে এই মহাসড়কে প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে সিরাজগঞ্জ রোড গোলচত্বর পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার মহাসড়কে ভোগান্তিতে পড়ছেন উত্তর ও পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষ। বিশেষ করে রাতে যানবাহনের চাপ বাড়লে তীব্র হচ্ছে যানজট যা পরদিন দুপুর পর্যন্ত থাকে।

ঢাকা থেকে উত্তরাঞ্চলগামী ট্রাকচালক হাফিজুর রহমান বলেন, নলকা সেতু ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ধীরগতিতে গাড়ি চালাতে হচ্ছে। এতে মহাসড়কে যানবাহনের দীর্ঘ সারি তৈরি হয়ে যানজটের কবলে পড়তে হচ্ছে।

ঢাকা-সিরাজগঞ্জ রুটের এসআই এন্টারপ্রাইজের বাসচালক আজাদ শেখ বলেন, বর্তমানে মহাসড়কের যে অবস্থা, তাতে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের ভোগান্তি বেড়েছে। বিশেষ করে ঝুঁকিপূর্ণ নলকা সেতু ভোগান্তির মূল কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তবে সড়কে শৃঙ্খলা নিয়ে চলাচল এবং যানবাহনের স্বাভাবিক গতি ধরে রাখতে চেষ্টা করছেন পুলিশ সদস্যরা। হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুলাহেল বাকি বলেন, নলকা সেতুটি সড়ক বিভাগ ঝুঁঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে। সেতুর বিভিন্ন স্থানে পিচ ও পাথর উঠে গেছে। এ কারণে সেতুতে স্বাভাবিক গতিতে গাড়ি চলাচল করতে পারছে না। তবে শৃঙ্খলার সঙ্গে চলাচল নিয়ন্ত্রণে ও যানজট নিরসনে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম পাড় থেকে নলকা সেতু পর্যন্ত সেতু থানার নিয়ন্ত্রণে। এই সংযোগ মহাসড়কের মুলিবাড়িতে ডিভাইডার ও কড্ডা এলাকায় ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। এসব কারণে অধিকাংশ সময় ধীরগতিতে যানবাহন চলাচল করায় মাঝে মধ্যে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। যানজট নিরসনে মুলিবাড়ি ও কড্ডায় আলাদা ডাইভারশন তৈরি করা হচ্ছে। বিকল্প এই ডাইভারশন ব্যবহার শুরু হলে আলাদা আলাদা লেনে যানবাহন চলাচল করবে বলে জানান তিনি।

সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আশরাফুল ইসলাম পিকে বলেন, নলকা সেতুটি অনেক দিনের পুরাতন হওয়ায় প্রায় সময়ই সংস্কার কাজ করা হয়। যাতে স্বাভাবিকভাবে যানবাহন চলাচল করতে পারে। গত কয়েকদিনে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের কারণে সেতুর পিচ ঢালাই উঠে গেছে। এছাড়া পুরনো ডিজাইনের এই সেতুটির এক্সপানশন জয়েন্টের দূরত্বও একটু বেশি। এতে যান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। সেতুটি বিভিন্ন স্থানে সংস্কার কাজ করার মাধ্যমে স্বাভাবিক চলাচল বজায় রাখতে চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

খুলে দেওয়া হচ্ছে লেবুখালী ঝুলন্ত সেতু

খুলে দেওয়া হচ্ছে লেবুখালী ঝুলন্ত সেতু

বগুড়ায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

বগুড়ায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

বঙ্গবন্ধুর নামে ‘মাচাং’ উদ্বোধন করে বহিষ্কার যুবলীগ নেতা

বঙ্গবন্ধুর নামে ‘মাচাং’ উদ্বোধন করে বহিষ্কার যুবলীগ নেতা

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২১, ০১:১৯

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হিলারী স্বপন কর্মকার (২৩) নামে এক শিক্ষার্থী রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। সোমবার (০২ আগস্ট) তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। হিলারী স্বপন রাজশাহীর ডিঙ্গাডোবা বাগানপাড়া এলাকার মনিরানা কর্মকারের ছেলে।

মঙ্গলবার (০৩ আগস্ট) রাতে রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক সাইফুল ফেরদৌস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্বপন কর্মকার ঢাকার নর্দান ইন্টারন্যাশনাল নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী। ঢাকা থেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহীতে এসেছেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এই মুহূর্তে স্বপনকে ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। হাসপাতালের চিকিৎসকরা চিকিৎসা দিচ্ছেন। বুধবার (০৪ আগস্ট) ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের একটি অংশকে ডেঙ্গু ওয়ার্ড করা হবে। সেখানে তাকে স্থানান্তরিত করবো। নতুন রোগী ভর্তি হলে সেখানেই রাখা হবে।

সাইফুল ফেরদৌস বলেন, এখন পর্যন্ত যথেষ্ট কিট মজুত আছে। সেই সঙ্গে চিকিৎসকরাও প্রস্তুত আছেন। আশা করছি, করোনার প্রকোপের সময় ডেঙ্গুকেও আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবো।

হিলারী স্বপন কর্মকার বলেন, ঢাকায় চার দিন জ্বরে আক্রান্ত ছিলাম। সেখানে পরীক্ষায় ডেঙ্গু ধরা পড়ে। তখন প্লাটিলেট কম ছিল। রাজশাহীতে পরীক্ষা করে সবকিছু স্বাভাবিক এসেছে। এখন জ্বর নেই। হাত-পায়ের ব্যথাও নেই। সোমবার বাড়ি এসে হাসপাতালে চিকিৎসক দেখালে কয়েকটি পরীক্ষা করতে দেন। এরপর ভর্তি হতে বলেন। এখন সুস্থ ও ভালো আছি।

রামেক হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. মাহবুবুর রহমান বাদশা বলেন, এর আগেও রাজশাহীতে ডেঙ্গু রোগীদের আমরা সেবা দিয়েছি। রাজশাহী পরিচ্ছন্ন নগরী হওয়ায় ডেঙ্গুর প্রকোপ তেমন নেই। তবে আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে। ডেঙ্গু রোধে ভূমিকা রাখতে হবে।  

এদিকে, ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া ও এডিস মশার প্রজনন রোধে রাজশাহী সিটি করপোরেশন বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। উদ্যোগগুলো যথাযথভাবে বাস্তবায়নে রাসিকের স্বাস্থ্য বিভাগ ও পরিচ্ছন্নতা বিভাগের এক সমন্বয় সভাও হয়েছে।

সোমবার দুপুরে নগর ভবনের সরিৎদত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে সভা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ১৫ মাস ধরে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। করোনার পাশাপাশি এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া রোগ বিষয়ে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। সরকার এ বিষয়ে সচেতন করতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এটি প্রতিরোধে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। সবাইকে নিয়ে রাজশাহীকে সুরক্ষিত রাখতে চাই।

/এএম/

সম্পর্কিত

বগুড়ায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

বগুড়ায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

বঙ্গবন্ধুর নামে ‘মাচাং’ উদ্বোধন করে বহিষ্কার যুবলীগ নেতা

বঙ্গবন্ধুর নামে ‘মাচাং’ উদ্বোধন করে বহিষ্কার যুবলীগ নেতা

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

বগুড়ায় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদককে ছুরিকাঘাত

বগুড়ায় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদককে ছুরিকাঘাত

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২১, ০০:৪৬

মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় গ্রেফতার সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের কথিত প্রেমিকা ভারতীয় নাগরিক গায়ত্রী অমর সিং সম্পর্কে জানতে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থাকে (ইউএনএইচসিআর) দেওয়া চিঠির উত্তর পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গত জুলাই মাসের মাঝামাঝিতে ইউএনএইচসিআর থেকে পিবিআইকে গায়ত্রী সম্পর্কে চাওয়া তথ্য জানানো হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রোর পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘জুলাই মাসের মাঝামাঝিতে ইউএনএইচআর থেকে চিঠির উত্তর পাঠানো হয়। চিঠি দিয়ে আমরা গায়ত্রী অমর সিং সম্পর্কে যা যা তথ্য চেয়েছি তারা চিঠিতে সব তথ্য জানিয়েছেন। বর্তমানে ওই নারী ইউএনএইচআরে কাজ করেন না বলে তারা জানিয়েছেন। ২০১৩ সালের শেষ দিক থেকে ২০১৫ সালের মাঝামাঝি পর্যন্ত গায়ত্রী অমর সিং ওই সংস্থায় কক্সবাজারে কর্মরত ছিলেন বলে তারা জানায়।’

তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত কোনও তথ্য দিতে রাজি হননি এই পুলিশ কর্মকর্তা। সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, ‘আমরা যা চেয়েছি, তারা সবকিছুই আমাদের জানিয়েছেন। মামলার তদন্তের স্বার্থে এসব বিষয়ে আমরা এই মুহূর্তে কিছু প্রকাশ করতে চাচ্ছি না।’

মিতু হত্যা মামলায় গত ১২ মে চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তারকে প্রধান করে আট জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন। মামলায় তিনি অভিযোগ আনেন, ভারতীয় নারী গায়ত্রী অমর সিংয়ের সঙ্গে বাবুল আক্তারের প্রেম ছিল। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাবুল নিজেই তার স্ত্রীকে খুনের পরিকল্পনা করেন ও নির্দেশ দেন। পরে এ ঘটনায় ২৩ মে গায়ত্রী অমর সিং সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য চেয়ে ইউএনএইচসিআরকে চিঠি দিয়েছিল পিবিআই।

২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় সড়কে খুন হন পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতু। খুনিরা গুলি করার পাশাপাশি ছুরিকাঘাত করে তাকে হত্যা করে। ঘটনার সময় বাবুল আক্তার ঢাকায় ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের পর তিনি নগরীর পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। ওই মামলা তদন্ত করতে গিয়ে বাবুল আক্তারের সম্পৃক্তা পায় পুলিশ। এ ঘটনায় গত ১২ মে ৫৭৫ পৃষ্ঠার চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেয় পিবিআই। প্রতিবেদনে পিবিআই বলছে, মিতু হত্যা ছিল কন্ট্রাক্ট কিলিং। বাবুল আক্তারের পরিকল্পনায় এটি সংঘটিত হয়। মিতুকে হত্যার জন্য তিন লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে বলে তার জানান।

অন্যদিকে মিতু বাবা মোশারফ হোসেন মামলার এজাহারে অভিযোগ করেন, ২০১৩ সালে বাবুল আক্তার কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত থাকার সময় গায়ত্রী নামে এক ইউএনএইচসিআরের ফিল্ড অফিসার (প্রটেকশন) সেখানে কর্মরত ছিলেন। ওই সময় দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে গায়েত্রীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরে গায়ত্রীর সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন বাবুল আক্তার। বাবুলের মোবাইল ফোনে গায়ত্রী মেসেজ পাঠিয়েছিল। ফোন বাসায় রেখে যাওয়ায় ওই মেসেজগুলো মিতু দেখতে পায়। তখন তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ-অশান্তি চরমে ওঠে। ওই ঘটনার জের ধরেই বাবুল তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে।

এজাহারে আরও বলা হয়, হত্যাকাণ্ডের এক মাস আগে বাবুল চীনে এক প্রশিক্ষণে গেলে স্ত্রী মিতু দুটি বই পান, সেগুলো গায়ত্রী বাবুলকে দিয়েছিল। ওই বই দুটির দুটি পৃষ্ঠায় গায়ত্রী ও বাবুলের লেখায় তাদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের প্রমাণ মিলেছে। ‘তালিবান’ নামে একটি বইয়ের শেষ পাতায় বাবুল আক্তার নিজে গায়ত্রীর সঙ্গে তার পরিচয়, বিচে হাঁটাসহ তার কাটানো কিছু মুহূর্তের কথা লিখে রাখেন। একই বইয়ের তৃতীয় পাতায় গায়ত্রীও বাবুলকে উদ্দেশ করে একটা মেসেজ লেখেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

স্ত্রীকে অপহরণের অভিযোগে সেনাসদস্য গ্রেফতার

স্ত্রীকে অপহরণের অভিযোগে সেনাসদস্য গ্রেফতার

বঙ্গোপসাগরে বিকল সেন্টমার্টিনগামী যাত্রীবাহী ট্রলার

বঙ্গোপসাগরে বিকল সেন্টমার্টিনগামী যাত্রীবাহী ট্রলার

কুমিল্লায় একদিনে সর্বোচ্চ ১১৯০ জনের করোনা শনাক্ত

কুমিল্লায় একদিনে সর্বোচ্চ ১১৯০ জনের করোনা শনাক্ত

স্বামীর ৪ ঘণ্টা পর শ্বাসকষ্টে স্ত্রীরও মৃত্যু

আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২১, ০০:৪১

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে শ্বাসকষ্ট নিয়ে স্বামীর মৃত্যুর চার ঘণ্টার মাথায় স্ত্রীরও মৃত্যু হয়েছে। স্বামীর জানাজা নামাজের পূর্বে সোমবার (০৩ আগস্ট) বিকালে উপজেলার মীরপুর ইউনিয়নের হাসান ফাতেমাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায়, ফাতেমাপুর গ্রামের ছামির আলী (৭৫) ও তার পরিবারের লোকজন গত এক সপ্তাহ ধরে করোনা উপসর্গে ভুগছিলেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা পরীক্ষা না করে স্থানীয় ওষুধের দোকান থেকে ওষুধ সেবন করছিলেন তারা। করোনা উপসর্গের বিষয়টি গোপন রেখে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে সম্প্রতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তারা টিকা নেন।

সোমবার দুপুর ১টায় ছামির আলী মারা যান। বিকাল সাড়ে ৫টায় তার জানাজা নামাজের সময় নির্ধারণ করা হয়। জানাজার প্রস্তুতি চলাকালে বিকাল ৫টায় স্ত্রী আনোয়ারা বেগমও (৬৫) মারা যান। 

পরে গ্রামের মসজিদে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে ছামির আলীকে দাফন করা হয়। তাকে দাফনের পর পারিবারিক কবরস্থানে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় আনোয়ার বেগমকে দাফন করা হয়। 

মারা যাওয়া দম্পতির চার ছেলে দুই মেয়ে। তাদের মধ্যে তিন ছেলে যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন। বাড়িতে থাকা অন্য সদস্যরাও করোনা উপসর্গে ভুগছেন।

জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মধু সুধন ধর বলেন, পরিবারের অন্য সদস্যদের বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় একদিনে সর্বোচ্চ ১১৯০ জনের করোনা শনাক্ত

কুমিল্লায় একদিনে সর্বোচ্চ ১১৯০ জনের করোনা শনাক্ত

সিলেট বিভাগে করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৭২৮

সিলেট বিভাগে করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৭২৮

মায়ের মৃত্যুর খবরে মেয়েরও মৃত্যু

মায়ের মৃত্যুর খবরে মেয়েরও মৃত্যু

মাকে খুঁজতে ঢাকা থেকে সাইকেল চালিয়ে মৌলভীবাজারে ছেলে

মাকে খুঁজতে ঢাকা থেকে সাইকেল চালিয়ে মৌলভীবাজারে ছেলে

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২১, ০০:০৩

বৃদ্ধ বাবা-মাকে ভরণপোষণ না দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার কারণে তিন ছেলেকে আটকের পর পুলিশের সোপর্দ করা হয়েছে। ওই বাবা-মার ভরণপোষণের দায়িত্ব নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। পাইকগাছা উপজেলায় এ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় আটক তিন ছেলে মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) আদালত থেকে মুচলেকায় জামিন পেয়েছেন।

পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এজাজ শফি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা বৃদ্ধ মেছের আলী গাজী (৯৮) এবং তার স্ত্রী সোনাভান বিবি (৮৬)। তাদের চার ছেলে ও পাঁচ মেয়ে রয়েছে। তাদের জমি কয়েক বছর আগেই ছেলেরা লিখে নিয়েছেন। এরপর থেকে বড় ছেলে রওশন আলী গাজী মায়ের এবং বাকি তিন ছেলে পালাক্রমে বাবার ভরণপোষণের দায়িত্ব নেন। নিয়ম অনুযায়ী ২ আগস্ট ছিল মেজ ছেলের পর ছোট ছেলের খাবার দেওয়ার পালা। কিন্তু ছোট ছেলে বাবাকে খেতে না দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। অগত্যা স্বামীর সঙ্গে স্ত্রীও বাড়ি থেকে বের হন এবং পার্শ্ববর্তী মানিকতলা বাজারের একটি দোকানে আশ্রয় নেন। এ খবর পেয়ে ওই রাতেই ১০টার দিকে মানিকতলা বাজারে আসেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী। চার ছেলেকে খুঁজে বের করে গদাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গাজী জুনায়েদুর রহমান ও স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে শুনানি করেন। ছেলেদের কাছে ঘটনার বিস্তারিত শোনেন। এরপর বৃদ্ধ বাবা মেছের আলী গাজী ও মা সোনাভান বিবিকে বড় ছেলে রওশন গাজীর জিম্মায় দেন। একই সঙ্গে বৃদ্ধ বাবা-মার জন্য বালতি, জগ, মগ, গামছাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের একটি সেট এবং একমাসের খাবার দেন তিনি। আর বাকি তিন ছেলে মতলেব গাজী, মশিয়ার গাজী ও মোশাররফ গাজীকে পুলিশে সোপর্দ করেন।

বৃদ্ধ মেছের আলী গাজী ও তার স্ত্রী সোনাভান বিবি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, ওই বৃদ্ধ বাবা-মার খাদ্য, চিকিৎসা, পোশাকসহ যাবতীয় ব্যয়ভার এখন থেকে স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে উপজেলা প্রশাসন বহন করবে। 

গদাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান গাজী জুনায়েদুর রহমান বলেন, ‘সার্বক্ষণিক তাদের খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে তারা ভালো আছেন। কোনও অসুবিধা হচ্ছে না।’

পাইকগাছা থানার ওসি বলেন, ‘অভিযুক্ত তিন ছেলেকে সামাজিক চাপে বাবা-মার ভরণপোষণের দায়িত্ব নিলেও ঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেনি। এমনকি বাবা-মাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এ ঘটনায় তাদের সিআরপিসির ১৫১ ধারায় অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে আটক দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। তবে পরবর্তী তারিখে হাজির হওয়ার শর্তে মঙ্গলবার পাইকগাছা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে তারা জামিন লাভ করেন।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

স্ত্রীকে অপহরণের অভিযোগে সেনাসদস্য গ্রেফতার

স্ত্রীকে অপহরণের অভিযোগে সেনাসদস্য গ্রেফতার

যশোরে করোনা ও উপসর্গে আরও ৮ মৃত্যু

যশোরে করোনা ও উপসর্গে আরও ৮ মৃত্যু

খুলনায় শনাক্ত কমলেও বেড়েছে মৃত্যু

খুলনায় শনাক্ত কমলেও বেড়েছে মৃত্যু

স্ত্রীকে অপহরণের অভিযোগে সেনাসদস্য গ্রেফতার

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ২৩:২০

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে স্ত্রীকে অপহরণের অভিযোগে করা মামলায় লিটন মিয়া নামে এক সেনা সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (২ আগস্ট) বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট কর্তৃপক্ষ লিটন মিয়াকে বগুড়ার শাহজাহানপুর থানায় সোপর্দ করলে মঙ্গলবার সকালে তাকে রৌমারী নিয়ে আসে থানা পুলিশ। এর আগে ২০ জুলাই তার স্ত্রী লাকী আক্তারের বড় ভাই হাসানুজ্জামান বাদী হয়ে আট জনকে আসামি করে রৌমারী থানায় মামলা দায়ের করেন। রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুন্তাছের বিল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতার লিটন মিয়া উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের বকবান্দা গ্রামের ছেবার উদ্দিনের ছেলে। তিনি বগুড়া ক্যান্টমেন্টে কর্মরত ছিলেন বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সূত্রে জানা গেছে।

নিখোঁজ লাকি আক্তারের বড় ভাই হাসানুজ্জামান জানান, বিয়ের পর থেকেই লিটন যৌতুকের জন্য স্ত্রী লাকি আক্তারের ওপর নানাভাবে নির্যাতন করে আসছিলেন। নির্যাতন সইতে না পেরে এক সময় লাকি নির্যাতনের বিষয়টি সেনা ইউনিটে মৌখিকভাবে জানান। এতে লিটন ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে নানাভাবে হত্যা ও গুমের হুমকি দিয়ে আসছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৬ জুন লিটন মায়ের অসুস্থতার কথা বলে স্ত্রীকে উপজেলার যাদুরচর নতুনগ্রামে (দিগলাপাড়া) তার (লিটনের) ভগ্নিপতি জাবেদ আলীর বাড়িতে ডেকে নেন। এরপর থেকে লাকি আক্তারের আর কোনও খোঁজ মিলছে না। এ নিয়ে গত ২ জুলাই রৌমারী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে লাকির পরিবার।

পুলিশ ও নিখোঁজ লাকির পরিবার সূত্রে জানা যায়, লাকি নিখোঁজের সাধারণ ডায়েরি হওয়ার পর তদন্তকালে পুলিশ ওই সেনা সদস্যের ভগ্নিপতি জাবেদ আলীর বাড়ির পশ্চিম পাশে ব্রহ্মপুত্র নদের অপর প্রান্তের পাটক্ষেত থেকে একটি ওড়না, ম্যাক্সি ও জামা উদ্ধার করে। পরে লাকিকে অপহরণের অভিযোগ এনে থানায় মামলা করে লাকির পরিবার।

লাকি আক্তারের বড় ভাই হাসানুজ্জামান বলেন, ‘লাকিকে জীবিত অবস্থায় ফেরত চাই। অন্তত তার খোঁজ চাই।’ এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে লাকির পরিবার। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রৌমারী থানার ওসি (তদন্ত) এম আর সাইদ বলেন, ‘লাকির পরিবারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত সেনা সদস্যকে শাহজাহানপুর থানায় হস্তান্তর করে। পরে সেখান থেকে মঙ্গলবার সকালে তাকে রৌমারী থানায় নিয়ে আসা হয়। স্ত্রী লাকি আক্তার অপহরণ মামলায় লিটন মিয়াকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।’

রৌমারী থানার ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, ‘পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে কিছু আলামত জব্দ করেছে। এগুলো লাকি আক্তারের ব্যবহৃত কিনা তা যাচাই করা হচ্ছে।’

তিনি জানান, লিটন মিয়াকে অপহরণ মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার সকালে তাকে আদালতে নেওয়া হবে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

সকালে জন্ম নেওয়া নবজাতককে দুপুরে বিক্রির অভিযোগ

সকালে জন্ম নেওয়া নবজাতককে দুপুরে বিক্রির অভিযোগ

রংপুর বিভাগে করোনায় একদিনে ১৪ মৃত্যু

রংপুর বিভাগে করোনায় একদিনে ১৪ মৃত্যু

সর্বশেষ

আমিরাতি জাহাজ ছিনতাই, অভিযোগ ইরানের বিরুদ্ধে  

আমিরাতি জাহাজ ছিনতাই, অভিযোগ ইরানের বিরুদ্ধে  

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

নাসুমের সাফল্যে গর্বিত সুনামগঞ্জবাসী

নাসুমের সাফল্যে গর্বিত সুনামগঞ্জবাসী

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

মিতু হত্যা মামলা: গায়ত্রী সম্পর্কে পিবিআইকে তথ্য দিয়েছে ইউএনএইচসিআর

স্বামীর ৪ ঘণ্টা পর শ্বাসকষ্টে স্ত্রীরও মৃত্যু

স্বামীর ৪ ঘণ্টা পর শ্বাসকষ্টে স্ত্রীরও মৃত্যু

দশ টাকার ভাড়া নিয়ে রিকশাচালককে রডের আঘাতে হত্যা

দশ টাকার ভাড়া নিয়ে রিকশাচালককে রডের আঘাতে হত্যা

কাবুলে শক্তিশালী বিস্ফোরণ, গোলাগুলি, নিহত ৩

কাবুলে শক্তিশালী বিস্ফোরণ, গোলাগুলি, নিহত ৩

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের বাইরে গোলাগুলি

মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের বাইরে গোলাগুলি

৩ থেকে ১৭ বছর বয়সীদেরও টিকা দেবে আমিরাত

৩ থেকে ১৭ বছর বয়সীদেরও টিকা দেবে আমিরাত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি

খুলে দেওয়া হচ্ছে লেবুখালী ঝুলন্ত সেতু

খুলে দেওয়া হচ্ছে লেবুখালী ঝুলন্ত সেতু

বগুড়ায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

বগুড়ায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু

বঙ্গবন্ধুর নামে ‘মাচাং’ উদ্বোধন করে বহিষ্কার যুবলীগ নেতা

বঙ্গবন্ধুর নামে ‘মাচাং’ উদ্বোধন করে বহিষ্কার যুবলীগ নেতা

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৭ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৭ মৃত্যু

মাদ্রাসায় রাতের খাবারের পর ছাত্রের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১৭

মাদ্রাসায় রাতের খাবারের পর ছাত্রের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১৭

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ১০ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ১০ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

© 2021 Bangla Tribune