X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বিশ্ববিদ্যালয়ের টাকায় কেনা মোবাইলটি ফেরত দিলেন কলিমউল্লাহ

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩২

মেয়াদ না বাড়ানোয় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্যের পদ থেকে গত ১৩ জুন বিদায় নিয়েছিলেন অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। বিদায়ের তিন মাস পর রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থে কেনা এক লাখ ২৯ হাজার ৬১০ টাকা দামের মোবাইল ফোনটি ফেরত দিয়েছেন তিনি।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল স্টোর থেকে তার সহযোগীরা যেসব মালামাল নিয়েছিলেন তা এখনও ফেরত দেননি বলে অভিযোগ রয়েছে। ২-৪ দিনের মধ্যেই তাদের মালামাল ফেরত দেওয়ার জন্য নোটিশ দেওয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক বিভাগ ও কেন্দ্রীয় ভাণ্ডার শাখা সূত্রে জানা গেছে, অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ উপাচার্য হিসেবে যোগ দেওয়ার পর চার বছর আগে দেশের সবচেয়ে দামি মডেলের মোবাইলের জন্য চাহিদাপত্র দিয়েছিলেন। কয়েকদফা তাকে বিভিন্ন মডেলের মোবাইল দেখানো হলেও তার পছন্দ হয়নি বলে নেননি। পরে বিদেশি কোম্পানির সর্বাধুনিক একটি মোবাইল তার পছন্দ হয়। যার বাজার মূল্য ছিলো এক লাখ ২৯ হাজার ৬১০ টাকা। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাকে মোবাইলটি কিনে দেয়।

তিনি উপাচার্য থাকাকালে এটি ব্যবহার করেছেন। কিন্তু চলতি বছরের ১৩ জুন তার উপাচার্যের পদে মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। তাকে নতুন করে নিয়োগ দেওয়া হয়নি। উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ। কিন্তু দায়িত্ব হস্তান্তর করতে ক্যাম্পাসে আসেননি সাবেক উপাচার্য। বিশ্ববিদ্যালয়ের টাকায় কেনা মূল্যবান মোবাইলটিও আর ফেরত দেননি। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভাণ্ডার বিভাগ থেকে বেশ কয়েকবার মৌখিকভাবে যোগাযোগ করার পরও সায় মেলেনি। অবশেষে তাকে চিঠি দিয়ে মোবাইলটি ফেরত নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরুর কথা জানতে পেরে অবশেষে এক বাহকের মাধ্যমে এটি ফেরত দেন।

এদিকে, উপাচার্য মোবাইল ফেরত দিলেও তার ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) আমিনুর রহমান ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে কেন্দ্রীয় ভাণ্ডার থেকে নেওয়া কম্পিউটার ফাইল কেবিনেট, দামি চেয়ার, টেবিল, স্টিলের আলমারি ফাইল কেবিনেটসহ অনেক মূল্যবান আসবাবপত্র বিশ্ববিদ্যালয়কে না জানিয়ে তার কক্ষ থেকে অন্য বিভাগে বদলি হওয়ার পর সেই কক্ষে নিয়ে যান। একইভাবে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক তাবউর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালকের দায়িত্বে থাকাকালে একটি ল্যাপটপ নিলেও তা ফেরত দেননি। একইভাবে আরও বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে ফেরত দেননি।

এ বিষয়ে নাম না প্রকাশের শর্তে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ভাণ্ডারের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘যেকোনও কর্মকর্তা যে কোন বিভাগের দায়িত্বে থাকতে পারেন। এটা দোষের কিছু নয়। কিন্তু সেই দফতর থেকে অন্যত্র বদলি হলে সব মালামাল কেন্দ্রীয় ভাণ্ডারের কাছে হস্তান্তর করবেন এটাই নিয়ম। এ নিয়ম সবার জন্য প্রযোজ্য। ফলে যারা দেননি তাদের নিয়ম অনুযায়ী চিঠি দেওয়া হবে।’

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভাণ্ডারের কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম রনি বলেন, ‘আমি কয়েকদিন হলো এখানে যোগ দিয়েছি। এখনও সব গুছিয়ে নিতে পারিনি। তবে সাবেক উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থে কেনা মোবাইলটি ফেরত দিয়েছেন বলে জেনেছি। আর যারা এখনও জমা দেননি তালিকা তৈরি করে বিষয়টি উপাচার্যকে জানানো হবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৫৯

রাণীশংকৈলের বলিদ্বারা গ্রামে ধান ক্ষেতের সেচ পাম্পের বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে মনু মিয়ার স্ত্রী আফরোজা বেগম (৫৫) ও ছেলে আব্দুল কাদেরের (৩২)  মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা  ঘটে।

জানা গেছে, ঘটনার দিন সন্ধত্যায় কাদের তার বাড়ির অদূরে ধান ক্ষেতে সেচ দিতে যান। সেচ ঘরে পাম্পের সুইচ দিতে গিয়ে তিনি বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়েন।  

অনেকটা সময় পেরিয়ে গেলেও ছেলে ফিরে না আসায় তার মা নাতিকে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাদেরকে অজ্ঞান অবস্থায় দেখেন। ছেলেকে উদ্ধার করতে গিয়ে মাও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এ অবস্থায় নাতি বাড়িতে গিয়ে এ খবর জানায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের সহোযোগিতায় লোকজন মা ও ছেলের লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জমিরুল ইসলাম বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মা-ছেলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪১

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী শ্রমিক লীগ নেতা আব্দুল হক (৭০) নিহত হয়েছেন। তিনি চরফ্যাশন পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও উপজেলা শ্রমিক লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার পর ভোলা-চরফ্যাশন আঞ্চলিক মহাসড়কের চরফ্যাশন বাজারের উত্তর পাশে গাড়িওয়ালা মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। চরফ্যাশন থানার ওসি মনির হোসেন মিঞা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মোটরসাইকেলযোগে চরফ্যাশন বাজারে যাচ্ছিল তিনি। গাড়িওয়ালা মোড় এলাকায় এলে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিনি রাস্তার বাইরে পড়ে গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৩১

বাগেরহাটের সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বিজয়ী ইউপি সদস্য ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২১ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জুমার নামাজ শেষে স্থানীয় শেখরা জামে মসজিদ থেকে বের হওয়ার পর দুই পক্ষের সংঘর্ষ বাধে।

আহতদেরকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বাবুল ফকির (৫৫) নামের একজনকে বিকালে খুলনা মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, নির্বাচনের আগের জুমায় শেখরা জামে মসজিদের ইমাম ইকবাল মাহমুদ জুমার খুতবায় বলেছিলেন, ‘আগে গ্রামে এক চোর ছিল, সে মৃত মানুষের কাফন চুরি করতো। আর পরে যে চোর এসেছে, সে কাফনতো চুরি করে মানুষের পেছনে বাঁশও দেয়।’ স্থানীয় মুসল্লিরা এর ব্যাখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেছিলেন, ‘আগামী (আজ) জুমায় বলবেন’। আজ জুমার আগে এর ব্যাখা চাইলে ইমাম বলেন, ‘আমাকে মাফ করবেন। এর ব্যাখ্যা আমি দিতে পারবো না’। এ নিয়ে দুই পক্ষের কথা কাটাকাটি হয়। ইমাম ভুল স্বীকার করার পর এক পক্ষ ব‌লে, ‘আপ‌নি আর মস‌জি‌দে আস‌বেন না’। অপর পক্ষ ব‌লে, ‘কেন আস‌বে না।’

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আগের জুমায় খতিবের দেওয়া বক্তব্যের জেরে ওয়ার্ডের পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থী আব্দুল লতিফের সমর্থক বাবুল ফকির, কামরুল ফকিরের সঙ্গে জয়ী ইউপি সদস্য আনিসুর রহমান গ্রুপের রবিউল ও বাচ্চু মল্লিক মসজিদেই কথা কাটাকাটি হয়। এ নিয়ে জুমা শেষে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে একে অন্যের ওপর আক্রমণ করে। আহতদের মধ্যে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাথায় গুরুতর আহত লতিফ গ্রুপের বাবুল ফকিরকে খুলনা মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন- শেখরা গ্রামের রুবেল মল্লিক, সোহেল শেখ, শওকত শেখ, রাসেল শেখ, রবিউল শেখ, সাইফুল শেখ, মাহতাব মল্লিক, সজিব মোল্লা, কামরুল ফকির, মল্লিক ইমামুল কবির, সোহেল মল্লিক, জাহাঙ্গীর মল্লিক, তৈয়ব আলী মল্লিক, আলম মল্লিক ও মহিউদ্দিন শেখ। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

পরাজিত প্রার্থী আব্দুল লতিফের দাবি, ‘পূর্বপরিকল্পিতভাবেই আনিসুর রহমানের লোকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাওয়া আমার সমর্থকদের ওপর হামলা করেছে। বাবুল ফকিরসহ আমার ১৩ জন বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।’

অপরদিকে, ইউপি সদস্য আনিসুর রহমান হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘মসজিদের মধ্যেই বাবুল ফকির, কামরুলসহ বেশ কয়েকজন আমার লোকজনের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারমুখী আচরণ করে। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।’

বাগেরহাট মডেল থানার ওসি কে এম আজিজুর ইসলাম বলেন, ‘গত সপ্তা‌হে ইমা‌ম বয়ান ক‌রে‌ছিলেন, এই সপ্তা‌হে ব‌্যাখ‌্যা চাওয়ায় শেখরা জামে মসজিদের সামনে উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। নামাজের পর উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের অনেকে আহত হয়েছেন। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে যা বললেন রেলমন্ত্রী

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে যা বললেন রেলমন্ত্রী

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

গাছের সঙ্গে বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিহত ১, আহত ১২

গাছের সঙ্গে বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিহত ১, আহত ১২

নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হবে বিটিভি: তথ্যমন্ত্রী

নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হবে বিটিভি: তথ্যমন্ত্রী

মেসে ফ্রিতে থাকতে পারবেন রাবি ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৫২

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অ্যাডমিট কার্ড থাকলে ফ্রিতে মেসে থাকতে পারবেন। তবে ভর্তিচ্ছুদের অভিভাবকরা থাকলে টাকা দিতে হবে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাজশাহী সিটি করপোরেশন আয়োজিত ভর্তি পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতিমূলক সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। সভায় উপস্থিত ছিলেন- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড গোলাম সাব্বির সাত্তার, রাজশাহী মেট্রোপলিটনের কমিশনার  আবু কালাম সিদ্দিক, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক শামীম ইয়াজদানী। এছাড়া মেস মালিক সমিতি ও মহানগর আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই প্রথমবারের মতো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের হলসমূহ বন্ধ থাকা অবস্থায় ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো বন্ধ থাকার কারণে আবাসন সংকট দেখা দিতে পারে। ভর্তিচ্ছু ও তাদের অভিভাবকদের রাখার জন্য নগরীর বিভিন্ন ছাত্রাবাস, আবাসিক হোটেল, বিভিন্ন সরকারি রেস্ট হাউজ, গেস্ট হাউজ এবং এরপরও যদি প্রয়োজন হয়, তবে বিকল্প কিছু ব্যবস্থা আমরা রেখেছি। এসবে অন্তত ৭০ শতাংশ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর আবাসনের ব্যবস্থা হবে। বাকিরা তাদের আত্মীয়-স্বজনদের বাসাবাড়িতে থাকবেন। রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। যাতায়াতের জন্য বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসগুলো শহরে চলাচল করবে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সুবিধায় রাজশাহী অভিমুখী ট্রেনসমূহ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে থামানোর জন্য রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হবে। শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের খাবারের জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে খাবারের ব্যবস্থা করা হবে। যাতে খাবারের কোনও সংকট না হয় এবং চাহিদামতো সবাই খাবার কিনে খেতে পারেন।’

সভায় ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে আরও বেশ কিছু সিদ্ধান্ত হয়। উল্লেখযোগ্য সিদ্ধান্তগুলো হলো-  ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্র করে মেস ও গাড়ি ভাড়া বাড়ানো যাবে না, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০টি গাড়ি লোকাল সার্ভিস দেবে, পরীক্ষা চলাকালীন সময় কোনও ছাত্র-ছাত্রী অসুস্থ হলে তাৎক্ষণিক সেবা প্রদান করা হবে, প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে, যানজট নিরসনে রাজশাহীর বাইর থেকে যেসব বাস আসবে সেগুলো রাজশাহী সিটি করপোরেশনের বাইরে অবস্থান করবে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকা থেকে রাজশাহীতে প্রবেশ করা প্রতিটি ট্রেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে যাত্রা বিরতি করবে।

রাজশাহী মহানগর মেস মালিক সমিতির সভাপতি এনায়েতুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্রতি বছরই ভর্তিচ্ছুদের অনেক মেস মালিক ফ্রিতে থাকার সুযোগ দিতেন। আবার অনেক মেস মালিক টাকা নেন। তবে আমরা রাসিক মেয়রের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি ভর্তি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেবো না।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষার্থীর সঙ্গে যদি কোনও অভিভাবক আসেন, জন প্রতি এক রাতের জন্য ২০০-৫০০ টাকা মেস দিতে হবে। আর যদি কোনও পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে মেস মালিক টাকা দাবি করেন, আমাদের অভিযোগ নম্বরে যোগাযোগ করবেন।’

অভিযোগ জানানোর নম্বর- ০১৭২৯২৮৯৬২৮, ০১৭২৬৭৭৭৭৮৭ (অফিস নম্বর+ বুথ), (০১৭৪৫১৬৬৬৬৯ সভাপতি এনায়েতুর রহমান), (০১৭১০৯৪৬৭৭১ সাধারণ সম্পাদক রাজিব), (০১৭১১৫৭৮৭৭৭ কায়সার), (০১৭১৫১৩৮৪৮৫ বেলায়েত), (০১৭১৬৩৮৮৬৫০ সদস্য জাকির)।

প্রসঙ্গত, আগামী ৪, ৫ ও ৬ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ সেশনের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। 

/এফআর/

সম্পর্কিত

ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে ঢুকে ‘নাগিন ড্যান্স’

ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে ঢুকে ‘নাগিন ড্যান্স’

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে ঢুকে ‘নাগিন ড্যান্স’

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০৪

বগুড়ার বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে নাচ ও আপত্তিকর ছবি দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। গত ২০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) ক্লাসে এ ঘটনায় ঘটলেও শিক্ষক সাকিব হাসান বিষয়টি অধ্যক্ষকে অবহিত কিংবা আইনের আশ্রয়ও নেননি। এতে শুধু ওই ক্লাসে থাকা ৩৫ জন ছাত্রী নয়, অভিভাবকরাও বিব্রত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। এরপর থেকে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে অংশ নিতে সাহস পাচ্ছে না। 

তারা বলছেন, এমন অনভিজ্ঞ শিক্ষক দিয়ে জুমে ক্লাস করানো ঠিক হয়নি।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে এ বিষয়ে জানতে শিক্ষক সাকিব হাসানের মোবাইল নম্বরে কল করা হলেও তিনি ধরেননি। তবে অধ্যক্ষ মুহা. মুস্তাফিজার রহমান জানান, সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলে তিনি জেনেছেন, কে বা কারা অল্প সময়ের জন্য ঢুকে শুধু গান বাজিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে ব্লক করে দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন বলেও তিনি জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কয়েকজন অভিভাবক জানান, গত ২০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় সপ্তম শ্রেণির ‘চ’ শাখার অনলাইন ক্লাসে ৩৫ জন ছাত্রী ছিল। অ্যাডমিন ছিলেন, স্কুলের গণিত বিভাগের শিক্ষক সাকিব হাসান। ক্লাস শুরুর পরপরই অজ্ঞাত কেউ ক্লাসে ঢুকে পড়ে। প্রথমে ‘নাগিন নাচ’ এরপর দুই বার আপত্তিকর ছবি দেখায়। এ সময় ছাত্রী ও পাশে থাকা বাবা-মা বিব্রত হয়ে ক্লাস থেকে বের হয়ে যায়। ছাত্রীরা চিৎকার করে শিক্ষক সাকিব হাসানের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি ওই অজ্ঞাতকে ব্লক করে দেন।

এর আগে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘পারলে আমায় ধরেন।’

এক ছাত্রীর মা জানান, তার মেয়ে জুমে গণিত ক্লাস করার সময় তিনি পাশে ছিলেন। স্কুলের ওই শিক্ষকের আইটি সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা উচিত। শিক্ষার্থীরা অনলাইন ক্লাসে প্রবেশ করলে তাদের নাম ও রোল দেখায়। অথচ অন্য ব্যক্তি কীভাবে ঢুকে অশ্লীল ছবি দিলো তা নিয়ে অভিভাবকরা লজ্জিত, চিন্তিত ও বিব্রত। তারা মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে আতঙ্কিত।

অভিভাবকরা দাবি করেন, অনলাইনে ক্লাস চলাকালে মাঝে মাঝেই কে বা কারা ঢুকে পড়ে। তারা ছাত্রীদের ‘লাভ ইউ’ ছাড়াও বিভিন্ন অশ্লীল শব্দ ব্যবহার করে থাকে। এমন ঘটনা ঘটলেও হ্যাকারকে শনাক্ত বা গ্রেফতারে স্কুলের পক্ষ থেকে থানায় জানানো হয়নি। এমন ঘটনা ঘটলে সন্তানদের অনলাইন ক্লাসে পাঠাবেন না। তারা এ বিষয়ে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বগুড়া বিয়াম ম‌ডেল স্কুল অ‌্যান্ড ক‌লে‌জের ঘটনা প্রস‌ঙ্গে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হযরত আলী জানান, এমন ঘটনা খুবই দুঃখজনক। এ বিষয়ে রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) প্রতিষ্ঠান প্রধা‌নের সঙ্গে তিনি কথা বল‌বেন। এখা‌নে কা‌রও গা‌ফিল‌তি পে‌লে তদন্তপূর্বক ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

মেসে ফ্রিতে থাকতে পারবেন রাবি ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

মেসে ফ্রিতে থাকতে পারবেন রাবি ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

তিস্তায় বিলীনের অপেক্ষায় কমিউনিটি ক্লিনিক

তিস্তায় বিলীনের অপেক্ষায় কমিউনিটি ক্লিনিক

নীলফামারীর ৮৬৩ মণ্ডপে হবে শারদীয় দুর্গোৎসব

নীলফামারীর ৮৬৩ মণ্ডপে হবে শারদীয় দুর্গোৎসব

বেড়েছে কাঁচামরিচের ঝাঁজ

বেড়েছে কাঁচামরিচের ঝাঁজ

আমদানি কমার অজুহাতে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম

আমদানি কমার অজুহাতে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম

ববি ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ববি ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

বেশি লাভের আশায় আগাম আলু চাষে ব্যস্ত কৃষক

বেশি লাভের আশায় আগাম আলু চাষে ব্যস্ত কৃষক

সর্বশেষ

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

পুলিশের নামে ইমেইল পাঠিয়ে সাইবার জালিয়াতির চেষ্টা

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ছেলেকে বাঁচানো হলো না, প্রাণ গেলো মা’র 

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

চলে গেলেন কমলা ভাসিন

চলে গেলেন কমলা ভাসিন

© 2021 Bangla Tribune