X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

আফগানিস্তানে খাদ্য-ওষুধ পাঠাতে প্রস্তুত বাংলাদেশ

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০৩

আফগানিস্তানের মানবিক পরিস্থিতি অত্যন্ত নাজুক। প্রতি তিন জন আফগানের মধ্যে একজন অভুক্ত অবস্থায় আছে এবং প্রায় ২০ লাখ শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে। এ প্রেক্ষাপটে মানবিক সহায়তা হিসেবে আফগানিস্তানে খাদ্য ও ওষুধ পাঠাতে এবং যেকোনও ধরনের জাতিসংঘ উদ্যোগে সম্পৃক্ত হতে প্রস্তুত বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) আফগানিস্তানের মানবিক পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘ আয়োজিত একটি হাইলেভেল বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা আনন্দের সঙ্গে মৌলিক খাদ্যসামগ্রী ও জীবন-রক্ষাকারী ওষুধ দিয়ে সহায়তা করতে পারি। এই কোভিড মহামারির সময়ে আমরা পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট, মাস্ক ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল সামগ্রী দিতে চাই।’

প্রায় ছয় ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠকে বিভিন্ন দেশ আফগানিস্তানে কীভাবে সহায়তা করা যায় সেটি তুলে ধরেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আফগানিস্তানের উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশ অংশীদার হতে চায়। মৌলিক স্বাস্থ্য, শিশু স্বাস্থ্য, পয়ঃনিষ্কাশন, আইসিটি, কৃষি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অংশীদার হতে চায়।

বৈঠক আয়োজনের জন্য জাতিসংঘ মহাসচিবকে ধন্যবাদ জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আফগানিস্তান পরিস্থিতি বাংলাদেশ নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, স্থিতিশীল আফগানিস্তান দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

শান্তিপূর্ণ ও সমৃদ্ধ আফগানিস্তান দেখতে চায় বাংলাদেশ জানিয়ে তিনি বলেন, এজন্য অন্তর্ভুক্তিমূলক, আফগানি নেতৃত্ব ও আফগানিদের দ্বারা তৈরি টেকসই সমাধান প্রয়োজন।

/এসএসজেড/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে রাশিয়ার সহযোগিতা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে রাশিয়ার সহযোগিতা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘মানবাধিকার নিয়ে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়নি’

‘মানবাধিকার নিয়ে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়নি’

‘ভারত পার পেয়ে গেলেও ঝামেলায় বাংলাদেশ’

‘ভারত পার পেয়ে গেলেও ঝামেলায় বাংলাদেশ’

‘আফগানিস্তানে বৃহত্তর জনগণের সরকার হলে স্বাগত জানানো উচিত’

‘আফগানিস্তানে বৃহত্তর জনগণের সরকার হলে স্বাগত জানানো উচিত’

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০২

করোনা মহামারির ১৯ মাস পর এই প্রথম কোনও বিদেশ সফরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতিসংঘের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দিতে আজ শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) নিউইয়র্কের উদ্দেশে সকাল ৯টা ২৩ মিনিটে রওনা হয়েছেন সরকার প্রধান। এ সফরের শুরুতে তিনি ফিনল্যান্ডে অবস্থান করবেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বাংলা ট্রিবিউনকে শুক্রবার সকালে বলেন,  সকাল ৯টার পরে হযরত শাহজালার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভিভিআইপি ফ্লাইট বিজি-১৯০১ যোগে ফিনল্যান্ডের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেবেন প্রধানমন্ত্রী। প্রেস সচিব নিজেও প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে রয়েছেন।

সফরসূচি অনুযায়ী স্থানীয় সময় বিকাল পৌনে ৪টার সময় ফিনল্যান্ডের হেলসিংকি ভানতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। সেখানে তিনি বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে সফরকালীন আবাসস্থল হেলসিংকির হোটেল ক্যাম্প-এ যাবেন।

পরে রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় বিকাল ৪টায় হেলসিংকির ভানতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভিভিআইপি ফ্লাইট বিজি-১৯০২ যোগে নিউইর্য়কের উদ্দেশে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী।

নিউইর্য়ক সময় বিকেল ৬টার দিকে জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। সেখানে বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রধানমন্ত্রী সফরকালীন আবাসস্থল লোটে নিউইর্য়ক প্যালেসে যাবেন।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) নিউইর্য়ক সময় সকাল ৯টায় রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের অংশগ্রহণে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

বেলা সাড়ে ১১টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে জাতিসংঘ সদরদপ্তরের উত্তরের লনে বাগানে বৃক্ষরোপন এবং একটি বেঞ্চ উৎসর্গ করবেন প্রধানমন্ত্রী।

এ দিন বেলা সাড়ে ১২টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সফরকালীন আবাসস্থলে ইউরোপিয়ান কাউন্সিলের সভাপতি চার্লস মিশেল এর সঙ্গে বৈঠক করবেন।

বিকেল পৌনে ৩টায় একই স্থানে বার্বাডোসের প্রধানমন্ত্রী মিয়া আমোর মোটলি'র সঙ্গে বৈঠক করবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিকেল ৪টায় ‘সাসটেইনবল ডেভেলপমেন্ট সলুশ্যন নেটওয়ার্ক’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন তিনি।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টায় জাতিসংঘ সদরদফতরের জেনারেল অ্যাসেম্বলি হলে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনের উদ্বোধনী পর্বে অংশগ্রহণ করবেন শেখ হাসিনা।

এ দিন বিকেলে সফরকালীন আবাসস্থলে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের গোলটেবিল বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকাল ১১টায় সফরকালীন আবাসস্থল থেকে 'হোয়াইট হাউজ গ্লোবাল কোভিড-১৯ সামিট: ইন্ডিং দ্য প্যানডেমিক অ্যান্ড বিল্ডিং ব্যাক বেটার' শীর্ষক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা।

দুপুর ১২টার দিকে নেদারল্যান্ডসের রাণী ম্যাক্সিমার সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিকেলে 'রোহিঙ্গা সংকট: টেকসই সমাধান অত্যাবশ্যক' শীর্ষক উচ্চ পর্যায়ের অনুষ্ঠানে (ভার্চুয়াল) অংশগ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টায় 'ইভেন্ট অব লিডারস নেটওয়ার্ক অন ডেলিভারিং অন দ্য ইউএন কমন এজেন্ডা: অ্যাকশন টু অ্যাচিভ ইকুয়্যলিটি অ্যান্ড কনক্লুশন' শীর্ষক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ।

বেলা ১টায় জাতিসংঘ মহাসচিবের সভাপতিত্বে 'ফুড সিস্টেমস সামিট অ্যাজ পার্ট অব দ্য ডিকেড অব অ্যাকশন টু অ্যাচিভ দ্য সাসটেইবল ডেভেলপমেন্ট গোল (এসডিজিএস) বাই ২০৩০ শীর্ষক অনুষ্ঠানে ভিডিও বার্তায় বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিন দুপুরে জাতিসংঘ সদরদপ্তরে পর্যায়ক্রমে মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ, জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেস এবং ভিয়েতনামের রাষ্ট্রপতি নগুইয়েন জুয়ান ফুকের সঙ্গে বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সকালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে বক্তব্য দেবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিন দুপুরে নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রাত ৮টায় যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটি কর্তৃক আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় ভার্চুয়ালি অংশ নেবেন শেখ হাসিনা।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে নিউইর্য়ক থেকে ওয়াশিংটন যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করবেন প্রধানমন্ত্রী। 

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারল্যান্সের ভিভিআইপি ফ্লাইট বিজি-১৯০৪ যোগে ফিনল্যান্ডের হেলসিংকির উদ্দেশে ওয়াশিংটন ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী।

শুক্রবার (০১ অক্টোবর) সকাল পৌনে ৮টায় হেলসিংকির ভানতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী। পৌনে ১০টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারল্যান্সের বিজি-১৯০৫ ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর শুক্রবার (০১ অক্টোবর) রাতে সোয়া ১০টায় দেশে পৌঁছানোর কথা রয়েছে তার।

/পিএইচসি/ইউএস/

সম্পর্কিত

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ১৭ সেপ্টেম্বরের ঘটনা।)

 

নয়াদিল্লিতে ভারত-পাকিস্তান চুক্তি সম্পাদনের পর এদিন থেকে আটক বাঙালিদের প্রথম দলটিকে দেশের মাটিতে পৌঁছানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়। একইসঙ্গে বাংলাদেশে অবস্থানরত পাকিস্তানি নাগরিকদের একটি দল তাদের দেশে ফিরে যাচ্ছেন বলে জানানো হয়।

রেডক্রস এই লোক বিনিময়ের দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। এর মাধ্যমে অবসান ঘটবে বহুদিনের প্রতীক্ষা ও উৎকণ্ঠার। ঢাকা জেলা প্রশাসক সৈয়দ রেজাউল হায়াত দৈনিক বাংলার এক প্রতিনিধিকে জানান, আফগানিস্তান এয়ারলাইন্স-এর বিমানে করে আটক বাঙালিরা স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করবেন। প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫ হাজার বাঙালি ফিরে আসবেন। তাদের জন্য ঢাকার উপকণ্ঠ মিরপুরে নুরানী একাডেমির কাছে একটি অস্থায়ী অভ্যর্থনা শিবির খোলা হয়।

৫ হাজার লোক ফিরে আসার পর ২৪ ঘণ্টা থেকে তিনদিনের মধ্যে প্রত্যাবর্তনকারী নিজ নিজ বাসস্থানে চলে যাবেন। অভ্যর্থনা শিবিরে তাদের প্রতিদিন মাথাপিছু ৫ টাকা খাবারের জন্য এবং নিজ বাসস্থানে ফিরে যাওয়ার জন্য মাথাপিছু ৩০ টাকা বরাদ্দ করা হয়। এ ছাড়া প্রতিটি পরিবারকে এককালীন একশ টাকা নগদ সাহায্য দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়।

জেলা প্রশাসক আরও জানান, সেখানে অবস্থানরত পাকিস্তানিদের বিদায় দেওয়ার জন্য তেজগাঁও বিমানবন্দরে আরেকটি অস্থায়ী শিবির খোলা হয়েছে। এই শিবিরেও ৫ হাজার জনের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা ছিল। পাকিস্তানি নাগরিকদের জন্য প্রতিদিন মাথাপিছু ৫ টাকা খাদ্যে বরাদ্দ করা হয় এবং শিবিরের খাবারের অস্থায়ী দোকান খোলা থাকবে বলেও জানানো হয়। পরিকল্পনা অনুযায়ী, পাকিস্তান থেকে আকাশ, সমুদ্র ও সড়ক পথে প্রত্যাবর্তনকারী বাঙালিদের যথাক্রমে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও যশোরে অভ্যর্থনা জানানো হবে। একইভাবে পাকিস্তানি নাগরিক তাদের দেশে ফিরে যাবেন। সমুদ্র সড়কপথে বাঙালিদের ফিরে আসতে দুই থেকে তিন সপ্তাহ দেরি হতে পারে।

দৈনিক বাংলা, ১৮ সেপ্টেম্বর ১৯৭৩

১৯৭৩ সালে সংবিধান সংশোধনী বিল আনার সম্ভাবনা

সংসদের চলতি অধিবেশনে সংবিধানের কতিপয় ধারা সংশোধনের উদ্দেশ্যে বিল উত্থাপনের সম্ভাবনা রয়েছে। সংসদে দুটি অধিবেশনের মধ্যবর্তী বিরতিকাল ৬০ দিনের পরিবর্তে ১২০ দিন করার জন্য একটি সংশোধনী বিল উত্থাপিত হবে। এটাই হবে সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনী। উক্ত মহলের মতে এই সংশোধনী বিল উত্থাপনের বিষয়টি প্রায় নিশ্চিত এবং এ ব্যাপারে আইন মন্ত্রণালয় বর্তমানে সংশোধনী বিলটি আনুষ্ঠানিকভাবে উপস্থাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

উল্লেখযোগ্য, সংবিধানের বর্তমান বিধান অনুযায়ী সংসদের অধিবেশনের অন্তর্বর্তী সময়ের ব্যবধান হচ্ছে ৬০ দিন। অর্থাৎ সংসদের অধিবেশনের সমাপ্তি ঘোষণা ৬০ দিনের মধ্যে পরবর্তী অধিবেশন আহ্বান করতে হবে। উক্ত সংশোধনী বিলে এই সময়ের ব্যবধান ১২০ দিন করার প্রস্তাব করা হয়। এ ছাড়া দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আয়ত্তে আনার ব্যাপারে কঠোর কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে সরকারের প্রতি বিশেষ ক্ষমতা দেওয়ার প্রস্তাব করে। সংবিধানের আরও দু-একটি বিধানের ওপর সংশোধনী বিল উত্থাপনের বিষয় বিবেচনা করা হচ্ছে।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে সমাজবিরোধী কার্যকলাপের প্রবণতা প্রতিহত ও দুষ্কৃতিকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার প্রয়োজনে সংবিধানে কয়টি ধারা ও সংশোধনের প্রয়োজন দেখা দেবে। তবে এ ব্যাপারে এখনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

দ্য অবজারভার, ১৮ সেপ্টেম্বর ১৯৭৩

চিকিৎসার জন্য বেগম মুজিবের লন্ডনযাত্রা

১৯৭৩ সালের এদিন সকালে বেগম মুজিব চিকিৎসার জন্য লন্ডনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন। প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, গত কয়েক দিন ধরে বেগম ফজিলাতুন নেছা ‍মুজিব গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন, ভূমি প্রশাসন ও ভূমি রাজস্বমন্ত্রী আব্দুর রব সেরনিয়াবত তাকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান। বেগম মুজিবের সঙ্গে তার ছেলে শেখ জামাল ছিলেন।

 

আবার বন্যার কবলে দেশ

১৯৭৩ সালের সেপ্টেম্বরে মৌসুম শেষে কয়েকদিনের প্রবল বর্ষণে দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটে। নেত্রকোনা থেকে প্রতিনিধিদের মাধ্যমে জানা যায়, তিনদিনের প্রবল বর্ষণে মহাকুমার দশটি এলাকার মধ্যে ৯টি প্লাবিত হয়েছে। মহাকুমার তিনটি নদীর ওপর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে। বিভিন্ন স্থানের সঙ্গে যোগাযোগ করার ব্যবস্থা বিঘ্নিত হয়েছে। খবরে জানানো হয়, প্রবল বর্ষণে বগুড়ার কয়েকটি অঞ্চলের ফসলের মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে। সেবছর এটি ছিল তৃতীয়দফা বন্যার আঘাত।

/এফএ/

সম্পর্কিত

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৫৪

ভার্চুয়াল বিচার পদ্ধতির ব্যাপ্তি ও পরিধি আরও বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল বঙ্গভবনে গেলে রাষ্ট্রপতি এ বিষয়ে কথা বলেন।

কমিশনের বার্ষিক প্রতিবেদন-২০২০ এ সময় রাষ্ট্রিপতির কাছে পেশ করা হয়।

কমিশনের সদস্য বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার, বিচারপতি সহিদুল করিম, অ্যাটর্নি জেনারেল আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন এবং আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, ‘সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রপতি বিচারক নিয়োগের পাশাপাশি বিচারকরা যাতে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষতা অর্জন করতে পারে সে ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনকে নির্দেশনা দেন।’ 

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘ইতোমধ্যে বিচার কার্যক্রম ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে চালু হলেও পরিস্থিতি বিবেচনায় এর ব্যাপ্তি ও পরিধি বাড়ানো প্রয়োজন।’ এ সময় বিচারকদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে উন্নত প্রশিক্ষণের ওপর জোর দেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান কমিশনের সার্বিক কার্যক্রম এবং বার্ষিক প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।

রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এসএম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) ওয়াহিদুল ইসলাম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

/ইএইচএস/আইএ/

সম্পর্কিত

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

ইউএনওর মতো নিরাপত্তা পাবেন উপজেলা চেয়ারম্যান

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৫১

দেশের প্রতিটি উপজেলা পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানদের উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) মতো নিরাপত্তা দেওয়ার নির্দেশ সংক্রান্ত লিখিত আদেশ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এস এম মনিরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চের স্বাক্ষরের পর এসব আদেশের লিখিত অনুলিপি প্রকাশ হয়েছে।

আদালত তার আদেশে উপজেলা পরিষদ ভবনে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের পরিবর্তে ‘উপজেলা পরিষদ কার্যালয়’ লেখা সাইনবোর্ড টানানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

পাশাপাশি একই আদেশে উপজেলা পরিষদ আইন ১৯৯৮-এর ধারা ১৩ (ক), ১৩ (খ) ও ১৩ (গ) কেন সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হবে না, জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন। মামলার বিবাদীদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার আজমালুল হোসেন কিউসি ও ড. মহিউদ্দিন মো. আলামিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মেহেদী হাসান চৌধুরী ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সমরেন্দ্রনাথ বিশ্বাস।

এর আগে ১৫ জুন উপজেলা চেয়ারম্যানদের ক্ষমতা খর্ব করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের ক্ষমতা দেওয়ার বৈধতা নিয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আব্দুল আজিজসহ তিনজন উপজেলা চেয়ারম্যান এ রিট দায়ের করেন। বিচারপতিদের স্বাক্ষরের পর সে আদেশের লিখিত অনুলিপি প্রকাশ হলো।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ সেপ্টেম্বর উপজেলা পরিষদের অধীনে ন্যস্ত সব দফতরের কার্যক্রম পরিষদের চেয়ারম্যানের অনুমোদনক্রমে করার জন্য ইউএনওদের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ইউএনওরা যাতে ওই সার্কুলার অনুসরণ করেন সেজন্য পৃথক আরেকটি সার্কুলার জারি করতে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশনের এক সম্পূরক আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার দ্বৈত হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব আদেশ দেন।

/বিআই/এফএ/

সম্পর্কিত

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

ভার্চুয়াল বিচারের পরিধি বাড়ানোর তাগিদ রাষ্ট্রপতির

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

‘আমাদের বাড়ির ভাত কার পেটে না গেছে’

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার নিবন্ধনে ওয়েবলিংক চালু

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩০

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো অনিশ্চিত হয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়া হয়েছিল। চার বছর পরও তারা নিজের দেশে যাচ্ছে না। দিন দিন তাদের মিয়ানমারে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে যাচ্ছে। তারা এ দেশে মাদক ব্যবসা ও নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। অনেকে অবৈধভাবে এদেশের নাগিরক হয়ে যাচ্ছেন। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আরও তৎপর হওয়া উচিৎ। বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্দশ অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে জিএম কাদের এসব কথা বলেন।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেছেন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ কি বন্ধুহীন হয়ে যাচ্ছে? এর দায় কার? কার ব্যর্থতা? পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাম্প্রতিক এক বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে জিএম কাদের বলেন, মন্ত্রীর কথায় মনে হচ্ছে, কোনও দেশেরই সহায়তা পাচ্ছে না বাংলাদেশ।

এ সময় সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর দাবি জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, করোনার কারণে শিক্ষাঙ্গনে স্থবিরতা ছিল। শিক্ষার্থীদের জীবন থেকে হয়ত দুই বছর ঝরে যাবে। এসব বিবেচনায় সবার জন্য চাকরির বয়সসীমা ৩২ করা যায় কিনা বিবেচনা করা উচিৎ।

 

/ইএইচএস/এফএ/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তানের ঘটনার আড়ালে রোহিঙ্গা ইস্যু চলে যাক চায় না বাংলাদেশ

আফগানিস্তানের ঘটনার আড়ালে রোহিঙ্গা ইস্যু চলে যাক চায় না বাংলাদেশ

সৌদি আরবের রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়ার কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি

সৌদি আরবের রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়ার কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে রেখে দেওয়ার প্রস্তাব বিশ্বব্যাংকের

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে রেখে দেওয়ার প্রস্তাব বিশ্বব্যাংকের

ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেখভালে জাতিসংঘ-সরকার একমত

ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেখভালে জাতিসংঘ-সরকার একমত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে রাশিয়ার সহযোগিতা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে রাশিয়ার সহযোগিতা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘মানবাধিকার নিয়ে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়নি’

‘মানবাধিকার নিয়ে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়নি’

‘ভারত পার পেয়ে গেলেও ঝামেলায় বাংলাদেশ’

‘ভারত পার পেয়ে গেলেও ঝামেলায় বাংলাদেশ’

‘আফগানিস্তানে বৃহত্তর জনগণের সরকার হলে স্বাগত জানানো উচিত’

‘আফগানিস্তানে বৃহত্তর জনগণের সরকার হলে স্বাগত জানানো উচিত’

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় সহযোগিতা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় সহযোগিতা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের কারণে অতিমাত্রায় পরিবেশ দূষণ হচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের কারণে অতিমাত্রায় পরিবেশ দূষণ হচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

২০২৬ সালের পরেও স্বল্পোন্নত দেশের সুবিধা চায় ঢাকা

২০২৬ সালের পরেও স্বল্পোন্নত দেশের সুবিধা চায় ঢাকা

যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে এটা আশা করি না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে এটা আশা করি না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ভয়ে কাবুল বিমানবন্দরে যাচ্ছেন না ১৫ বাংলাদেশি : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ভয়ে কাবুল বিমানবন্দরে যাচ্ছেন না ১৫ বাংলাদেশি : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বাসার সামনে বিক্ষোভ করুন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বাসার সামনে বিক্ষোভ করুন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সর্বশেষ

মুগদায় রিকশাওয়ালার ঘর মিললো জামালপুরের নিখোঁজ ৩ মাদ্রাসাছাত্রী

মুগদায় রিকশাওয়ালার ঘর মিললো জামালপুরের নিখোঁজ ৩ মাদ্রাসাছাত্রী

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

নবনীতার গান দিয়ে নতুন সিজন শুরু

নবনীতার গান দিয়ে নতুন সিজন শুরু

আদালতের ক্যান্টিনে সংঘর্ষ, কারাগারে বাদী-বিবাদী পক্ষের ৬ জন 

আদালতের ক্যান্টিনে সংঘর্ষ, কারাগারে বাদী-বিবাদী পক্ষের ৬ জন 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

© 2021 Bangla Tribune