X
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

যত্রতত্র অনার্স-মাস্টার্স খুলে সনদ দেওয়া হয়েছে: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৩

যেখানে অনার্স-মাস্টার্স চালু করার অবকাঠামো নেই সেখানেও জনপ্রতিনিধিদের চাপে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় তা চালু করতে বাধ্য হয়েছে। যত্রতত্র অনার্স-মাস্টার্স খুলে সনদ দেওয়া হয়েছে‑ বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদে কুড়িগ্রাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বিলের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৬ ভাগ শিক্ষার্থী বেকার থাকেন এমন পরিসংখ্যানের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সারাদেশে এমনকি প্রত্যন্ত অঞ্চলেও যেখানে অনার্স-মাস্টার্স চালু করার অবকাঠামো নেই সেখানে আমাদের জনপ্রতিনিধিদের কারণে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বাধ্য হয়েছে তা চালু করতে। যেখানে যোগ্যতাসম্পন্ন শিক্ষক নেই সেখানেও অনার্স-মাস্টার্স খুলে যত্রতত্র সনদ দেওয়া হয়েছে। তার জন্য আমরা জনপ্রতিনিধিরাই অধিকাংশ দায়ি।

এই দিকটা কাটিয়ে ওঠতে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কাজ করছে। অনেকগুলো শতবর্ষী প্রতিষ্ঠান আছে, অনেকগুলো খুবই ভালো প্রতিষ্ঠান। সেগুলো ছাড়া আর বাকিগুলোতে মাস্টার্সের বিষয় থাকবে না। সেখানে অনার্স থাকবে, বিএ, বিএসসি, বিকম থাকবে। ডিপ্লোমা করানো হবে। যাতে তারা বিভিন্ন কর্মে যুক্ত হতে পারেন।

মন্ত্রী বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটিতে সংসদ সদস্যদের সভাপতিত্বের মামলাটি এখনও বিচারাধীন। কোর্টের মামলার বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। আমি আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেলের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলাপ করেছি। তাঁরা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন যে বিষয়টি দেখবেন।

মন্ত্রী বলেন, করোনাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ছিলো তা সঠিক নয়। শ্রেণিকক্ষে পাঠদান বন্ধ ছিলো। তবে টেলিভিশন ও অনলাইনের মাধ্যমে পাঠদান পুরোপুরি চলমান ছিলো। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে পাঠদান চলছে। আর পরীক্ষাও চলেছে। সরকারি ও বেসরকারি সকল বিশ্ববিদ্যালয়েই চলেছে। খুব একটা সেশনজটেরও সুযোগ বেশি নেই। আমরা খুব সহজে এই সমস্যার সমাধান করতে পারবো।

তিনি বলেন, আমরা নতুন শিক্ষাক্রমে যাচ্ছি। পিএসসি ও জেএসসি নিয়ে যা যুগোপযোগী আমরা ঠিক সেইভাবেই করবো।

এনটিআরসি নিয়োগে পুলিশ ভেরিফিকেশন এখন খুবই প্রয়োজনীয় বিষয়। এখন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসসহ নানান রকমের সমস্যা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যেভাবে জাল বিস্তার করছে। সেখানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের ক্ষেত্রে সজাগ ও সতর্ক থাকা উচিত।

শিক্ষার মান সম্পর্কে বিরোধী দলীয় সংসদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার মান নিয়ে আমাদের প্রায়শ প্রশ্ন করা হয়। কিন্তু আমাদের এখান থেকে পাস করে দেশে ও বিদেশে যে সাফল্য আমরা দেখি, তাতে শিক্ষার মান তলিয়ে গেছে‑ এই কথাটি বলবার সুযোগ নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা মানসম্পন্ন নন এই কথাগুলোও আসে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিয়োগ প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ভিসি নিয়োগ দেওয়ার সময় অনেকগুলো বিষয় সামনে আনা হয়। তাঁর অ্যাকাডেমিক এক্সিলেন্স, প্রশাসনিক দক্ষতা ও নেতৃত্বের গুণাবলী দেখা হয়। সবকিছু দেখে আমরা প্যানেল নির্ধারণ করি। তারপর সেটা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যায়, সেখানেও যাচাই-বাছাই করা হয়। তারপরে সেটা মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে যায়। দীর্ঘ ভেটিং প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তা চূড়ান্ত করা হয়। এখন পর্যন্ত যে অভিযোগ এসেছে। তা খুব হাতেগোনা।

তিনি বলেন, অনেক সময় দেখা যায় ভিসির মেয়াদ শেষ হয়ে আসছে। তখন অনেকই নতুন ভিসি হতে চান। সেকারণে যিনি দায়িত্বে থাকেন। তাঁর সময়কাল নিয়ে প্রশ্ন তোলবার জন্য নানান কথা তুলে ধরা হয়। কিন্তু কোন জায়গায় কোন অভিযোগ আসলে আমরা ইউজিসির মাধ্যমে তদন্ত করি।

তিনি বলেন, চাকরিপ্রার্থী বলেন‑ তিনি চাকরি পান না। আর দাতা বলেন, তিনি যোগ্য লোক খুঁজে পাচ্ছেন না। দুটোর মাঝে যে দূরত্ব সেটা দূর করার জন্য আমরা সফট স্কিল শিখানোর কাজ করছি।

শিক্ষক নিয়োগের অনিয়ম প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষক নিয়োগের ন্যূনতম যোগ্যতার একটি নীতিমালা করে দেওয়া হয়েছে ইউজিসির মাধ্যমে। ইউজিসির সক্ষমতার বৃদ্ধির জন্যও কাজ করছি। আশা করি, খুব শিগরিই এটা সংসদে উঠবে।

স্কুল-কলেজ সরকারিকরণের প্রক্রিয়া দীর্ঘ উল্লেখ করে দীপু মনি বলেন, এই প্রক্রিয়াটি খুবই জটিল। দীর্ঘদিন আগে তাঁরা (শিক্ষক) নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন। তাদের নিয়োগের সঠিক কাগজপত্র অনেক জায়গায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। সরকারিকরণ করা হবে বলার পরে অনেক জায়গায় অনিয়ম করবার একটা প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে। এটি সঠিকভাবে করার জন্য আমরা জনবল নিয়োগ করে সেটি দ্রুততার সঙ্গে শেষ করতে চাচ্ছি। কাগজের প্রয়োজনীয়তা যতো পারি কমানোর চেষ্টা করছি।

/ইএইচএস/এমএস/

সম্পর্কিত

মেডিক্যাল সংক্রান্ত পুরনো দুটি আইন বাতিলে সংসদে বিল পাস

মেডিক্যাল সংক্রান্ত পুরনো দুটি আইন বাতিলে সংসদে বিল পাস

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে বৈঠক চলছে

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে বৈঠক চলছে

নির্দেশনা না মানলে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

নির্দেশনা না মানলে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

একাদশ ও দ্বাদশের সমন্বিত মূল্যায়নে এইচএসসি’র চূড়ান্ত ফল

একাদশ ও দ্বাদশের সমন্বিত মূল্যায়নে এইচএসসি’র চূড়ান্ত ফল

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৫০

রাজধানীর বাড্ডা থানা এলাকা থেকে ১০ কেজি গাঁজাসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ। তারা হলেন মো. রুবেল ইসলাম ও নাফিসা আক্তার। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে বাড্ডা থানার উত্তর বাড্ডা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে গোয়েন্দা গুলশান জোনাল টিম।

গুলশান গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মাহবুবুল হক সজীব শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বলেন, ‘মাদক ব্যবসায়ীরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা হতে গাঁজা সংগ্রহ করে ঢাকা হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিয়ে যাওয়ার জন্য উত্তর বাড্ডা বাসস্ট্যান্ডে অবস্থান করছেন—এমন তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে পালানোর চেষ্টাকালে একজন পুরুষ ও একজন নারীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার রুবেলের সঙ্গে থাকা ল্যাগেজের ভেতর থেকে ৬ কেজি গাঁজা এবং নাফিসার ট্রাভেল ব্যাগ থেকে ৪ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।’

বাড্ডা থানার মামলায় গ্রেফতারকৃতদের আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মশিউর রহমানের নির্দেশনায় অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. কামরুজ্জামান সরদারের তত্ত্বাবধানে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (টিম লিডার) মাহবুবুল হক সজীবের নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।

 

/আরটি/আইএ/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:০৯

অধিভুক্ত কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ইনস্টিটিউটগুলোর নামের সঙ্গে ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ শব্দের ব্যবহার থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) এই নির্দেশনা জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

নির্দেশনায় বলা হয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ইনস্টিটিউটগুলোতে সংশ্লিষ্ট কলেজের নামের পাশাপাশি তাদের ব্যবহৃত সাইনবোর্ড, বিভিন্ন ব্যানার, কলেজ প্যাড, শিক্ষকদের ভিজিটিং কার্ডসহ বিভিন্ন প্রকাশনায় ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ নাম ব্যবহার করছে। যা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি সংক্রান্ত রেগুলেশন পরিপন্থী।

এই পরিস্থিতিতে আদেশে সংশ্লিষ্ট কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ইনস্টিটিউটগুলোকে উল্লেখিত কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আদেশে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড, পাছি ও অন্যান্য প্রকাশনা থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ' শব্দটি প্রত্যাহার করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে অবহিত করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রের স্নাতকোত্তর শিক্ষার ডিন, স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুলের ডিন, কারিকুলাম উন্নয়ন ও মূল্যায়ন কেন্দ্রের ডিন এবং রেজিস্টারসহ সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, দেশের বিভিন্ন অনার্স-মাস্টার্স স্তরের কলেজের সাইনবোর্ড ব্যানার এবং প্রচারপত্রে কলেজের মূল নামের সঙ্গে ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ সংযুক্ত করা হয়। অনেক আগে থেকেই বিষয়টির সমালোচনা করে আসছিলেন সংশ্লিষ্ট মহল।

/এসএমএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

ক্যাম্পাস দেখে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ ইউজিসির

ক্যাম্পাস দেখে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ ইউজিসির

বাউবি’র স্থগিত বিএ ও বিএসএস পরীক্ষা  শুক্রবার শুরু

বাউবি’র স্থগিত বিএ ও বিএসএস পরীক্ষা  শুক্রবার শুরু

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩৫

রাজধানীতে সাড়ে ৩ হাজার মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে। সম্প্রতি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের অনুসন্ধান এবং তালিকা এমন তথ্য উঠে এসেছে। তালিকা অনুযায়ী এই সাড়ে ৩ হাজার ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের ঢাকা মেট্রো উত্তরের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঢাকা বিভাগের প্রধান ও অতিরিক্ত পরিচালক ফজলুর রহমান।

তিনি বলেন, তালিকায় থাকা মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে কেউ সরাসরি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত, কেউ পৃষ্ঠপোষক, আবার কেউ অর্থলগ্নিকারী। আমরা ঢাকা বিভাগের মাদক কারবারিদের গ্রেফতারে প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালনা করছি।

সম্প্রতি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের বিভিন্ন অভিযান পরিচালনার জন্য লোকবল ও লজিস্টিক সাপোর্ট কিছুটা বেড়েছে বলেও জানান ফজলুর রহমান।

/আরটি/ইউএস/

সম্পর্কিত

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৬

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষায় অসামান্য অবদান ও উঁচুমানের পেশাদারিত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ মালির রাজধানী বামাকোতে ইউনাইটেড নেশনস মাল্টিডাইমেনশনাল ইন্টিগ্রেটেড স্ট্যাবিলাইজেশন মিশন ইন মালি (মিনুসমা) মিশনে কর্মরত বাংলাদেশ ফর্মড পুলিশ ইউনিটের ১৪০ জন সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত হয়েছেন। 

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) পুলিশ সদর দফতরের মিডিয়া শাখা এআইজি মো. কামরুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মিনুসমা সদর দফতরে গত ২১ সেপ্টেম্বর এ পদক প্রদান করা হয়। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মিনুসমা পুলিশ কমিশনার জেনারেল বেটিনা পেট্রিসিয়া বুগানি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। চিফ অপারেশনস শারফাদিন মার্গিস ছাড়াও অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের মিলিটারি, পুলিশ ও সিভিলিয়ান সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। 

অনুষ্ঠানে পুলিশ কমিশনার জেনারেল বেটিনা পেট্রিসিয়া বুগানি তার বক্তব্যে বাংলাদেশ পুলিশের পেশাদারিত্ব ও নিষ্ঠার ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, মিশন ম্যান্ডেট বাস্তবায়নে ব্যানএফপিইউ-১ এর সদস্যরা অত্যন্ত সক্রিয় সহযোগিতা প্রদান করেছেন। তাদের অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এ মেডেল প্রদান করা হয়। 

কমান্ডার (পুলিশ সুপার) বেলাল উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের পেশাদার সদস্যরা চলমান কোভিড-১৯  মহামারিতেও সংঘাতপূর্ণ এলাকায় বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বাংলাদেশের সম্মান অক্ষুণ্ন রেখেছেন। তিনি এজন্য সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশ পুলিশের শান্তিরক্ষীদের পদক প্রদান করায় তিনি জাতিসংঘ কর্তৃপক্ষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কমান্ডার বেলাল উদ্দিন এফপিইউ সদস্যদের মেডেল পরিয়ে দেন।

/আরটি/ইউএস/

সম্পর্কিত

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার আটজনকে বদলি

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার আটজনকে বদলি

কিশোর গ্যাং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে:  আইজিপি

কিশোর গ্যাং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে:  আইজিপি

এটিএম বুথ লুট করে জুয়া খেলা

এটিএম বুথ লুট করে জুয়া খেলা

অপরাধ দমনে ডিএমপি’র শ্রেষ্ঠ যারা

অপরাধ দমনে ডিএমপি’র শ্রেষ্ঠ যারা

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার আটজনকে বদলি

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৮

বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার আটজন কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ স্বাক্ষরিত পৃথক দু'টি প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানা যায়।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের প্রজ্ঞাপনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ সাহেদ মিয়া, মো. মনিরুজ্জামান, মো. নাজমুল ইসলাম, মো. শরিফুল আলম, আতিকুর রহমান চৌধুরী ও ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিনহাজুল ইসলাম চৌধুরী এবং সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফাতেমা ইসলামকে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (টিআর) হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

একই দিন পৃথক এক প্রজ্ঞাপনে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. দেলোয়ার হোসেনকে শিল্পাঞ্চল পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

/আরটি/ইউএস/

সম্পর্কিত

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

কিশোর গ্যাং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে:  আইজিপি

কিশোর গ্যাং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে:  আইজিপি

এটিএম বুথ লুট করে জুয়া খেলা

এটিএম বুথ লুট করে জুয়া খেলা

অপরাধ দমনে ডিএমপি’র শ্রেষ্ঠ যারা

অপরাধ দমনে ডিএমপি’র শ্রেষ্ঠ যারা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মেডিক্যাল সংক্রান্ত পুরনো দুটি আইন বাতিলে সংসদে বিল পাস

মেডিক্যাল সংক্রান্ত পুরনো দুটি আইন বাতিলে সংসদে বিল পাস

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে বৈঠক চলছে

বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে বৈঠক চলছে

নির্দেশনা না মানলে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

নির্দেশনা না মানলে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

একাদশ ও দ্বাদশের সমন্বিত মূল্যায়নে এইচএসসি’র চূড়ান্ত ফল

একাদশ ও দ্বাদশের সমন্বিত মূল্যায়নে এইচএসসি’র চূড়ান্ত ফল

নবম ও দশম শ্রেণিতে বিভাগ থাকছে না

নবম ও দশম শ্রেণিতে বিভাগ থাকছে না

পরিমার্জিত শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু ২০২৩ সাল থেকে

পরিমার্জিত শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু ২০২৩ সাল থেকে

পরিমার্জিত শিক্ষাক্রমের খসড়ায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন

পরিমার্জিত শিক্ষাক্রমের খসড়ায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন

অপরিচ্ছন্ন কক্ষ: অধ্যক্ষকে শোকজ, উপপরিচালক সাময়িক বরখাস্ত

অপরিচ্ছন্ন কক্ষ: অধ্যক্ষকে শোকজ, উপপরিচালক সাময়িক বরখাস্ত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে যত সিদ্ধান্ত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে যত সিদ্ধান্ত

চাকরিজীবী ছেলে-মেয়ের মধ্যে বিয়ে বন্ধে আইন চান এমপি বাবলু

চাকরিজীবী ছেলে-মেয়ের মধ্যে বিয়ে বন্ধে আইন চান এমপি বাবলু

সর্বশেষ

‘কোরীয় যুদ্ধ’ বন্ধে প্রস্তুত উ.কোরিয়া : কিম ইয়ো

‘কোরীয় যুদ্ধ’ বন্ধে প্রস্তুত উ.কোরিয়া : কিম ইয়ো

‘দেশকে কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায় সেই সাংবাদিকতা করতে হবে’

‘দেশকে কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায় সেই সাংবাদিকতা করতে হবে’

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়েছেন ব্যবসায়ী ফজলুল হক বাবু

জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়েছেন ব্যবসায়ী ফজলুল হক বাবু

ঘরের শত্রু নিয়ে সতর্ক হোন, প্রধানমন্ত্রীকে ইনু

ঘরের শত্রু নিয়ে সতর্ক হোন, প্রধানমন্ত্রীকে ইনু

© 2021 Bangla Tribune