X
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

‘সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার কমায় আয় সংকটে পড়বে মানুষ’

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৪

‘সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার কমিয়ে মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষ বিশেষ করে অবসরভোগী সাধারণ মানুষের আয় কমানোর সরকারি সিদ্ধান্ত তাদের দৈনন্দিন ব্যয় নির্বাহে সংকট তৈরি করবে। এছাড়া সমাজে এর নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া হবে বলে অভিযোগ করেছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দলটির সভাপতি রাশেদ খান মেননের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পার্টির পলিটব্যুরোর ভার্চুয়াল সভায় এই অভিযোগ করা হয়।

সভার প্রস্তাবে বলা হয়, এর আগে সঞ্চয়পত্রের উৎসে কর বৃদ্ধি করেছে সরকার। এখন আবার সাধারণ মানুষের সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে সুদহার কমিয়ে তাদের আয় সংকুচিত করা হলো।

সভায় বলা হয়, দেশে ক্রমবর্ধমান দুর্নীতি, অর্থনৈতিক লুটপাট, হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচারে জড়িতদের বিরুদ্ধে কোনও কার্যকর ব্যবস্থা না নিয়ে অর্থমন্ত্রী গরিবের সংসারে হাত দিয়েছেন। বিগত সংসদে সঞ্চয়পত্রের উৎসে কর বাড়ানোর প্রস্তাব করে অর্থমন্ত্রী তার নিজ দলীয় সদস্যদের তোপের মুখে পড়েছিলেন। আর এবার সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার কমানোর বিষয়টি সংসদকে পাশ কাটিয়ে হঠাৎ করে ঘোষণা দিলেন।

আরেক প্রস্তাবে সাংবাদিকদের শীর্ষ সংগঠনগুলোর ১১ জন সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলব করার ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করে বলা হয়, এটি নজিরবিহীন ও অনাকাঙ্ক্ষিত। ব্যাংক হিসাব তলবের মাধ্যমে সাংবাদিকদের নিয়ন্ত্রণে রাখার অপকৌশল নেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমে দুর্নীতি ও টাকা পাচারের সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, যা ক্ষমতার অংশীজনদের মনঃপূত হয়নি।

পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশার  উত্থাপিত আলোচনায় অংশ নেন আনিসুর রহমান মল্লিক, সুশান্ত দাস, মাহমুদুল হাসান মানিক, নুর আহমদ বকুল।

 

/এসটিএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

২০ দলীয় জোট: নেতা এলে অফিস খোলে

২০ দলীয় জোট: নেতা এলে অফিস খোলে

হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলায় চরমোনাই পীরের উদ্বেগ

হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলায় চরমোনাই পীরের উদ্বেগ

‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতাগুলো পরিকল্পিত’

‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতাগুলো পরিকল্পিত’

সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার: বামজোট

সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার: বামজোট

‘ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করতে হবে’

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৫:১৮

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র আহ্বায়ক আব্দুস সালাম বলেছেন, ‘ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করতে হবে। তাহলেই ভোটের অধিকার ফিরে পাওয়া যাবে। তা না হলে বর্তমান সরকার জনগণকে ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেবে না।’ মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘আমি ভোট দিতে চাই’ ব্যানার নিয়ে গণমঞ্চ আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব মন্তব্য করেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এই উপদেষ্টার মন্তব্য, ‘আমরা বিশ্বাস করি গণতন্ত্র, জনগণের ভোটের অধিকার, উন্নয়ন ও জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন। কিন্তু আজ গুটিকয়েক মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হচ্ছে, জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন হচ্ছে না। তাদের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন দরকার। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকার দরকার। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার আনতে হলে আন্দোলন ছাড়া অন্য কোনও রাস্তা নাই। এই লড়াই শুধু বিএনপির জন্য নয়। এই লড়াই জনগণকে ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার লড়াই।’

আব্দুস সালামের ভাষ্য, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার যদি না দেওয়া হয় তাহলে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরিয়ে আনার জন্য আওয়ামী লীগ যা করেছিল আমরাও তাই করবো। আওয়ামী লীগ ও জামায়াত ইসলামী মিলে বিএনপির বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছিল, আমরাও তাই করবো।’

গণমঞ্চ’র সমন্বয়ক কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের প‌রিচালনায় মানববন্ধ‌নে ছি‌লেন শওকত আজিজ, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আব্দুর রহিম, অধ্যক্ষ সেলিম মিয়া, আরিফা সুলতানা রুমা, ইয়াকুব সরকারসহ অনেকে।

/জেডএ/জেএইচ/

সম্প্রীতি বিনষ্টের উসকানি ভারতের মুসলমানদেরও বিপদে ফেলেছে: ওবায়দুল কাদের

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৫৩

বাংলাদেশে হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের যে উসকানি দেওয়া হচ্ছে, তাতে ভারতের মুসলমানদের একটা বড় অংশের জীবনকেও বিপন্ন করে ফেলছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সম্প্রীতি সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, আজ কুমিল্লা; যেখান থেকে দুর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে এই তাণ্ডবের সূচনা।  এই তাণ্ডব নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ, চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ, হাতিয়ার বুড়িরচরসহ চট্টগ্রাম হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে। সর্বশেষ এই বিষবাষ্পে রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। কয়েকটি জেলে পরিবারের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা, ঠিক ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতা গ্রহণের পর হিন্দুদের ওপর যে নির্যাতন চালিয়েছিল তারই পুনরাবৃত্তি ঘটছে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের আমলে ৩০-৩৫ হাজার মণ্ডপে প্রতিটি দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অথচ ‘গেল গেল’ বলে এবারই শান্তি বিনষ্ট করা হয়েছে।  প্রতিমা ভাংচুর, প্রতিমায় আগুন, মন্দিরে আগুন, হিন্দুদের বাড়িঘরে আজকে হামলা চালানো হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগ রাজপথ ছাড়ে নাই। সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে অপশক্তির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার নির্দেশে আজ সারা বাংলাদেশে সম্প্রীতির সমাবেশ হচ্ছে, শান্তিপূর্ণ শোভাযাত্রা হচ্ছে।

/পিএইচসি/ইউএস/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী মিছিল

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী মিছিল

মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের

মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের

শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন সোমবার

শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন সোমবার

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী মিছিল

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৪৬

দেশের বিভিন্ন স্থানে ‘সাম্প্রদায়িক হামলা’র প্রতিবাদে রাজধানীতে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা করেছে আওয়ামী লীগ। এতে দলটির সর্বস্তরের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণির মানুষও অংশ নিয়েছেন। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টায় দলটির বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে নেতাকর্মীরা এ মিছিল শুরু করে।

দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ছাড়াও সমাবেশে অংশ নেন দলের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক ও আব্দুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল-আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, এস এম কামাল হোসেন, মির্জা আজম, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন প্রমুখ।

সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি মিছিল কর্মসূচিতে অংশ নিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে আওয়ামী লীগ, সহযোগী এবং ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে জড়ো হন। বৃষ্টি উপেক্ষা করে সম্প্রাদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান লেখা ব্যানার, ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে যোগ দেন নেতাকর্মীরা।

বেলা ১১টার পরে সম্প্রীতি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক। এর আগেই সমাবেশের পরিধি কার্যালয়ের সামনে থেকে আশপাশের সড়ক পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। জনসমাগমের কারণে বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আশপাশের সড়কের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এই কর্মসূচির কারণে রাজধানী জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

সাড়ে ১১টার আগে মিছিল শুরু হয়। যা শেষ হওয়ার কথা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে। বেলা ১২টা ১০ মিনিটে মিছিলের সামনে অংশ শহীদ মিনারের কাছাকাছি পৌঁছালেও পেছনের অংশ তখনও সচিবালয়ের সামনেই ছিল।

শান্তি সমাবেশের মধ্য দিয়ে প্রায় দুই বছর পর মাঠে নামলো আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে রাজনৈতিক কর্মসূচি চার দেয়ালের ভেতরে চলে গিয়েছিল।

মিছিলে কথা হয় ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের কর্মী রিপনের সঙ্গে। শারীরিক প্রতিবন্ধী হলেও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার আহ্বানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তি মিছিলে যোগ দিয়েছেন বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, সারাদেশে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর হামলা করছে। তাই সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে শান্তির মিছিল আমি এসেছি। আমার মতো আরও অনেক প্রতিবন্ধী এখানে যোগ দিয়েছেন।

/পিএইচসি/ইউএস/

সম্পর্কিত

সম্প্রীতি বিনষ্টের উসকানি ভারতের মুসলমানদেরও বিপদে ফেলেছে: ওবায়দুল কাদের

সম্প্রীতি বিনষ্টের উসকানি ভারতের মুসলমানদেরও বিপদে ফেলেছে: ওবায়দুল কাদের

মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের

মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের

শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন সোমবার

শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন সোমবার

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির ‘নাম্বার ওয়ান’ পৃষ্ঠপোষক বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির ‘নাম্বার ওয়ান’ পৃষ্ঠপোষক বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

২০ দলীয় জোট: নেতা এলে অফিস খোলে

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৫:২৭
দলের নেতা এলেই খোলে কার্যালয়। তা না হলে অফিসে জমতে থাকে ধুলোবালি। মাঝে মধ্যে দফতরের কাজে যুক্ত কেউ এলেও দলের দলিল-সংবাদ বিজ্ঞপ্তি কিংবা অন্যকিছু কম্পোজসহ দাফতরিক কাজ সারতে হয় বাইরের সাধারণ দোকানে। ২০ দলীয় জোটে এমন দলের সংখ্যা কম নয়। এ তালিকায় উল্লেখযোগ্য কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রমের নেতৃত্বাধীন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি), বাংলাদেশ মুসলিম লীগ (বিএমএল), বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টি প্রভৃতি। সরেজমিনে এসব দলের কার্যালয়ে গিয়ে এই চিত্র দেখা যায়। 

‘অলি আহমদ না এলে অফিস জমে না’
এফডিসি থেকে হাতিরঝিলে প্রবেশের আগে পূর্ব পান্থপথ এলাকায় মর্নিং পোস্ট টাওয়ারের তৃতীয় তলায় বিএনপি-জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) কেন্দ্রীয় কার্যালয়। অর্ধনির্মিত ভবনটির অর্ধেক এখনও ফাঁকা। নিচতলায় অটোমোবাইলের দোকান।

গত ১১ অক্টোবর বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এলডিপির ভাড়া নেওয়া কেন্দ্রীয় কার্যালয়টি বন্ধ। ভেতরে একটি বড় বৈঠককক্ষের পাশাপাশি দফতরের জন্য একটি কক্ষ ও চেয়ারম্যানের জন্য একটি কক্ষ রয়েছে।

দলীয় সূত্র জানায়, এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ কার্যালয়ে এলেই নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণ বাড়ে। দায়িত্বশীল একজন বাংলা ট্রিবিউনের কাছে মন্তব্য করেন, ‘স্যার অফিসে না এলে অফিস জমে না। স্যার আসার খবর পেলে তখন অনেকেই আসে।’ 
 
গত ঈদুল আজহার পর আর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যাননি অলি আহমদ।

তালাবদ্ধ এলডিপি অফিস লিপু লস্কর নামে একজনের দাবি, তিনি এলডিপির বেতনভুক্ত অফিস সহকারী। তার দেওয়া তথ্যানুযায়ী, গত ১ অক্টোবর এলডিপি মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির বৈঠক করেছেন। আগামী ২৫ অক্টোবর কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে দলটির ১৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। 

অফিস আছে, মুসলিম লীগের কার্যক্রম নেই
পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর মোনায়েম খানের ছেলে এএইচএম কামরুজ্জামানের গড়া বাংলাদেশ মুসলিম লীগ (বিএমএল)। নিবন্ধিত এই রাজনৈতিক দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঢাকার বনানীতে (বাড়ি ১২৬, রোড ২৭, ব্লক-এ)। এর সামনের অংশ ভেঙে দেওয়া হলেও ভেতরে একটি কক্ষকে কার্যালয় হিসেবে দেখানো হয়। 
 
করোনা আক্রান্ত হয়ে এএইচএম কামরুজ্জামান মারা গেছেন। তার মৃত্যুর পর একটি স্মরণসভা করেছে দলটি। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এতে যোগ দেন। 
 
এএইচএম কামরুজ্জামানের ভাতিজা-মেয়ের জামাই হাসিব খান এখন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তবে বিএমএল-এর কোনও কার্যক্রম নেই। কোনও রাজনৈতিক অনুষ্ঠানও করেন না তারা। জোটের বৈঠক থাকলে অংশগ্রহণ করা ছাড়া অন্য কোনও কর্মকাণ্ড নেই।

গত ১৬ অক্টোবর বাংলা ট্রিবিউনকে বিএমএল মহাসচিব অ্যাডভোকেট শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী বলেন, ‘দলের কার্যক্রম আছে বলাটা ঠিক হবে না। আবার নাই বলাটাও ঠিক হবে না। সীমিতভাবে কার্যক্রম আছে। আমরা নিজেদের আঙ্গিকে কিছু কাজ করছি আর কী।’

‘কেউ ঢুকলেই বন্ধ হয়ে যায় ইসলামিক পার্টির দরজা’
অ্যাডভোকেট আবদুল মোবিন প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টির কোনও হদিস নেই। দলটির সভাপতি পদে আবু তাহের ও মহাসচিব হিসেবে আবুল কাশেম দায়িত্ব পালন করছেন। মালিবাগ-মৌচাক টাওয়ারের ১৩ তলায় ১৩১৪ নম্বর কক্ষে তাদের ঠিকানা উল্লেখ আছে জোটের তালিকায়। তবে এই তলায় পার্টির অফিস নেই। সেই কক্ষে এখন একটি ট্রাভেল এজেন্সির কার্যালয়। 
 
কয়েক মাস আগে ১৫ তলায় ১৫০৪ নম্বর কক্ষ ভাড়া নেন সভাপতি আবু তাহের।

মৌচাক টাওয়ারের নিরাপত্তারক্ষী ও কিছু অফিসের সহকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আবু তাহের কখনও কখনও অফিসে আছেন। আর এই কক্ষ যে ইসলামিক পার্টির অফিস তাও তারা জানেন না। 
মৌচাক টাওয়ারের ১৫ তলায় ইসলামিক পার্টির অফিস
একই ফ্লোরে দাঁড়িয়ে একজন অফিস সহকারীর সঙ্গে কথা হয়। তিনি জানান, মাঝে মধ্যে অফিসে আসেন আবু তাহের। তবে এলেও অফিস বন্ধ থাকে। কেউ ভেতরে প্রবেশ করলেও দরজা খোলা থাকে না। ভেতর থেকে বন্ধ করে রাখা হয়।

গত ১৭ অক্টোবর সকালে সরেজমিনে গিয়ে যথারীতি অফিস বন্ধ পাওয়া গেছে। পাশের অফিসের একজন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, অফিসে কখনও কেউ এলেও কে আসে তা বলতে পারেন না তারা।

জোট সূত্র জানায়, ২০১৫ সালের মে মাসে প্রয়াণের আগে আবদুল মোবিনের নেতৃত্বে ইসলামিক পার্টি প্রেসক্লাবকেন্দ্রিক সভা-সেমিনার করলেও ধীরে ধীরে সেই কর্মকাণ্ডের সংখ্যা প্রায় শূন্যে এসে ঠেকেছে।

দলীয় কার্যক্রম না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে গত ১৭ অক্টোবর মহাসচিব আবুল কাশেম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা মাঝে মধ্যে বিবৃতি দিচ্ছি। অভ্যন্তরীণ বৈঠক করছি। জোট নিষ্ক্রিয়, তবে জোটের জন্য আছি। জোট ছাড়ার চিন্তা-ভাবনা নাই।’
জোটের তালিকায় থাকা ঠিকানায় এখন এজেন্সি অফিস
/জেএইচ/এমএস/

সম্পর্কিত

হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলায় চরমোনাই পীরের উদ্বেগ

হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলায় চরমোনাই পীরের উদ্বেগ

‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতাগুলো পরিকল্পিত’

‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতাগুলো পরিকল্পিত’

সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার: বামজোট

সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার: বামজোট

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: মান্না

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: মান্না

পূজামণ্ডপে হামলা সরকারি মদতে: মির্জা ফখরুল

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩০

সারা দেশে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনা সরকারি মদতেই হয়েছে বলে দাবি করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘এখানে আজকে অনেকে উপস্থিত আছেন, যারা ঘটনা স্বচক্ষে দেখেছেন। নোয়াখালীর চৌমুহনীতে কামাখ্যা বাবু (উপস্থিত) তিনি ঘটনা স্বচক্ষে দেখেছেন। সেখানে নিঃসন্দেহে যারা আক্রমণ চালিয়েছে তারা কোনও বিরোধী দলের রাজনৈতিক নেতা-কর্মী নয়। এটা আজকে সব জায়গায় তা প্রমাণ হয়ে গেছে।’

সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে  গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধিদের এক মতবিনিময় সভায় সরকার প্রধানসহ মন্ত্রীদের বক্তব্যের প্রতি ইঙ্গিত করে বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন।

শারদীয়া দুর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানাতে বিএনপির উদ্যোগে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের নিচতলায় এক মতবিনিময়ের এই শুভেচ্ছা অনুষ্ঠান হয়। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা বারবার বলছি সবসময়- দাঙ্গা, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করা এটা ক্ষমতাসীনদের মদত ছাড়া সম্ভব নয়। এটা পরিষ্কার হয়ে গেছে ‑ আজকে আওয়ামী লীগ যারা জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে, বেআইনিভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে তারা ক্ষমতাকে আরও দীর্ঘায়িত করার জন্য অর্থাৎ আগামী নির্বাচনে যাতে তারা পার পেয়ে যেতে পারে সেজন্য বিভিন্ন রকমের অপকৌশল গ্রহণ করতে শুরু করেছে এটা তারই একটা প্রমাণ।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, বিএনপি সবসময় সকল ধর্মের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী এবং সেটা তারা প্রমাণ করেছে। আপনারা জানেন, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী রমনার রেইকোর্সে কালীমন্দির ভেঙে দিয়েছিলো। ’৭১ সালে যখন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছিলো তখন সেটাকে বুলডোজার দিয়ে নিশ্চিহ্ন করে  দিয়েছিলো।’

তিনি উল্লেখ করেন, আমাদের সরকারের আমলে বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে রমনা কালী মন্দির পুনর্নির্মাণ শুরু হয়। আপনাদের নিশ্চয় মনে আছে ‑ ঢাকেশ্বরী মন্দিরে অনেক জায়গা বেহাত হয়ে গিয়েছিলো সেগুলো সাদেক হোসেন খোকা সাহেব (প্রয়াত ঢাকার মেয়র) দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে পুনরায় ফেরত আনার ব্যবস্থা করেন।”

ফখরুল বলেন, ‘যখনই ঘটনা ঘটে তখনই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব আঙ্গুল তুলে বলেন ‑ বিএনপি নাকি ঘটনার সঙ্গে জড়িত। কোনো তদন্ত না করেই এসব কথা বলছেন তিনি।’

তিনি জানান, প্রত্যেকটি ঘটনার সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের জড়িয়ে মামলা করা হয়েছে, হাজার হাজার নেতা-কর্মীকে আসামি করে মামলা দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে নোয়াখালীর চৌমুহনীতে ৯০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে ‑ যারা নির্বাচন করতে পারে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেকটা জায়গায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হচ্ছে।’

‘এটার উদ্দেশ্যটা কি ‑ প্রশ্ন করে ফখরুল বলেন, ‘প্রধান প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করবার জন্য অতীতে যে অস্ত্রটা ব্যবহার করা হয়েছে নির্বাচনের সময়ে গায়েবী মামলা দিয়েছে, তার আগে নাশকতার মামলা দিয়েছে, তারও আগে বিস্ফোরক মামলা দিয়েছে। আমাদের ৩৫ লক্ষ মানুষের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। এখানে আমরা যারা বসে আছি – এমন কেউ নেই যার বিরুদ্ধে ১০, ২০, ৬০ বা ১০০টা মামলা নেই।’

খালেদা জিয়ার শাসনামলে হিন্দুদের মন্দির নির্মাণ, সংস্কার এবং মন্দিরভিত্তিক পাঠাগার নির্মাণসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়গুলো তুলে ধরেন তিনি।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা যারা স্বাধীনতার যুদ্ধ করেছি, গণতন্ত্রের পক্ষে আছি ‑ আমরা কিন্তু এটা সহজে মেনে নিতে পারবো না। আমরা গত কয়েক বছর ধরে আন্দোলন করছি, এই আন্দোলন আরও বেগবান করব। আমরা বিশ্বাস করি, জনগণের সম্পৃক্ততার মধ্য দিয়ে আপনাদের সহযোগিতার মধ্য দিয়ে ­‑ এই দানবীয় শক্তি, অসুরীয় শক্তিকে অবশ্যই বধ করে জনগণের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে, জনগণের সরকার ও জনগণের পার্লামেন্ট করতে হবে। আসুন সেই লক্ষ্যে আমরা একতাবদ্ধ হই। এই দেশটা সবার। এটা বাংলাদেশিদের দেশ, বাংলাদেশিদের মাটি। এটার কোনও ক্ষতি হতে দেবো না।”

শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে আগতরা সিরাজগঞ্জ, নেত্রকোনা, চট্টগ্রাম, গাজীপুর, টাঙ্গাইল, জয়দেবপুর, লক্ষ্মীপুর, নওগাঁ, কিশোরগঞ্জ, নড়াইল, ময়মনসিংহ, বরিশাল, জামালপুর প্রভৃতি জেলা থেকে হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান কল্যাণ ফ্রন্ট ও ছাত্র যুব ফ্রন্টের দেড় শতাধিক সদস্য এই অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানের সূচনাতে কুমিল্লা, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজারের পূজামণ্ডপ ও রংপুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ওই ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয়। অনুষ্ঠানের পরে হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যদের প্রসাদ দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়।

সুপ্রিম কোর্ট জ্যেষ্ঠ আইনজীবী গণফোরাম নেতা সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘গত ১৩ তারিখ কুমিল্লার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বললেন, আমরা সজাগ আছি। ২০ জেলায় বিজিবি নামানো হয়েছে। এরপর অষ্টমী, নবমী হলো আপনারা পূজামণ্ডপে বিজিবি দেখেছেন কী?”

তিনি বলেন, ‘এরা (সরকার) মিথ্যাচার করছে, ধোঁকা দিচ্ছে। এরা আমাদের ঘাড়ের ওপর চেপে বসে আছে, এদেরকে তাড়াতে হবে। এজন্য আজকে এই দিনে আমাদের অঙ্গীকার হোক ‑ আন্দোলনের জন্য আমরা ঐক্যবদ্ধ হবো।”

বিএনপি নেতা সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও অমলেন্দু দাস অপুর সঞ্চালনায় মতবিনিময় অনুষ্ঠানে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, নিতাই রায় চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

/এসটিএস/এমএস/

সম্পর্কিত

দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান বিএনপির

দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান বিএনপির

আ.লীগের গণতন্ত্র হচ্ছে সারা জীবন ক্ষমতায় থাকা: মির্জা ফখরুল

আ.লীগের গণতন্ত্র হচ্ছে সারা জীবন ক্ষমতায় থাকা: মির্জা ফখরুল

আপনারা দুঃস্বপ্ন দেখছেন, এই বুঝি বিএনপি এলো: ওবায়দুল কাদেরকে ফখরুল

আপনারা দুঃস্বপ্ন দেখছেন, এই বুঝি বিএনপি এলো: ওবায়দুল কাদেরকে ফখরুল

প্রশাসনের কর্মকর্তারা বেশি ক্ষমতাধর হয়ে আমলা লীগ হয়েছে: ফখরুল

প্রশাসনের কর্মকর্তারা বেশি ক্ষমতাধর হয়ে আমলা লীগ হয়েছে: ফখরুল

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

২০ দলীয় জোট: নেতা এলে অফিস খোলে

২০ দলীয় জোট: নেতা এলে অফিস খোলে

হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলায় চরমোনাই পীরের উদ্বেগ

হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলায় চরমোনাই পীরের উদ্বেগ

‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতাগুলো পরিকল্পিত’

‘সাম্প্রদায়িক সহিংসতাগুলো পরিকল্পিত’

সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার: বামজোট

সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার: বামজোট

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: মান্না

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: মান্না

২০ দলীয় জোট: এক ভবনেই তিন শরিক দলের অফিস

২০ দলীয় জোট: এক ভবনেই তিন শরিক দলের অফিস

কুমিল্লার ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চায় ইসলামী ঐক্যজোট

কুমিল্লার ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চায় ইসলামী ঐক্যজোট

মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের

মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের

সর্বশেষ

প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

গুচ্ছ আলোচনা অনুষ্ঠান ‘ভিশনারিসে’র যাত্রা শুরু

গুচ্ছ আলোচনা অনুষ্ঠান ‘ভিশনারিসে’র যাত্রা শুরু

ধর্মীয় সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা যুক্তরাষ্ট্রের

ধর্মীয় সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা যুক্তরাষ্ট্রের

পিএনজির চমক, শেষ ৫ বলে ৪ উইকেট হারালো স্কটল্যান্ড

পিএনজির চমক, শেষ ৫ বলে ৪ উইকেট হারালো স্কটল্যান্ড

২৪ জেলায় শনাক্ত নেই

২৪ জেলায় শনাক্ত নেই

© 2021 Bangla Tribune