X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দারুণ খেলুক শামীম প্রত্যাশা চাঁদপুরবাসীর 

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:১২

ইলিশের বাড়ি খ্যাত চাঁদপুরের সন্তান ক্রিকেটার শামীম পাটোয়ারী। জেলা থেকে উঠে আসা প্রথম ক্রিকেটার যিনি সুযোগ পেয়েছেন ১৭ অক্টোবর শুরু হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আসরে। এতে শামীমের পরিবারে বইছে খুশির হাওয়া। খুশি জেলার ক্রীড়ামোদীরাও। তারা বলছেন, বিশ্বকাপে শামীমকে দারুণ খেলা উপহার দিতে হবে। তাহলেই ভবিষ্যতের জন্য দলে নিজের অবস্থান শক্ত হবে। জেলার অন্য ক্রিকেটাররাও উৎসাহ পাবে। 
 
শামীম চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার ধানুয়া গ্রামের আব্দুল হামিদ পাটোয়ারীর ছেলে। চাঁদপুর ক্লেমন একাডেমিতে অনূর্ধ-১৪ থেকে অনূর্ধ-১৬-তে তিন বছর অনুশীলন করেন তিনি। পরে ২০১৫ সালে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) ভর্তি হন। এরপর অনূর্ধ-১৭, অনূর্ধ-১৮ হয়ে অনূর্ধ-১৯ জাতীয় দলে জায়গা করে নেন এই ক্রিকেটার। ছিলেন অনূর্ধ-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম নায়ক। ২০২০ সালে যুব বিশ্বকাপে ভালো পারফরমেন্সের পর থেকেই নির্বাচকদের নজরে পড়েন তিনি। এরপর ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যাটে-বলে উজ্জ্বল পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবে নির্বাচকরা জাতীয় দলের জন্য বিবেচনা করে শামীমকে।

টিভি টুর্নামেন্টের শামীম যুব বিশ্বকাপে

শামীমের বাবা আব্দুল হামিদ বাংলা ট্রিবউনকে বলেন, ছোট থাকতে আমি চেয়েছিলাম শামীম ভালো পড়ালেখা করুক। এসএসসি পরীক্ষার আগ মুহূর্তে শামীম বিভিন্ন জায়গায় খেলতো। ভালো খেলার কারণে এক পর্যায়ে দুই বছর আগে তাকে দিনাজপুর বিকেএসপিতে ভর্তি করে দেই। এর তিন মাস পর সেখান থেকে শামীম যায় ঢাকা বিকেএসপিতে। খেলতে থাকে বিভাগীয় এবং বিভিন্ন জেলায়। ভালো পারফর্ম করায় ধাপে ধাপে শামীম জায়গা করে নেয় জাতীয় দলে।

তিনি বলেন, আমার ছেলে যেন ভবিষ্যতে দেশের হয়ে আরও ভালো খেলতে পারে সে জন্য সবার দোয়া চাই।

শামীম পাটোয়ারী ফরিদগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম বলেন, ক্রিকেটার শামিম আমাদের উপজেলার একজন গর্বিত সন্তান। নিজ পারফরম্যান্সে সে বিশ্ব ক্রিকেটে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবে। এটা আমাদের জন্য বিশাল প্রাপ্তি। তাকে অনুসরণ করে আরও নতুন ক্রিকেটার বের হবে বলে আশা করি।  

চাঁদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু বাংলা ট্রিবউনকে বলেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে শামীমের জন্য দোয়া রইলো। তাকে আরও অনেক স্ট্রাগল করতে হবে। মাথা ঠাণ্ডা রেখে প্রতিটি বল মোকাবিলা করতে হবে, দ্রুত রানও তুলতে হবে। ভবিষ্যতের জন্য নিজের জায়গাটা পোক্ত করতে হবে। সে জন্য এ বিশ্বকাপ হচ্ছে তার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি আরও বলেন, শামীম প্লেয়ার হিসেবে খুবই ভালো। এ বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। প্রত্যেক বল যে খেলতে হবে-এমন কোনও কথা নেই। এ বিষয়টি মাথায় রাখলে শামীম অনেক উপরে যাবে।

চাঁদপুর ক্লেমন একাডেমির কোচ ও শামীম পাটোয়ারীর গুরু শামীম ফারুকী বাংলা ট্রিবউনকে বলেন, চাঁদপুরের খেলোয়াড় থেকে জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়াটা বিশাল এক অর্জন। আশা করি, বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের হয়ে প্রতিটি খেলায় মূল একাদশে স্থান পাবে সে। খেলার সুযোগ পেলে বাংলাদেশ দলের জন্য ভালো রান তুলবে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৪:০৩

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে পূজামণ্ডপ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরও আট জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ জানান জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম।

গ্রেফতারকৃতরা হলো—সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. সুমন (৩৩), চৌমুহনী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইমরান হোসেন নিশান (২০), একই ওয়ার্ডের মো. রনি (২০), চৌমুহনী পৌরসভার মীরওয়ারিশ গ্রামের বিএনপির সমর্থক মো. ইউসুফ (৩০), চৌমুহনী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আক্তারুজ্জামান (৫০), সোনাইমুড়ী উপজেলার রবিউল হোসেন ওরফে রনি (৩২), লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার সাহেদুল ইসলাম (২২) ও হাতিয়া উপজেলার হাতিয়া পৌর বিএনপির প্রচার সম্পাদক ছেরাজুল হক বেচু (৪২)।

শহীদুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ইমরান হোসেন নিশান নামের একজন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন, হামলার দিন চৌমুহনী ব্যাংক রোডের রাম ঠাকুর মন্দির থেকে এক লাখ ৩৫ হাজার টাকা লুট করে ভাগ-বাটোয়ারা করে নেয়। নিশান ভাগে পায় ৮ হাজার টাকা। এর মধ্যে পাঁচ হাজার ৫০০ টাকা খরচ করে। বাকি আড়াই হাজার টাকা তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। তাদেরকে আজ নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।

এর আগে হামলার ঘটনায় ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ১০ জনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে। তাদের মধ্যে আজ আলী আজগর, নুরুল ইসলাম সুমন ও নুরুল ইসলাম জীবনের রিমান্ডের শুনানি হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৫৫

মানিকগঞ্জে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত এক মাস ১৭ দিনে মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল ৮৬ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। এরমধ্যে একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ৯ জন রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাদের ঢাকায় পাঠানো হয়। 

মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ( আরএমও) ডা. কাজী একেএম রাসেল এ তথ্য  নিশ্চিত করেছেন।

ডা. কাজী একেএম রাসেল বলেন, ৯ সেপ্টেম্বর থেকে মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) পর্যন্ত মোট ৮৬ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন। এছাড়া ৯ জন রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাদের ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকি ৭০ জন রোগী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ছয় জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। 

এদিকে হাসপাতালটির তত্ত্বাবধায়ক ডা. আরশাদ উল্লাহ বলেন, এখন হাসপাতালে করোনার বাড়তি চাপ কমে গেছে। তবে গত এক মাসে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা।  

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৬ কেজির কাতল ২৭ হাজারে বিক্রি

১৬ কেজির কাতল ২৭ হাজারে বিক্রি

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

১৬ কেজির কাতল ২৭ হাজারে বিক্রি

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩৬

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে পদ্মায় জেলের জালে ১৬ কেজি ওজনের কাতলা মাছ ধরা পড়েছে। মাছটি ১৭০০ টাকা কেজি দরে ২৭ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকালে দৌলতদিয়া ৭ নম্বর ফেরিঘাট এলাকায় ইসহাক হালদারের জালে মাছটি ধরা পড়ে।

জানা গেছে, হালদার মাছটি বিক্রির জন্য দৌলতদিয়া ৫ নম্বর ফেরিঘাটে নিয়ে আসলে ১ হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ২৬ হাজার ৪০০ টাকায় কিনে নেন শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের মালিক সম্রাট শাহজাহান শেখ। পরে সম্রাট ঢাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে ১ হাজার ৭০০ টাকা কেজি দরে মাছটি ২৭ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করেন।

জেলে ইসহাক হালদার বলেন, গত ৪ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ ছিল। সোমবার মধ্যরাত থেকে নিষেধাজ্ঞা শিথিল হওয়ায় দল নিয়ে পদ্মায় ইলিশ ধরতে বের হয়েছিলাম। কিন্তু ইলিশ না পেয়ে ১৭ কেজি ওজনের বড় কাতলা পেয়েছি।

মাছ ব্যবসায়ী সম্রাট শাহজাহান শেখ বলেন, মাছটি উন্মুক্ত নিলামে ১ হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে ২৬ হাজার ৪০০ টাকাই কিনি। পরে ঢাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে ২৭ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করি।

রাজবাড়ী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মশিউর রহমান বলেন, বর্তমানে পদ্মায় ইলিশের আকাল থাকলেও জেলেদের জালে বড় বড় রুই, কাতলা, চিতল, বোয়াল ও পাঙাশসহ বিভিন্ন মাছ পাওয়া যাচ্ছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে ফের পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

ডোবার পানিতে ঠান্ডা হতো মিষ্টির ছানা

চাপাতি দিয়ে প্রেমিকাকে কোপানোর অভিযোগ

চাপাতি দিয়ে প্রেমিকাকে কোপানোর অভিযোগ

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩১

নভেম্বরের ১ তারিখ থেকে দুবলার চরের শুটকি মৌসুমের শুরু। উপকূলের জেলেপল্লিগুলোতে চলছে শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা। সাগরে যেতে যে যার মতো প্রস্তুত করছেন জাল, দড়ি, নৌকা-ট্রলার। কেউ কেউ গড়ছেন নতুন ট্রলার, আবার কেউ পুরাতনটিকে মেরামত করে নিয়েছেন। সাগরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে ইতোমধ্যে অনেকে চলে এসেছেন মোংলা ও পশুর নদীতে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বনবিভাগের পাস নিয়েই তারা রওনা হচ্ছেন সাগর পাড়ের দুবলার চরে। সাগরে এখন আর দস্যুদের উৎপাত না থাকলেও ঝড়-জলোচ্ছ্বাসে প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি মাথায় নিয়েই দুবলায় যাত্রা শুরু করেছেন জেলেরা।

বঙ্গোপসাগর পাড়ে সুন্দরবনের দুবলার চরে ১ নভেম্বর থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত শুটকি মৌসুমে ব্যস্ত সময় পার করবেন জেলেরা। টানা পাঁচ মাস সেখানে থাকতে হবে জেলেদের। তাই সাগর পাড়ে গড়তে হবে অস্থায়ী থাকার ঘর, মাছ শুকানোর চাতাল ও মাচা। সেসব তৈরিতে ব্যবহার করা যাবে না সুন্দরবনের কোনও গাছপালা-লতাপাতা। তাই বনবিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী চরের উদ্দেশে যাত্রার প্রস্তুতি নেওয়া জেলেরা তাদের ট্রলারে করে সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন প্রয়োজনীয় সামগ্রী। আর এ সব প্রস্তুতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বাগেরহাটসহ উপকূলের কয়েক জেলার জেলে-মহাজনেরা। যাওয়ার পথে সুন্দরবনের কোনও নদী-খালে প্রবেশ ও অবস্থান করতে পারবেন না সমুদ্রগামী এ জেলেরা। এছাড়া দুবলার চরে অবস্থানকালে সাগর ছাড়া সুন্দরবনের খালে প্রবেশ ও সেখানে মাছ ধরতেও রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। 

জাতীয় মৎস্যজীবী সমিতির মোংলা শাখার সভাপতি বিদ্যুৎ মন্ডল ও সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল শেখ বলেন, এবার দুবলার চরে শুটকি করতে মোংলার আড়াইশ’ থেকে তিনশ’ ট্রলারে জেলেরা যাচ্ছেন। ওই সব ট্রলারে জেলেরা এখান থেকে সব ধরনের সরঞ্জাম নিয়ে যাচ্ছেন। 

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, শুটকি মৌসুমকে ঘিরে এবারও উপকূলের বিভিন্ন এলাকার প্রায় ১০ হাজার জেলে সমবেত হবেন দুবলার চরে। আর এ মৌসুমেও দুবলার চরের যাচ্ছে প্রায় দেড় হাজার মাছ ধরার ট্রলার। ট্রলার নিয়ে গভীর সাগর থেকে আহরিত বিভিন্ন প্রজাতির মাছ বাছাই করে শুটকি করবেন তারা। এ বছরও চরে জেলেদের থাকা ও শুটকি সংরক্ষণের জন্য ঘর এবং ডিপো স্থাপনের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। দুবলার চরে জেলেদের নিরাপত্তায় বনবিভাগের পাশাপাশি থাকবে র‌্যাব ও কোস্ট গার্ডের টহল।

তিনি আরও বলেন, গত শুটকির মৌসুমে দুবলার চর থেকে বনবিভাগের রাজস্ব আদায় হয়েছিল তিন কোটি ২২ লাখ টাকা। এবারও আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সমপরিমাণ কিংবা তার চেয়েও বেশি রাজস্ব আদায় সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।

দুবলা ফিসারম্যান গ্রুপের নেতা কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, বঙ্গোপসাগর ও সুন্দরবনে এখন আর দস্যুতার ভয় নেই। তাই অনেকটা স্বস্তি নিয়েই সাগরে যাচ্ছেন জেলেরা। আবহাওয়া ভালো থাকলে লাভের পাল্লা ভারী করেই মৌসুম শেষে বাড়িতে ফিরতে পারবেন উপকূলীয় বিভিন্ন এলাকার এ জেলে-বহাদ্দাররা।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৩:২৮

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের শীর্ষনেতা মো. মুহিবুল্লাহকে হত্যায় অংশ নেওয়া তিন জনের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাং হেলাল উদ্দিনের আদালত এই আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও উখিয়া থানার ওসি (তদন্ত) গাজী সালাউদ্দিন জানান, গত শনিবার ভোরে মুহিবুল্লাহ কিলিং স্কোয়াডের সদস্যসহ চার জনকে আটক করে। সেখান থেকে কিলিং স্কোয়াডের টপ-৫ এর একজন আজিজুল হক হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

মুহিবুল্লাহকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিল রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের শীর্ষ নেতারা

অপর তিন জন কুতুপালং ক্যাম্প-১ এর ডি ৮ ব্লকের আব্দুল মাবুদের ছেলে মোহাম্মদ রশিদ প্রকাশ মুরশিদ আমিন, একই ক্যাম্পের বি ব্লকের ফজল হকের ছেলে মোহাম্মদ আনাছ ও নুর ইসলামের ছেলে নুর মোহাম্মদ। তাদেরকে সোমবার আদালতে পাঁচ দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হয়। পরে আজ রিমান্ড আবেদন শুনানি শেষে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

২ মিনিটেই শেষ মুহিবুল্লাহ কিলিং মিশন, অংশ নেয় ১৯ জন

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প-১ ইস্ট-ওয়েস্ট (ডি ব্লকে) নিজ অফিসে অবস্থান করছিলেন মুহিবুল্লাহ। এ সময় তাকে গুলি করে হত্যা করে বন্দুকধারীরা। এখন পর্যন্ত এ হত্যা মামলায় নয় জনকে গ্রেফতার করা হয়। তার মধ্যে মোহাম্মদ ইলিয়াছ নামে একজন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

মুহিবুল্লাহ হত্যা: তিন আসামি ২ দিনের রিমান্ডে

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

নিজ ঘরে পড়েছিল বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় দ্বিতীয় দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

পুকুরে ভেসে উঠলো বাবা-মা-মেয়ের লাশ

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

১৫০ কোটি টাকার ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল

‘টাকা না দিলে জমি খারিজ করেন না ফারুক’

‘টাকা না দিলে জমি খারিজ করেন না ফারুক’

সর্বশেষ

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় একযোগে কাজ করবে অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ 

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় একযোগে কাজ করবে অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ 

সহিংসতায় ইন্ধনদাতাদের নাম শিগগিরই প্রকাশ করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সহিংসতায় ইন্ধনদাতাদের নাম শিগগিরই প্রকাশ করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

চৌমুহনীতে হামলা: বিএনপি নেতাসহ গ্রেফতার ৮

আফগানিস্তান ইস্যুতে সিরিজ বৈঠকে অংশ নেবে রাশিয়া

আফগানিস্তান ইস্যুতে সিরিজ বৈঠকে অংশ নেবে রাশিয়া

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

মানিকগঞ্জে বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী 

© 2021 Bangla Tribune