X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

‘ক্যানসার ঠেকাতে শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন জরুরি’

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৪৬

বাংলাদেশে ক্যানসারসহ অন্যান্য অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধের জন্য শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের বিকল্প নেই। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে স্বাস্থ্য সচিব লোকমান হোসেন মিয়ার সঙ্গে বৈঠকে একথা বলেন ভারতের প্রখ্যাত ক্যানসার বিশেষজ্ঞ ডা. বিশাল রাও।

উল্লেখ্য, ডা. রাওয়ের নেতৃত্বে হেলথকেয়ার গ্লোবাল এন্টারপ্রাইজ (এইচসিজি) এর একটি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফরে এসেছে। ক্যানসার ঝুঁকিতে থাকা বিভিন্ন দেশে সচেতনতামূলক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে তারা বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মতবিনিময় করছে।

বাংলাদেশে ক্যানসরের চিকিৎসা ও প্রতিরোধের নানা দিক নিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করেছে এইচসিজি প্রতিনিধিদল। বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বৈঠকে বিশাল রাও বলেন, ‌‘২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে ক্যানসার ব্যাপকভাবে বাড়বে বলে আশঙ্কা রয়েছে। একদিকে তামাক ও মদ্যপান, অন্যদিকে খাদ্যদ্রব্যে নানা রাসায়নিক-কীটনাশকের ব্যবহার ও ভেজাল—এই দুই কারণে ক্যানসার মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে। এই মহামারি ঠেকাতে এখন থেকেই সম্মিলিত উদ্যোগ এবং প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।’

এ জন্য যে বিষয়গুলো সবচেয়ে জরুরি বলে বিশাল রাও মনে করেন। তা হলো:

১. বিশ্ব ব্যাংকের সুপারিশ অনুসারে কর বাড়িয়ে তামাকজাত দ্রব্যের দাম বাড়াতে হবে, যাতে এর ব্যবহার কমে এবং অতিরিক্ত রাজস্ব ক্যানসার শনাক্তকরণ ও চিকিৎসার মান বৃদ্ধিতে ব্যয় করা যায়।

২. বিক্রয়স্থলে বিভিন্ন ধরনের তামাকজাত দ্রব্যের (যেমন: বিড়ি, সিগারেট, ধোঁয়াবিহীন তামাক) প্রদর্শন নিষিদ্ধ করা।

৩. পাবলিক প্লেস, হোটেলে ধূমপান নিষিদ্ধ করা এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১০০ গজের মধ্যে তামাকদ্রব্য বিক্রি ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করা।

এবং ৪. ই-সিগারেট ও অনুরূপ ইলেকট্রনিক ডিভাইস বিক্রয় ও তৈরিতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া।

বিদ্যমান তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন করার মাধ্যমে এই বিধিনিষেধ জোড়ালোভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব বলে সভায় মত দেন বক্তারা।

বৈঠকে স্বাস্থ্য সচিব লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। তার এই ঘোষণাকে সর্বাধিকার ভিত্তিতে বাস্তবায়নে কাজ করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।’ ইতোমধ্যে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনের কাজ শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

 

/এসআই/

সম্পর্কিত

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

বাংলাদেশ কৃষি খাতে বিশ্বে ‘উন্নয়ন মডেল’ হিসেবে স্বীকৃত: খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৬

বাংলাদেশে ইতোমধ্যেই সবার জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে উল্লেখ করে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, এ দেশ এখন কৃষি খাতে বিশ্বে ‘উন্নয়ন মডেল’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

তিনি তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ইসলামি সম্মেলন সংস্থার (ওআইসি) ‘খাদ্য নিরাপত্তা ও কৃষি উন্নয়ন’ বিষয়ক  মন্ত্রি পর্যায়ের অষ্টম সভায় এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন।

বুধবার  (২৭ অক্টোবর) এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। তুরস্কের কৃষি ও বনমন্ত্রী ড. বেকির পাকডিমিরলি এ সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বুধবার ঢাকায় প্রাপ্ত  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ওআইসি’র মন্ত্রী পর্যায়ের এই বৈঠকে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেন।

খাদ্য সচিব নাজমানারা খানম, কনস্যুলার জেনারেল ড. মনিরুল ইসলামসহ খাদ্য, কৃষি ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কমকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বিবৃতিতে খাদ্যমন্ত্রী সবার জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ওআইসি’র সদস্য দেশগুলোর মধ্যে অভিজ্ঞতা বিনিময়ের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। খবর: বাসস

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

২০২২ সালে জাপানি বিনিয়োগে নতুন ঢেউয়ের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

২০২২ সালে জাপানি বিনিয়োগে নতুন ঢেউয়ের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

২০২২ সালে জাপানি বিনিয়োগে নতুন ঢেউয়ের আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫৪

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ২০২২ সালে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে জাপানি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রস্তুত হলে জাপানভিত্তিক কোম্পানি ও যৌথ উদ্যোগে বিনিয়োগের একটি নতুন ঢেউ আসবে বলে বাংলাদেশ আশা করছে। 

বুধবার (২৭ অক্টোবর) ‘জাপান-বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট সামিট ২০২১’-এ বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এই আশার কথা ব্যক্ত করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ বিনিয়োগ, বাণিজ্য এবং জি-টু-জি ও পি-টু-পি উভয় পর্যায়ের যোগাযোগকে স্বাগত জানায়।’

তিনি বলেন, ‘অনেক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ  ও জাপান অবকাঠামো উন্নয়নে অথবা আইসিটি’র মতো উদীয়মান খাতে উন্নয়ন অংশীদার হতে পারে।’

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘ক্রমবর্ধমান ফরেন ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট অনুযায়ী, যেহেতু জাপান বাংলাদেশের বিদেশি শীর্ষ ৫টি বিনিয়োগকারী দেশের অন্যতম— তাই অর্থায়ন, নির্মাণ, পুঁজি ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে মেগা-প্রজেক্টগুলোতে দেশটি আমাদের অন্যতম প্রধান অংশীদার হতে পারে।’ 

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যকার বাণিজ্য সম্পর্ক এখন এক ভিন্ন উচ্চতায় পৌঁছে গেছে। দুদেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। জাপানে আমাদের রফতানির পরিমাণ ১.২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং জাপান থেকে আমদানির পরিমাণ ১.৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আমাদের বিনিয়োগ, পণ্য ও রফতানি বাজারে বৈচিত্র্য চাই। আমরা সম্ভাব্য সর্বোত্তম উপায়ে শিল্প ও ভোক্তা উভয় বৈশ্বিক বাজারেই সেবা দিতে চাই।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বিদেশে বাংলাদেশি মিশনগুলোকে ব্যবসা ও অর্থনৈতিক উদ্যোগগুলোতে সহায়তা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’ 

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জাপানের সঙ্গে জোরদার, বিস্তৃত ও গভীর সম্পর্ককে গভীরভাবে মূল্যায়ন করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘১৯৭২ সালে জাপানে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ভিত রচিত হয়েছে, আমরা আজও  তার সুফল ভোগ করছি।’

মোমেন বলেন, ‘বর্তমানে আমরা অর্থনৈতিক কূটনীতির দিকে দৃঢ়ভাবে অগ্রসর হচ্ছি।’  

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মাত্র ১২ বছরেরও কম সময়ের মধ্যে গোটা দেশকে দারিদ্র্যতা থেকে মুক্ত করে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম-আয়ের দেশে পরিণত করার প্রধানমন্ত্রীর অসামান্য দক্ষতা বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি পেয়েছে।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘এখন শেখ হাসিনার এই অলৌকিক উন্নয়নের গল্প শোনানো হচ্ছে। এটা বাংলাদেশে গল্প। যখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কোভিড-১৯ মহামারি কাটিয়ে উঠতে পারেনি, তখন বাংলাদেশ দ্রুত এই মহামারি মোকাবিলা করে দেশটির অর্থনৈতিক অগ্রগতি বজায় রেখেছে।’ খবর: বাসস

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশ কৃষি খাতে বিশ্বে ‘উন্নয়ন মডেল’ হিসেবে স্বীকৃত: খাদ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশ কৃষি খাতে বিশ্বে ‘উন্নয়ন মডেল’ হিসেবে স্বীকৃত: খাদ্যমন্ত্রী

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

গুলশানে ট্রান্সফরমার বিস্ফোরণ, শিশুসহ দগ্ধ ৪

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪৪

রাজধানীর গুলশানে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারের বিস্ফোরণে আগুনের স্ফুলিঙ্গে পাশের ভবনে থাকা শিশুসহ ৪ জন দগ্ধ হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক। তাদেরকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) গুলশান-২ এর ১০৩ নম্বর রোডের ৩৮/এ বাসায় এ ঘটনাটি ঘটে।

আগুনে গৃহকর্ত্রী মালিহা আনহা ঊর্মির (৩২) শরীরের ৭০ শতাংশ পুড়ে গেছে। একই সময় তার সন্তান মাসরুর মো. রাফিনের (২) পুড়েছে ৪০ শতাংশ,  গৃহকর্মী মনির (৩৫) পুড়েছে ৩০ শতাংশ এবং এ এম রফিকুল ইসলামের (৩৫) শরীরের ২ শতাংশ পুঁড়ে গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন এস এম আইউব হোসেন জানিয়েছেন, দগ্ধ চার জনের মধ্যে তিন জনের অবস্থাই আশংকাজনক।

দগ্ধদের মধ্যে মা ও সন্তান দু'জনকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। একজনকে জেনারেল ওয়ার্ডে ভর্তি রাখা হয়েছে। অপর একজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

রোগীর স্বজনদের বরাত দিয়ে ওই চিকিৎসক আরও জানান, বাসার পাশে রাস্তায় থাকা বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার বিস্ফোরণ হয়ে জানালা ভেঙ্গে আগুন ঘরে প্রবেশ করে, সেখানে এসি বিস্ফোরণেরও ঘটনা ঘটে। এতে তারা দগ্ধ হয়েছেন।

/এআইবি/এআরআর/

সম্পর্কিত

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

ধর্মের নামে উন্মাদনা সৃষ্টিকারীরা রাষ্ট্রকে অকার্যকর দেখাতে চায়: শাজাহান

ধর্মের নামে উন্মাদনা সৃষ্টিকারীরা রাষ্ট্রকে অকার্যকর দেখাতে চায়: শাজাহান

টিকা নিতে ঢামেকে উপচেপড়া ভিড়

টিকা নিতে ঢামেকে উপচেপড়া ভিড়

‘ঢাকা মেয়র কাপ আন্তওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’র দ্বিতীয় আসর ২২ ডিসেম্বর

‘ঢাকা মেয়র কাপ আন্তওয়ার্ড ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’র দ্বিতীয় আসর ২২ ডিসেম্বর

চকবাজারে যুবকের লাশ উদ্ধার

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৬

রাজধানীর চকবাজারে একটি বাসা থেকে মো. ওয়াজিব (২৪) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবারের দাবি, মায়ের সঙ্গে অভিমান করে এই যুবক আত্মহত্যা করেছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকাল চারটায় চকবাজার থানার কাজি রিয়াজ উদ্দিন রোডের একটি ছয়তলা বাড়ির তিনতলা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। ওয়াজিব পরিবারের সঙ্গে ওই বাসায় ভাড়া থাকতো।

মৃতের বড় ভাই সোহাগ জানান, ওয়াজিব এলিফ্যান্ট রোডে একটি জুতার দোকানে সেলসম্যান ছিল। দুই মাস আগে সে চাকরি ছেড়ে দেয়। তিন মাস তার বিয়ে হয়। আমি তাকে আবারও এলিফ্যান্ট রোডের জুতার দোকানে কাজ ঠিক করে দেই। আজ সকাল থেকে তার কাজে যাওয়ার কথা থাকলেও সে যায়নি। এ বিষয়ে মা তাকে বকা দেয়। পরে সে নিজের রুমে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়।

উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান জানান,মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। ওয়াজিব ময়মনসিংহ জেলার কোতোয়ালি থানার মাসকান্দা গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে। তিন ভাইয়ের মধ্যে সে ছিল সবার ছোট।

/এআরআর/এআইবি/এমআর/

সম্পর্কিত

ঢামেকে কারাবন্দি হাজতির মৃত্যু

ঢামেকে কারাবন্দি হাজতির মৃত্যু

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: সাংবাদিক ইমন কারাগারে

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: সাংবাদিক ইমন কারাগারে

মাদকের নতুন রুটের বিষয়ে ভারতকে জানালো বাংলাদেশ

মাদকের নতুন রুটের বিষয়ে ভারতকে জানালো বাংলাদেশ

যাত্রাবাড়ীতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেলো নারী পথচারীর

যাত্রাবাড়ীতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেলো নারী পথচারীর

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৭

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, ২০২২ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ফেব্রুয়ারিতে হবে না। বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে ২০২১ সালের এসএসসি, দাখিল, এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল (ভোকেশনাল) পরীক্ষা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই তথ্য জানান।

ডা. দীপু মনি বলেন, ‘এবারের এসএসসি পরীক্ষা শেষ হবে ২৩ নভেম্বর। সেক্ষেত্রে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি পরের এসএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না। কারণ, শিক্ষার্থীদের ক্লাসের বিষয় রয়েছে। কবে ও কীভাবে ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে তা পরে জানাতে পারবো।’

প্রতি বছরের ফেব্রুয়ারির শুরুতে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নেওয়া হয়। করোনার কারণে এ বছর তা পিছিয়ে যায়। আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে এই পরীক্ষা শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়। মহামারি পরিস্থিতির কারণে এবার সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে কেবল নৈর্বাচনিক তিনটি বিষয়ে পরীক্ষা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, আবশ্যিক বিষয়গুলোর পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। মূল্যায়ন নম্বরের সঙ্গে নৈর্বাচনিক তিনটি বিষয়ের পরীক্ষার নম্বর যোগ করে ফল দেওয়া হবে। পরীক্ষা শেষের দুই মাসের মধ্যে ফল পাবে শিক্ষার্থীরা।

/এসএমএ/জেএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

প্রশ্নফাঁসের গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

প্রশ্নফাঁসের গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

টিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

সাক্ষাৎকারটিকার সমতা নিশ্চিত না হলে বিপদ: ডা. মুশতাক হোসেন

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

চলতি মাসের ১৮ দিনে সাড়ে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

চলতি মাসের ১৮ দিনে সাড়ে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

২৪ জেলায় শনাক্ত নেই

২৪ জেলায় শনাক্ত নেই

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

করোনার বেড নিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা

করোনার বেড নিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৯৪ লাখ মানুষ

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৯৪ লাখ মানুষ

চলতি মাসে ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১৪ জনের

চলতি মাসে ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১৪ জনের

সর্বশেষ

ইউক্রেনে তুরস্কের ড্রোন সরবরাহে উদ্বেগ রাশিয়ার

ইউক্রেনে তুরস্কের ড্রোন সরবরাহে উদ্বেগ রাশিয়ার

ডুবে যাওয়া ফেরিটি ৪২ বছরের পুরনো, উদ্ধার হয়নি এখনও

ডুবে যাওয়া ফেরিটি ৪২ বছরের পুরনো, উদ্ধার হয়নি এখনও

৫ লাখ ৩৮ হাজার ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে আজ

৫ লাখ ৩৮ হাজার ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে আজ

গলায় মার্বেল আটকে এক বছরের শিশুর মৃত্যু

গলায় মার্বেল আটকে এক বছরের শিশুর মৃত্যু

সুদানে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে চিকিৎসক ও তেলকর্মীরা

সুদানে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে চিকিৎসক ও তেলকর্মীরা

© 2021 Bangla Tribune